Maintance

‘আমাদের দেখার কেউ নেই’ 

প্রকাশঃ ৯:০৫ অপরাহ্ন, আগস্ট ৩০, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ২:৪২ অপরাহ্ন, আগস্ট ৩১, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ক’দিন বাদেই ঈদ। কোরবানি নিয়ে চারপাশে কত আনন্দ আয়োজন, আপনজনের কাছে মানুষের ফেরার তাড়া। আর এই সময় চাকরি হারিয়ে প্রাপ্য পেতে আমরণ অনশনে তিন দিন ধরে অবস্থান করছেন এরিকসন বাংলাদেশের কর্মীরা।

কোম্পানিটির গুলশানস্থ কার্যালয়ে এর মধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ৭ কর্মী। কারও কারও চলছে স্যালাইন। অথচ কর্তৃপক্ষের কোনো গা নেই। একটি বারের জন্যও দেখতে আসেননি কেউ, দাবি নিয়ে আলোচনা তো দূর।

বুধবার রাত ৮টায় এরিকসন এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন অব বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমান টেকশহরডটকমকে জানান, ‘৭ জন কর্মী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। কয়েকজনের স্যালাইন চলছে। আমাদের নিয়ে কারও কোনো উদ্যোগ নেই। আমাদের দেখার কেউ নেই।’

‘এরিকসন কর্তৃপক্ষ তো সেই সোমবার অফিস বন্ধ ঘোষণা করে গেছে। তারা একবারও আসার প্রয়োজন মনে করেনি। এইচআর হেড মীর আওয়াল খাদেমুর রহমান মঙ্গলবার দুপুরে ফোনে অনশন ভাঙ্গার আহবান জানিয়েছিলেন কিন্তু কর্মীদের দাবির বিষয়ে কিছু বলেননি’

লুৎফর রহমান বলেন, মঙ্গলবার সরকারের শ্রম পরিদপ্তর হতে কর্মকর্তারা পরিদর্শনে এলে কর্তৃপক্ষের নিষেধের কথা বলে তাদেরকে কার্যালয়ে ঢুকতে দেয়নি নিরাপত্তা কর্মীরা।

সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে যোগাযোগ চেষ্টা চলছে জানিয়ে এই কর্মী বলেন, পরিস্থিতি অবনতির দিকে যাচ্ছে। তবে যাই হোক দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাওয়া হবে।

চাকরিচ্যুতির নোটিশ পাওয়া কোম্পানিটির কর্মীরা সোমবার দুপুর হতে গুলশানস্থ এরিকসন বাংলাদেশের কার্যালয়ে এই অনশন করছেন। এসব কর্মীরা মোবাইল ফোন অপারেটরসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মতো স্বেচ্ছা অবসর স্কিমসহ চাকরিচ্যুতির প্রাপ্য সুবিধা চাইছেন।

গত ১৮ আগস্ট বিনা নোটিশে এবং কোনো রকম বাড়তি সুবিধা না দিয়ে অন্তত ৭০ জনকে চাকুরিচ্যুতির নোটিশ দেয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি। সে অনুসারে সেপ্টেম্বরের ১ তারিখ হতে এই কর্মীদের কারও চাকরি আর এরিকসনে থাকছে না।

চাকরিচ্যুতির নোটিশ পাওয়ার পর দাবি আদায়ে কর্মীরা মানববন্ধন, কর্মবিরতিসহ নানা কর্মসূচি করে আসছিলেন।

আল-আমীন দেওয়ান

*

*

Related posts/