Maintance

প্রি-পেইডে ইন্টারনেটের ব্যবহার বেশি

প্রকাশঃ ২:১৫ অপরাহ্ন, আগস্ট ১৪, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৯:২৯ অপরাহ্ন, আগস্ট ১৪, ২০১৭

অনন্য ইসলাম, টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : পোস্ট পেইড গ্রাহকরা তুলনামূলক বেশি আয় দিলেও ইন্টারনেটে ব্যবহারের বিবেচনায় অপারেটরদের কাছে অধিকতর অগ্রাধিকার পাচ্ছেন প্রি-পেইড গ্রাহকরা।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশনের সম্প্রতি প্রকাশিত  এক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, দেশে মোট ৩৪ লাখ ৯৪ হাজার পোস্ট পেইড মোবাইল সংযোগ রয়েছে; যার মধ্যে মাত্র ৪২ দশমিক শূন্য দুই শতাংশ সংযোগে ইন্টারনেট কার্যকর আছে।

অন্যদিকে প্রি-পেইড সংযোগের হিসাবে দেখা যাচ্ছে ১৩ কোটি এক লাখ প্রি-পেইড সংযোগের মধ্যে অর্ধেকের বেশি সিমে ইন্টারনেট সংযোগ রয়েছে।

smartphone-ban-Road-cross-Time-Techshohor

সংশ্লিষ্টদের মতে, তরুণরা অধিক মাত্রায় ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। তাদের প্রায় সবার কাছেই রয়েছে প্রি-পেইড সংযোগ। এ কারণে ইন্টারনেট ব্যবহারে প্রি-পেইড সংযোগই এগিয়ে রয়েছে।

অন্যদিকে কর্মকর্তাদের মতে, পোস্ট পেইডের একটি সংযোগ মানেই একজন গ্রাহক। এর বিপরীতে প্রি-পেইডের একটি সংযোগ মানেই একজন গ্রাহক নাও হতে পারেন। ফলে প্রি-পেইডের কার্যকর সংযোগের বিপরীতে ইন্টারনেট চালু থাকলেও একজন প্রকৃত গ্রাহকের কয়েকটি সংযোগ থাকতে পারে।

সেই যুক্তি অনুসারে পোস্ট পেইডের ১৪ লাখ ৬৮ হাজার সিম ইন্টারনেটে যুক্ত তাদের প্রক্যেকেই একেজন ইন্টারনেট গ্রাহক। কিন্তু ইন্টারনেটে যুক্ত ছয় কোটি ৫১ লাখ সিম মানেই সমসংখ্যক ইন্টারনেট ব্যবহারকারী নেই।

বিটিআরসির প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, গ্রামীণফোনের আট লাখ ৮৫ হাজার পোস্ট পেইড সিমের মধ্যে ইন্টারনেটে যুক্ত মাত্র তিন লাখ ৫৪ হাজার সিম।

বাংলালিংকের পোস্ট পেইড সিম আছে ২২ লাখের বেশি, যেগুলোর ৯ লাখ সিমেই ইন্টারনেট সংযোগ রয়েছে।

রবি’র তিন লাখ ৪৫ হাজার পোস্ট পেইড সংযোগের মধ্যে মাত্র এক লাখ ৪৩ হাজার জন ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন।

আর ছোট অপারেটর টেলিটকের ২৭ হাজার পোস্ট পেইড সিমের মধ্যে চার হাজারের কিছু বেশি সিমে ইন্টারনেটের ব্যবহার হয়।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সব মিলে প্রিপেইড সংযোগে ডেটার ব্যবহারও হয় অনেক বেশি। কেননা ইন্টারনেটে সংযুক্ত তরুনদের প্রায় সবাই এটি নানা কাজে ব্যবহার করেন।

অন্যদিকে ডাউনলোড থেকে মুভি দেখাসহ বিনোদনের একটি বড় অংশ পূরণ হয় পোস্ট পেইড সিমগুলোর মাধ্যমে বলে সূত্র জানিয়েছে।

*

*

Related posts/