Maintance

স্পেকট্রামের দাম পুন:নির্ধারণে জয়ের নির্দেশনা

প্রকাশঃ ৩:৫১ অপরাহ্ন, জুলাই ২৪, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৪:১১ অপরাহ্ন, জুলাই ২৫, ২০১৭

আল-আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ফোরজি সেবার জন্য স্পেকট্রামের মূল্য পুন:নির্ধারণে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

স্পেকট্রামের মূল্য জটিলতায় অপারেটররা শেষ পর্যন্ত নিলামে না আসলে ফোরজি সেবা বিলম্বিত হতে পারে এমন যুক্তিতে এই মূল্য পুন:নির্ধারণের কথা বলা হয়।

গত মঙ্গলবার টেলিযোগাযোগ বিভাগ, টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এবং সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বৈঠকে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়।

মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে।

অপারেটরগুলোর সংগঠন অ্যামটবের মহাসচিব এবং প্রধান নির্বাহী টিআইএম নূরুল কবীর টেকশহরডটকমকে জানান, ‘স্পেকট্রামের দাম সহনীয় রাখার দাবি দীর্ঘদিনের। কারণ স্পেকট্রাম কেনা ছাড়াও এটি সেবা হিসেবে গ্রাহক পর্যন্ত পৌঁছতে অনেক বিনিয়োগ দরকার হয়। সেক্ষেত্রে স্পেকট্রামের মূল্য বেশি হলে সেবা পর্যায়ে প্রভাব পড়ে, বিনিয়োগে চাপ তৈরি হয়।’

স্পেকট্রামের দাম পুন:নির্ধারণের উদ্যোগ প্রশংসনীয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, দাম সহনীয় হলে কোয়ালিটি অব সার্ভিস নিশ্চিত হবে। এছাড়া স্পেকট্রামের দামটা ধাপে ধাপে নেয়া যায় কিনা সেটি ভেবে দেখা যেতে পারে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এটি করা হয়ে থাকে।

spectrum_techshohpr

আসছে নিলামে ৯০০ মেগাহার্জের স্পেকট্রামের ভিত্তিমূল্য ধরা হয়েছে ২৪০ কোটি টাকা। ১৮০০ ব্যান্ডের স্পেকট্রামের মূল্য ২৮০ কোটি এবং ২১০০ ব্যান্ডের স্পেকট্রামের দাম মেগাহার্জপ্রতি ধরা হয়েছে ২১৬ কোটি টাকা।

একই সঙ্গে স্পেকট্রামের যেকোনো ব্যান্ডে যেকোনো প্রজন্মের ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করতে অপারেটরদের প্রয়োজন হবে স্পেকট্রাম নিরপেক্ষতা। এ প্রযুক্তি নিরপেক্ষতা সুবিধা পেতে অপারেটরদের আগে থেকে কেনা স্পেকট্রামে মেগাহার্জপ্রতি ৮০ কোটি টাকা দিতে হবে। খসড়া নীতিমালায় তেমন করেই প্রস্তাব করা হয়েছে।

কিন্তু সম্প্রতি অপারেটররা এই প্রস্তাবের বিষয়ে কড়া অবস্থান নিয়েছে।

আর সজীব ওয়াজেদ জয়ও বৈঠকে এই প্রস্তাব দেখে তা কিছুটা কমানো যায় কিনা সে বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয় সূত্র। এ জন্য এ সপ্তাহের মধ্যে অপারেটরদের সঙ্গে আবার বৈঠকে বসবে সরকার পক্ষ।

এদিকে অপারেটরগুলোর প্রস্তাব প্রতি মেগাহার্জের মূল্য ১৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ১২০ কোটি টাকার বেশি হওয়া উচিত হবে না।

বৈঠকে সূত্র আরও জানিয়েছেন, বারবার তাগাদা দেওয়ার পরও দেশে ফোরজি সেবা চালু করতে কেনো বিলম্ব হচ্ছে সে বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা।

আর এই তাগাদার পরেই সংশ্লিষ্ট সব কিছু খুব দ্রুততার সঙ্গে এগুতে শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

*

*

Related posts/