Maintance

আরও ৮৮৩ কোটি টাকার সিম ট্যাক্স ফাঁকি!

প্রকাশঃ ২:২৮ পূর্বাহ্ন, জুলাই ৬, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৯:৫৪ অপরাহ্ন, জুলাই ৬, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : পুরোনো সিমকে নতুন দেখিয়ে বিক্রি করে চার বেসরকারি অপারেটর ৮৮৩ কোটি টাকা ট্যাক্স ফাঁকি দিয়েছে বলে দাবি করছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)

সিম ট্যাক্স ফাঁকির এই হিসাব বের করে সম্প্রতি পাওনা চেয়ে গ্রামীণফোন, রবি, বাংলালিংক এবং এয়ারটেলকে চিঠি লিখেছে এনবিআরের লার্জ ট্যাক্স পেয়ার ইউনিট।

এনবিআরের দাবি অনুসারে ২০১২ সালের জুলাই থেকে ২০১৫ সালের জুন পর্যন্ত সময়ে চার অপারেটরের কাছে কেবল সিম ট্যাক্স হিসাবে তাদের এই পরিমাণ টাকা পাওনা রয়েছে।

এনবিআরের এই চিঠি অপারেটরগুলো পেয়েছে বলেও জানা গেছে।

nbr tax_techshohorএর আগে ২০০৯ সাল থেকে ২০১২ সালের জুন পর্যন্ত আরও দুই হাজার ৪৮ কোটি টাকার অপর একটি দাবিও এনবিআরের রয়েছে।

নতুন দাবিতে গ্রামীণফোনের কাছে এনবিআর চেয়েছে ৩৭৮ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। রবির কাছে ২৮৫ কোটি ২০ লাখ, বাংলালিংকের কাছে ১৬৮ কোটি ৯১ লাখ এবং এয়ারটেলের কাছে ৫০ কোটি ২৬ লাখ টাকা দাবি করা হয়েছে ।

এনবিআর বলছে, পুরোনো বন্ধ সিম নতুন করে বিক্রি করেছে বলে অপারেটরগুলো বলছে। কিন্তু এই সিমগুলো নতুন গ্রাহকের কাছে গেছে। ফলে এর জন্য নতুন করে গ্রাহককে ট্যাক্স দিতে হবে। তবে সেই ট্যাক্স যদি অপারেটরগুলো দিয়ে দেয় সেটি তাদের বিষয়।

অন্যদিকে অপারেটরগুলো বলছেন, এই পরিমাণ সিমের বিপরীতে একবার ট্যাক্স দেওয়া হয়েছে। এক সিমে দুইবার করে ট্যাক্স কেনো দিতে হবে।

উল্লেখিত সময়ে সিম প্রতি ৬০০ টাকা এবং পরে ৩০০ টাকা ট্যাক্স ছিল। তবে তখন সিম পরিবর্তনের জন্যে কোনো ট্যাক্স ছিল না। ফলে এই সুযোগ নিয়ে নতুন বিক্রি করাকে সিম পরিবর্তন হিসেবে দেখিয়েছে অপারেটররা, বলছে এনবিআর।

এখন সিম প্রতি ট্যাক্স একশ টাকা। আবার সিম পরিবর্তনের ট্যাক্সও একশ টাকা।

এদিকে পুরোনো দুই হাজার ৪৮ কোটি টাকার মামলাটির সম্প্রতি এনবিআরের ট্রাইবুনাল রায় দিয়েছে। যেখানে অপারেটরদেরকে তাদের টাকা পরিশোধ করতে বলা হয়েছে। তবে ট্রাইবুনালের রায়ের বিরুদ্ধে অপারেটরগুলো হাইকোর্টে রিট দায়ের করবে বলে জানা গেছে।

আল-আমীন দেওয়ান

আরও পড়ুন: 

*

*

Related posts/