Maintance

ফ্রি সিমে এয়ারটেলের লোকসান ২৫০ টাকা

প্রকাশঃ ১:২৩ অপরাহ্ন, জুন ৫, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১১:৩৮ পূর্বাহ্ন, জুন ৬, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শুধু দোকানে নয়, বাসা বাড়িতে গিয়েও ফ্রি সিম দিচ্ছে এয়ারটেল। রবির সঙ্গে একীভূত হওয়া এ অপারেটর গ্রাহক বাড়াতে এ জন্য বড় অঙ্কের আর্থিক ক্ষতিও মেনে নিচ্ছে। সিমপ্রতি আড়াইশ টাকা লোকসান দিচ্ছে।

মুখে অবশ্য ফ্রি বললেও খানিকটা চাতুরি রেখে দিয়েছে তারা। এ কারণে বড়সড় করে কোনো প্রচারণাও চালাচ্ছে না।

বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, একশ’ টাকায় একটি এয়ারটেল সিম দিচ্ছেন তারা। গ্রাহক এজন্য টক টাইম পাবেন ৯৬ টাকার। এটিকেই ফ্রি বলছে অপারেটরটি।

বর্তমানে একটি সিমে সরকারের একশ’ টাকা ট্যাক্সসহ রিটেইলার ও ডিস্ট্রিবিউটরদের কমিশনসহ সব মিলে রবির অন্তত আড়াইশ’ টাকা ব্যয় হচ্ছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, একীভূত অপারেটরটি গ্রাহক বাড়াতে সাময়িক এ ক্ষতি মেনে নিলেও তা কতটুকু ফলপ্রসু হবে সেটা দেখার বিষয়। কেননা একটা সিম ফ্রি গ্রাহকের হাতে গেলে সেটি শেষ পর্যন্ত নিয়মিতভাবে ব্যবহার হয় না।

বর্তমান পরিস্থিতি পর্যালোচনায় দেখা গেছে অন্তত নতুন পাঁচটা সিম বাজারে গেলে শেষ পর্যন্ত টেকে মাত্র একটি। সে হিসাবে প্রতিটি নতুন গ্রাহক ধরতে একীভূত কোম্পানির অন্তত এক হাজার ২০০ টাকা খরচ করতে হচ্ছে।

রবির সঙ্গে একীভূত হওয়ার ২১ শর্তের একটি হলো আগামী দুই বছর এয়ারটেলের ব্র্যান্ডনেম ব্যবহার করা যাবে। একই সঙ্গে ০১৬ সিরিজের নম্বরও তারা এ সময় পর্যন্ত বিক্রি করতে পারবে।

এ সুযোগ নিয়ে দেদারছে ০১৬ বিক্রি শুরু করেছে অপারেটরটির মূল কোম্পানি রবি-আজিয়াটা। মাঝখানে রবি সিমের সঙ্গে একটি এয়ারটেল সিম ফ্রি হিসেবেও দিয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলেন, দুই বছর পর ০১৬ বা এয়ারটেল ব্র্যান্ড বন্ধ হওয়ার আগেই বড় একটি গ্রাহক সংখ্যা তৈরির পরিকল্পনা থেকে রবি এমন কৌশল নিয়েছে।

একই ভাবে ০১৬ নম্বর সিরিজ ধরে রাখতেও এমন পদক্ষেপ নিয়েছে অপারেটরটি। কেননা নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি ০১৬ সিরিজের নম্বরকে ০১৮-এ নিয়ে আসতে বললে তখন গ্রাহক সংখ্যা বেশি হওয়ার কারণে যাতে সেটি ‘অসম্ভব’ হয়ে পড়ে সেটিও আছে রবির পরিকল্পনায়। 

এখন ৭২ লাখের মতো ০১৬ নম্বর কার্যকর থাকলেও বাজারে এ সিরিজের নম্বর আছে তিন কোটির মতো।

ফলে নির্ধারিত দুই বছরের মধ্যে এ সংখ্যা আরও দুই-তিন কোটি বাড়িয়ে নিতে পারলে তখন প্রতিদ্বন্দ্বীদের চেয়ে অন্তত এ জায়গায় এগিয়ে থাকবে একীভূত রবি-এয়ারটেল কর্তৃপক্ষ।

সংশ্লিষ্টদের মতে, একটি অপারেটরের কাছে দুটি নম্বর সিরিজ থাকা মানেই- সে প্রতিদ্বন্দ্বীদের চেয়ে অন্তত দ্বিগুণ এগিয়ে থাকছে।

গ্রামীণফোন তাদের ০১৭ সিরিজ প্রায় শেষ হয়ে যাওয়ার পর এখন আর নতুন সিরিজ চেয়েও পাচ্ছে না। সে কারণে বাজারে তাদের গ্রাহক সংখ্যাও সেই অনুসারে বাড়াতে পারছে না।

তবে দুটি নম্বর সিরিজ থাকলে ১০ কোটির চেয়েও কয়েক কোটি বেশি গ্রাহকের কাছে সিম বিক্রি করতে পারবে রবি। এ কারণেই ০১৬ সিরিজ ধরে রাখতে ভবিষ্যতের কথা ভেবে বড় আর্থিক ক্ষতিও মেনে নিচ্ছে তারা।

আর. এস হুসেইন

*

*

Related posts/