কলের তথ্য দিচ্ছে না অপারেটররা

জামান আশরাফ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : একজন গ্রাহকের কথা বলার সময়, এ জন্য ব্যয় এবং অ্যাকাউন্টের অবশিষ্ট ব্যালান্সসহ আরও কয়েকটি তথ্য দেওয়া বাধ্যতামূলক হলেও অধিকাংশ মোবাইল ফোন অপারেটর তা মানছে না।

গত সেপ্টেম্বরে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) বিশেষ করে প্রিপেইড গ্রাহকদের ক্ষেত্রে প্রতিটি কলের শেষে এসএমএসের মাধ্যমে এ তথ্য প্রদান বাধ্যতামূলক করে নির্দেশনা জারি করে।

তবে কেবল গ্রামীণফোন এ নির্দেশনা বাস্তবায়ন করেছে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে আরও দুটি অপারেটর কিছু মাত্রায় সেবাটি চালু করেছে। তবে দেশের অধিকাংশ গ্রাহক রয়ে গেছেন সেবার বাইরে।

mobile operator_telecom_companies_techshohor

বিটিআরসি এ বিষয়ে বারবার তাগাদা দিলেও তেমন একটা গা করছে না মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো। এতে অনেকটা বিরক্ত হয়ে বিটিআরসির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও এখন বিষয়টি সময়ের ওপর ছেড়ে দিয়েছেন।

এক কর্মকর্তা বলেন, চাপ প্রয়োগেরও তো একটা সীমা-পরিসীমা আছে। কিন্তু কেউ যদি ইচ্ছা করে নানা অজুহাতে সেবা নিশ্চিত করার বিষয়গুলো এড়িয়ে যায়- তাহলে মুশকিল।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, মূলত গ্রাহকদের কাছ থেকে অপারেটরগুলো কলের সময়ের চেয়েও অনেক বেশি রেট নেয়। তাছাড়া ঘোষিত কল রেটের বাইরেও তারা নানাভাবে টাকা কেটে নেয়-এমন অভিযোগের ভিত্তিতে এ পদক্ষেপ নেয় বিটিআরসি।

এ বিষয়ে রবির এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, এক দিকে বিশ্বের সবচেয়ে কম খরচে কথা বলতে দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। একই সঙ্গে সেবার কলেবর বাড়াতে একের পর এক পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। গুণগত মানের সেবা ও সাশ্রয়- এ দুটো বিষয় কোনোভাবেই এক সঙ্গে যায় না মন্তব্য করে তিনি বলেন, এ পরিস্থিতি অপারেটরগুলোর জন্য কতটুকু ব্যবসাবান্ধব সেটি ভেবে নির্দেশনা জারি করা উচিত নিয়ন্ত্রক সংস্থার।

Related posts

*

*

Top