Maintance

বিটিসিএল-টেশিস চুক্তি থাকছে, ক্ষতিপূরণ পাবে নেটাস

প্রকাশঃ ৫:৫৯ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ২৩, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৫:৫৯ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ২৩, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলে যুক্ত হতে ঢাকা থেকে কুয়াকাটা, বেনাপোল ও আখাউড়া রুটে উচ্চ ক্ষমতার যন্ত্রপাতি স্থাপনে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশনস কোম্পানি (বিটিসিএল)-টেলিফোন শিল্প সংস্থা (টেশিস) চুক্তি বহাল রাখার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

একইসঙ্গে ওই কাজে টেন্ডার মূল্যায়ন কমিটির বিবেচনায় সেরা দরদাতা হওয়া বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় কোম্পানি সিয়েনার যন্ত্রপাতি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান নেটাসকে ১০ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

বিটিসিএল-টেশিস চুক্তি অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল করেছিল তিন পক্ষ। সোমবার এই আপিল নিষ্পত্তি করে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের আপিল বিভাগ এই আদেশ দেন।

এতে বিটিসিএলের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। টেশিসের পক্ষে আইনজীবী কামাল উল আলম।

Digital Court

২০১৬ সালের ২৭ এপ্রিল ওই রুটে ১০০ জিবি সঞ্চালন যন্ত্রপাতি স্থাপনে আন্তর্জাতিক টেন্ডার ডাকে বিটিসিএল। পরে টেন্ডারে নেটাসকে ‘টেকনিক্যালি রেসপনসিভ’ ঘোষণা করে কার্যাদেশ দেওয়ার সুপারিশ করে মূল্যায়ন কমিটি।

কিন্তু বিটিসিএলের পরিচালনা পর্ষদ নেটাসকে কাজটি না দিয়ে পুরো টেন্ডার প্রক্রিয়া বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় এবং তা নেটাসকে জানায়। বিটিসিএল টেন্ডার ছাড়াই টেশিসকে ওই কাজ দেয় এবং টেশিসের সঙ্গে চুক্তিও করে।

নেটাস চুক্তির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে যায় । ২০১৬ সালের ১২ ডিসেম্বর হাইকোর্ট টেশিস ও বিটিসিএলের চুক্তি অবৈধ ঘোষণা করে নতুন করে আন্তর্জাতিক দরপত্র ডাকার নির্দেশ দেন।

এই নির্দেশনার বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আপিলের আবেদন করে নেটাস। বিটিসিএল-টেশিসও চুক্তি বাতিলের বিরুদ্ধে আলাদা লিভ টু আপিল করে।

আল-আমীন দেওয়ান

*

*

Related posts/