Maintance

ডটবাংলা : সাধারণের জন্য উম্মুক্ত হবে ১ ফেব্রুয়ারি

প্রকাশঃ ৫:১০ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ২৩, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৫:১০ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ২৩, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সাধারণ মানুষের জন্য ডটবাংলা উম্মুক্ত হচ্ছে ১ ফেব্রুয়ারি হতে। গত বছরের শেষ দিনে কান্ট্রি কোড টপ-লেভেল এই ডোমেইনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ।

তবে শুরুতে বাংলাদেশের সাংবিধানিক, সরকারি,আধা-সরকারি,স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান, কপিরাইট-ট্রেডমার্ক, ব্র্যান্ডনেইম প্রতিষ্ঠান, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন প্রতিষ্ঠান যেমন গুগল, মাইক্রোসফট, ফেইসবুক পর্যায়ে এই ডোমেইন নেয়ার সুযোগ পায়। চলতি বছরের জানুয়ারি জুড়ে এ জন্য বিশেষ সময় রাখা হয়।

বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল) জানায়, ফেব্রুয়ারির শুরু হতে সবার জন্য এই ডটবাংলা নিবন্ধনের সুযোগ উম্মুক্ত করে দেয়া হচ্ছে।

ডটবাংলা1

ডটবাংলায় ডোমেইন পাওয়া যাবে এক হাজার টাকায়। এই টাকা বছর প্রতি ৫০০ টাকা সাবস্ক্রিপশন ফি হিসেবে এককালীন পরিশোধ ধরা হবে। মানে ডোমেইন নিতে হলে প্রথমেই দুই বছরের ফি দিতে হবে।

এতে বিশেষ শব্দের ডোমেইনের ক্ষেত্রে ফি ধরা হয়েছে ১০ হাজার টাকা। এই ডোমেইনের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেয়া হবে সরকারের বিভিন্ন দপ্তর, কোম্পানি ও সংস্থাকে।

মেয়াদ শেষে ডোমেইনের নবায়ন ফি দিতে হবে বছর প্রতি ৫০০ টাকা। মেয়াদ শেষে নবায়নের ক্ষেত্রে এক মাস ও তিন মাস সময়ের বিলম্বে ৫০০ ও এক হাজার টাকা জরিমানার কথা বলা হয়েছে। আর ৩ মাসের মধ্যে নবায়ন না করলে ডোমেইন হারাতে হবে।

কেউ ডোমেইন বিক্রি করলে তাতে মালিকান পরিবর্তনের ফি রাখা হয়েছে ১৫০০ টাকা। ডোমেইন কেনার সময় যদি কেউ একসঙ্গে ৫ বছর ও ১০ বছরের ফি পরিশোধ করেন সেক্ষেত্রে যথাক্রমে ২০ ও ৩০ শতাংশ ছাড় পাওয়া যাবে।

ডটবাংলা পেতে গ্রাহককে যেতে হবে বিটিসিএলের ওয়েবসাইটে (www.btcl.com.bd) বা এর কার্যালয়ে। ওয়েবসাইটে গিয়ে সহজেই অনলাইন রেজিস্ট্রেশন ও ফরম পূরণ করে ডটবাংলা পাওয়া যাবে। এতে ডোমেইন রেজিস্ট্রেশনের নিয়ম ও শর্ত দেয়া রয়েছে। বিটিসিএলের কার্যালয়ে সরাসরি গিয়েও এই সেবা পাওয়া যাবে। এছাড়া কল সেন্টার নম্বার ১৬৪০২ –এ কল করে সাহায্য নেয়া যাবে।

ডটবাংলার মধ্যে দিয়েই ইন্টারনেট দুনিয়ায় বাংলার ভাষার পথ চলায় এক নতুন দিগন্তের শুরু হয়েছে । ইন্টারনেটে রাষ্ট্রীয় ভাষার এই ব্যবহার এখন হতে বিশ্বজুড়ে জাতীয় পরিচয়েরও স্বীকৃতি ।

ওয়েব ব্রাউজারের অ্যাড্রেস বারে লেখা ইউআরএল বা ইউনিফর্ম রিসোর্স লোকেটর বাংলায় লেখার অধিকার পেতে অর্ধযুগেরও বেশি সময়ের অপেক্ষা করতে হয়।

আলআমীন দেওয়ান

*

*

Related posts/