কল টার্মিনেশন রেট হ্রাসে ক্ষতি দেখছে অর্থ মন্ত্রনালয়

জামান আশরাফ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বর্তমানে প্রতি মিনিটের বৈধ আন্তর্জাতিক টেলিফোন কল দেশে আসার সঙ্গে সঙ্গে তিন সেন্ট করে বৈদেশিক মুদ্রা আয় হয়। টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এ কল টার্মিনেশন রেট অর্ধেকে নামিয়ে আনার প্রস্তাব করেছে। এতে সরকারের আয় কমবে ১ হাজার ৭৩ কোটি টাকা। তবে বড় অঙ্কের এ ক্ষতি মানতে রাজি নয় অর্থ মন্ত্রণালয়।

বিটিআরসির প্রস্তাবটি টেলিযোগাযোগ মন্ত্রনালয় হয়ে এখন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।

এদিকে অর্থমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য তৈরি সারসংক্ষেপে এ প্রস্তাবের বিপক্ষে মত দিয়েছে অর্থ মন্ত্রনালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ।

toll free call_techshohor

গত ২০ ফেব্রুয়ারি অর্থ সচিব ফজলে কবির স্বাক্ষরিত সারসংক্ষেপে বিটিআরসির কল টার্মিনেশন ফি ৩ সেন্ট থেকে দেড় সেন্টে নামিয়ে আনার প্রস্তাবের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। একই সঙ্গে কমিশনের প্রস্তাবের নানা দুর্বল দিকও তুলে ধরা হয়েছে।

জানা গেছে, গত জুলাইয়ের শেষ দিকে বিটিআরসি কল টার্মিনেশন রেট কমানোর সুপারিশ তৈরি করে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রনালয়ে পাঠায়।

এতে বলা হয়, টার্মিনেশন রেট অর্ধেকে কমানো হলে এ খাত থেকে সরকারের আয় কমবে ১ হাজার ৭৩ কোটি টাকা। তবে কল হার কমানো হলে বৈধ পথে কলের সংখ্যা বাড়বে। এর মাধ্যমে ঘাটতি খানিকটা পুষিয়ে নেওয়া যাবে।

তবে অর্থ মন্ত্রনালয়ের সারসংক্ষেপে বলা হয়েছে, বিটিআরসি সম্ভাবনার ওপর ভিত্তি করে টার্মিনেশন রেট কমাতে চাচ্ছে। এর কোনো বাস্তব ভিত্তি নেই।

মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা প্রশ্ন তুলেছেন, এর আগে ৬ সেন্ট থেকে টার্মিনেশন রেট নামিয়ে ৩ সেন্ট করা হয়। কিন্তু এতে পরিস্থিতির কোনো উন্নতি হয়েছে কিনা? এ বিষয়ে কমিশনের কোনো মতামত নেই।

টার্মিনেশন রেট কমানোর সুপারিশের পাশাপাশি বিটিআরসি সরকারের রেভিনিউ প্রাপ্তির অংশও কমানোর প্রস্তাব করেছে। এখন তিন সেন্ট থেকে সরকার পায় ৫১ দশমিক ৭৫ শতাংশ। প্রস্তাব অনুসারে এটি ৪০ শতাংশে নামাতে বলা হয়েছে।

যুক্তি হিসাবে বলা হয়েছে, কল টার্মিনেশন দেড় সেন্ট করা হলে সরকারের আয় কমবে। আর রেভিনিউ শেয়ারিংয়ে অন্যদের অংশ বৃদ্ধি পাওয়ায় অন্য প্রোভাইডের আয়ের ওপর তেমন কোনো প্রভাব পড়বে না।

একই সঙ্গে পাশ্ববর্তী দেশগুলোতে কল টার্মিনেশন রেট কেমন তার বিষয়েও বিটিআরসি কোনো তথ্য না দেওয়ার বিষয়টিও আলোচনায় এসেছে।

ভিওআইপি প্রোভাইডার  ব্যবসায়ীরা জানান, মালদ্বীপে প্রতি মিনিটের টার্মিনেশন রেট ২৫ সেন্ট। নেপালে সাড়ে নয় সেন্ট, শ্রীলংকায় ৯ সেন্ট। আর পাকিস্তানে সম্প্রতি টার্মিনেশন রেট বাড়িয়ে ৮ দশমিক ৮ সেন্ট করা হয়েছে।

সম্প্রতি প্রোভাইডারদের সংগঠনও টার্মিনেশন রেট কমানোর বিষয়ে বিটিআরসির পদক্ষেপ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।

অর্থ মন্ত্রনালয় আরও বলেছে, মাত্র কয়েক দিন আগে আইজিডব্লিউসহ অন্যান্য অপারেটরদের বার্ষিক লাইসেন্স নবায়ন ফি ৫০ শতাংশ কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। এতে সরকার শতাধিক কোটি টাকা আয় থেকে বঞ্চিত হবে। এখন আবার এমন প্রস্তাব যুক্তিসংগত নয়।

Related posts

*

*

Top