আইটিইউর তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিবেদনে ৪ ধাপ এগুলো বাংলাদেশ

অনন্য ইসলাম, টেক শহর প্রতিবেদক : আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন্স ইউনিয়নের (আইটিইউ) তথ্যপ্রযুক্তি উন্নয়ন বিষয়ক প্রতিবেদনে চার ধাপ উন্নতি হয়েছে বাংলাদেশের। তবে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে এখনও শ্রীলংকা, ভারত এবং পাকিস্তানের পেছনে বাংলাদেশের অবস্থান।

২০১২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত তথ্যের ভিত্তিতে ‘আইসিটি ডেভেলপমেন্ট’ বিষয়ক এ প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে আইটিইউ। গত চার বছর ধরে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করছে সংগঠনটি।

সর্বশেষ প্রতিবেদনে ১৫৭ দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৩৫তম। ২০১১ সালে অবস্থান ছিল ১৩৯তম। শ্রীলংকা তাদের আগে অবস্থান (১০৭তম) ধরে রেখেছে। ভারত ও পাকিস্তান এক ধাপ পিছিয়ে যথাক্রমে ১২১তম এবং ১২৯তম অবস্থানে নেমে গেছে। পাশের দেশ মিয়ানমারও (১৩৪তম) বাংলাদেশের সামনে রয়েছে। আইটিইউ’র তালিকায় কোরিয়া এক নম্বরে এবং সুইডেন রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে। ২০০৯ সাল থেকে আইটিইউ এই তালিকা প্রকাশ করে আসছে।

সব মিলে চারটি ক্ষেত্রে দশ পয়েন্টের মধ্যে বাংলাদেশের অর্জন ১ দশমিক ৭৩। আগে বছর এটি ছিল ১ দশমিক ৬২।

ITU Logo_ Tech Shohor

এ প্রতিবেদনে বাংলাদেশের উন্নতির বিষয়ে তথ্য প্রযুক্তিবিদ এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মোস্তফা জব্বার এই অগ্রগতিকেই অনেক বড় করে দেখছেন। তিনি বলেন, গত কয়েক বছরে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে আমরা অনেকটা এগিয়েছি। কিন্তু প্রতিবেশি বা প্রতিদ্বন্দ্বীরা তো আগে থেকেই এগিয়ে আছে। আমাদেরকে এখন এই ব্যবধান ঘুচিয়ে আরও এগিয়ে আসতে হবে।

প্রতিবেদন অনুসারে, চার ধাপ এগিয়ে আসার কারণে বাংলাদেশ আইটিইউর ‘মোস্ট ডায়নামিক কান্ট্রিজ’ তালিকায় যুক্ত হতে পেরেছে। সমান চার ধাপ করে এগুতো পেরেছে অস্ট্রেলিয়া, ওমান এবং জিম্বাবুয়ে। অন্যদিকে আরব আমিরাত এগিয়েছে ১২ ধাপ।

এতে বলা হয়েছে, গত বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশের ১৪ লাখ ২০ হাজার, যা মোট জনসংখ্যার দশমিক ৯০ শতাংশ। আর যুবসমাজের ৪ দশমিক ৭ শতাংশ। এর বাইরে ব্রডব্যান্ড, ফিক্সড ইন্টারনেটকেও গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করেছে আইটিইউ।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসের (বেসিস) সভাপতি শামীম আহসান বলেন, সন্দেহ নেই যে এই বাজারটি এগিয়ে যাচ্ছে। এবং আমাদের তরুণরা তা ধরতে পেরেছে। কিন্তু একই সঙ্গে আরও অনেক পথ এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হতো যদি সরকার সঠিক কাজটি করতে পারত। অবকাঠামোগত কোনো উন্নয়নই তারা এই চার বছরে করতে পারেনি। পলিটিক্যাল কমিটমেন্টও আমলাদের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়া সম্ভব হয়নি।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর অবস্থান
দেশ             র‌্যাকিং’১২      স্কোর      র‌্যাকিং’১১    স্কোর
শ্রীলংকা       ১০৭               ৩.০৬    ১০৭             ২.৯২
ভারত          ১২১               ২.২১     ১২০             ২.১৩
পাকিস্তান      ১২৯              ১.৮৩     ১২৮             ১.৭৮
মিয়ানমার    ১৩৪              ১.৭৪     ১৩২             ১.৭০
বাংলাদেশ    ১৩৫             ১.৭৩     ১৩৯              ১.৬২

ট্যাগ

Related posts

*

*

Top