নানকের পারিবারিক কোম্পানি বলে পার পাচ্ছে রাতুল টেলিকম

অনন্য ইসলাম, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বড় অংকের বকেয়া কিস্তিতে পরিশোধের বাড়তি সুবিধা পেলেও এখন পর্যন্ত এক টাকাও পরিশোধ করেনি রাতুল টেলিকম। কিস্তির সময় শেষ হলেও এখন পর্যন্ত আইজিডব্লিউটির বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি বিটিআরসি।

অথচ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি বকেয়া থাকার কারণে এর আগে দুটি আন্তর্জাতিক গেটওয়ে (আইজিডব্লিউ) অপারেটরের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।

জানা গেছে, সাবেক স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানকের মেয়ে ও স্ত্রীর মালিকানাধীন কোম্পানি হওয়ায় এখনও মামলার মুখোমুখি হতে হচ্ছে না রাতুল টেলিকমকে।

IGW-image_techshohor

গত সেপ্টেম্বরে বকেয়া ৯৬ কোটি টাকা পরিশোধ না করায় বিটিআরসি রাতুল টেলিকমের কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়। তবে নিয়ম না থাকলেও কোম্পানিটিকে তিন কিস্তিতে বকেয়া পরিশোধে সুবিধা দেন তখনকার টেলিযোগাযোগমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন।

কিস্তিগুলো পরিশেধের সময় ছিল ৩০ নভেম্বর, ৩১ ডিসেম্বর এবং ৩১ জানুয়ারি। তবে এখন পর্যন্ত কোনো টাকা পরিশোধ করেনি অপারেটরটি। ইতিমধ্যে আরও এক মাস সময় বাড়ানোর আবেদন করেছে তারা। এ আবেদনের বিষয়ে বিটিআরসির পদক্ষেপ জানা যায়নি।

সাবেক স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী নানকের মেয়ে সৈয়দা আমরিন রাখি রাতুল টেলিকমের ৫০ শতাংশ এবং তার স্ত্রী সৈয়দা আরজুমান্দ বানু আরও ৩০ শতাংশের মালিক। এর বাইরে আরও একজনের নামে রয়েছে ২০ শতাংশ শেয়ার।

বকেয়া থাকায় একই সময়ে রাতুল টেলিকমের সঙ্গে বন্ধ করে দেওয়া হয় টেলেক্স এবং ভিশনটেল। কোম্পানি দুটির বিরুদ্ধে বিটিআরসির পাবলিক ফান্ড রিকভারি অ্যাক্টে মামলাসহ ফৌজদারি অপরাধে ইতিমধ্যে একাধিক মামলা হয়েছে।

কোম্পানির বিরুদ্ধে মামলা ছাড়াও প্রতিটি শেয়ারহোল্ডারের বিরুদ্ধেও মামলা করছে কমিশন। কিন্তু সমান অপরাধী হয়েও বারবার পার পেয়ে যাচ্ছে রাতুল টেলিকম।

Related posts

*

*

Top