বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের খরচ দিতে আগ্রহী ছয় বিদেশী সংস্থা

অনন্য ইসলাম, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশের স্বপ্নের বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপনের খরচ যোগাতে আগ্রহ দেখিয়েছে ছয়টি বিদেশী ব্যাংক এবং অর্থলগ্নীকারী প্রতিষ্ঠান।

সবার আগে এ বিষয়ে আগ্রহ দেখিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এক্সিম ব্যাংক। গত বছরের শুরুতে তারা এখানে অর্থ সহায়তার আগ্রহ দেখায়। পরে তালিকায় যুক্ত হয় এইচএসবিসি ফ্রান্স, জাপান ব্যাংক অব ইন্টারন্যাশনাল, সিডব্লিউজি গালফ ইন্টারন্যাশনাল অব ইউকে এবং চায়না গ্রেটওয়াল ইন্ডাস্ট্রি কর্পোরেশন।

Bangabandhu-1 Satellite-TechShohor

এ বিষয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মোঃ আবুবকর সিদ্দিক বলেন, তারা যেসব প্রস্তাব পেয়েছেন তার সবগুলোই অর্থ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগে পাঠিয়েছেন। এখন তারাই প্রস্তাবগুলো বিচার বিশ্লেষণ করে সিদ্ধান্ত নেবেন।

সরকার চায় এদের যে কোনও একটি থেকে ১ হাজার ৬৮০ কোটি টাকা নিতে। প্রকল্পের মোট খরচ ধরা হয়েছে ৩ হাজার ২৪৮ কোটি ৭৯ লাখ ৮২ হাজার টাকা। এই টাকার মধ্যে বাকিটা সরকারের অংশ রাখা হয়েছে (১ হাজার ৫৬০ কোটি ৪৩ লাখ)।

আগামী তিন বছরে এই টাকা খরচ করবে সরকার। যার পুরোটাই আসবে বিটিআরসি’র কোষাগার থেকে।

এর আগে ২০১১ সালে একনেকের একটি বৈঠকে ৩ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদিত হয়। তখন প্রকল্পের মেয়াদ ধরা হয়েছিলো জুন ২০১৫। ডিপিপিতে দেখা গেছে এ মেয়াদ জুন ২০১৬ পর্যন্ত রাখা হয়েছে।

এর মধ্যে রাশিয়ার স্পুটনিকের সঙ্গে অরবিটাল স্লটের জন্যে চুক্তি করেছে বিটিআরসি। নন বাইন্ডিং অ্যাগ্রিমেন্টের এই চুক্তিতে প্রাথমিকভাবে খরচ হয়েছে দুই মিলিয়ন ডলার। তবে তাদেরকে আরও ২৮ মিলিয়ন ডলার দিতে হবে।

বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে, নিজেদের প্রথম অরবিটাল স্লট ১০২ ডিগ্রি পূর্বের ওপর যেহেতু বিষয়টি আপত্তি পড়েছে, সেকারণে স্পুটনিকের কাছ থেকে ১১৯ ডিগ্রি পূর্ব ১৫ বছরের জন্য কিনে নিচ্ছে বিটিআরসি। প্রয়োজনে পরে আরও ১৫ বছরের জন্য কেনার সুযোগও রাখা হচ্ছে চুক্তিতে।

বাংলাদেশ অপর দুটি অরবিটাল স্লটের জন্য আবেদন করেছে, সে দুটি হলো ৬৯ ডিগ্রি পূর্ব এবং ১৩৫ ডিগ্রি পূর্ব। প্রথমটি বাংলাদেশের জন্য অনেক কাজের হলেও দ্বিতীয়টি বাংলাদেশ থেকে অনেক দূরে হয়ে যাবে। তারপরেও চেষ্টা করছে বিটিআরসি। এর মধ্যে এই দুটি অরবিটাল স্লটের ওপরেও বেশ কিছু আপত্তি পড়েছে।

Related posts

*

*

Top