শিগগিরই অবৈধ ভিওআইপি তদারকি : বিটিআরসি চেয়ারম্যান

তুহিন মাহমুদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অবৈধ ভয়েস ওভার ইন্টারনেট প্রটোকল (ভিওআইপি) বন্ধে আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যেই বাংলাদেশ টেলিযোগাযোহ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) সরকারি-বেসরকারি প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে তদারকি শুরু করবে। এছাড়া মোবাইল সিম নিবন্ধন যাচাই-বাছাই করতে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোকে জাতীয় পরিচয়পত্রের ডাটাবেজ ব্যবহারের সুযোগ দেওয়া হবে। এছাড়া ব্যান্ডওয়াইথের অপারেশন মনিটরিং করা হবে।

শনিবার রাজধানী একটি হোটেলে ‘অবৈধ কল ট্রান্সমিশন : বর্তমান পরিস্থিতি ও বন্ধের উপায়’ শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে এসব কথা জানান বিটিআরসি চেয়ারম্যান সুনীল কান্তি বোস। টেলিকম রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক, বাংলাদেশ (টিআরএনবি) এই সেমিনারের আয়োজন করে।

TRNB Press conference-TechShohor

সেমিনারে বিটিআরসি চেয়ারম্যান আরও জানান, বিটিআরসি’র ক্যাপাসিটি গত ১০/১২ বছরে যা হওয়ার কথা ছিলো তা হয়নি। এ বিষয়ে কাজ করা হচ্ছে। অবৈধ ভিওআইপি বন্ধে শিগগিরই কি পরিমান কল বিদেশ থেকে আসছে তা পরিমাপের জন্য যন্ত্র বসানো হবে। এছাড়া মন্ত্রণালয় থেকে ২৮ থেকে ৩০ জনের একটি কমিটি হচ্ছে। এটি সামগ্রিক বিষয়গুলো মনিটরিং ও বিভিন্ন উদ্যোগ নিতে পরামর্শ দিবে।

সেমিনারে বাংলালিংকের অন্যতম জ্যেষ্ঠ পরিচালক জাকিউল ইসলাম বলেন, অবৈধ ভিওআইপি বন্ধে টেলিকম অপারেটরগুলো কাজ করছে। দুইবারে বাংলালিংকের মোট ২৪ লাখ সিম বন্ধ করা হয়েছে। এতে অপারেটগুলোর বড় ধরণের আর্থিক ক্ষতি হলেও ভিওআইপি বন্ধে কার্যক্রম চলছে।

গ্রামীণফোনের চিফ করপোরেট অ্যাফেয়ার্স অফিসার মাহমুদ হোসেন বলেন, ভিওআইপি বন্ধে প্রতি তিন ঘন্টায় মনিটরিং করে নাম্বার ব্লক করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ঠরা বিষয়টি বুঝে একাধিক সিমের মাধ্যমে ভিওআইপি চালাচ্ছে। ফলে কলের পরিমান হিসেব করে তাদের ধরা সম্ভব হচ্ছে না। তিনি জানান, যে আইজিডব্লিউগুলো বন্ধ হয়েছে তাদের কাছে গ্রামীণফোনের ৮৭ কোটি টাকা পাওনা রয়েছে। এছাড়া বিটিআরসি কাছে পাওনা ১২০ কোটি টাকারও কোনো হদিস নেই।

TRNB Press conference-2-TechShohor

ফাইবার অ্যাট হোমের চিফ স্ট্র্যাটেজিক অফিসার সুমন আহমেদ সাবির বলেন, শুধুমাত্র তথ্য প্রযুক্তি দিয়ে ভিওআইপি বন্ধ করা সম্ভব নয়। এর পিছনে রয়েছে বাণিজ্যিক ও রাজনৈতিক কারণ।

লার্ন এশিয়ার আবু সাইদ খান বলেন, অর্ধেক দামে ব্যান্ডওয়াইডথ বিক্রি করছে কেউ কেউ। জাতীয় টেলিকম পলিসি পরিবর্তন না করে আন্তর্জাতিক টেলিকম পলিসি তৈরি করা হয়েছে। আর এই পলিসি বৈষম্যের কারণে মুহুর্তেই কোটি কোটি টাকা অবৈধভাবে লেনদেন হচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে অবৈধ ভিওআইপির ফলে লাভবান হচ্ছে বিদেশিরা।

সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুজিবুর রহমান, রবির এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মাহমুদুর রহমান, বিটিআরসির সিস্টেম অ্যান্ড সার্ভিস বিভাগের পরিচালক রকিবুল হোসেন, এনফোর্সমেন্ট ও ইনস্পেকশন বিভাগে পরিচালক হিসেবে মো. সরওয়ার আলম, মীর টেলিকমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মীর নাসির হোসেন, ম্যাংগো টেলি সার্ভিসেস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মীর মাসুদ কবির, অ্যামটবের মহাসচিব নুরুল কবীর, টিআরএনবির সভাপতি আবদুল্লাহ মামুন ও সাধারণ সম্পাদক সজল জাহিদ।

Related posts

*

*

Top