Maintance

বাজেট প্রস্তাবের রাতেই বাড়ল মোবাইলের খরচ

প্রকাশঃ ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন, জুন ৩, ২০১৬ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১:১২ পূর্বাহ্ন, জুন ৩, ২০১৬

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাজেট প্রস্তাবের রাত থেকেই কার্যকর হলে গেল মোবাইল ফোন ব্যবহারের ওপর বাড়তি খরচ । বৃহস্পতিবার ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে বাজেটে সিম বা রিমের মাধ্যমে সেবার উপর সম্পূরক শুল্ক ২ শতাংশ বাড়িয়ে ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়।

আর প্রস্তাবের পরক্ষণেই রাতেই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) একটি এসআরও জারি করে। যেখানে রাতেই এ কর কার্যকর করতে ছয়টি মোবাইল ফোন অপারেটরকে নির্দেশনা দেওয়া হয়। আর বৃহস্পতিবার রাত থেকেই ওই নির্দেশনা বাস্তবায়নে কাজ শুরু করে মোবাইল অপারেটরগুলো।

বিলিং কার্যকরে সফটওয়ার কনভার্ট করতে একটু সময় লাগতে পারে। সকল গ্রাহককে এসএমএস দিয়ে জানানো হবে বলে জানিয়েছে অপারেটররা। ফলে গ্রাহককে মোবাইল ফোনে কথা বলা, ডেটা এসএমএস, এমএমএস এবং সব ধরনের ভ্যালু অ্যাডেড সার্ভিসের জন্য বাড়তি পয়সা গুনতে হবে।

রাতেই অপারেটরগুলো তাদের বিলিং সিস্টেম আপডেট করে নতুন করে ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বিলের মধ্যে যোগ করে দিচ্ছে।

গ্রাহক আগে যেখানে ১০০ টাকা খরচের পর ১৫ টাকা ভ্যাট দিতেন এখন এ ১১৫ টাকার ওপর গ্রাহককে আরও ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক দিতে হবে। ফলে তাকে আরও ৫ দশমিক ৭৫ টাকা বেশি খরচ করতে হবে। সঙ্গে ১ শতাংশ সারচার্জ যুক্ত হয়ে একশ টাকার সেবায় গ্রাহককে গুনতে হবে ১২১ দশমিক ৭৫ টাকা।

mobile-recharge-techshohor

বৃহস্পতিবার বিকালে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে জাতীয় সংসদে বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

অর্থমন্ত্রী বলেন, গত বাজেটে মোবাইল সিম ট্যাক্স ব্যাপক হারে কমানো হয়েছে। এ কারণে মোবাইল সিম বা রিম কার্ডের মাধ্যমে প্রদত্ত সেবার উপর বিদ্যমান তিন শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বৃদ্ধি করে পাঁচ শতাংশ নির্ধারণের প্রস্তাব করছি।’

বর্তমানে দেশে ১৩ কোটি ২০ লাখ সক্রিয় মোবাইল ফোন সংযোগ এবং পাঁচ কোটি ৯৫ লাখ সংযোগে ইন্টারনেট ব্যবহারের পরিসংখ্যান তুলে ধরে তিনি জানান, এই সেক্টরে রাজস্ব আয়ের পরিমাণ প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা।

উল্লেখ্য, গত বাজেটেই সম্পূরক শুল্ক ৫ শতাংশ রাখার প্রস্তাব দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী। এবং তাও বাজেটের রাতেই কার্যকর করা হয়। পরে ব্যাপক সমালোচনার মুখে সে সময় শুল্কের পরিমাণ ২ শতাংশ কমিয়ে ৩ শতাংশ ধার্য করা হয়।

আল-আমীন দেওয়ান

*

*

Related posts/