নতুন বছরে দুর্দান্ত ১০ স্মার্টফোনের অপেক্ষায়

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : স্মার্টফোনের ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে ২০১৩। নতুন নতুন ফোন ও কোম্পানিগুলোর প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছাড়িয়ে গিয়েছিল আগের যে কোনো বছরকে। ২০১৪ সালেও সেই ধারা অব্যাহত থাকবে বলে বেশিরভাগ প্রযুক্তিপ্রেমীরা মনে করছেন। ইতোমধ্যে তেমন দামামা বাজতে শুরুর ইঙ্গিতও মিলছে।

শীর্ষ ফোন প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলো নতুন ফোন নিয়ে চুপিসারে কাজ করলেও শেষ পর্যন্ত তা আর হয়ে ওঠে না। কোম্পানির আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগেই খবর প্রকাশ হয়ে যায় প্রযুক্তি বিষয়ক রিপোর্টারদের কল্যাণে। এখন পর্যন্ত যেসব খবর বেড়িয়েছে তাতে চলতি বছরটিও বৈচিত্র্যময় ফোনের লড়াইয়ে ভরপুর থাকবে, তাতে সন্দেহ নেই।

২০১৪ সালের এমনই কিছু বহুল প্রত্যাশিত ফোন নিয়ে এ প্রতিবেদন।

অ্যাপল আইফোন ৬
আইফোন মানেই চমক। যদিও শেষ তিনটি আইফোনে ভক্তদের বহু প্রত্যাশিত ‘অ্যাপল চমক’ দেখা যায়নি। ২০১৪ সালের আইফোনে তা দেখা যাবে বলে অনেক বিশেষজ্ঞ মত দিয়েছেন। আইফোন ৫এস-এ যুক্ত হওয়া ৬৪-বিট প্রসেসর ও ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার তো আছেই। সঙ্গে আরও কিছু আকর্ষণীয় ফিচার যুক্ত করতে পারে অ্যাপল।

Iphone6_TechShohor

ধারণা করা হচ্ছে, আইফোন ৬ এর স্ক্রিন আগের চেয়ে বড়, এমনকি কিছুটা বাঁকানোও হতে পারে। আরও বেশি র‌্যাম ও স্টোরেজ থাকছে এতে। ক্যামেরা ১২ বা ১৩ মেগাপিক্সেল হতে পারে। ফোনটির সাথেই পরবর্তী প্রজন্মের আইওএস মুক্তি পাবে। আরেকটি সুসংবাদ হলো, ২০১৪ সালের মে মাসে ফোনটি বাজারে আসার সম্ভাবনা আছে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৫
গত কয়েক বছর ধরে সবচেয়ে প্রত্যাশিত ফোনগুলোর তালিকার শীর্ষে ছিল স্যামসাং গ্যালাক্সি এস সিরিজের নতুন ফোন। ২০১৪ তার ব্যতিক্রম নয়। এ বছর বাজারে আসবে গ্যালাক্সি এস৫, যা স্মার্টফোন ধারণাকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে। এটি ৬৪-বিট প্রসেসর দিয়ে চালিত হবে ও র‌্যাম হবে ৪ গিগাবাইট।

samsung-galaxy-s5_techshohor

পানিরোধক কেসিং, আই স্ক্যানিংয়ের মতো ব্যতিক্রমী ফিচার থাকবে, ক্যামেরা হবে ১৬ মেগাপিক্সেল। এতে অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হবে। ফেব্রুয়ারি বা মার্চেই এটি বাজারে আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এইচটিসি ওয়ান টু
২০১৩ সাল ছিল এইচটিসির জন্য ফিরে আসার বছর। এইচটিসি ওয়ান নামে অসাধারণ স্মার্টফোনটি দিয়ে তারা সমালোচক থেকে ক্রেতা সবারই মন জয় করে নিয়েছিল। ২০১৪ সালেও তারা একইরকম সাড়া জাগানো একটি ফোন মুক্তি দেওয়ার আশা করছে। ওয়ান টু ফোনটি খুবই উন্নত গড়নের হবে বলে জানা গেছে।

৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে অত্যন্ত হাই রেজুল্যুশন সাপোর্ট করবে। অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে থাকবে অ্যান্ড্রয়েড কিটক্যাট ৪.৪। এইচটিসির নিজস্ব ইউজার ইন্টারফেস সেন্স ৬.০ ব্যবহার করা হবে। এইচটিসি ওয়ানের মতো বহুল প্রশংসিত আলট্রা পিক্সেল ক্যামেরা এতেও ব্যবহার করা হবে। এক্সক্লুসিভ ফিচারগুলোর মধ্যে থাকতে পারে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর।

নোকিয়া লুমিয়া ১৮২০
ফেব্রুয়ারির আসন্ন মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে লুমিয়া ১৮২০ নামে নতুন একটি ফ্ল্যাগশিপ ফোনের ঘোষণা দিতে পারে ফিনিশ ফোন নির্মাতা নোকিয়া। ২০১৩ সালে উইন্ডোজ ফোন ব্যবহারকারীদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। তাই নোকিয়া অ্যান্ড্রয়েডের বাজার দখলে নতুন নতুন ফিচার সমৃদ্ধ ফোন তৈরিতে মনযোগ দিচ্ছে। লুমিয়া ১৮২০ বর্তমানে ফ্ল্যাগশিপ ফোন ১০২০ এর বিকল্প হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য লিট্রো নামে নতুন ধরনের ক্যামেরা। এ ক্যামেরা দিয়ে ছবি তোলার পরও সেটির ফোকাস যেভাবে ইচ্ছা বদলানো যাবে। ফোনটির অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে থাকবে উইন্ডোজ ফোন ৮.১। অ্যাপলের ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট সিরির মতো কোনো কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রোগ্রাম এতে যোগ করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সনি এক্সপেরিয়া জেড২
চমৎকার ডিসপ্লে ও ক্যামেরা ফোন দিয়ে ২০১৩ সাল ভালোভাবেই পার করেছে জাপানের প্রতিষ্ঠান সনি। জনপ্রিয়তা পাওয়া এক্সপেরিয়া জেড১ এর নতুন সংস্করণ তারা বাজারে আনবে নতুন বছরে। এক্সপেরিয়া জেড২ অ্যাভাটার নামে এই ফোন দেখতে উত্তরসূরীদের মতোই হবে।

sony experia Z1_techshohor

পানি ও ধূলাবালি রোধক প্রলেপ থাকবে বডিতে। জেনন ফ্ল্যাশ সমৃদ্ধ ২০.৭ মেগাপিক্সেলের অসাধারণ ক্যামেরা হবে এর মূল আকর্ষণ। ডিসপ্লে হবে খুবই হাই কোয়ালিটির। এর অপারেটিং সিস্টেম হিসেবেও অ্যান্ড্রয়েড কিটক্যাট ব্যবহার করা হবে।

গুগল নেক্সাস ৬
গত কয়েক বছর পালাক্রমে নেক্সাস সিরিজের ফোন বাজারে এনেছে গুগল। এ সিরিজটিই গুগলের নিজস্ব তত্ত্বাবধানে তৈরি একমাত্র অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস। তাই একে ঘিরে অ্যান্ড্রয়েড ফ্যানদের বাড়তি আকর্ষণ থাকে।

google headquarters

নেক্সাস ৫ সবদিক দিয়ে তাদের আশা মেটালেও ক্যামেরার দিক দিয়ে হতাশ করেছিল। নতুন নেক্সাস এ সমস্যা কাটিয়ে উঠবে বলে আশা করছেন অনেকে। এছাড়া এতে অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪ কিটক্যাটের কিছুটা আপগ্রেডেড ভার্সন ব্যবহার করা যেতে পারে। ৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি ডিসপ্লের পেছনে থাকতে পারে কোয়াড কোর স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর, ৩ গিগাবাইট র‌্যাম ও ৩ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। তবে এটি হাতে পাওয়ার জন্য বছরের শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হতে পারে।

ব্ল্যাকবেরি জেড৫০
একসময়ের দামী ব্র্যান্ড ব্ল্যাকবেরি এ বছরও স্মার্টফোন বাজারে ভালো অবস্থান দখলের চেষ্টা অব্যাহত রাখবে। গত বছর তাদের জেড১০ ও জেড৩০ ফোন দুটি বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছিল। তাই এ বছর তারা নতুন উদ্যোমে বাজারে আনবে ব্ল্যাকবেরি জেড৫০।

blackberry_techshohor

এ ফোনটির ব্যাপারে বিস্তারিত জানা না গেলেও ধারণা করা হচ্ছে, অ্যান্ড্রয়েড বা উইন্ডোজ ফোনের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার মতো আনকোরা ফিচার এতে যুক্ত করা হয়েছে। এতে ব্ল্যাকবেরির ঢেলে সাজানো নতুন অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হবে। ডিসপ্লে হবে ৫.২ ইঞ্চি, প্রসেসর হবে কোয়াড কোর।

এলজি জি২ মিনি
গুগলের তত্ত্বাবধানে নেক্সাস ৪ ও নেক্সাস ৫ তৈরি করে বেশ প্রশংসা পেয়েছে এলজি। তাদের নিজস্ব অ্যান্ড্রয়েড এলজি জি২-ও কম জনপ্রিয়তা পায়নি। ২০১৪ সালেও সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য তারা নতুন কোনো ফ্ল্যাগশিপ ফোন বাজারে আনতে পারে। তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানা যায়নি।

বিভিন্ন প্রযুক্তি ওয়েবসাইট থেকে জানা গেছে, এলজি অপটিমাস জি প্রো এর কাছাকাছি কনফিগারেশনের একটি ফোনের ঘোষণা আসতে পারে ফেব্রুয়ারির মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে। এছাড়া গ্যালাক্সি এস৪ মিনি ও এইচিটিসি ওয়ান মিনির সাথে পাল্লা দেওয়া জন্য আসতে পারে জি২ মিনি। এতে জি২ এর সব সুবিধাই থাকবে, কেবল স্ক্রিনের আকার কিছুটা ছোট ও দামে আরও শস্তা হবে।

লেনোভো ভাইব জেড
শুধু ল্যাপটপ বা ট্যাবলেটের বাজার নয়, স্মার্টফোনের বাজারেও গত বছর পারদর্শীতা দেখিয়েছে চীনের কোম্পানি লেনোভো। নতুন বছর তারা বাজারে আনতে পারে লেনোভো ভাইব জেড। দারুণ স্টাইলিশ ফোনটিতে ৫.৫ ইঞ্চির আইপিএস ডিসপ্লে ব্যবহার করা হবে। প্রধান হার্ডওয়্যার হবে ২.২ গিগাহার্জ কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮০০ প্রসেসর ও ২ গিগাবাইট র‌্যাম। এটিই লেনোভোর প্রথম এলটিই প্রযুক্তিসম্পন্ন ফোন হবে।

এর অন্যান্য আকর্ষণীয় ফিচারের মধ্যে আছে কাস্টোম অ্যান্ড্রয়েড ইন্টারফেস, ১৩ মেগাপিক্সেল মেইন ক্যামেরা ও ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। গ্যালাক্সি সিরিজের ফোনগুলোর মতো এর সঙ্গেও ফ্লিপ কাভার থাকছে। ফোনটি বছরের প্রথম প্রান্তিকে বাজারে আসতে পারে।

হুয়াই গ্লোরি ৪
দুর্দান্ত পারফর্ম্যান্স দিতে পারে, এমন স্মার্টফোনের আপাতত অভাব নেই বাজারে। কিন্তু যাদের কাছে পারফর্ম্যান্সের চেয়ে বাজেট গুরুত্বপূর্ণ, তাদের জন্য স্যামসাং বা সনির স্মার্টফোনের বিকল্প হুয়াই। চীনের কোম্পানিটি কমদামে শক্তিশালী কনফিগারেশন ফোন এনে এরই মধ্যে জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

২০১৪ সালে হুয়াই আনতে পারে আট কোর সমৃদ্ধ প্রসেসরের ফোন গ্লোরি ৪। এতে থাকবে ৪.৭ ইঞ্চি এইচডি ডিসপ্লে, ১ জিবি র‌্যাম ও ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। মাত্র ১৫ হাজার টাকার মধ্যেই এটি পাওয়া যাবে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

Related posts

*

*

Top