সবচেয়ে দামি অ্যান্ড্রয়েড ফোন!

টেক শহর : দামের দিক দিয়ে ক্রেতাদের হাতের নাগালে থাকা অ্যান্ড্রয়েড ফোনগুলোর একটি বড় বৈশিষ্ট্য। আর অত্যধিক দামের কারণে কম দুর্নাম হয়নি অ্যাপলেরও। কিন্তু এবার দামের দিক আইফোনকে টেক্কা দিলো একটি অ্যান্ড্রয়েড ফোন! আর হ্যাঁ, সেজন্য কোনো হীরা কিংবা সোনার প্রলেপ ব্যবহার করা হয়নি!

সাড়ে ৬ হাজার ডলার, অর্থাৎ প্রায় সাড়ে ৫ লাখ টাকা মূল্যের এই অ্যান্ড্রয়েড ফোনটি তৈরি করেছে ব্রিটিশ বিলাসবহুল গ্যাজেট নির্মাতা ভার্চু। ভার্চু কনস্টেলেশেন নামে এ ফোন কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই বাজারে ছাড়া হবে।

অস্বাভাবিক দামের কারণ ফোনটির ডিজাইন। এর পেছন দিক তৈরি করা হয়েছে উৎকৃষ্টতম চামড়া দিয়ে। আর অত্যন্ত নরম ও দুর্লভ এই চামড়া সংগ্রহ করা হয়েছে ইউরোপের সবচেয়ে পুরনো ট্যানারিগুলোর একটি থেকে। আর যে কাঠামোতে চামড়া জড়িয়ে আছে, সেটিও নিছক প্লাস্টিক বা অ্যালুমিনিয়াম নয়! নির্ভেজাল টাইটাইনিয়াম- যা বিশ্বের সবচেয়ে হালকা, কিন্তু শক্ত ধাতুগুলোর একটি। স্ক্র্যাচ এড়ানোর জন্য এর স্ক্রিনে স্যাফায়ারের (রুবি) প্রলেপ দেওয়া হয়েছে।

constellation_vertu

কোনো কারখানায় নয়, প্রতিটি ফোন ইংল্যান্ডের হ্যাম্পশায়ারে পৃথকভাবে হাতে তৈরি করা হয়েছে। তাই ভার্চুর দাবি- ফোনগুলোর মান পৃথিবীর অন্য যে কোনো ফোনের চেয়ে বেশি। এবং এটি হাতে নিলে যে অনুভূতিটি হবে- তা অবশ্যই সোনা কিংবা হীরায় মোড়া আইফোনের চেয়ে ভিন্ন- এমনটাই দাবি ভার্চুর।

অবশ্য বাইরের চাকচিক্যের তুলনায় ফোনটির কনফিগারেশন সাদাসিধেই বলা যেতে পারে। এতে রয়েছে ১.৭ গিগাহার্জ গতির ডুয়াল কোর প্রসেসর, ৭২০ পিক্সেল সমৃদ্ধ স্ক্রিন। অ্যান্ড্রয়েড জেলিবিন ৪.২.২ দিয়ে এটি চালিত হচ্ছে। অর্থাৎ আপনি যদি অ্যান্ড্রয়েড ফ্যান হয়ে থাকেন, তাহলে ফোনটি অবশ্যই আপনার জন্য নয়!

এর আগে ২০০৬ সালে ভার্চু তৈরি করেছিল এযাবতকালের সবচেয়ে দামি ফোন- সিগনেচার কোবরা, যার দাম ছিল প্রায় আড়াই কোটি টাকা।

Related posts

*

*

Top