বিক্রিতে এগিয়ে অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের বাজারে স্মার্টফোনের চাহিদা বাড়ছে। সাধারণ মোবাইল ফোন সেটের চেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে এ ধরনের হ্যান্ডসেট। তবে অ্যান্ড্রয়েডচালিত স্মার্টফোনকে ঘিরেই সবচেয়ে বেশি আগ্রহ ক্রেতাদের।

ক্রেতা ও বিক্রেতাদের মতে, বেশি ফিচারের কারণে মূলত ক্রেতাদের প্রথম পছন্দ অ্যান্ড্রয়েডচালিত স্মার্টফোন। অ্যাপসের সহজলভ্যতাও অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেমের চেয়ে এ ধরনের হ্যান্ডসেটকে এগিয়ে রেখেছে। পাশাপাশি ট্যাবলেটের বিক্রিও বাড়ছে বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা।

mobile sphone shop_techshohor

মোবাইল ফোন সেট বিক্রির খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, হাইএন্ড ফোনের চেয়ে বাজারে সাশ্রয়ী মূল্যের দেশী ফোনের চাহিদা বেশি। এর মধ্যে ওয়ালটন এবং সিম্ফোনির বিভিন্ন মডেলের স্মার্টফোন বেশি বিক্রি হচ্ছে।

স্বল্প বাজেটের এসব ফোনে বড় ব্র্যান্ডগুলোর প্রায় সব ফিচার থাকায় মিড রেঞ্জের ব্যবহারকারীদের কাছে তা জনপ্রিয়তা পাচ্ছে।

বসুন্ধরা সিটি শপিং মলে শনিবার মিরপুর থেকে আসা ক্রেতা মেহেদি টেক শহরকে বলেন, অ্যান্ড্রয়েডে অ্যাপস সহজে পাওয়া যায়। যা অ্যাপলের আইফোন কিংবা নকিয়া লুমিয়াতে পাওয়া যায় না । এ কারণে তার মতো  আরও অনেক ক্রেতাকে আ্যান্ড্রয়েডচালিত স্মার্টফোন কিনতে দেখা গেছে।

মেহেদি বলেন, অনেক দিন থেকে নতুন ফোন কেনার কথা থাকলেও অবরোধের কারণে এতদিন আসতে পারিনি। তাই সুযোগ পেয়ে আজ (শনিবার) চলে এলাম।

এ দিকে দেশে চলমান রাজনৈতিক সহিংসতায় অন্য সব খাতের মতো নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে মোবাইল ফোন বাজারেও। অবরোধে রাজধানীর মোবাইল বাজারগুলো এক প্রকার ক্রেতাশূণ্য হয়ে পড়েছে। তবে শুক্র ও শনিবার হরতাল ও অবরোধ না থাকায় বেচাকেনা অনেকটা বেড়েছে বলে বিক্রেতারা জানান।

টানা অবরোধের কারণে মোবাইল ফোন বেচাবিক্রি কমার পাশাপাশি হ্যান্ডসেটের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ, হেডফোন, কভার, ডিসপ্লে, ব্যাটারি ইত্যাদির সরবরাহও কমে গেছে।
শনিবার রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি শপিং মলে ব্যাপক জনসমাগম চোখে পড়ে। মোবাইল ফোনের দোকানগুলোতে ভিড় ছিল বেশ। দোকানিরাও হাসিমুখে ক্রেতা সামলাতে ব্যস্ত। অনেক দিন পর এত ক্রেতা পেয়ে তারাও খুশি।

এক বিক্রেতা জানান, অবরোধের কারণে লোকজন বাজারে আসছে না। ফলে বিক্রি কমে গেছে। একই সঙ্গে পণ্য পরিবহন সংকটের কারণে অনেক প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশের সরবরাহও কমে গেছে।

এ দিকে সরবরাহ সংকটের অজুহাতে সিম্ফোনি স্মার্টফোনের দাম বেশি নেওয়া হচ্ছে তিন থেকে চার হাজার টাকা। এ কোম্পানির ডব্লিউ ১২৫ মডেলের শোরুম মূল্য ১২ হাজার ১০০ টাকা হলেও তা নেওয়া হচ্ছে ১৫ থেকে ১৬ হাজার টাকা।

সিম্ফোনির দাম বাড়লেও বাজারে কিছু মডেলের স্মার্টফোনের দাম কমেছে আগের তুলনায়। সনি এক্সপিরিয়া জেড বর্তমানে ৩৫-৩৬ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আগে এটির দাম ছিল ৪০-৪১ হাজার টাকা। এ ছাড়া সনির অন্য মডেলের স্মার্টফোনেও গত সপ্তাহের চেয়ে দাম কমেছে ১০০ থেকে ৪০০ টাকা।

Related posts

*

*

Top