টানা ১৮ মাস পর থামল সিটিসেলের গ্রাহক পতন

অনন্য ইসলাম, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : টানা ১৮ মাস গ্রাহক হারাতে হারাতে তলানীতে চলে এসেছিল দেশের প্রথম মোবাইল ফোন অপারেটর সিটিসেল। ১৮ লাখ ১০ হাজার থেকে গ্রাহক নেমেছিল ১৩ লাখ ৩০ হাজারে। তবে অক্টোবরে এসে খানিকটা হলেও ঘুরে দাঁড়িয়েছে অপারেটরটি।

গত বছর এপ্রিল থেকে চলতি বছর সেপ্টেম্বর পর্যন্ত গ্রাহক হারানো সিটিসেলের অক্টোবরে ১০ হাজার গ্রাহক বেড়ে কার্যকর গ্রাহক দাঁড়িয়েছে ১৩ লাখ ৪০ হাজার।

citycell_techshohor

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন মঙ্গলবার মাসওয়ারী মোবাইল গ্রাহক ও ইন্টারনেট গ্রাহকের হিসাব প্রকাশ করেছে। এতে পাওয়া গেছে এ তথ্য।

দক্ষিন-পূর্ব এশিয়ার সবচেয়ে পুরনো মোবাইল অপারেটরটির এমন এক সময় ১০ হাজার গ্রাহক পেল যখন পুরনো বকেয়া প্রায় আড়াইশ কোটি টাকা নিয়ে লাইসেন্স সংক্রান্ত জটিলতায় রয়েছে তারা।

একই সঙ্গে লাইসেন্সের এ ঝামেলার খবর প্রকাশ হওয়ায় কোম্পানির নতুন বিনিয়োগও পড়েছে ঝুঁকির মুখে। সিটিসেলের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, চীনের একটি কোম্পানির কাছ থেকে বড় ধরনের বিনিয়োগ পাওয়ার আলোচনা চলছিল। এর মধ্যে সমঝোতা চুক্তিও হয়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু লাইসেন্স সংক্রান্ত জটিলতার খবর আসায় বিনিয়োগকারীরা পিছিয়ে গেছেন।

এ দিকে বিটিআরসির গ্রাহক সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন থেকে স্পষ্ট যে, রাজনৈতিক পরিস্থিতির নেতিবাচক প্রভাব টেলিযোগাযোগ খাতেও পড়েছে।

গত কয়েক মাস ধরে ক্রমাগতভাবে মোবাইল খাতে প্রবৃদ্ধি কমছে। অক্টোবর মাসে ছয়টি মোবাইল ফোন অপারেটর মাত্র ১১ লাখ ১৭ হাজার নতুন গ্রাহক পেয়েছে। অথচ সেপ্টেম্বর মাসেও এ অংক ছিল ১৩ লাখ ২৬ হাজার। আর আগস্টে যা ছিল ২৪ লাখ ১৫ হাজার।

একইভাবে আগস্টে নতুন ১৮ লাখ ২০ হাজার ইন্টারনেট ব্যবহারকারী পাওয়া গেলেও সেপ্টেম্বরে নতুন যোগ হয় মাত্র ২ লাখ ৮৪ হাজার। অক্টোবরে যোগ হয় আরও কম ১ লাখ ১৫ হাজার।

তবে সব মিলে অক্টোবর শেষে দেশের মোট মোবাইল গ্রাহক দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ১৭ লাখ ৯০ হাজার। আর ইন্টারনেট ব্যবহারকারী দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ৬৬ লাখ ৫০ হাজার।

প্রবৃদ্ধি কমে যাওয়া প্রসঙ্গে রবির প্রধান ফাইন্যান্সিয়াল অফিসার মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, রাজনৈতিক অস্থিরতা গোটা দেশের মতো তাদের ব্যবসাকেও অস্থির করে তুলছে। সে কারণে রাজস্ব আয় বৃদ্ধিসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি কমে যাওয়া বা নেতিবাচক প্রবৃদ্ধি হতে দেখা যাচ্ছে।

Related posts

*

*

Top