আমলাদের ফোন ও ইন্টারনেট বিল ১১১ শতাংশ বাড়ল

অনন্য ইসলাম, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আমলাদের আবাসিক টেলিফোন এবং ইন্টারনেটের মাসিক বিল ৪৬ শতাংশ থেকে ১১১ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি করেছে সরকার। গত সপ্তাহে এক আদেশে আবাসিক টেলিফোন বিল নীতি ২০০৪ সংশোধন করে পাঁচ স্তরের আমলাদের বাড়তি এই সুবিধার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আবদুস সোবহান সিকদার স্বাক্ষরিত আদেশে বলা হয়েছে, নভেম্বর মাস থেকে সরকারি কর্মকর্তারা নতুন টেলিফোন বিলের এই সুবিধা পাবেন।

এর আগে ১৯৯৩ সালে প্রথম আবাসিক টেলিফোন বিল নীতিমালা করা হয়। পরে ২০০৪ সালে নতুন নীতিমালা করা হয়।

প্রথম ধাপে সিনিয়র সচিব, সচিব, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য, আইজিপি, সরকারি অধিদপ্তরের প্রধান, বিভাগীয় কমিশনার, জেলার ডিসি, পুলিশ সুপাররা আনলিমিটেড ফোন বিল এবং ইন্টারনেট বিল তুলতে পারবেন। তবে ইন্টারনেট সংযোগটি হতে হবে বিটিসিএলের।

নতুন নির্দেশনা অনুসারে অতিরিক্ত সচিব এবং যুগ্ম সচিবরা থাকবেন দ্বিতীয় ধাপে। এই ধাপের আগের টেলিফোন বিল ছিল ১ হাজার ৮০০ টাকা। এখন সেটি ১১১ শতাংশ বাড়িয়ে করা হয়েছে ৩ হাজার ৮০০ টাকা। এই ধাপে আরো রয়েছেন অতিরিক্ত ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য, সংস্থার মহাপরিচালক, কমিশনার ট্যাক্স, উপ-মহা পুলিশ পরিদর্শক, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার প্রমুখ। এই ধাপে ৯৩ সালে ১২০০ টেলিফোন কল পর্যন্ত ফ্রি দেওয়া হয়েছিল।

উপ-সচিবরা থাকবেন তৃতীয় ধাপে। তাদের মাসিক টেলিফোন বিল দেড় হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ২ হাজার ৬৫০ টাকা করা হয়েছে। এ ক্যাটাগরিতে আরও রয়েছেন মন্ত্রীদের একান্ত সচিব, জেলা জজ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ওসি প্রমুখ। এদের জন্যে ৯৩ সালে নির্ধারিত ছিল এক হাজার কল।

সিনিয়র সহকারি সচিবরা এই মাস থেকে পাবেন ১ হাজার ৯৫০ টাকা বিল। আগে এটি ছিল ১ হাজার ২০০ টাকা। তাছাড়া সহকারি সচিবদের বিল ৯৭৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ৪২৫ টাকা করা হয়েছে।

টেলিফোন বিল বৃদ্ধি প্রসঙ্গে সোবহান সিকদার বলেন, এ বৃদ্ধির ফলে সরকারি কর্মকর্তাদের সেবাদানের প্রচেষ্টা আরো বাড়বে বলে মনে করি।

Related posts

*

*

Top