Maintance

ফোরজিতে ৫ আবেদন, সিটিসেলও আছে

প্রকাশঃ ১:৪০ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ২:১৯ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : চতুর্থ প্রজন্মের লাইসেন্সের আবেদনে তেমন কোনো চমক নেই। রোববার দুপুর ১২ছিল আবেদনের শেষ সময়। সে পর্যন্ত বর্তমানে সেবায় থাকা চারটি অপারেটর ছাড়াও দেড় বছর আগে সেবা বন্ধ করে রাখা সিটিসেলের আবেদন পেয়েছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন।

বিটিআরসির লাইসেন্সিং বিভাগের এক পদস্থ কর্মকর্তা নির্ধারিত সময় পর্যন্ত পাঁচটি আবেদন পাওয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন।

যদিও তিনি বলেন, সিটিসেলের আবেদনই তাদের জন্যে এক বড় চমক।

‘সিটিসেল শেষ পর্যন্ত যদি লড়াইয়ে থেকে যায় তাহলেই স্পেকট্রামের নিলামে প্রতিযোগিতা হবে।’ বলছিলেন ওই কর্মকর্তা।

4g-techshohor

এছাড়া অবশ্য লাইসেন্স পাওয়ার জন্যে কোনো প্রতিযোগিতা নেই। রাষ্ট্রায়ত্ত্ব অপারেটর টেলিটকসহ যে চারটি অপারেটর এখন থ্রিজি সেবা দিচ্ছে তারা প্রত্যেকেই ফোরজির লাইসেন্স পাবে যদি তাদের আবেদন এবং সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র ঠিক থাকে।

তবে ফোরজির জন্যে সিটিসেলকে নতুন অপারেটর হিসেবে ধরা হবে। আর সে কারণে সিটিসেল কোনো স্পেকট্রাম কিনলেই কেবল তাকে ফোরজির লাইসেন্স দেওয়া হবে। নীতিমালায় এমন শর্তই রয়েছে বলে বলেন ওই কর্মকর্তা।

আবেদন গ্রহণের মাধ্যমে দেশে চতুর্থ প্রজন্মের সেবা চালুর আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া আরেক ধাপ এগিয়ে গেল বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি লাইসেন্স পাওয়া কোম্পানিগুলোর নাম চূড়ান্তভাবে জানানো হবে। তার আগের দিন হবে স্পেকট্রামের নিলাম। সরকার এই নিলাম থেকে প্রায় দশ হাজার কোটি টাকা আয় করবে বলে আশা করছে।

এদিকে ফোরজির লাইসেন্সিং প্রক্রিয়া এই পর্যায়ে আসতে বিটিআরসিকে আইনি লড়াইও মোকাবেলা করতে হয়েছে। ওয়াইম্যাক্স অপারেটর বাংলালায়ন বিটিআরসির ফোরজি লাইসেন্স দেওয়ার প্রক্রিয়াকে চ্যালেঞ্জ করলেও শেষ পর্যান্ত উচ্চ আদালত তা খারিজ করে দেয়।

আল-আমীন দেওয়ান

*

*

Related posts/