ভিওআইপি ও অবরোধে বাংলালিংকের আয়ে ধাক্কা

জামান আশরাফ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রাজস্ব আদায়ে বড় ধরণের ধাক্কা খেয়েছে দেশের দ্বিতীয় সেরা অপারেটর বাংলালিংক। ২০১৩ সালে অপারেটরটির আয় আগের বছরের তুলনায় ১৩ শতাংশ কমেছে।

আয় কমার কারণ হিসাবে শেষ হওয়া বছরের ৩২ দিনের অবরোধ এবং অবৈধ কল টার্মিনেশনের বিরুদ্ধে অভিযানকে দায়ী করেছে মোবাইল অপারেটরটি। এ প্রথম কোনো অপারেটরের কর্মকর্তারা অবৈধ টার্মিনেশনের বিরুদ্ধে অভিযান আয় কমেছে বলে স্বীকার করেছে।

গত সপ্তাহে প্রকাশিত বাংলালিংকের মূল কোম্পানি ভিম্পেল কম ২০১৩ সালের প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করে। তারা বলেছে, অবৈধ টার্মিনেশনের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে গিয়ে এ সময়ে বাংলাদেশ সরকার বাংলালিংকের ১ লাখ ৯০ সিম বন্ধ করে দিয়েছে। তার আগে ২০১২ সালের ডিসেম্বর থেকে পরের কয়েক মাসে কেবল এ অপারেটরের বন্ধ করা হয়েছে ১০ লাখ ৬০ হাজার সিম।

Banglalink Performance-TechShohor

এর আগে ২০০৮ সালে বিটিআরসি বাংলালিংকের অবৈধ টার্মিনেশনের সঙ্গে যুক্ত থাকার অপরাধে ১৬৮ কোটি টাকা জরিমানা করে।

তবে ঢাকায় বাংলালিংকের শীর্ষ কর্মকর্তারা বলছেন, অবৈধ টার্মিনেশনের বিষয়টি পুরনো ঘটনা। এ থেকে তাদের উত্তরণ হয়েছে। তাছাড়া ভিম্পেলকম আগের প্রতিবেদন থেকে কপি করে থাকতে পারে বলেও মন্তব্য করছেন তারা।

তবে অপারেটর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জিয়াদ সিতারা বলছেন, মূলত রাজনৈতিক অচলাবস্থাই তাদের ব্যবসায় প্রভাব ফেলেছে।
আর এ কারণে বাংলাদেশে যাত্রার পর থেকে এই প্রথম মোট রাজস্বের ক্ষেত্রে বাংলালিংকের আয় কমে গেছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৩ সালের শেষে তাদের রেভিনিউ দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৯’শ কোটি টাকা। আর ২০১২ সালে তা ছিল ৪ হাজার ৫৩৬ কোটি টাকা।

শেষ হওয়া বছরের প্রথম অর্ধে বাংলালিংকের আয় ছিল ১ হাজার ৯০০ কোটি টাকা। আর দ্বিতীয়ার্ধে তা দাঁড়ায় ২ হাজার কোটি টাকা। তবে অন্য অপারেটরগুলো কিন্তু শেষ অর্ধে প্রথম অর্ধের তুলনায় খারাপ করেছে বিশেষ করে গ্রামীণফোন এবং রবি। তবে বাংলালিংকের ক্ষেত্রে তা হয়নি।

বাংলালিংকের পুরনো বার্ষিক প্রতিবেদনগুলো বলছে, ২০১১ সালে তাদের মোট রেভিনিউ ছিল ৩ হাজার ৭৮৭ কোটি টাকা। ২০১০ সালে যা ছিল ৩ হাজার ১৮১ কোটি টাকা। আর ২০০৯ সালে এটি ছিল ২ হাজার ৪৩৭ কোটি টাকা।

রেভিনিউতে খুব একটা সুবিধা করতে না পারলেও গ্রাহক ধরার ক্ষেত্রে বেশ শক্ত অবস্থানে রয়েছে অপারেটরটি। ২০১৩ সালে তাদের নতুন আরো ৩০ লাখ গ্রাহক যোগ হয়ে দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৮৮ লাখে। গ্রাহক বৃদ্ধির হার ১১ শতাংশ। সব মিলে গ্রুপের মধ্যে যা সর্বোচ্চ।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, মোবাইল ডেটায় বাংলালিংকের আয় ৮৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

তবে একই সময়ে বাংলালিংকের গ্রাহক প্রতি আয় কমে গিয়ে মাসে দাঁড়িয়েছে ১১১ টাকা। ২০১২ সালের শেষে যা ছিল ১৩৮ টাকা। গ্রাহক প্রতি ব্যবহার মাসে ১৯১ মিনিট থেকে কমে দাঁড়িয়েছে ১৮৩ মিনিটে।

Related posts

*

*

Top