বাজেটের প্রভাব নেই প্রযুক্তি বাজারে, এসএসডির দাম বাড়ছে

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর :  ঈদকে সামনে রেখে জমে উঠেছে শহরের শপিং সেন্টারগুলো। পছন্দের পোশাক কিনতে ভিড় বাড়ছে ক্রেতাদের। তবে প্রযুক্তির বাজার এখনও জমতে শুরু করেনি। বিক্রেতারা অবশ্য আশা করছেন রমজানের শেষের দিকে বরাবরের মতো উৎসবের প্রভাব পড়বে প্রযুক্তি পণ্য কেনাকাটায়।

এদিকে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে কিছু পণ্যের শুল্ক বাড়ানো হলেও বাজারে তেমন প্রভা দেখা যায় নি। বাজেটে মডেম, রাউটারসহ নেটওয়ার্কিং ডিভাইসের আমদানি শুল্ক বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব রয়েছে। আগে যা ছিল ৫ শতাংশ। তবে আইডিবি ভবন ঘুরে দেখা যায়, বেশিরভাগ দোকানে আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে রাউটার।

একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া সাইদ হাসান পার্থ টেকশহর ডটকমকে জানান, তিনি ১ হাজার ৫৫০ টাকা দিয়ে আসুসের এন্টি লেভেলের একটি রাউটার কিনেছেন। এটি কেনার আগে দরযাচাই করে এসেছেন তিনি। তার কাছে বেশি দাম নেওয়া হয়নি বলে জানান তিনি।

idb-techshohor1

দেশে আসুসের পরিবেশক গ্লোবাল ব্র্যান্ডের প্রডাক্ট কমিউনিকেশন সল্যুশন বিভাগের প্রধান আকরাম হোসেন টেকশহর ডটকমকে জানান, তাদের ব্র্যান্ডের রাউটার বাজেটের আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে।

টিপিলিংকের টিএল-ডব্লিউআর৭৪০এন মডেলের সিঙ্গেল অ্যান্টেনারের রাউটার বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৪০০ টাকায়। এক্সেল টেকনোলজির বিক্রিয় কর্মকতা টেকশহর ডটকমকে বলেন, বাজেটের ফলে রাউটারের দাম কিছুটা বাড়বে। তবে বাজারে এখনও এর প্রভাব তেমন পড়েনি।

তবে বাজেটের আগে থেকেই সলিড স্ট্যাট ড্রাইভ বা এসএসডির দাম প্রতি সপ্তাহেই একটু একটু করে বাড়ছে। চলতি সপ্তাহে ১২৮ গিগাবাইট এসএসডি কার্ড বিক্রি হচ্ছে ৬ হাজার ২০০ টাকায়। গত সপ্তাহে যা সাড়ে ৫ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে।

ব্র্যান্ড ও আকার অনুযায়ী র‍্যাম বিক্রি হচ্ছে এক হাজার ২০০ টাকা থেকে শুরু করে ১১ হাজার টাকা পর্যন্ত। তিন হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৩০ হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে প্রসেসর।

ইন্টারনাল হার্ডড্রাইভের তুলনায় বাজারে বেশি  বিক্রি হচ্ছে পোর্টেবল হার্ডড্রাইভ। ৫০০ গিগাবাইট থেকে শুরু করে বাজারে ৮ টেরাবাইটের পোর্টেবল হার্ডড্রাইভ পাওয়া যাচ্ছে। ১২০ গিগাবাইটের এসএসডি বিক্রি হচ্ছে ৪ হাজার ৫০০ টাকায়।

ইন্টারনাল হার্ডড্রাইভের ক্ষেত্রে এক টেরাবাইট বিক্রি হচ্ছে ৩ হাজার ৮০০ টাকা থেকে ৪ হাজার টাকায়। দুই ও তিন টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ দাম যথাক্রমে ৮ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা।

বাজারে গেইমারদের জন্য চার হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৫৭ হাজার টাকা পর্যন্ত গ্রাফিক্স কার্ড বিক্রি হচ্ছে। চার হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৪৮ হাজার টাকার মধ্যে মাদার বোর্ড রয়েছে।

এ ছাড়া মনিটর, গ্রাফিক্স কার্ড, কিবোর্ড, মাউস, কেসিং ইত্যাদি আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে। বাজার ঘুরে দেখা যায়, ল্যাপটপের প্রতি গ্রাহকদের আগ্রহ তুলনামূলক বেশি। তবে গেইমারদের পছন্দ ডেস্কটপ কম্পিউটারের দিকে।

দাম বাড়ছে মডেম রাউটারের, কমছে স্পিকারে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : মডেম, রাউটারসহ নেটওয়ার্কিং ডিভাইসের দাম বাড়ছে। তবে কমতে পারে স্পিকারের দাম। দাম বাড়ার মধ্যে উল্লেখিত দুটি ডিভাইস ছাড়াও রয়েছে ইথারনেট ইন্টারফেস কার্ড, নেটওয়ার্ক সুইচ হাব।

২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে এগুলোর আমদানি শুল্ক বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব রয়েছে। যা আগে ছিল ৫ শতাংশ।

অন্যদিকে কম্পিউটার যন্ত্রাংশ হিসেবে বিবেচিত স্পিকারের আমদানি শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে১ শতাংশে আনার প্রস্তাব করা হয়।

বৃহস্পতিবার  জাতীয় সংসদে ২০১৭–১৮ অর্থবছরের বাজেটে এ প্রস্তাব করা হয়। বাজেট উত্থাপনকরেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

আল-আমীন দেওয়ান

 

ওয়াইফাইয়ের গতি বাড়াতে ৫ কৌশল

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অনেকের কাছেই ওয়াইফাই এখন পানি কিংবা বিদ্যুতের মতো অতি প্রয়োজনীয় একটি সেবা। বেশিরভাগ ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার তারবিহীন মডেম বা রাউটারের মাধ্যমে ইন্টারনেট সেবা প্রদান করে থাকে। এবার এই ওয়াইফাইয়ে ইন্টারনেটের গতি বাড়াতে ৫টি সহজ কৌশল জেনে নেয়া যাক :

১. রাউটার রাখুন কোণায়

অনেকেই মনে করেন, ঘরের একটি কোণায় বা জানালার কাছে রাউটার রেখে দিলে নেটওয়ার্ক কাভারেজ বেশি পাওয়া যায়। কিন্তু বাস্তবে হয় এর উল্টোটা। আদতে ওয়াইফাইয়ের রেঞ্জ সীমিত হয়ে এটির সিগন্যাল সব দিকে ছড়িয়ে পড়ে। তাই বাড়ির সর্বত্র নেটওয়ার্ক কভারেজ পেতে রাউটার সব সময় ঘরের মাঝখানে উঁচু কোনো স্থানে রাখা উচিত।

২. অতিথিদের জন্য আলাদা পাসওয়ার্ড

কারও কাছ থেকে প্রাইমারি পাসওয়ার্ডটি গোপন রাখতে চাইলে সিলেক্ট করতে পারেন গেস্ট নেটওয়ার্ক অপশনটি। এটি আপনাকে নতুন একটি পাসওয়ার্ড সেট করতে বলবে। এর পাশাপাশি এতে ব্যবহারকারীদের সংখ্যা নির্ধারণ করে দেওয়ারও সুযোগ রাখা হয়েছে।

wifi.techshohor

৩. ব্যবহার করুন রিপিটার

ছোট স্টুডিও অ্যাপার্টমেন্ট ছাড়া পুরো একটি বাড়িতে সাধারণত ওয়াইফাইয়ের নেটওয়ার্ক পাওয়া যায় না।এই সমস্যা সমাধানে কাজে দেবে ‘রিপিটার’। স্বল্পমূল্যের এই যন্ত্রটি রাউটার থেকে ওয়াইফাই সিগন্যাল নিয়ে শক্তিশালী কভারেজ স্থাপন করে। আলাদাভাবে কিনতে না চাইলে ঘরে থাকা পুরোনো রাউটারকেই রিপিটার বানিয়ে নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে সেটিংসে গিয়ে কনফিগারেশনে কিছু পরিবর্তন আনতে হবে। রিপিটার কানেক্ট করতে রাউটারে থাকা ওয়াইফাই প্রোটেক্টেট সেটআপ (ডাব্লুপিএস) অপশনটি সিলেক্ট করে রিপিটারে থাকা ডাব্লুপিএস বাটনটি চাপতে হবে। ব্যস, এক মিনিটের মধ্যেই কানেক্ট হয়ে যাবে রিপিটার।

৪. বদলে দিন ওয়াইফাইয়ের পাসওয়ার্ড

বছরের পর বছর ধরে একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করলে ওয়াইফাইয়ের গতি কমে যাওয়ার চান্স থাকে। আপনার অজান্তেই হয়তো পাড়া প্রতিবেশি বা কাছের কেউ ব্যবহার করছে পুরানো সেই পাসওয়ার্ড। এতে একদিকে ওয়াইফায়ের গতি যেমন কমে যাচ্ছে তেমনি দ্রুত শেষ হয়ে যাচ্ছে প্রতি মাসে কেনা ডাটার পরিমাণ। তাই প্রতি ৬ মাসে একবার করে পাসওয়ার্ড বদল করলেই ফিরে পাবেন ওয়াইফাইয়ের সেই প্রথম দিককার গতি।

৫. ব্যবহার করুন ইউএসবি রাউটার

আপনার রাউটারে ইউএসবি পোর্ট থাকলে তা ওয়াইফাই সিগন্যাল ছাড়াও আরও কিছু কাজ করতে সক্ষম। চাইলে এর ইউএসবি পোর্টে এক্সর্টানাল হার্ডড্রাইভ ও প্রিন্টার কানেক্ট করা যাবে।

আনিকা জীনাত

টোটোলিঙ্ক এ৮৫০আর : ডুয়াল ব্যান্ডে এগিয়ে

এস এম তাহমিদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ল্যাপটপ, স্মার্টফোন বা ট্যাব প্রায় সব স্মার্ট গ্যাজেটে এখন বেশিরভাগই ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। তবে দুঃখজনক হলেও সত্যি, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই আমরা ওয়াই-ফাই রাউটার কেনার সময় সবচাইতে কম মনযোগ দিয়ে থাকি। ফলে প্রায়ই লিমিটেড কানেক্টিভিটি, খারাপ সিগন্যাল ও কম স্পিডের সমস্যায় পরতে হয়। এ কারণে রাউটার কেনার আগে বেশ কিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে।

এ দেশের বাজারে টোটোলিঙ্ক নামটি তেমন জনপ্রিয় না হলেও অনেক দেশে বাজেট রাউটারের মধ্যে এটি বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

এ ব্র্যান্ডের এ৮৫০আর মডেলের রাউটারটি বাজেটের মাঝে সবচাইতে ভাল স্পিড ও নির্ভরযোগ্যগুলোর একটি।

এক নজরে টোটোলিঙ্ক এ৮৫০আর

  • চারটি ল্যান ও একটি ওয়্যান পোর্ট (১০/১০০ মেগাবিট)
  • ২.৪ গিগাহার্জ ৮০২.১১এন ও ৫ গিগাহার্জ ৮০২.১১এসি ওয়াই-ফাই, যা সব মিলিয়ে ১২০০ মেগাবিট পর্যন্ত নেট স্পিড যোগান দিতে সক্ষম
  • চারটি ওয়াই-ফাই অ্যান্টেনা

৫ গিগাহার্জ ওয়াই-ফাই সিগন্যাল মূলত যারা হাই ডেফিনিশন ভিডিও স্ট্রিম, ফাইল শেয়ার বা তারবিহীন ডিসপ্লে ব্যবহার করেন তাদের জন্য তৈরি।

একটি ফাইল সার্ভারে সব ফাইল রেখে ফোন, ট্যাবলেট, ল্যাপটপ বা পিসি সবকিছু থেকে ব্যবহার করার সুবিধা থাকলে বার বার ফাইল ট্রান্সফারের সমস্যা অনেক কমানো সম্ভব। এ জন্য ৫ গিগাহার্জ ওয়াই-ফাই খুবই জরুরি। কেননা ২.৪ গিগাহার্জ ওয়াই-ফাইয়ের লেটেন্সি (কমান্ড দেওয়া ও কাজ শুরুর মাঝের সময়) সমস্যা এতে নেই।

ডিজাইন
সাদা রঙের চার কোনা বাক্সের মতো রাউটারটির তৈরিতে প্লাস্টিক ব্যবহার করা হয়েছে। তবে সাধারণ ব্যবহারে এটি ক্ষতিগ্রস্ত হবার সম্ভাবনা নেই।

এর ওপরের অংশে রয়েছে চারটি অ্যান্টেনা, পেছনের পোর্টগুলো ও নীচে প্রয়োজনীয় সব তথ্য সম্বলিত স্টিকার। মূলত অন্যান্য রাউটারের দেখতে তেমন কোনো পার্থক্য নেই।

সফটওয়্যার
প্রায় সব রাউটারের ক্ষেত্রেই সকল ফিচার ব্যবহারের জন্য ওয়েব পোর্টাল ব্যবহার করা হয়। টোটোলিঙ্কের ক্ষেত্রেও ব্যতিক্রম নয়।

এতে তেমন ব্যাতিক্রমি ফিচার না থাকলেও, প্রায় সকল প্রকারের ব্রডব্যান্ড কানেকশন (ডিএইচসিপি, স্ট্যাটিক আইপি ও পিপিটিপি), আলাদা আলাদা ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক, কানেকশন প্রতি স্পিড কন্ট্রোল- এমন সব জরুরি ফিচার ঠিকই রয়েছে।

পারফরমেন্স
একটি রাউটারের মূল পারফরমেন্স নির্ভর করে সেটির স্পিডের ওপর। বাজেট রাউটারের মধ্যে এ৮৫০আর সেদিক থেকে বেশ এগিয়ে।

২.৪ গিগাহার্জ ব্যান্ডে ৩০০ মেগাবিট ও ৫ গিগাহার্জ ব্যান্ডে ৮৬৭ মেগাবিট পর্যন্ত স্পিড দিতে সক্ষম এটি। তবে সাধারণত ১০০ মেগাবিট পর্যন্ত স্পিড ঠিকঠাক পাওয়া যাবে।

এর মূল আকর্ষণ ৫ গিগাহার্জ ব্যান্ডটিতে প্রায় কোনও লেটেন্সি ছাড়াই তথ্য আদান প্রদান করার সুবিধা থাকায় তারবিহীন ডিসপ্লে, ভিডিও স্ট্রিমিং ও গেইম খেলার মতো কাজ করতে কোনও সমস্যা হবে না।

শুধু তাই নয়, আপলোড ও ডাউনলোড সমান তালে চালিয়ে যাবার জন্য এতে মিমো টেকনোলজি ব্যাবহার করা হয়েছে।

পদার্থবিদ্যাগত সীমাবদ্ধতার কারণে ৫ গিগাহার্জ ওয়াই-ফাইয়ের রেঞ্জ কখনই দুটি রুমের বেশি না হলেও, ২.৪ গিগাহার্জ ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কটির রেঞ্জ যথেষ্ট ভালো।

অনায়াসে একটি ১৫০০-২০০০ বর্গফুট বাসা বা অফিসের যে কোনও জায়গা থেকে ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক পাওয়া যাবে।

রাউটারটির কেসিংয়ে প্রচুর তাপ বেড়িয়ে যাওয়ার ভেন্ট থাকার ফলে রাউটারটি ওভারহিট হয়ে হ্যাং করার সম্ভাবনা নেই।

মূল্য
বাজারে ৪৫০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে রাউটারটি।

এক নজরে ভাল

  • ডুয়াল ব্যান্ড ওয়াই-ফাই, ভালো স্পিডে ডেটা ট্রান্সফারের সুবিধা
  • ভাল রেঞ্জ
  • চমৎকার থার্মাল ডিজাইন

এক নজরে খারাপ

  • গিগাবিট ল্যান ও ওয়্যান নেই। তবে এ দামে গিগাবিট ল্যান ও ডুয়াল ব্যান্ড ওয়াই-ফাই এখনও বাজারে নেই
  • ইউএসবি পোর্ট নেই। ফলে ফাইল সার্ভার বা প্রিন্টার শেয়ার করার সুবিধা নেই

আরও পড়ুন: 

কয়েকটি ব্র্যান্ডের প্রযুক্তিপণ্য আনলো কম্পিউটার সিটি টেকনোলজিস

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের বাজারে বেশ কয়েকটি ব্র্যান্ডের ভিন্ন ভিন্ন পণ্য এনেছে পরিবেশক প্রতিষ্ঠান কম্পিউটার সিটি টেকনোলাজিস লিমিটেড। এগুলোর মধ্যে রয়েছে ওয়াইফাই রাউটার, ব্লুটুথ হেডফোন, ফিঙ্গারপ্রিন্ট যন্ত্র এবং এনভিআর।

সম্প্রতি পণ্যগুলো দেশের বাজারে বিক্রি শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

Computer city-Tech-Techshohor
নেটগিয়ারের ওয়াইফাই রেঞ্জ এক্সটেন্ডার
নেটগিয়ার ব্র্যান্ডের ইএক্স৩৭০০ মডেলের ওয়াইফাই রেঞ্জ এক্সটেন্ডার এনেছে প্রতিষ্ঠানটি। প্রতি সেকেন্ডে সর্বোচ্চ ৭৫০ মেগাবাইট গতিতে রেঞ্জ এক্সটেন্ডারটি একটি বাড়িতে কিংবা অফিসে ব্যবহৃত ওয়াইফাই-এর পরিধি বৃদ্ধি করতে সক্ষম। ডুয়েল ব্যান্ডের এই পণ্যটি নতুন ৮০২.১১এসি এবং বি/জি/এন ওয়াইফাই ডিভাইস সমর্থন করে। অধিক কার্যকরিতার জন্য এক্সটেন্ডারটিতে ব্যবহার করা হয়েছে দু’টি এক্সটার্নাল এ্যান্টেনা। এটি খুব সহজে যেকোনো প্লাগে সংযোগ দিয়ে ব্যবহার করা যায়। যেকোনো ব্র্যান্ডের ওয়াইফাই রাউটারের সাথে এটি কাজ করে। রাউটারটির দামচার হাজার ৭৫০ টাকা।

হ্যাভিটের হেডফোন
বাংলাদেশে হ্যাভিট ব্রান্ডের পরিবেশক হিসেবে কম্পিউটার সিটি টেকনোলজিস লি. এইচভি-২৫৫৬বিটি মডেলের তারহীন ব্লু-টুথ হেডফোন নিয়ে এসেছে। হেডফোনের সঙ্গে বিনামূল্যে এইচভি-ই৮৬পি মডেলের একটি আকর্ষনীয় এয়ারফোন দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। হেডফোনটিতে ৩৬ মিলিমিটার আকারের স্পিকার ব্যবহার হয়েছে। এতে রয়েছে ৫০০ মিলিএ্যাম্পায়ার ব্যাটারি যা মাত্র দেড় ঘণ্টায় চার্জ হয় এবং ৫-৬ ঘণ্টা টানা ব্যবহার করা যায়। এর তারহীন দূরত্ব সর্বোচ্চ ১০ মিটার (৩০ ফিট)। ফ্রি এয়ারফোন সহ হেডফোনটির দাম এক হাজার ৪০০ টাকা।

জেডকেটেকোর ফিঙ্গারপ্রিন্ট যন্ত্র
জেডকেটেকো ব্র্যান্ডের এফ১৮ মডেলের স্বতন্ত্র উপস্থিতি (টাইম এ্যাটেন্ডেন্স) ও প্রবেশ নিয়ন্ত্রন (এ্যাকসেস কন্ট্রোল) যন্ত্রও এনেছে প্রতিষ্ঠানটি। ডিভাইসটির আঙ্গুলাঙ্ক (ফিঙ্গারপ্রিন্ট) ধারণ ক্ষমতা ৩০০০ এবং পরিচয়পত্র (আইডি কার্ড) ধারণ ক্ষমতা ৫০০০। নিখুঁত ও দ্রুততার সাথে আঙ্গুলাঙ্ক সনাক্ত করার জন্য ডিভাইসটিতে জেডকেটেকোর উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ফিঙ্গারপ্রিন্ট ম্যাচিং এ্যালগোরিদম ও উচ্চ মানের ফিঙ্গারপ্রিন্ট সনাক্তকরণ সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে। এর দাম ১৪ হাজার টাকা।

ইউনিভিউ ব্র্যান্ডের ৩২-চ্যানেল এনভিআর
৩২ চ্যানেল এনভিআর (নেটওয়ার্ক ভিডিও রেকর্ডার)। ডিভাইসটির মডেল এনভিআর৩০৪-৩২ই। ইউনিভিউ ছাড়াও এটি তৃতীয় পক্ষের আইপি ক্যামেরা সমর্থন করে। এর ইনকামিং ও আউটগোইং ব্যান্ডউইডথ প্রতি সেকেন্ডে ৩২০ মেগাবাইট। এনভিআরটি সর্বোচ্চ ৮ মেগাপিক্সেল রেজুল্যুশনে ভিডিও ধারণ করতে পারে। এটি সর্বাধুনিক এইচ২৬৫ প্রযুক্তির ভিডিও সংকোচন ফরম্যাট সমর্থন করে যা হার্ডডিস্কে অধিক পরিমান ভিডিও তথ্য সংরক্ষণ করতে পারে।

এনভিআরটিতে ৪টি সাটা পোর্ট রয়েছে যা সর্বোচ্চ ২৪ টেরাবাইট পর্যন্ত হার্ডডিস্ক সমর্থন করে। এতে একটি ভিজিএ, একটি এইচডিএমআই ১, একটি এইচডিএমআই ২ ও একটি অডিও আরসিএ পোর্ট রয়েছে।

এনভিআরটির দাম ৫২ হাজার টাকা।

ইমরান হোসেন মিলন

নতুন ওয়াই-ফাই রাউটার আনছে গুগল

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গুগলের অনহাব রাউটারের কথা অনেকেই জানেন। গত বছরের আগস্টে এই রাউটার বাজারে আনে গুগল। বেশ জনপ্রিয় হলেও এবার ভিন্ন নামে, ভিন্ন ফিচারে নতুন ওয়াই-ফাই রাউটার আনবে গুগল। যার নাম হবে শুধুমাত্র ‘গুগল ওয়াই-ফাই’।

সংবাদ মাধ্যম অ্যান্ড্রয়েড পুলিশ জানিয়েছে, আগামী ৪ অক্টোবর পিক্সেল ফোনের উন্মোচন অনুষ্ঠানে নতুন এই রাউটারের ঘোষনা দিতে পারে প্রযুক্তি জায়ান্টটি।

অনহাব রাউটারের প্রায় সকল স্মার্ট ফিচার নতুন এই রাউটারে থাকছে। তবে অনহাবের থেকে এই রাউটারের বড় পার্থক্য হলো এটির মাধ্যমে একাধিক রাউটার যুক্ত করা যাবে। ফলে ওয়াই-ফাই সীমা বাড়বে ও নেটওয়ার্ক শক্তিশালী হবে।

Google-Wi-Fi-OnHub-Router-TechShohor

অ্যান্ড্রয়েড পুলিশ আরও জানিয়েছে, এটি দেখতে অনেকটা অ্যামাজন ইকো ডটের মতো। ফলে এটি সহজে বহনযোগ্য। গুগলের এই রাউটারটির দাম ১২৯ ডলার নির্ধারণ করা হতে পারে।

প্রযুক্তি দুনিয়ার সবাই এখন সামনের মাসের গুগলের ইভেন্ট নিয়ে বেশ উৎসাহী। ধারণা করা হচ্ছে, পিক্সেল স্মার্টফোন এবং গুগল ওয়াই-ফাই ছাড়াও সাত ইঞ্চি পর্দার একটি ট্যাব, ফোরকে উপযোগী ক্রোমকাস্ট, ডেড্রিম ভিআর হেডসেট উন্মোচন করতে পারে গুগল। তবে ৪ অক্টোবরের আগে কোনো কিছুই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

অবশ্য এ বিষয়ে গুগল কোনো মন্তব্য করেনি। ফলে বাস্তবতা দেখার জন্য আগামী ৪ অক্টোবর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। ধারণা করা হচ্ছে, ঐ অনুষ্ঠানে পিক্সেল ফোনের পাশাপাশি সাত ইঞ্চির ট্যাব, ক্রোমকাস্টের নতুন সংস্করণ, ভিআর হেডসেটসহ বেশ কিছু নতুন ডিভাইস আনতে পারে।

দ্য নেক্সট ওয়েব অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

আরও পড়ুন: 

ডিলিংকের আল্ট্রা ওয়াইফাই রাউটার বাজারে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের বাজারে এসেছে ডিলিংকের আল্ট্রা ওয়াইফাই রাউটার। এই রাউটারটি বাংলাদেশের বাজারে এনেছে পরিবেশক প্রতিষ্ঠান কম্পিউটার সোর্স।

পরিবেশক প্রতিষ্ঠানের দাবি, ডিআইআর ৮৯০এল মডেলের রাউটারটি নেটওয়ার্ক ড্রপ কিংবা বাধার দেয়াল ভেদ করে সর্বোচ্চ কাভারেজ দিতে সক্ষম।  ফলে অনলাইনে দুর্দান্ত গতির গেইম খেলা, ফোর কে এইচডি স্ট্রিমিং এবং অনলাইন মুভি দেখার সুবিধা পাওয়া যাবে এটি দিয়ে।

DLink WiFi Router-techshohor

এই এসি৩২০০ রাউটারটি তিনটি ব্যান্ডেই কাজ করে। নেটওয়ার্ক গতি প্রতি সেকেন্ডে ৩.২জিবি পর্যন্ত। এতে স্মার্ট বিম ফরমিং প্রযুক্তি থাকায় পুরু দেয়ালের সিগন্যাল বাধা জয় করে সহজেই। চতুর্দিকে শক্তিশালী ইন্টার সংযোগ অটুট রাখতে ৬টি এক্সটার্নাল অ্যান্টেনার পাশাপাশি রাউটারটিতে ৪টি গিগা ল্যান, ১টি গিগা ওয়্যান এবং ২টি ইউএসবি পোর্ট রয়েছে।

এর ইউএসবি পোর্টের মাধ্যমে স্টোরেজ ডিভাইস ও প্রিন্টার সংযুক্ত করা যায় অনায়াসে। রাউটারটির দাম পড়বে ২২ হাজার টাকা।

শামীম রাহমান

রাউটারের ওয়াই-ফাই ধীর হলে কী করবেন

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে স্মার্ট ডিভাইসের ব্যবহার বাড়ছে। অনলাইনে কাজের জন্যই বেশি ব্যবহার হচ্ছে । এ জন্য ইন্টারনেটের খরচ বাঁচাতে অনেকেই বাসার ব্রডব্যান্ড সংযোগটিকে ওয়াই-ফাই করে থাকেন।

তবে নানা কারনে এ ওয়াই-ফাই সংযোগের গতি ধীর হয়ে যায়। ফলে তা নিয়ে বিপাকে পড়তে হয় ব্যবহারকারীদের।

কিভাবে ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট সংযোগের গতি আরও বাড়িয়ে তোলা যাবে তা এই টিউটোরিয়ালে তুলে ধরা হলো।

wifi-router-techshohor
অচেনা ব্যবহারকারী
ওয়াই-ফাই সংযোগের গতি কমার প্রথম কারণ হতে পারে একত্রে একাধিক ব্যক্তির ওই সংযোগের ইন্টারনেট ব্যবহার। অনেক সময় বাসার আশাপাশের অনেকেই পাসওয়ার্ড জেনে যায়। ব্যবহারকারীর অগোচরে তারা ইন্টারনেট ব্যবহার করতে থাকেন।

তাই ইন্টারনেটের গতি ধীর মনে হলে প্রথমে চেক করতে হবে অচেনা বা অজানা কারও আপনার ওয়াই-ফাই ব্যবহারের বিষয়টি। এটি চেক করতে ওয়াই-ফাই রাউটারের ড্যাশবোর্ড প্রবেশ করে আইপিগুলো চেক করতে হবে।

এতে দেখা যাবে বর্তমানে কয়টি সংযোগ আপনার ওয়াই-ফাই ব্যবহার করছে। সেখান থেকে অচেনা আইপিগুলো ব্লক করে দেওয়া যায়।

এ ছাড়া ওয়াই-ফাইয়ের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করেও এ সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

স্বয়ংক্রিয় আপডেট
কম্পিউটার বা স্মার্টফোনে স্বয়ংক্রিয় আপডেট অনেক সময় চালু থাকে। ফলে ব্যাকগ্রাউন্ডে অনেক অ্যাপ্লিকেশন আপডেট হতে থাকে। এতে ইন্টারনেটের গতি কমে যায়। ব্রাউজ করার সময় ওয়াই-ফাই সংযোগ ধীর মনে হয়।

তাই ওয়াই-ফাই সংযোগ স্বাভাবিকের চেয়ে ধীর মনে হলে ডিভাইসটিতে কোনো সফটওয়্যার অটো আপডেট হচ্ছে কিনা তা চেক করে নিতে হবে।

wifi-techshoor

রাউটারের অবস্থান
রাউটারটি বাসার কোন জায়গায় অবস্থান করছে সেটির ওপরও নির্ভর করে এর গতি। তাই ওয়াই-ফাই সংযোগের গতি কম হলে সেটি এমন এক স্থানে রাখতে হবে যেখান থেকে ডিভাইসের দূরত্ব যাবে খুব বেশি মনে না হয়।

এক্ষেত্রে রাউটারটি উপরে রাখা হলে খুব ভালো ফল মিলবে। যত উপরে রাখা হবে ততো ভালো গতি পাওয়া যাবে। রাউটারটিকে উপরে রাখা হলে এর রেডিও ওয়েভগুলো সর্বোচ্চভাবে ব্রডকাস্ট করতে সক্ষম হয়। তাই সম্ভব হলে রুমের  উঁচু স্থানে রাউটারটি রাখা ভালো।

এ ছাড়া রাউটারটি ব্যবহারকারীর রুমের কাছাকাছি রাখলে ভালো গতি পাওয়া যাবে।

আরও পড়ুন 

নেটিস ব্রান্ডের নতুন রাউটার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের বাজরে নেটিস ব্র্যান্ডের ডব্লিউএফ২৪১১ মডেলের ওয়্যারলেস রাউটার নিয়ে এসেছে পরিবেশক প্রতিষ্ঠান স্মার্ট টেকনোলজিস (বিডি) লি.।
এক অ্যান্টেনার রাউটারটিতে রয়েছে ৫ডিবিআই ক্যাপাসিটি এবং ১৫০ এমবিপিএস গতি।

Netis_Router-Techshohor
রাউটারটিতে বিশেষ আইপি টিভি ফাংশন থাকায় ইন্টারনেটে স্পষ্টভাবে টিভি দেখা সম্ভব। রাউটারটি হোম ইউজার এবং ক্ষুদ্র ও ক্ষুদ্রমাঝারি প্রতিষ্ঠানের জন্য অত্যন্ত কার্যকর।
এক বছরের ওয়্যারেন্টিসহ এর দাম ১৪০০ টাকা।
ইমরান হোসেন মিলন

টোটোলিংকের পোর্টেবল রাউটার আই পাপ্পি৫

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাজারে এসেছে কোরিয়ান ব্র্যান্ড টোটোলিংকের পোর্টেবল রাউটার আই পাপ্পি৫। রাউটারটি দেশের বাজারে এনেছে গ্লোবাল ব্র্যান্ড প্রাইভেট লিমিটেড। বৃহস্পতিবার থেকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শুরু হওয়া আইসিটি এক্সেপোতেও পাওয়া যাচ্ছে রাউটারটি।

আই পাপ্পি৫ রাউটারটি ৩জি/৪জি সর্মথন করে। সহজে বহনযোগ্য। রয়েছে ইউএসবি পোর্ট সুবিধা, যার মাধ্যমে ৩জি মডেম সংযোগ দেয়া যায়।

iPuppy 5

রয়েছে মাল্টিপল এসএসআইডি, কিউওএস ও ডাব্লিউপিএ/ডাব্লিউপি২। রাউটারটি প্রতি সেকেন্ডে ১৫০ মেগাবাইট পর্যন্ত নেটওয়ার্ক সাপ্লাই দেয়। ১x২ডিবিআই ইন্টারনাল অ্যান্টেনাযুক্ত রাউটারটির দাম এক হাজার ৮০০ টাকা।

আইসিটি এক্সপোতে এই রাউটারটি কিনলে স্ক্র্যাচ কার্ডের মাধ্যমে ক্রেতারা পেতে পারেন স্মার্টফোন, হার্ডড্রাইভ, পাওয়ার ব্যাংক, সেলফি স্টিক, ইয়ারফোন, পেনড্রাইভ, স্পিকার, টি-শার্টসহ বিভিন্ন আকর্ষণীয় উপহার।

শামীম রাহমান

নির্দিষ্ট সময়ে ওয়েবসাইট ব্লকের কৌশল

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ধরুণ আপনার বাসায় বা অফিসে সবাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসক্ত। আপনি চাইছেন দিনের নিদিষ্ট একটি সময় কিছু ওয়েবসাইট ব্লক বা বন্ধ রাখতে। রাউটারে কিভাবে নির্দিষ্ট কোনাে ওয়েবসাইট কিভাবে ব্লক করতে হয় তা গত টিউটোরিয়ালে তুলে ধরা হয়েছিল। এবার প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময় ওয়েবসাইট ব্লক বা চালুর ক্ষেত্রে প্রতিবার ব্লক করে আবার খুলে দেওয়া ঝামেলার কাজ। তবে কিছু কৌশল জানা থাকলে নিদিষ্ট সময়ে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্লক করা যাবে যে কোনো সাইট।

কিভাবে তা করতে হবে তা এ টিউটোরিয়ালে তুলে ধরা হলো।

প্রথমে রাউটারের এডমিন প্যানেলে প্রবেশ করতে হবে ইউজার নাম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে। ডি-লিংক রাউটার ব্যবহারকারীদের এ ঠিকানায় যেতে হবে।

তারপর এডমিন প্যানেল থেকে ‘advanced’-এ যেতে হবে।

1

তাহলে নতুন একটি পেইজ চালু হবে। সেখান থেকে বাম দিকের অপশন থেকে ‘parental control rules’-এ ক্লিক করতে হবে।

2

তারপর ‘website url’-এর অপশনে থাকা খালি ঘরে যে ওয়েবসাইট ব্লক করতে হবে সেটির লিংক দিতে হবে। এরপর পাশে থাকা টিক চিহ্ন দিয়ে দিতে হবে।

3

ওয়েবসাইটের ঠিকানা দেওয়ার পর পাশে থাকা ‘add new’ অপশন ক্লিক করতে হবে। তাহলে একটি নতুন পেইজ চালু হবে।

4

সেখান থেকে উপরে ‘name’-এ একটি নাম দিতে হবে। এরপর বার ও সময় নির্ধারণ করে ‘save settings’-এ ক্লিক করতে হবে।

তাহলে নিদিষ্ট সময়ে সাইট ব্লক হবে আবার আনব্লক হবে।

আরও পড়ুন