এইচপি ওমেন ১৫ : গেইমিংয়ে দারুণ, দামও চড়া নয়

এস এম তাহমিদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গেমিং ল্যাপটপ মানেই বেশ চড়া মূল্যের মোটা ও ভারি একটি নোটবুক কম্পিউটারই চোখের সামনে ভেসে উঠে। এইচপি এ তিন বাজে দিকের দুটি পুরোপুরি ও একটি অল্পবিস্তর বদলে দিতেই বাজারে এনেছে ওমেন সিরিজের ল্যাপটপ।

এ সিরিজের অনেকগুলো ডিভাইসের মধ্যে ১৫.৬ ইঞ্চি কোর আই ৭ ও এনভিডিয়া জিটিএক্স ১০৫০টিআই সমৃদ্ধ মডেলটির খুঁটিনাটিসহ আজ আমরা পরীক্ষা করে দেখব- এটি কি আসলেই সব ধরনের গেইম ভালোভাবে চালাতে সক্ষম কিনা।

এক নজরে এইচপি অমেন ১৫ (২০১৭)

  • সপ্তম প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই ৭ ৭৭০০এইচকিউ, ২.৮ গিগাহার্জ গতির কোয়াডকোর প্রসেসর
  • ১৫.৬ ইঞ্চি, ফুল এইচডি আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে
  • ১৬ গিগাবাইট, ২৪০০ মেগাহার্জ গতির ডিডিআর৪ র‌্যাম
  • ১২৮ গিগাবাইট এম.২ এসএসডি, ১ টেরাবাইট ধারণক্ষমতার ৭২০০ আরপিএম হার্ড-ডিস্ক
  • এনভিডিয়া জিটিএক্স ১০৫০টিআই গ্রাফিক্স চিপ, ৪ গিগাবাইট জিডিডিআর৫ ভির‌্যাম
  • গিগাবিট ল্যান, ৮০১.১১এসি ওয়াই-ফাই (ওয়্যারলেস ডিসপ্লে সমর্থিত), ব্লুটুথ ৪.২
  • মেমরি কার্ড রিডার
  • একটি ইউএসবি ২.০ পোর্ট, একটি এইচডিএমআই পোর্ট, একটি ল্যান পোর্ট, হেডফোন ও মাইক্রোফোন কম্বো জ্যাক
  • দুটি ইউএসবি ৩.১ প্রথম জেনারেশন ৫ গিগাবিট পোর্ট
  • ৮৮ ডিগ্রি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল হাই-ডেফিনিশন ওয়েব ক্যামেরা
  • ব্যাং অ্যান্ড অলুফসেন অডিও
  • ব্যাকলিট কিবোর্ড
  • ৪ সেল ব্যাটারি, ১৫০ ওয়াটের অ্যাডাপ্টার
  • ২.২ কিলোগ্রাম ওজন

ডিজাইন
বরাবরের মতোই গেমিং ল্যাপটপ মানেই উদ্দীপ্ত ডিজাইন ও উজ্জ্বল রং – সেই ধারণা ওমেন সিরিজটি বেশ বদলে দিয়েছে। স্মার্ট ব্ল্যাক ফিনিশের এ মডেল চোখকে টানবে না। শুধু মাঝখানে অবস্থিত লাল লোগো ও কিবোর্ডের লাল ব্যাকলাইট ছাড়া আর তেমন রঙের ছোঁয়া নেই।

ল্যাপটপটির ওপরের অংশে অনেকটা কার্বন-ফাইবারের ন্যায় টেক্সচার দেওয়া হয়েছে। এর মাঝখানে রয়েছে ওমেন লোগো – এইচপির লোগো নয়।

একই টেক্সচার দেখা গেছে ডিভাইসটির পাম রেস্ট অংশটিতেও। তবে নিচের অংশ ও মনিটরের বেজেলে কোনও টেক্সচার নেই।

নোটবুকটিতে ডেস্কটপ গ্রেড গ্রাফিক্স চিপ থাকলেও এটি কোনওভাবেই খুব মোটা বলা যাবে না।

সব মিলিয়ে, অনেকেই ল্যাপটপটি দেখে গেমিং ল্যাপটপ ভাববেন না – যা অফিসে ব্যবহার করার জন্য খুবই গুরত্বপূর্ণ।

এটির ডান পাশে রয়েছে পাওয়ার পোর্ট, ল্যান জ্যাক, এইচডিএমআই পোর্ট, ইউএসবি ২ পোর্ট ও কার্ড রিডার। বাকি দুটি ইউএসবি পোর্ট ও হেডফোন জ্যাক রয়েছে বাম পাশে।

সামনে ও পেছনে কোনও পোর্ট দেওয়া হয়নি। প্রায় সকল কুলিং ভেন্ট পেছনে অবস্থিত।

চিকলেট স্টাইলের লাল ব্যাকলাইটের কিবোর্ডটি রয়েছে ডিসপ্লের ঠিক সামনেই, যার নিচে রয়েছে বর্ডারবিহীন টাচপ্যাড। অবশ্য তুলনামূলকভাবে ছোট টাচপ্যাডটির ওপরে আরও স্মুথ ফিনিশিং দেয়া যেত। এ ছাড়া বিল্ড কোয়ালিটিতে তেমন সমস্যা নেই।

ডিসপ্লে
১০৮০পি ফুল এইচডি রেজুলেশন ১৫.৬ ইঞ্চি ডিসপ্লের তুলনায় কিছুটা কম। এ রেজুলেশন গেইমের ক্ষেত্রে আজও আদর্শ হবার ফলে এ ল্যাপটপের ক্ষেত্রে তা অস্বাভাবিক নয়।

ডিসপ্লের পিক্সেল ঘনত্ব অন্যান্য ল্যাপটপের চেয়ে খুব ভাল না হলেও ব্রাইটনেস, কন্ট্রাস্ট ও কালার ব্যালান্সে বেশ এগিয়ে রয়েছে।

আইপিএস প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে ভিউইং অ্যাঙ্গেলের দিক থেকে ল্যাপটপটি খুবই ভালো। তবে কিছু কালার শিফট চোখে পড়তে পারে।

অন্যদিকে ভালো পরিমাণ ব্রাইটনেস ও ম্যাট ফিনিশের ফলে ডিসপ্লেটি প্রখর রোদেও সুন্দরভাবে ব্যবহার করা যাবে। তাই বলে ম্যাকবুকের মতো ব্রাইটনেস আশা করা ঠিক হবে না। 

কালার রিপ্রোডাকশন ও হোয়াইট ব্যালেন্সের দিক থেকেও এটি বেশ এগিয়ে। গেমিংয়ের জন্য হোয়াইট ব্যালেন্স ও ৯৮% এসআরজিবি কালার অ্যাকুরেসি খুবই ভালো ইমেজ দেখাতে সক্ষম হলেও মাত্র ৬২% অ্যাডোবি আরজিবি ফটো ও ভিডিও এডিটরদের কিছুটা হতাশ করবে।

সব মিলিয়ে, ল্যাপটপটির ডিসপ্লে পুরোই গেমিংয়ের জন্য তৈরি।

পারফরমেন্স
ইন্টেল কোর আই৭ ৭৭০০এইচকিউ কেবি-লেক কোয়াডকোর প্রসেসরটি এ মুহূর্তে সবচেয়ে শক্তিশালী ল্যাপটপ প্রসেসর। ফলে এটি কম্পিউটারের সব কাজই দ্রুততার সঙ্গে করতে সক্ষম।

ভারি সফটওয়্যার, যেমন অ্যাডোবি প্রিমিয়ার প্রো-তে ফোর-কে রেজুলেশনে ভিডিও এডিট করার মত কাজও প্রসেসরটি খুব সহজেই সামলে নিতে সক্ষম। গেমিং ও অন্যান্য কাজ এর কাছে কিছুই নয় বলে মনে হবে। 

র‌্যামের দিক থেকেও ডিভাইসটিতে কোনও কার্পণ্য করা হয়নি। ১৬ গিগাবাইট র‌্যাম আজও মাল্টি-টাস্কিংয়ের জন্য যথেষ্ট। চাইলে সেটি বাড়িয়েও নেয়া যাবে। দুটি র‌্যাম স্লট থাকায় ৩২ গিগাবাইট র‌্যাম সহজেই এ ল্যাপটপে ব্যবহার করা সম্ভব।

পিসিআই এসএসডি ব্যবহারের ফলে ডাটা রিড ও রাইটের দিকেও গতির মন্থরতা দেখা যায়নি। ফলে সকল কাজই চোখের পলকেই শেষ হয়ে যাবে।

গেমিং ল্যাপটপের মূল হচ্ছে এর গ্রাফিক্স চিপ। ওমেনে ব্যবহৃত জিটিএক্স ১০৫০টিআই এ মুহূর্তে বাজারের মাঝারি পারফরমেন্সের জিপিউর একটি।

১০৮০পি রেজুলেশনে প্রায় সকল গেইমই ৬০ এফপিএসে খেলা যাবে। কিছু গেইম, যেমন রেসিডেন্ট ইভেল ৭ খেলার সময় ১০০+ এফপিএসও পাওয়া গিয়েছে।

ব্যাটলফিল্ড ওয়ান বা জিটিএ ৫-এর মতো বেশ ভারি গেইমও হাই সেটিংসে ৬০ এফপিএসের নিচে নামেনি। যারা গেইমিংয়ের জন্য ল্যাপটপ খুঁজছেন তারা মাঝারি দামের এ ডিভাইস কিনে আশাহত হবেন না।

সব মিলিয়ে, গেমিং বা ভারি কাজ – সব কিছুই ওমেন ১৫ সহজেই সামলে নিতে সক্ষম। 

থার্মাল ডিজাইন 
শক্তিশালী প্রসসের ও জিপিউ-এর তাপ সঠিকভাবে বের করে দেয়াই সাধারণত গেমিং ল্যাপটপের মূল চ্যালেঞ্জ । ওমেন ১৫-এ কাজ খুব সুন্দরভাবে করতে সক্ষম। ফুল লোডে চলার সময়ও এটি ৬৫ ডিগ্রির ওপর যায়নি।

হাত রাখার স্থানে ৩৫ ডিগ্রি পর্যন্ত তাপ পাওয়া গিয়েছে – যা গেমিং ল্যাপটপের ক্ষেত্রে খুবই ভালো। অতিরিক্ত তাপমাত্রার ফলে সিপিউ বা জিপিউ থ্রটোলিংও হতে দেখা যায়নি। 

কিবোর্ড ও টাচপ্যাড
এইচপি বরাবরের মতো এটিতে চিকলেট কিবোর্ড ব্যবহার করেছে। এর কি-ট্রাভেল ২ মিলিমিটার থেকে কমিয়ে ১.২ মিলিমিটার করা হয়েছে। ফলে কিছু ব্যবহারকারীর কাছে এটি অগভীর মনে হতে পারে।

অন্যদিকে লাল ও কালোর মিশ্রণে তৈরি লাল ব্যাকলাইট সমৃদ্ধ কিবোর্ডটি বেশ দৃষ্টিনন্দন। চিকলেট লেআউটটি টাইপিংয়ের জন্য বেশ উপযোগী।

গেমিংয়ের ক্ষেত্রে অবশ্য আজকাল ল্যাপটপেও মেকানিক্যাল কিবোর্ড ব্যবহার করা হচ্ছে। এ দামে সেটি আশা করা ভুল। 

টাচপ্যাডটির ক্ষেত্রে এইচপি কিছুটা কৃপণতা করেছে। ফলে মাউস ব্যবহার করা প্রায় বাধ্যতামূলক।

ল্যাপটপটির আকৃতি অনুসারে অনায়াসে এর চাইতে বড় টাচপ্যাড দেওয়া যেত। মূল্য অনুসারে পলিশড গ্লাসের টাচপ্যাড আশা করা গেলেও এইচপি এর কোনওটিই করেনি। টাচপ্যাডটির অ্যাকুরেসি ও স্ক্রলিং – দুটোই খুবই মাঝারি মানের। 

সাউন্ড ও ওয়েবক্যাম
ব্যাং অ্যান্ড অলুফসেন অডিও আছে শুনে যারা ভালো মানের সাউন্ড আশা করছেন – তাদের হতাশ হতে হবে। স্পিকার ও হেডফোনে অন্যান্য ল্যাপটপের চাইতে বেশি ভলিউম পাওয়া যাবে; কিন্তু বেস ও ট্রেবলের ভারসাম্যহীনতা সেটি নষ্ট করেছে।

স্পিকারে অতিরিক্ত ট্রেবল থাকার ফলে অনেক সময় ভিডিওর কথা বোঝা কষ্টকর হয়ে পড়ে। হেডফোনেও সাউন্ডের তেমন উন্নতি নেই। 

ওয়েবক্যামের ভিডিওর মান খুবই সাধারণ। ভিডিও কলের বাইরে তেমন কিছু করার মতো ছবি এর কাছে পাওয়া যাবে না। 

ব্যাটারি লাইফ
৬৩ ওয়াট-আওয়ার ব্যাটারি সমৃদ্ধ ল্যাপটপটি ছয় ঘন্টা পর্যন্ত মাঝারি কাজে ব্যাকআপ দিতে সক্ষম। গেমিংয়ের সময় ২ থেকে ৩ ঘন্টার বেশি তা পাওয়া যাবে না।

অবশ্য গেমিং ল্যাপটপ এর চাইতে বেশি ব্যাকআপ দিতে সক্ষম নয়। এর চেয়ে বেশি ভালো ব্যাটারি লাইফ চাইলে আল্ট্রাবুক কেনা ছাড়া গতি নেই।

পরিশিষ্ট
গেমিং ল্যাপটপের মাঝে কিছুটা স্বল্পমূল্যের ও হালকা-পাতলা ডিজাইনের এ ডিভাইস গেমিং ছাড়াও ভারি কাজের জন্য ক্লাসরুম ও অফিসেও বেশ মানিয়ে যায়। ফলে যারা এমন দামের ল্যাপটপ কেনার কথা ভাবছেন, তারা অন্তত এটি একবার দেখতে পারেন।

মূল্য : ল্যাপটপটি অফিশিয়াল ওয়ারেন্টিসহ বাজারে এক লাখ ৩১ হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

এক নজরে ভালো

  • ডিসপ্লে
  • পারফরমেন্স
  • ওজন ও ব্যাটারি লাইফ
  • থার্মাল ডিজাইন

একনজরে খারাপ

  • টাচপ্যাড
  • অডিও
  • ওয়েবক্যাম

 

দেশের বাজারে ওমেন বাই এইচপি

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের বাজারে এল বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ড এইচপি ইনকর্পোরেশনের নতুন গেইমিং ল্যাপটপ ওমেন বাই এইচপি।

গেইমারদের জন্য বিশেষভাবে এই নোটবুক পিসির সক্ষমতা, পোর্টেবিলিটি ও আকর্ষণীয় স্টাইলের ডিজাইনে  তৈরি করা হয়েছে।

স্বাচ্ছন্দ্যে গেইম খেলার দারুণ এ পিসিটি বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে উন্মোচন করেন এইচপির এশিয়া ইমার্জিং কান্ট্রিজের ম্যানেজার (নোটবুক) সামান্তা গোও, বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার ইমরুল হোসাইন ভূঁইয়া, এইচপির বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার সালাউদ্দিন মোহাম্মদ আদেল এবং মার্কেট স্পেশালিস্ট ফাহিমা আফরিন এষা।

এ সময় উম্মোচন মঞ্চে ছিলেন স্মার্ট টেকনোলজিসের এমডি জহিরুল ইসলাম, রায়ান্স কম্পিউটার্সের এমডি আহমেদ হাসান জুয়েল, স্টারটেক অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের চেয়ারম্যান রাশদ আলী ভূঁইয়া এবং ডিরেক্টর জাহেদ ভূঁইয়া।

উম্মোচনের আগমুহূর্তে
উম্মোচনের আগমুহূর্তে

এইচপি জানায়, ওমেন পোর্টফোলিওটি সর্বশেষ এএএ গেমস,  সর্বোচ্চ-র‌্যাংকিং ও বেস্ট-সেলিং গেইমগুলি খেলার জন্য যাতে দারুণ প্লাটফর্ম হতে পারে সেভাবে তৈরি করা হয়েছে। এতে উন্নত গ্রাফিক্সের মাধ্যমে খুবই মসৃণভাবে গেইম খেলা যাবে। একই সঙ্গে এর তাপ নিঃস্বরণে কুলিং ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।  আর গেইমাররা যে ধরনের অভিজ্ঞতা চান তা খুঁজে পেতে নতুন পোর্টফোলিও গেইমারদের জন্য সঠিক ডিভাইস খুঁজে দিতে সহায়তা করবে।

ওমেন বাই এইচপি’তে রয়েছে  সর্বশেষ প্রযুক্তির এনভিডিয়া জিফোর্স জিটিএস ১০৫০টি ও সপ্তম প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই সেভেন-এর উন্নত কর্মক্ষমতার স্ট্যানিং গ্রাফিক্স। কারণ বেশিরভাগ গেইমই ডিজাইন করা হয় ফুল এইচডিতে।

ডিভাইসটির ১৫.৬ ইঞ্চি তীর্যক ডিসপ্লের রেজ্যুলেশন ১০৮০ পিক্সেল। এর মাধ্যমে খুব মসৃণভাবে গেইমের গ্রাফিক্স দেখা সম্ভব। এমনকি গেইম তৈরির সময় যেসব রঙ ব্যবহার করা হয়েছে সেগুলোও ৭২ শতাংশ মসৃণভাবে দেখা যায়।

এই গেইমিং পিসিতে স্ট্যান্ডার্ড ১২৮ জিবি এসএসডি রয়েছে, যা অন্য সাধারণ হার্ডড্রাইভের চেয়ে দুই থেকে তিন গুণ দ্রুত কাজ করে। চাইলে গ্রাহকরা র‌্যাম ৮ জিবি অথবা ১৬ জিবি ডিডিআর৩-এর যে কোনোটি বেছে নিতে পারবেন। একই সঙ্গে এর গ্রাফিক্স মেমোরি ২ জিবি অথবা ৪ জিবি জিডিডিআর৫ বেছে নেওয়ার অপশন রয়েছে।

hp 3

পিসির কাঠামোগত ডিজাইন গেইমের বিষয়টি পরিকল্পনায় রেখেই করা হয়েছে। গেইম খেলার ক্ষেত্রে পিসির তাপমাত্রা এর কর্মদক্ষতার প্রধান শত্রু। তাই এর প্রকৌশল নকশা করা হয়েছে এ তাপকে নিঃসরণের বিষয়টি মাথায় রেখে।

রাখা হয়েছে দুটি ফ্যান, যা এর পুরো অংশকে ঠান্ডা রাখার জন্য কাজ করে। এ প্রক্রিয়ায় পুরো ব্যবস্থাকে শীতল রাখার জন্য এ ফ্যান কাজ করে, যা অন্য কোনো পিসিতে নাই। এমনকি কিবোর্ড থেকে যে গরম বাতাস বের হয়ে গেইমারদের হাতে লাগে সেটাও লাগবে না।

এর পুরুত্ব মাত্র ২৪.৫ মিলিমিটার এবং এর ওজন ২.০৯ কেজি। ওমেন বাই এইচপি-তে রয়েছে পোর্টেবল পাতলা এবং ব্যাকলাইট সমৃদ্ধ কি-বোর্ড। এর ড্রাগন-রেড লাইট, যা স্বল্প আলো কিংবা আলো-আঁধারি পরিবেশে ভালোভাবে দেখার সুবিধা দেয়। রয়েছে একটি পাওয়ার পোর্ট, এইচডিএমআই ভি২.০, দুইটি ইউএসবি ৩.০ পোর্ট এবং একটি ইউএসবি ২.০ পোর্ট, যার সঙ্গে আরজে৪৫ প্রযুক্তি।

আল-আমীন দেওয়ান 

এইচপি ওমেন গেইমিং ফেস্টে চ্যাম্পিয়ন ইনফারনাল গেইমিং

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : এইচপি ওমেন গেইমিং ফেস্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ইনফারনাল গেইমিং দল।

ওমেন বাই এইচপি মডেলের নতুন নোটবুক পিসিতে দুই দিনব্যাপী গেইমিং প্রতিযোগিতার ফাইনালে ইন্সটিংক্ট ই-স্পোর্টস দলকে হারিয়ে সেরা হয় দলটি।

বিজয়ী দল পুরস্কার হিসেবে পায় ২০ হাজার টাকা। এছাড়া প্রথম রানার আপ ইন্সটিংক্ট ই-স্পোর্টস  পেয়েছে ১০ হাজার এবং দ্বিতীয় রানার আপ ইনটক্সিকেটেড গেইমিং ৫ হাজার টাকা।

বুধবার ফাইনাল শেষে রাজধানীর একটি হোটেলে এইচপি ইনকর্পোরেশনের এই নতুন গেইমিং পিসি উম্মোচন অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন এইচপি এশিয়া ইমার্জিং কান্ট্রিজের ম্যানেজার (নোটবুক) সামান্তা গোও, বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার ইমরুল হোসাইন ভূঁইয়া, এইচপির বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার সালাউদ্দিন মোহাম্মদ আদেল এবং মার্কেট স্পেশালিস্ট ফাহিমা আফরিন এষা।

hp gaming fest

এসময় উপস্থিত ছিলেন স্মার্ট টেকনোলজিসের এমডি জহিরুল ইসলাম, রায়ান্স কম্পিউটার্সের এমডি আহমেদ হাসান জুয়েল, স্টারটেক অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের চেয়ারম্যান রাশদ আলী ভূঁইয়া এবং ডিরেক্টর জাহেদ ভূঁইয়া।

গেইমাররা জানান, গেইমিংয়ের জন্য বিশেষভাবে তৈরি এইচপি ওমেন নোটবুক পিসিতে স্বাচ্ছন্দ্য ও অ্যাডভেঞ্চারের স্বাদ মিলেছে।

এর আগে মঙ্গলবার এই গেইমিং ফেস্ট শুরু হয়। প্রাথমিক বাছাইয়ের পর এতে অংশ নেয়ার সুযোগ পায় ৮টি দল। পাঁচ সদস্য মিলে একটি দল হয়েছে।

অংশগ্রহণকারী অন্য দলগুলো হলো, কল অব ব্রাদারস, মোড মেকানিকস, ডেথলি হলোস, এভিক গেইমিং, র‌্যাটেলার্স ই-স্পোটর্স ।

আল-আমীন দেওয়ান

ছবিতে ওমেন বাই এইচপির উম্মোচন

দেশের বাজারে ওমেন সিরিজের দুটি মডেলের ল্যাপটপ উদ্বোধন করেছে এইচপি। বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে আনুষ্ঠানিকভাবে ১৫-এএক্স ২২০ টিএক্স ও ২২১ টিএক্স মডেলের ল্যাপটপ দুটি উদ্বোধন করা হয়েছে। ছবিতে ওমেন বাই এইচপির উম্মোচন তুলে ধরা হলো…….

সামান্তা গুই (ক্যাটাগরি ম্যানেজার, নোটবুক, এশিয়া ইমার্জিং কান্ট্রি)
সামান্তা গুই (ক্যাটাগরি ম্যানেজার, নোটবুক, এশিয়া ইমার্জিং কান্ট্রি)

 

সামান্তা গুই (ক্যাটাগরি ম্যানেজার, নোটবুক, এশিয়া ইমার্জিং কান্ট্রি)
সামান্তা গুই (ক্যাটাগরি ম্যানেজার, নোটবুক, এশিয়া ইমার্জিং কান্ট্রি)

 

সালাউদ্দিন মোহাম্মদ আদেল ব্যবসা উন্নয়ন ব্যবস্থাপক এইচপি ইনকরপোরেশন
সালাউদ্দিন মোহাম্মদ আদেল ব্যবসা উন্নয়ন ব্যবস্থাপক এইচপি ইনকরপোরেশন

 

স্টারটেকের পরিচালক জাহিদ ভূঁইয়া
স্টারটেকের পরিচালক জাহিদ ভূঁইয়া

 

hp-laptop-techshohor (3)

উম্মোচিত হল ওমেন বাই এইচপি

 

hp-laptop-techshohor

উম্মোচনের আগমুহূর্তে

ওমেন বাই এইচপিতে গেইমারদের উল্লাস

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গেইমিংয়ের জন্য বিশেষভাবে তৈরি ‘ওমেন বাই এইচপি’ মডেলের নতুন নোটবুক পিসিতে নতুন অভিজ্ঞতায় উল্লসিত গেইমাররা।

এইচপি ওমেন গেইমিং ফেস্টে অংশগ্রহণকারী গেইমাররা বলছেন, স্বাচ্ছন্দ্য ও অ্যাডভেঞ্চারের স্বাদ নিতে দারুণ পারফম্যান্স পাওয়া গেছে এই নোটবুক পিসিতে।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ের একটি হোটেলে মঙ্গলবার এই গেইমিং ফেস্ট শুরু হয়। প্রাথমিক বাছাইয়ের পর এতে অংশ নেয়ার সুযোগ পায় ৮টি দল। পাঁচ সদস্য মিলে একটি দল হয়েছে।

hp omen

দিনব্যাপী লড়াই শেষে ফাইনালে উঠে ইন্সটিংক্ট ই-স্পোর্টস এবং ইনফারনাল গেইমিং দল দুটি।

অংশগ্রহণকারী অন্য দলগুলো হলো, কল অব ব্রাদারস, মোড মেকানিকস, ডেথলি হলোস, এভিক গেইমিং, র‌্যাটেলার্স ই-স্পোটর্স ও ইনটক্সিকেটেড গেইমিং।

বুধবার চূড়ান্ত পর্বে লড়বে দুই দল। প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় হওয়া দলগুলোর জন্য উল্লেখযোগ্য অংকের প্রাইজমানি থাকছে।

এদিন হোটেলটিতে এইচপি ইনকর্পোরেশনের এই নতুন গেইমিং পিসি উম্মোচন অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হবে। গেইমাররা জানান, ডিভাইসের সক্ষমতা, পোর্টেবিলিটি ও আকর্ষণীয় স্টাইলের ডিজাইনের দিকে নির্মাতারা বেশ নজর দিয়েছেন।

আল-আমীন দেওয়ান

পিসির বাজারে বিশ্বসেরা এইচপি

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বিশ্বের পার্সোনাল কম্পিউটার (পিসি) বাজারে শীর্ষে এখন অন্যতম বৃহৎ তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হিউলেট প্যাকার্ড (এইচপি)।

এপ্রিলে বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ডেটা করপোরেশন (আইডিসি)-এর প্রতিবেদন এ চিত্র উঠে আসে।

আইডিসির তথ্যে দেখা যায়, বাজার সরবরাহে ২০১৭ সালের প্রথম প্রান্তিকে এইচপির দখল দাঁড়িয়েছে ২১ দশমিক ৮ শতাংশ। আর এই দখলে অবস্থান তালিকায় এক নম্বরে জাগয়া পায় ব্র্যান্ডটি।

HP_1

বিগত পাঁচ বছর ধরে ধুঁকতে থাকা পিসি বাজারে গতি এসেছে ২০১৭ সালের শুরুতে। বছরটির প্রথম প্রান্তিকেই পিসির এই সরবরাহ বেড়েছে ১ শতাংশ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এই ১ শতাংশ বৃদ্ধির কারণে পিসি সরবরাহ দাঁড়িয়েছে ৬ কোটি ইউনিটের বেশি। যদিও ২০১১ সালের একই সময়ে এটি ছিল ৮ কোটি ৫০ লাখ ইউনিট।

এপি ও সিএনবিসি অবলম্বনে, আল-আমীন দেওয়ান

এইচপি পিসি কিনলে আকর্ষণীয় জ্যাকেট

টেক শহর কনন্টেন্ট কাউন্সিলর এইচপির অল ইন ওয়ান কম্পিউটারে শীতকালীন অফার ঘোষণা করেছে স্মার্ট টেকনোলজিস (বিডি)।

এ অফারের আওতায় যে কোনো মডেলের অল ইন ওয়ান কম্পিউটার কিনলেই ক্রেতারা উপহার হিসেবে পাবেন একটি আকর্ষণীয় জ্যাকেট।

HP_AIO_Promotion-ট

বর্তমানে এইচপির যেসব অল ইন ওয়ান পিসি বাজারে রয়েছে সেগুলো হচ্ছে সি০০১এল পেন্টিয়াম কোয়ার্ড কোর পিসি, আর ২২৫এল কোর আই থ্রি পিসি, আর২২৬এল কোর আই ফাইভ পিসি ও কিউ১৬৮ডি কোর আই সেভেন টাচ পিসি।

এক বছরের বিক্রয়োত্তর সেবাসহ এসব পিসির সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য যথাক্রমে ৩৮ হাজার টাকা, ৪৮ হাজার টাকা, ৫৮ হাজার টাকা ও ৯৩ হাজার টাকা।

এসব পণ্যের বিস্তারিত জানা যাবে এ নম্বরে কল করে ০১৭৩০৩৫৪৮১৭।

ল্যাপটপ মেলায় যত অফার দিচ্ছে ব্র্যান্ডগুলো

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : মেলায় বেশকিছু অফার ও মূল্যছাড় নিয়ে হাজির হয়েছে বিশ্বখ্যাত ল্যাপটপ ব্র্যান্ডগুলো। পাশাপাশি প্রথমবারের মতো অংশ নিয়েছে দেশিয় ল্যাপটপ ব্র্যান্ড ওয়ালটন।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তিন দিনের এই টেকশহর ডটকম ল্যাপটপ মেলায় বিভিন্ন অফার আর পুরস্কারের পসরা সাজিয়ে বসেছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

তিনটি মডেলের ল্যাপটপ নিয়ে প্রথমবারের মতো মেলায় অংশ নিয়েছে ওয়ালটন। প্যাশন, টারমারিন্ড এবং ওয়াক্স জাম্বলি।

LaptopFair-Techshohor

তিনটি সিরিজের ল্যাপটপেই ডিসকাউন্ট দিচ্ছে ওয়ালটন। কোর আই ৩ ল্যাপটপগুলোতে ৫ শতাংশ, কোরআই ৫ এ ৭ শতাংশ এবং কোরআই ৭ ল্যাপটপে ৮ শতাংশ মূল্যছাড় দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

ল্যাপটপের সঙ্গে অফার দিচ্ছে ডেল। মূল্য ছাড়ের সঙ্গে স্ক্র্যাচ অ্যান্ড উইন এ থাকছে বাইসাইকেল, মনিটরসহ আরও বেশকিছু পুরস্কার জেতার সুযোগ। তাছাড়া নিশ্চিত উপহার হিসেবে থাকছে গিফট ভাউচার।

এছাড়াও ডেল সপ্তম প্রজন্মের ল্যাপটপের সঙ্গে নিশ্চিত হিসেবে একটি স্পিকার, ৫০০ টাকা ডিসকাউন্ট পাওয়া যাচ্ছে।

এসার প্রতিদিন কুপনে দুটি এলইডি টিভি উপহার দেবে। ভাগ্যবান ক্রেতারা তা পাবেন। এছাড়াও নিশ্চিত হিসেবে একটি জ্যাকেট ও একটি ব্যাকপ্যাক পাওয়া যাবে এসার ল্যাপটপ কিনলে।

এইচপি ল্যাপটপের সঙ্গে মোট সাতটি গিফট দেওয়া হচ্ছে। তাছাড়াও মূল্যছাড় দিচ্ছে এইচপি।

স্ক্র্যাচ অ্যান্ড উইন অফারে আসুস ল্যাপটপ মেলায় রেফ্রিজারেটর, আসুস জেনফোন, জ্যাকেট টিশার্ট পাওয়ার স্ট্রিপ ও অ্যান্টি ভাইরাস পাওয়ার সুযোগ।

লেনোভো ল্যাপটপ কিনলে ক্রেতারা স্ক্র্যাচ অ্যান্ড উইনে একটি বাইসাইকেল, একটি এলইডি টিভি এবং জ্যাকেট জেতার সুযোগ দিচ্ছে। তবে এর বাইরে রয়েছে বিভিন্ন মডেলভেদে মূল্যছাড়।

টেকশহর ল্যাপটপ মেলা শনিবার পর্যন্ত সকাল ১০টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত চলবে। মেলার খবর পাওয়া যাবে টেকশহর ডটকমে

ইমরান হোসেন মিলন

জমতে শুরু করেছে ল্যাপটপ মেলা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বিজয়ের মাসে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) শুরুর কিছু পরেই জমতে শুরু করেছে টেকশহর ল্যাপটপ মেলা।

শীতের সকালের জড়তা কাটিয়ে অনেক দর্শনার্থীই এখন মেলায় আসতে শুরু করেছেন। সোহানুর রহমান একজন দর্শনার্থী জানান, তার আগামীকাল আসার কথা থাকলেও সময় পেয়ে সকালেই চলে এসেছেন মেলায়। ইতোমধ্যে তিনি একটি ল্যাপটপও কিনেছেন বলে জানান।

মেলার বিভিন্ন প্যাভিলিয়ন ও স্টল ঘুরে দেখা যায়, দর্শনার্থীরা তাদের পছন্দের ল্যাপটপ দেখছেন। অনেকের পছন্দ হলে কিনছেনও।

LAPTOP-FAIR-Techshohor
ডেলের প্যাভিলিয়নে কথা হয় এক বিক্রয়কর্মীর সঙ্গে। তিনি জানান, অনেকেই তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন মডেলের ল্যাপটপের স্পেসিফিকেশন জানতে চাইছেন। বেশ কয়েকজন কিনেছেন বলেও বলেন তারা।

এইচপির বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার সালাউদ্দিন মোহাম্মদ আদেল বলেন, তারা চেষ্টা করছেন মেলায় সর্বোচ্চ ছাড় দেওয়ার। তাই তারা বিভিন্ন অফার দিচ্ছেন।

মেলায় সবগুলো ব্র্যান্ডের ল্যাপটপে মূল্যছাড় দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানগুলো। মেলার তিন দিনই এসব ছাড় অব্যাহত থাকবে।

মূল্যছাড়, ইন্সট্যান্ট গিফট, স্ক্র্যাচ কার্ড ঘষে বিভিন্ন পুরস্কার জেতার সুযোগ রয়েছে।

মেলা প্রতিদিন রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে।

ইমরান হোসেন মিলন

টেকশহরডটকম ল্যাপটপ মেলা শুরু

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রাজধানীতে সকাল থেকে শুরু হয়েছে তিন দিনের ল্যাপটপ মেলা। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ‘টেকশহরডটকম ল্যাপটপ ফেয়ার ২০১৬’ শুরু হয়েছে। শেষ হবে ১৭ ডিসেম্বর শনিবার।

তবে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ‘প্রযুক্তিতে মুক্তি’ স্লোগান দিয়ে বিজয়ের মাসের এই মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন বিকেল চারটায়।

এক্সপো মেকারের পরিচালনা বিভাগের প্রধান ও ল্যাপটপ ফেয়ার ২০১৬ এর সমন্বয়ক নাহিদ হাসনাইন সিদ্দিকী জানান,আয়োজক প্রতিষ্ঠান এক্সপো মেকারের এটি ১৮তম ল্যাপটপ মেলা। এতে একটি মেগা প্যাভিলিয়ন, ছয়টি প্যাভিলিয়ন, ছয়টি মিনি প্যাভিলিয়ন ও ৪৪ স্টলে দেশ-বিদেশের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা ও বিপণনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের সর্বশেষ প্রযুক্তির পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রি করছে।

mela vir
ফাইল ছবি

তিনি বলেন, ২০০৮ সাল থেকে প্রতিবছর এই মেলা আয়োজন করা হচ্ছে। পূর্বের মেলাগুলোতে শিক্ষার্থী, তরুণ প্রজন্মসহ সকলের অংশগ্রহণ ছিলো প্রত্যাশার চেয়েও বেশি। আমরা প্রত্যাশা করছি এবারের মেলা আগের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে।

এবারের মেলায় এসার, আসুস, ডেল, এইচপি, লেনোভো, ওয়ালটন, লাভা, তোশিবা, টুইনমস, গিগাবাইট, ডিলাক্স, এক্সট্রিম, লজিটেক, ডিলিংক, অ্যাভিরা, ইসেট অ্যান্টিভাইরাস, রাপু, আইলাইফ, টোটোলিংক, লিনেক্স ও এডাটার মতো ব্র্যান্ডের পণ্য পাওয়া যাবে বলে বলেন তিনি।

এই প্রদর্শনীতে পাওয়া যাবে ট্যাবলেট কম্পিউটার, ইন্টারনেট সিকিউরিটি পণ্য ও ল্যাপটপের আনুসঙ্গিক গ্যাজেটও। বিশেষ ছাড়, উপহারের পাশাপাশি মেলায় বেশ কয়েকটি নতুন মডেলের ল্যাপটপের মোড়ক উন্মোচন করা হবে।

এবারের মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক নিউজ পোর্টাল টেকশহর ডটকম

মেলায় বিভিন্ন ল্যাপটপ ব্র্যান্ড মূল্যছাড়, অফার, স্ক্র্যাচকার্ড ঘষে পুরস্কার পাওয়ার সুযোগ আর নিশ্চিত উপহার নিয়ে হাজির হয়েছে।

প্রতিবারের মতো এবার মেলার অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। কুইজে অংশ নিয়ে ল্যাপটপ, স্মার্টফোনসহ আকর্ষনীয় পুরস্কার জিতে নেয়া যাবে।

মেলায় সহ-পৃষ্ঠপোষক ল্যাপটপ ব্র্যান্ড এসার, আসুস, ডেল, এইচপি, লেনোভো ও ওয়ালটন। এছাড়া স্মার্টফোন পার্টনার হিসেবে লাভা, টিকিট বুথ পার্টনার হিসেবে অ্যাভিরা সিকিউরিটি এবং পার্টনার হিসেবে রয়েছে পিপলস রেডিও ও এডুমেকার।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এই মেলা চলবে। মেলায় প্রবেশ মূল্য ৩০ টাকা। তবে স্কুলের শিক্ষার্থীরা ইউনিফর্ম পরে অথবা পরিচয়পত্র দেখিয়ে বিনামূল্যে প্রবেশ করতে পারবেন।

টেকশহরডটকম এর অ্যাপ ডাউনলোড করেও মেলায় বিনামূল্যে প্রবেশ করা যাবে। মেলার টিকিট থেকে প্রাপ্ত অর্থ দূরারোগ্যে আক্রান্ত ভুক্তভোগী পরিবারের সহায়তায় দান করা হবে।

প্রদর্শনীর সব আপডেট ও খবর মেলার অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজ এবং দেশের আইসিটি ও টেলিকম বিষয়ক শীর্ষস্থানীয় নিউজ পোর্টাল টেকশহরডটকমে পাওয়া যাবে।

ইমরান হোসেন মিলন

টেকশহরডটকম ল্যাপটপ মেলা শুরু বৃহস্পতিবার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রাজধানীতে আবারও বড় পরিসরে বসছে তিন দিনের ল্যাপটপ মেলা। আগামী বৃহস্পতিবার থেকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) শুরু হবে ‘টেকশহরডটকম ল্যাপটপ ফেয়ার ২০১৬’। শেষ হবে ১৭ ডিসেম্বর শনিবার।

রোববার রাজধানীতে একটি সংবাদ সম্মেলন করে মেলার আয়োজন সম্পর্কে বিস্তারিত জানান আয়োজকরা।

এক্সপো মেকারের পরিচালনা বিভাগের প্রধান ও ল্যাপটপ ফেয়ার ২০১৬ এর সমন্বয়ক নাহিদ হাসনাইন সিদ্দিকী জানান,আয়োজক প্রতিষ্ঠান এক্সপো মেকারের এটি ১৮তম ল্যাপটপ মেলা। এতে একটি মেগা প্যাভিলিয়ন, ছয়টি প্যাভিলিয়ন, ছয়টি মিনি প্যাভিলিয়ন ও ৪৪ স্টলে দেশ-বিদেশের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা ও বিপণনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের সর্বশেষ প্রযুক্তির পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রি করবে।

Techshohor-Laptopfair-Tech
তিনি বলেন, ২০০৮ সাল থেকে প্রতিবছর এই মেলা আয়োজন করা হচ্ছে। পূর্বের মেলাগুলোতে শিক্ষার্থী, তরুণ প্রজন্মসহ সকলের অংশগ্রহণ ছিলো প্রত্যাশার চেয়েও বেশি। আমরা প্রত্যাশা করছি এবারের মেলা আগের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে।

এবারের মেলায় এসার, আসুস, ডেল, এইচপি, লেনোভো, ওয়ালটন, লাভা, তোশিবা, টুইনমস, গিগাবাইট, ডিলাক্স, এক্সট্রিম, লজিটেক, ডিলিংক, অ্যাভিরা, ইসেট অ্যান্টিভাইরাস, রাপু, আইলাইফ, টোটোলিংক, লিনেক্স ও এডাটার মতো ব্র্যান্ডের পণ্য পাওয়া যাবে বলে বলেন তিনি।

এই প্রদর্শনীতে পাওয়া যাবে ট্যাবলেট কম্পিউটার, ইন্টারনেট সিকিউরিটি পণ্য ও ল্যাপটপের আনুসঙ্গিক গ্যাজেটও। বিশেষ ছাড়, উপহারের পাশাপাশি মেলায় বেশ কয়েকটি নতুন মডেলের ল্যাপটপের মোড়ক উন্মোচন করা হবে।

এবারের মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক নিউজ পোর্টাল টেকশহর ডটকম

সংবাদ সম্মেলনে মেলার সহ-পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান এসারের কান্ট্রি হেড এসএম সাকিব হাসান বলেন, তাদের দুটি নতুন সিরিজের ল্যাপটপ উন্মোচন হবে মেলাতে। এছাড়াও তারা গিফট ও মূল্যছাড় দেবেন।

আসুসের প্রোডাক্ত ম্যানেজার আশিকুজ্জামান বলেন, মেলায় তারা আসুস জেনফোন সিরিজের ল্যাপটপ উন্মোচন করবেন। তারা এই মেলার জন্য আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করেন। কারণ মেলার মাধ্যমে অনেক মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারেন তারা।

ডেলের কান্ট্রি মার্কেটিং ম্যানেজার প্রতাপ সাহা বলেন, ল্যাপটপ মেলায় একেবারে প্রান্তিক মানুষের কাছে পৌঁছানো যায়। তাই এটা ব্র্যান্ডগুলোর জন্য খুবই সহায়ক হয়। আর মেলায় যে পরিমাণে ছাড় ও উপহার দেওয়া হয় তা অন্যসময় পাওয়া যায় না।

এইচপির বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার সালাউদ্দিন মোহাম্মদ আদেল বলেন, তারা চেষ্টা করেন মেলায় সর্বোচ্চ ছাড় দেওয়ার। এজন্য তারা মেলায় নানা আয়োজনও করে থাকেন।

প্রথমবারের মতো অংশ নিতে যাওয়া দেশি ল্যাপটপ ব্র্যান্ড ওয়ালটনের মার্কেটিং এজিএম ইমরান হোসেন বলেন, তারা সাধারণ মানুষের মাঝে ল্যাপটপ ব্যবহারের পরিমাণ বাড়াতে চান। তাই এই মেলায় আসা। আর শিক্ষার্থীদের জন্য তারা বেশকিছু অফার দেবেন বলেও জানান।

প্রতিবারের মতো এবার মেলার অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। কুইজে অংশ নিয়ে ল্যাপটপ, স্মার্টফোনসহ আকর্ষনীয় পুরস্কার জিতে নেয়া যাবে।

মেলায় সহ-পৃষ্ঠপোষক ল্যাপটপ ব্র্যান্ড এসার, আসুস, ডেল, এইচপি, লেনোভো ও ওয়ালটন। এছাড়া স্মার্টফোন পার্টনার হিসেবে লাভা, টিকিট বুথ পার্টনার হিসেবে অ্যাভিরা সিকিউরিটি এবং পার্টনার হিসেবে রয়েছে পিপলস রেডিও ও এডুমেকার।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এই মেলা চলবে। মেলায় প্রবেশ মূল্য ৩০ টাকা। তবে স্কুলের শিক্ষার্থীরা ইউনিফর্ম পরে অথবা পরিচয়পত্র দেখিয়ে বিনামূল্যে প্রবেশ করতে পারবেন।

টেকশহরডটকম এর অ্যাপ ডাউনলোড করেও মেলায় বিনামূল্যে প্রবেশ করা যাবে। মেলার টিকিট থেকে প্রাপ্ত অর্থ দূরারোগ্যে আক্রান্ত ভুক্তভোগী পরিবারের সহায়তায় দান করা হবে।

প্রদর্শনীর সব আপডেট ও খবর মেলার অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজ এবং দেশের আইসিটি ও টেলিকম বিষয়ক শীর্ষস্থানীয় নিউজ পোর্টাল টেকশহরডটকমে পাওয়া যাবে।

ইমরান হোসেন মিলন