নিরাপত্তা বাড়াতে বললো হ্যাকাররা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : যুক্তরাজ্যের শপিং সেন্টার লিভারপুল ওয়ানের একটি ডিজিটাল বিলবোর্ড হ্যাকের শিকার হয়েছে। হ্যাকের পর পর্দায় সেঁটে দেওয়া বার্তায় নিরাপত্তা বাড়ানোর অনুরোধ করেছে হ্যাকাররা।

তাদের সেই বার্তা ছিল অনেকটা এরকম, আপনার নিরাপত্তা ব‌্যবস্থাটি আরো উন্নত করার প্রস্তাব দিচ্ছি। বিনীত, আপনার শুভাকাঙ্ক্ষী প্রতিবেশী হ্যাকার।

নিচে হ্যাশ ট্যাগ দিয়ে লেখা ছিল #জেএফটিনাইনসিক্স (জাস্টিস ফর দ্য নাইনটি সিক্স)। যার মাধ্যমে ১৯৮৯ সালে হিলসবোরো ফুটবল স্টেডিয়ামের এক দুর্ঘটনায় ৯৬ জনের নিহত হওয়ার কথা স্মরণ করা হয়েছে।

liverpool-techshohor

তবে শুভাকাঙ্ক্ষীর সেই বার্তা দেখে লিভারপুল ওয়ান কর্তৃপক্ষ বেশ বিব্রত হয়। তাই বিষয়টি তাদের নজরে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই স্ক্রিনটি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

লিভারপুল ওয়ান কর্তৃপক্ষের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, তাদের ডিসপ্লেগুলো অপারেট করে বাইরের একটি কোম্পানি। হ্যাকের ঘটনা কিভাবে ঘটলো তা তদন্ত করা হচ্ছে। তবে হ্যাকাররা যে অবমাননাকর কিছু লেখেনি তাতে আমরা কৃতজ্ঞ।

বিবিসি অবলম্বনে আনিকা জীনাত

র‌্যানসমওয়্যার আক্রমণ হতে যেভাবে নিরাপদ থাকবেন

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : র‌্যানসমওয়্যারে হামলায় আক্রান্ত হয়েছে সাইবার জগত। বিশ্বের ১০০টির বেশি দেশ এই হামলার শিকার হয়েছে। এই আক্রমণে বিভিন্ন খাতের অনেক বড় প্রতিষ্ঠানসহ হাজার হাজার কম্পিউটার সিস্টেম অচল করে দিয়েছে র‌্যানসমওয়্যারটি। তারপর আক্রান্ত কম্পিউটারে বার্তা দিয়ে হ্যাকাররা ৩০০ ডলারের বিনিময়ে নিয়ন্ত্রণ ফিরিয়ে দেওয়ার কথা জানায় হ্যাকাররা।

এই সাইবার হামলার পরে অনেকের মনে নানা প্রশ্ন র‌্যানসমওয়্যার নিয়ে। এটি কী এবং কিভাবে আক্রমণ থেকে বাঁচা যায়। এই এই টিউটোরিয়ালে সেই বিষয়টিই তুলে ধরা হলো।

র‍্যানসমওয়্যার কী?
র‍্যানসমওয়্যার হল এক ধরনের ম্যালওয়্যার। যা কম্পিউটারে আক্রান্ত করার পর ব্যবহারকারীকে তার মেশিনে প্রবেশ করা থেকে বিরত রাখে। এটি ব্যবহারকারীর প্রবেশগম্যতা সীমাবদ্ধ করে দেয় এবং এই সীমাবদ্ধতা দূর করার জন্য ব্যবহারকারীর কাছ থেকে মুক্তিপণ দাবি করে।

hack-techshohor

কিছু র‍্যানসমওয়্যার আছে যা সিস্টেমের হার্ড ড্রাইভে অবস্থিত সকল ফাইল একটি বড় কি দিয়ে এনক্রিপ্ট করে ফেলে। এনক্রিপশন কি এতটাই বড় হয় যে, মুক্তিপণ না দিয়ে একে ভেঙে ফেলা প্রযুক্তিগত দিক থেকে প্রায় অসম্ভব। এছাড়াও কেউ কেউ সরল একটি প্রোগ্রামের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর সিস্টেম লক করে দেয় এবং ডিসপ্লেতে বার্তার মাধ্যমে ব্যবহারকারীকে মুক্তিপণ দিতে প্রলুব্ধ করে থাকে।

জরুরি ফাইল ব্যাকআপ রাখুন 
র‍্যানসমওয়্যার আক্রমণ হলে সবচেয়ে বেশি ঝামেলায় পড়তে হয় কম্পিউটারের থাকা জরুরি ফাইল, ছবি ও ভিডিও নিয়ে। কথায় আছে ‘প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ ভালো’ তাই র‍্যানসমওয়্যার আক্রান্তের আগেই কম্পিউটারের যাবতীয় ফাইল ব্যাকআপ রাখা উচিত। এক্ষেত্রে ব্যাকআপ এমন ডিভাইস রাখতে হবে যেন সেখানে ইন্টারনেট সংযোগ না থাকে। সবচেয়ে ভালো উপায় হলো পোর্টবেল হার্ডড্রাইভে ব্যাকআপ রাখা।

ই-মেইল ব্যবহারে সর্তকতা 
বেশিরভাগ র‍্যানসমওয়্যার আক্রমণ মেইলের মাধ্যমে করা হয়ে থাকে। হ্যাকাররা সুন্দর এবং আকর্ষনীয় মেইল ক্ষতিগ্রস্তদের পাঠায়। মেইলগুলোর বিষয়স্তু এমনভাবে লেখা, যা দেখে মনে হয় সত্যিকারের কোনো মেইল। সেখানে থাকা কোনো লিঙ্কে ক্লিক বা ফাইল ডাউনলোড করলেই কম্পিউটারের র‍্যানসমওয়্যার ইন্সটল হয়ে যায় ব্যবহারকারীদের অজান্তে। তাই ই-মেইল বার্তা আসলে তা ভালো করে যাচাই করতে হবে। বিশেষ করে মেইল আসা কোনো লিঙ্কে ক্লিক এবং ফাইল ডাউনলোডের সময় আরও বেশি সর্তক থাকতে হবে। মেইল যাচাই করে দেখতে হবে তা স্প্যামিং বা ভুয়া।

অপারেটিং সিস্টেম আপডেট
অপারেটিং সিস্টেম নিমার্তা প্রতিষ্ঠানগুলো প্রতিমুহূর্তে নানা নিরাপত্তামূলক আপডেট দিয়ে থাকে। ফলে র‍্যানসমওয়্যার আক্রমণ ঠেকানো সম্ভব। তাই সব সময় কম্পিউটার অপারেটিং সিস্টেম আপডেট রাখতে হবে। উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারীরা Settings গিয়ে System মেনুতে গিয়ে About এ ক্লিক করলে দেখে নিতে পারবেন নতুন আপডেটের বিষয়গুলো।

ব্রাউজিংয়ে সময় সর্তক থাকা
ইন্টারনেটের এই যুগে আমাদের প্রতিনিয়ত নানা ওয়েবসাইট ব্রাউজার করতে হয়। তাই লোভনীয় ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফাঁদ পেতে বসে আছে হ্যাকাররা। ধরুণ আপনি কোনো গান বা ভিডিও ডাউনলোড করতে গুগলের সার্চ করলেন। তারপর একটি ওয়েবসাইটে গেলেন সেখানে ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করলেন। সাথে সাথে ডাউনলোড শুরু হলো। এরপর দেখা গেলো এটি আপনার খোঁজা গান বা ফাইলটি নয়। হ্যাকাররা একই নাম ও ছবির আড়াঁলে র‍্যানসমওয়্যার সফটওয়্যার আপনার কম্পিউটার ইন্সটল করিয়ে নিলো। তাই ব্রাউজিং ও কোনো কিছু ডাউনলোডে সর্তক থাকতে হবে।

ransomware-Nicescene-techshohor

সফটওয়্যার থেকে সাবধান
নতুন কোনো সফটওয়্যার ডাউনলোড করার সময় সতর্ক থাকা খুবই জরুরি। কেননা কাঙ্খিত ইন্টারনেট সফটওয়্যারটির আড়ালে ক্ষতিকারক র‍্যানসমওয়্যার থাকতে পারে। এগুলো ভুলক্রমে ডাউনলোড করলে হ্যাকিংয়ের শিকার হতে পারেন। তাই কম্পিউটারে কোনো সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে হলে সফটওয়্যারের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা উচিত।

অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার
কম্পিউটারের আপডেট অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করা উচিত। অ্যান্টিভাইরাস কোনো ফাইল কম্পিউটারে প্রবেশ করলে তা চেক করে। যদি তাতে ক্ষতিকর কিছু থাকে তাহলে তা নোটিফিকেশনের মাধ্যমে জানায়। তাই অ্যান্টিভাইরাস কম্পিউটারের ব্যবহার করা উচিত ফলে র‍্যানসমওয়্যার কম্পিউটারে প্রবেশ করা মাত্রই নোটিফিকেশন জেনে ব্যবস্থা নেওয়া যাবে।

‘ওয়েবসাইট হ্যাকিং বাড়ছে’

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গত বছরে বিশ্বব্যাপী ওয়েবসাইট হ্যাকিংয়ের পরিমাণ ৩২ শতাংশ বেড়েছে। সোমবার গুগলের প্রকাশিত সাইবার সিকিউরিটি ট্রেন্ডস সম্পর্কিত এক প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

গুগলের ওয়েবমাস্টার ব্লগে একটি পোস্টে জানানো হয়, আমরা মনে এই এই ধারা শিগগিরই কমবে না। কারণ দিনে দিনে হ্যাকাররা পরাক্রমশালী হয়ে উঠছে। একইসাথে পুরাতন ওয়েবসাইটের পরিমাণও বাড়ছে, যার দুর্বলতা সহজেই হ্যাকারদের কাছে ধরা পড়ে।

hack-techshohor

কোনো সাইট হ্যাকিং হলে কিংবা নিরাপত্তা দুর্বলতা থাকলে গুগল সতর্কতা প্রকাশ করে। গুগল সার্চেও বিষয়টি দেখা যায়। অনেকেই হ্যাক হওয়া পেইজটি ডিলিট কিংবা সংশোধন করেন। কিন্তু প্রায় ৬১ শতাংশ ওয়েবসাইট ভেরিফায়েড না হওয়ার কারণে গুগল সেসব ওয়েবসাইট কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করতে পারে না। ব্লগটিতে বলা হয়, প্রতিকারের চেয়ে আগে থেকেই সাইটের নিরাপত্তা নিশ্চিতে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

ইয়াহু, যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি প্রতিষ্ঠান ও বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান হ্যাকিংয়ের পর সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে অনেকেই আশঙ্কা প্রকাশ করছেন। অনেকেই তড়িৎ পদক্ষেপও নিচ্ছেন।

এডিটিভি অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

 

হ্যাকিং কোম্পানি যখন হ্যাকিংয়ের শিকার!

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সেলিব্রাইট, ইজরাইলের প্রসিদ্ধ হ্যাকিং কোম্পানি। প্রতিষ্ঠানটি সরকার ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার জন্য ডেটা এক্সট্রাক্ট ও ফোন হ্যাকিংয়ে বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান। আর এই কোম্পানিই হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে!

কোম্পানির স্টোরেজ থেকে ৯০০ গিগাবাইট ডেটা হ্যাকাররা হাতিয়ে নিয়েছে। স্বয়ং প্রতিষ্ঠানটিই বিষয়টি স্বীকার করেছে।

এফবিআইয়ের সাথে যুক্ত হয়ে সান বার্নাদিনোর হত্যাকারী সৈয়দ রিজওয়ান ফারুকের আইফোন হ্যাকিংয়ের চেষ্টায় সেলিব্রাইটের নাম বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে যায়। কোম্পানিটির নিজস্ব পণ্য একটি ডিভাইস যা ইউনিভার্সাল ফরেনসিক এক্সট্রাকশন ডিভাইস (ইউএফইডি) লকড মোবাইল ফোনের ডেটা বের করতে পারে।

cellebrite-ufed-TechShohor

সংবাদ মাধ্যম মাদারবোর্ড জানিয়েছে, কোম্পানি মাই.সেলিব্রাইট ডোমেইনের বিভিন্ন ডেটা, ওয়েবসাইটের ব্যবহারকারীদের সেকশন, হ্যাকড হওয়া ফোনের বিভিন্ন প্রমান ও সাইটের প্রবেশের জন্য ইউজার নেইম ও পাসওয়ার্ড হাতিয়ে নিয়েছে হ্যাকাররা।

বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে সেলিব্রাইট এ বিষয়ে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে। তাদের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, চুরি হওয়া তথ্যগুলো একটি পুরাতন অ্যাকাউন্ট ডেটাবেজ থেকে নিয়েছে হ্যাকাররা। মূলত যারা নতুন সিস্টেমে আপগ্রেড হয়নি তাদের সাধারণ তথ্যগুলোই এখানে রয়েছে। যেসব গ্রাহকের তথ্য রয়েছে তাদের সাথে যোগাযোগ করা হচ্ছে এবং পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

চুরি হওয়া তথ্য থেকে জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি কোম্পানিটি রাশিয়া, তুর্কিং ও সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকারের সাথেও কাজ করেছে।

ফোন এরিনা অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

অনলাইন বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ১৮ কোটি ডলার চুরি

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রাশিয়ার একদল সাইবার অপরাধী নতুন হাই-টেক বট তৈরি করেছে, যার মাধ্যমে অনলাইন বিজ্ঞাপনের ১৮ কোটি ডলার চুরি করে নিয়েছে তারা। মূলত সত্যিকারের বিজ্ঞাপনকে নকল মানুষের সামনে তুলে ধরে তারা এই অর্থ হাতিয়ে নেয়।

সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান হোয়াটস ওপস সর্বপ্রথম এই অপরাধটি ধরতে পেরেছে। তারা জানিয়েছে, মেঠবট নামের এই কৌশলের সাইবার অপরাধকে এক ভিন্ন উচ্চতায় নিয়ে গেছে।

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইডি সেওয়ার্টজ বলেন, এটি খুবই উন্নত সাইবার ঘটনা যা এর আগে কখনও দেখা যায়নি।

russian-hacking-crime-TechShohor

মেঠব্রাউজার সংক্ষেপে মেঠবট নামের নকল বা ভুয়া ব্রাউজারের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করা হয়। উচ্চমূল্যের ভিডিও বিজ্ঞাপনের পিছনে কোম্পানিগুলো মিলিয়ন ডলার ব্যয় করে থাকে। আর এই অর্থ লুফে নিতেই তৈরি করা হয় মেঠবট। সাইবার অপরাধীরা ব্রাউজারটির মাধ্যমে বিজ্ঞাপনগুলো শীর্ষ ওয়েবসাইটে প্রদর্শন করে। বাস্তবিক অর্থে অপরাধীরা আড়াই লাখের অধিক ভুয়া ওয়েবপেইজ তৈরি করে সেই বিজ্ঞাপনগুলো দেখায়। এগুলো সত্যিকারের মানুষ দেখতে পায় না।

এভাবে ভুয়া ভিজিটের মাধ্যমে অপরাধীরা ভিডিও ইম্প্রেশন বাড়াতে থাকে। গত অক্টোবরে প্রথম বিষয়টি ধরা পড়ে। প্রতিদিন অপরাধীরা ৩০ কোটি ভুয়া ইম্প্রেশনের মাধ্যমে ৫০ লাখ ডলার লুফে নেয়।

এর আগে হ্যাকাররা ম্যালভার্টাইজিং করতো, যার মাধ্যমে বিজ্ঞাপনে ভাইরাস ছড়িয়ে দিতো এবং বিজ্ঞাপনে ভুয়া ক্লিক এনে দিতো। কিন্তু মেঠবটের এই ঘটনা সাইবার অপরাধকে অন্য পর্যায়ে নিয়ে গেছে।

সিএনএন টেক অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

৩০ লাখ অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল হ্যাকিংয়ের শিকার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রায় ৩০ লাখ অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম চালিত হ্যান্ডসেট হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে। এর মাধ্যমে হ্যান্ডসেটগুলো হ্যাকারদের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে চলে যেতে পারে। নতুন প্রকাশিত তথ্যে এসব জানানো হয়েছে।

যদিও হ্যান্ডসেটগুলো যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঞ্চলে অবস্থান করছে। তাই এর বাইরের ব্যবহারকারীদের আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। মূলত ফোন রুট করার জন্য সফটওয়্যার ইনস্টল করার সুবাদে এই হ্যাকিংয়ের ঘটনা ঘটেছে। চীনের দুটির সার্ভার থেকে ব্যবহারকারীরা রুটেড সফটওয়্যার ইনস্টল করার সময় নিজের অজ্ঞতাবশত হ্যাকারদের হ্যান্ডসেট নিয়ন্ত্রণের অনুমতি দিয়ে দিয়েছে। এর ফলে ব্যবহারকারীকে বুঝতে না দিয়েই ফোনে ম্যালওয়্যার ইনস্টল হচ্ছে।

Now Android Smartphones Become Vulnerable To Hackers

ইনস্টল হওয়া ম্যালওয়্যারটি ডিভাইসের তথ্যসহ, কল হিস্টোরি, ব্যবহারকারী কোন বাটনটি চাপছে এসব তথ্য চীনের সার্ভারটিতে চলে যাচ্ছিলো। নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান বিটসাইট টেকনোলজিস সার্ভারের অধীন দুটি ডোমেইন নিবন্ধন করেছে ও নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে।

তবে বিটসাইটের নিয়ন্ত্রণে আসার আগেই প্রায় ৩০ লাখ ডিভাইস থেকে উক্ত সফটওয়্যার ইনস্টল হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির তথ্য মতে, ৫৫টি পরিচিত অ্যান্ড্রয়েড মডেল এই হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে। এর মধ্যে ২৬ শতাংশ হ্যান্ডসেটের নির্মাতা বিএলইউ। এর পরেই হয়েছে ইনফিনিক্স (১১ শতাংশ) ও ডোগি (৮ শতাংশ)। ৪৭ শতাংশ ফোন থেকে তথ্য পাওয়া যায়নি, ফলে নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের নাম জানা যায় নি।

জিএসএম এরিনা অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

যুক্তরাষ্ট্রের জরুরী সেবা হ্যাকিংয়ে ভারতীয় তরুণ আটক

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : যুক্তরাষ্ট্রের জরুরি সেবা ৯১১ হ্যাকিংয়ের ঘটনায় ভারতীয় বংশোদ্ভুত এক তরুণকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মিতকুমার হিতেশভাই দেশাই নামের ঐ হ্যাকার সম্প্রতি ট্রোজান ভাইরাস ব্যবহার করে ৯১১ এর সেবার বিঘ্ন ঘটায়।

দেশটির আরিজোনা অঞ্চলের এই জরুরী সেবায় সাইবার আক্রমণের মাধ্যমে মিতকুমার শতাধিক কল করে এবং সেবাটি স্বাভাবিক কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ে। পরে বিষয়টি টের পেয়ে আরিজোনার সারপ্রাইজ পুলিশ ডিপার্টমেন্ট ১৮ বছর বয়সী এই তরুণকে গ্রেফতার করে।

Meetkumar Hiteshbhai Desai-TechShohor

মিতকুমারের মালিকানাধীন ব্লগ এবং ইউটিউব চ্যানেলে এই হামলার বিস্তারিত তুলে ধরা হয়। সেখানে জানানো হয়, একটি জাভাস্ক্রিপ্ট টুইট প্রকাশ করেন মিতকুমার। এই টুইটে কেউ ক্লিক করলে ঐ ডিভাইস থেকে ৯১১ এর বারবার কল হতে থাকে। ঐ টুইটে এক হাজারের অধিক লোক ক্লিক করেন। যার ফলে শতাধিক কল যায় জরুরী সেবাটিতে। পরে এই ব্লগ ও চ্যানেলের বিরুদ্ধেও অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

তবে মিতকুমার এটি দুর্ঘটনাবশত করেছেন বলে জানিয়েছেন। তার এক বন্ধু ৯১১ এর ত্রুটি খুঁজে পাওয়ায় মজা নেওয়ার চেষ্টা করছিলেন। জাভাস্ক্রিপ্টের মাধ্যমে পপ-আপ, ইমেইল ও ফোন কল চালু করে জরুরী সেবাটিকে বিঘ্ন ঘটানো হয়।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

পোকেমন গো’র প্রধান নির্বাহীর টুইটার হ্যাক!

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : জনপ্রিয় মোবাইল গেইম পোকেমন গো’র নির্মাতা প্রতিষ্ঠান নিয়ানটিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জন হানকির টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে। গত রবিবার হ্যাক হওয়া অ্যাকাউন্ট থেকে হানকির প্রায় ১৬ হাজার ফলোয়ারকে উদ্দেশ্য করে কয়েকটি টুইট করা হয়।

শিগগিরই ব্রাজিলে পোকেমন গো চালুর জন্যই এই হ্যাকিং। ‘আওয়ারমাইন’ হ্যাশট্যাগে দেওয়া টুইটে হ্যাক করার এই কারণ উল্লেখ করেছে হ্যাকার।

Pokemon Go-techshohor

আরেকটি টুইটে হ্যাকার দাবি করে হানকির অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড ‘nopass’। আশ্চর্যের বিষয় হলো আওয়ারমাইন সোশ্যাল নেটওয়ার্ক অ্যাকাউন্ট নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠান। ফলে ধারণা করা হচ্ছে, তাদের প্রচার ও ব্যবহারকারীদের অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা বাড়ানোর তাগিদ দিতেই তারা এই হ্যাকিং কার্যক্রম চালিয়েছে।

এর আগেও গুগলের প্রধান নির্বাহী সুন্দর পিচাই, ফেইসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জুকারবার্গ ও টুইটারের প্রধান নির্বাহী জ্যাক ডোর্সির অ্যাকাউন্ট হ্যাকিংয়ের দায় স্বীকার করে আওয়ারমাইন। এছাড়া মাসখানেক আগে উইকিলিকস ডাউন রাখার পিছনেও তারা রয়েছে বলে দাবি করে।

দ্য নেক্সট ওয়েব অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

‘কম্পিউটার হ্যাকের ঘটনায় টিমভিউয়ার দায়ী নয়’

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : কয়েকদিন আগে রিমোর্ট কন্ট্রোল সফটওয়্যার টিমভিউয়ার দিয়ে বেশকিছু কম্পিউটার হ্যাক করার অভিযোগ উঠেছিল। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে টিমভিউয়ার কর্তৃপক্ষ বলেছে, এই হ্যাকিংয়ের ঘটনায় টিমভিউয়ার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাদের দাবি, ব্যবহারকারীরা একাধিক একাউন্টে একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার কারণে হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছেন। পাশাপাশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরি করে সেসব তথ্য হ্যাকাররা কাজে লাগিয়েছে।

টিমভিউয়ারের অভিযোগ, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো থেকে হ্যাকাররা প্রচুর তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে। আবার ডার্ক ওয়েব মার্কেট থেকে অল্প দামে পেয়ে যাচ্ছে অনেক একাউন্টের মালিকানা। সংঘবদ্ধ হ্যাকার চক্র এসব তথ্য ব্যবহার করে বড় ধরনের অপরাধ সংঘটিত করছে।

TeamViewer-techshohor

গত সপ্তাহে বেশকিছু ব্যবহারকারী অভিযোগ করেন, টিমভিউয়ার সফটওয়ারটি দিয়ে তাদের কম্পিউটার, অনলাইন পেমেন্ট সার্ভিস পেপাল ও ইবে হ্যাক করে টাকা-পয়সা হাতিয়ে নেয়া হচ্ছে।

পৃথিবীর যেকোনো প্রান্ত থেকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে যেকোনো পিসি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য অতি পরিচিত রিমোট পিসি সফটওয়্যার হচ্ছে টিমভিউয়ার। প্রথমদিকে এটি দিয়ে কম্পিউটার থেকে কম্পিউটার নিয়ন্ত্রণ করা যেত। পরবর্তীতে স্মার্টফোন দিয়েও কম্পিউটার নিয়ন্ত্রণের সুবিধা যুক্ত হয়।

বিবিসি অবলম্বনে শামীম রাহমান

আরও পড়ুন: 

ফেইসবুকের ক্লোন ওয়েবসাইট হ্যাকড

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : স্টারকন, দেখতে হুবহু শীর্ষ সামাজিক যোগাযোগ সাইট ফেইসবুকের মতো। সম্প্রতি হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে উত্তর কোরিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটটের দাবি করা এই ওয়েবসাইটটি।

দেশটির শীর্ষস্থানীয় ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ‘স্টার’ এর নামের সাথে মিল করে সাইটটির নামকরণ করা হয়েছে। গত শুক্রবার ইন্টারনেট বিষয়ক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ডাইন রিসার্চের গবেষকরা প্রথম অনলাইনে সাইটটি দেখতে পান। তবে সেটি প্রকাশিত হওয়ার পরে হ্যাকিংয়ের শিকার হয়।

Starcon facebook clone website-TechShohor

সাইটটি উত্তর কোরিয়াতেই হোস্ট করা হয়েছে। ব্যবহার করা হয়েছে পিএইচপি ডলফিন, যা সামাজিক যোগাযোগ সাইট তৈরিতে ব্যবহার করা হয়। তবে কে বা কারা এটি তৈরি করেছে তা প্রাথমিকভাবে জানা যায়নি।

১৮ বছরের স্কটিশ কিশোর অ্যান্ডু ম্যাককিন অতি সহজভাবে সাইটটি হ্যাক করতে সক্ষম হয়। ‘অ্যাডমিন’ ও ‘পাসওয়ার্ড’ ব্যবহার করেই সে সাইটের সার্ভারে লগইন করতে পারে। এরপর পুরো সাইটটিই তার নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। সে ব্যবহারকারীদের ইমেইলসহ ব্যক্তিগত বিভিন্ন তথ্যও দেখতে পায়। পরে অবশ্য ইউটিউবের একটি ভিডিওতে সাইটটি ফরোয়ার্ড করে।

ফেইসবুকের মতোই স্টারকনে যে কেউ অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। যুক্ত করা যাবে প্রোফাইল পিকচার, ভিডিও। এছাড়া বন্ধুদের সাথে যোগাযোগও করতে পারবেন।

উল্লেখ্য, বর্তমানে উত্তর কোরিয়াতে বিদেশীরা মডেমের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারলেও স্থানীয় নাগরিকদের ক্ষেত্রে ইন্টারনেট ব্যবহারে বিভিন্ন ধরণের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এই অবস্থানে ফেইসবুকের মতো ওয়েবসাইট তৈরি কিভাবে সম্ভব ও কার্যকরী কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। অনেকেই বলছেন হয়তোবা কৌতুহল বশতও এটি করা হতে পারে।

টিওই অবলম্বনে ফারজানা মাহমুদ পপি

কঠিন পাসওয়ার্ড ব্যবহারে বাধ্য করছে মাইক্রোসফট

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রযুক্তি কোম্পানি বা নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বরাবরই সহজে ধারণা করা যায় না বা কঠিন পাসওয়ার্ড ব্যবহারে উৎসাহিত করে আসছেন। এরপরেও ১২৩৪৫৬ কিংবা মোবাইল নাম্বার, জন্মতারিখ ইত্যাদি দিয়ে সহজ পাসওয়ার্ড ব্যবহার করছেন অধিকাংশই ইন্টারনেট ব্যবহারকারী। আর তাই এবার কঠিন পাসওয়ার্ড ব্যবহারে বাধ্য করছে শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি জায়ান্ট মাইক্রোসফট

এখন থেকে মাইক্রোসফটের অ্যাকাউন্ট ও অ্যাজিউর এডি সার্ভিসে সচরাচর ব্যবহৃত বা যেসব পাসওয়ার্ড চুরি হবার সম্ভাবনা থাকে এমন পাসওয়ার্ড ব্যবহার বন্ধ করে দিচ্ছে। যখন ব্যবহারকারী এ ধরণের পাসওয়ার্ড দিতে থাকবেন তখন সাথে সাথে সেটির নিরাপত্তা কতোটুকু সেটা দেখাবে। কঠিন পাসওয়ার্ড না দেয়া পর্যন্ত নতুন পাসওয়ার্ড গ্রহণ করবে না মাইক্রোসফটের এসব সেবায়।

পাশাপাশি হ্যাকিং প্রতিরোধে একাধিকবার ভুল পাসওয়ার্ড প্রবেশ করালে সেটি লকআউট মোডে চলে যাবে। ফলে কিছু সময়ের জন্য অ্যাকাউন্টটিতে লগইন করা যাবে না।

মাইক্রোসফট জানিয়েছে, ভুল পাসওয়ার্ড প্রবেশের প্রায় ৫৪ শতাংশই হ্যাকাররা ব্যবহার করেন। বাকি ৪৬ শতাংশ ব্যবহারকারী সত্যিকার অর্থে পাসওয়ার্ড ভুলে গিয়ে এমনটি করেন।

এখন থেকে পাসওয়ার্ডে কমপক্ষে ৮টি অক্ষর, চিহ্ন, নাম্বার কিংবা বড় অক্ষর ব্যবহার করতে হবে। পাশাপাশি মোবাইল ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন সুবিধা ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে মাইক্রোসফট।

দ্য নেক্সট ওয়েব অবলম্বনে ফারজানা মাহমুদ পপি

আরও পড়ুন: