ঈদ বিনোদন হাতে হাতে, অনলাইনে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঈদ বিনোদন এখন শুধু বেড়াতে যাওয়া বা ঘরের চার কোনা বাক্সটির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকছে না। উৎসবের রঙ ছড়িয়ে পড়েছে অনলাইনেও। হাতের স্মার্টফোন বিনোদনে নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

দেশে অনলাইনকেন্দ্রিক বিনোদন বাড়ছে বেশ কয়েক বছর ধরে। বিশেষ করে গত কয়েক ঈদে তা জনপ্রিয়তাও পেয়েছে বেশ। এবারও এর ব্যতিক্রম নয়, বরং বেড়েছে কলেবরও।

অনেককে ঢাকা ছাড়ার আগে স্মার্টফোনে সিনেমা ও গান ডাউনলোড করে নিতে দেখা গেছে। গলির দোকানগুলোতে এ জন্য ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন কর্মীরা।

ইউটিউবে নতুন নাটক বা সিনেমা মুক্তির পাশাপাশি মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোও তাদের গ্রাহকদের জন্য নতুন কিছু নিয়ে হাজির হয়েছে। তাদের নেটওয়ার্কে বিনোদনের পসরা সাজিয়েছে।

online-youtube-natok-techshohor

বাংলালিংক যেমন ১২টি গানের নতুন সিরিজ নিয়ে এসেছে। গত বছর অপারেটরটি দেশে প্রথমবারের মতো মোবাইল প্লাটফর্মে মুক্তি দিয়েছিল একটি সিরিয়ালের।

গ্রামীণফোনও নতুন গান দিয়ে সাজিয়েছে তাদের বিনোদন। জিপি মিউজিকে সঙ্গীতপ্রেমীদের জন্য থাকছে সেসব গান।

এবার সাত পর্বের দুটি ‘ওয়েব সিরিজ’ প্রচারিত হবে ইউটিউব চ্যানেল ‘সিএনজিতে’।

আমি ক্রিকেটার হতে চাই – নামের সিরিজটি নির্মাণ করেছেন মাবরুর রশীদ। এতে অভিনয় করেছেন আফরান নিশো, ঈশিকা খান ও বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক খেলোয়াড় মেহরাব হোসেন অপি।

নাটকটি মুক্তি পাবে ঈদের সাত দিন সন্ধ্যা ৭টায়। এতে এক ক্রিকেটপাগল মেয়েকে মুগ্ধ করতে এক ছেলের ক্রিকেটার হওয়ার গল্পই তুলে ধরেছেন পরিচালক।

একই চ্যানেলে ঈদের সাত দিন রাত নয়টায় মুক্তি পাবে অ্যাডমিশন টেস্ট নামে আরেকটি ওয়েব সিরিজ, যেখানে অভিনয় করেছেন টয়া, জোভান, তামিম মৃধা ও জাকি।

এদিকে বাংলা ঢোলের উদ্যোগে সাকিব রায়হানের রচনা ও পরিচালনায় ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম বাংলাফ্লিক্সে প্রচারিত হবে বিশেষ নাটক উপহার। এটি মুক্তি পাবে চাঁদরাতে।

ঈদের দিন সিডি চয়েজের ইউটিউব চ্যানেলে মুক্তি পাবে ঝড়ের পরে নামে একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। নতুন গানের মিউজিক ভিডিও নিশ্চয়ই থাকবে ইউটিউবে।

আবার টেলিভিশনের খবর ও বিজ্ঞাপনের ঝামেলা এড়িয়ে যারা নাটক দেখতে চান, তারা যেতে পারেন টেলিভিশনগুলোর ইউটিউব চ্যানেলে।

ডেটা ভয়েসে অপারেটরদের ঈদ বোনাস

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঈদকে আনন্দময় করতে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো ঈদ বোনাস হিসেবে নানা অফার ও ছাড় দিতে শুরু করেছে।

গ্রাহক বিচারে সবচেয়ে বড় অপারেটর গ্রামীণফোন যে কোনো ডেটা প্যাকের সঙ্গে ২০ শতাংশ বোনাস দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

গত কয়েক দিন ধরে নিজেদের ওয়েবসাইট ও অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে প্রচারণা চালানোর পাশাপাশি গ্রাহকদেরকে এসএমএস দিয়ে এ বোনাসের বিষয়ে জানাচ্ছে।

gp-eid-bonus-techshohor

প্রায় তিন কোটি ইন্টারনেট গ্রাহকের অপারেটর গ্রামীণফোন এ অফার কতদিন বহাল থাকবে সে বিষয়ে অবশ্য স্পষ্ট করে বলেনি।

ঈদকে সামনে রেখে বাংলালিংক প্রিপেইড গ্রাহকদের জন্য ৩৯ টাকা রিচার্জে যে কোনো বাংলালিংক নম্বারে আধা পয়সা প্রতি সেকেন্ড ও অন্য অপারেটরে এক পয়সা প্রতি সেকেন্ড সারাদিনের অফার নিয়ে এসেছে।

রবি তাদের ডেটা অফারের সঙ্গে ইনস্ট্রাগ্রাম ফ্রি করে দিয়েছে। একই সঙ্গে ডেটার দামও কমিয়েছে তারা।

আগে যেখানে তারা এক জিবি ডেটা এক সপ্তাহের জন্য বিক্রি করতো ৮৯ টাকায় এখন দেড় জিবি দিচ্ছে ১০১ টাকায়। সেই সঙ্গে ইনস্ট্রাগ্রাম ফ্রি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে অপারেটরটি।

robi-eid-bonus-techshohor

এ ছাড়া গ্রামীনফোন ঈদের কেনাকাটায় সুবিধা দিতে বেশ কিছুদিন থেকে বিভিন্ন পণ্য ও আউটলেটে ১০ থেকে ২০ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে। স্টার গ্রাহকদের জন্য বিশেষ ছাড়ের অফার রয়েছে।

এদিকে ঈদের বিনোদনের দিকেও নজর রেখেছে অপারেটরগুলো। এক দিকে নিজেদের প্লাটফর্মে বিনোদনের কনটেন্ট বাড়ানোর সঙ্গে বিভিন্ন টেলিভিশনে ঈদের সময় নানা নাটক ও সিরিয়ালের আয়োজনও করেছে তারা।

গ্রাহকদের মধ্যে নিজেদের অবস্থানকে আরও শক্তিশালী করতে অপারেটরগুলো এমন উদ্যোগ নিচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

জিপিতেও অনলাইনে মিলছে সিম

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : জিপি শপের পরিধি আরেকটু বাড়িয়ে গ্রামীণফোনও অনলাইনে সিম বিক্রি শুরু করেছে। তবে এ পদ্ধতিতে এখন তারা শুধু রাজধানীতেই সিম বিক্রি করবে।

এর আগে বাংলালিংক গত বছর প্রথম অনলাইনে সিম বিক্রি শুরু করে। তখন গ্রামীণফোন তাদের অনলাইন প্লাটফর্ম থেকে হ্যান্ডসেট ও অন্যান্য অ্যাক্সেসরিজ বিক্রি করলেও অনলাইনে সিম বিক্রি শুরু করেনি।

gp sim-techshohor

গ্রাহক বিচারে বর্তমানে দেশের বৃহত্তম অপারেটরটি তাদের ওয়েবসাইট ও ফেইসবুক পেইজে ঘোষণা দিয়ে এ বিষয়ক প্রচারণা শুরু করেছে।

আপাতত শুধু প্রিপেইডের নিশ্চিন্ত প্যাকেজের সিম এ পদ্ধতিতে বিক্রি করা হবে। প্রতিটি সিমের মূল্য ধরা হয়েছে ১১০ টাকা। আর ডেলিভারি চার্জ হিসেবে দিতে হবে আরও ৮০ টাকা।

তবে এখান থেকে ইচ্ছে মতো নম্বর পাওয়ার সুযোগ কম বলে গ্রামীণফোন তাদের ফেইসবুক পেইজে জানিয়েছ্

বর্তমানে গ্রামীণফোনের কার্যকর সংযোগের সংখ্যা ছয় কোটি পেরিয়ে গেছে।

ডিজিটাল উইনার্স এশিয়ায় যাচ্ছে ২ স্টার্টআপ

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গ্রামীণফোন অ্যাক্সেলারেটর থেকে নির্বাচিত দুটি দল অংশ নেবে সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিতব্য ডিজিটাল উইনার্স এশিয়া (ডিডব্লিউএ) সম্মেলনে। দল দুটি হচ্ছে সেবাডট এক্সওয়াইজেড এবং ক্র্যামস্ট্যাক।

সোমবার গ্রামীণফোন কার্যালয় জিপি হাউজে বিজয়ীদের বাছাই করা হয়েছে। শীর্ষস্থানীয় বিনিয়োগকারী, করপোরেট নেতৃত্বদানকারী এবং স্টার্টআপ সংশ্লিষ্ট উপদেষ্টাদের সমন্বয়ে গঠিত বিচারক প্যানেল ১২টি দল থেকে এই দুটিকে নির্বাচন করেন।

বাংলাদেশে বিজয়ী দলগুলোর মধ্যে সেবা দৈনন্দিন কাজের সহায়তার জন্য বিভিন্ন সেবা প্রদান করে এবং ক্র্যামস্ট্যাক এর প্ল্যাটফর্ম ব্যবসায়িক তথ্যের উৎসগুলো সংযুক্ত করে যাতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো তাৎক্ষণিকভাবে অ্যানালিটিকস পেতে সাহায্য করে। স্থানীয় এ বিজয়ী দলগুলো সিঙ্গাপুরে মালয়েশিয়া, মিয়ানমার, পাকিস্তান ও থাইল্যান্ডের প্রতিনিধিদের সাথে প্রতিযোগিতা করবে।

DWA_GPA-startups-win-Techshohor

স্থানীয় স্টার্টআপকে আঞ্চলিক পর্যায়ে ব্যবসা বিস্তারে সহায়তা করাই ডিজিটাল উইনার্স এশিয়ার মূল উদ্দেশ্য। এ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দলকে ব্যবসা প্রসারের উদ্দেশ্যে ১০ লাখ টাকার সমতূল্য ১ লাখ নরওয়েজিয়ান ক্রোনার দেয়া হবে।

টেলিনরের তৈরি এই প্ল্যাটফর্মটিতে গ্রামীণফোন অ্যাক্সেলারেটরে অংশগ্রহণকারীরা দ্বিতীয়বারের মতো অংশগ্রহণ করছে।

বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়ে গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী মাইকেল ফোলি বলেন, ডিজিটাল ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ এখনও সূচনালগ্নে। তবে দেশের এমন সম্ভাবনাগুলোকে খুঁজে বের করতেই এমন আয়োজন।

ইমরান হোসেন মিলন

টেলিনর ইগনাইট ইনকিউবেটরে সেরা জিপির দুই উদ্ভাবনী ধারণা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গ্রামীণফোনের দুটি উদ্ভাবনী ধারণা টেলিনরের ইগানাইট ইনকিউবেটর কর্মসূচীর সেরা তিনে জায়গা করে নিয়েছে।

গ্রামীণফোনের কর্মীদের নিয়ে গঠিত ঈগলআই ও লিকুইডআই দল দুটি গাড়ির জ্বালানী পর্যবেক্ষেণের জন্য আইওটিভিত্তিক ব্যবস্থা এবং মোবাইল আর্থিক সেবায় নিয়োজিত কর্মীদের জন্য তাৎক্ষণিক লিকুইডিটি ম্যানেজমেন্টের ধারণা উপস্থাপন করেছিল।

বিজয়ী দল দুটিকে এই ধারণা উন্নয়নে প্রয়োজনীয় তহবিল দেয়া হবে।

গ্রামীণফোন জানায়, প্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরে উদ্ভাবনের প্রবনতাকে উৎসাহিত করতে টেলিনরের একটি বিশেষ উদ্যোগ ইগনাইট। এর দ্বিতীয় পর্বে টেলিনরের বিভিন্ন কোম্পানি থেকে ১৩০টি ধরাণা জমা পড়ে, যার মধ্যে ৩০টি গত ফেব্রুয়ারি মাসে সিংগাপুরে উপস্থাপন করা হয়।

এখান থেকে ১০টি দল ৩ মাসের ইনকিউবেটর কর্মসূচির জন্য নির্বাচিত হয়। তিন মাসের বুটকাম্পে দলগুলো তাদের ধারণা নিয়ে গবেষণা ও পরীক্ষা করে।

শেষে টেলিনর সদরদপ্তরে একটি আন্তর্জাতিক জুরি বোর্ড, টেলিনর কর্মী এবং এর শীর্ষ ব্যবস্থাপকদের সামনে চূড়ান্ত মূল্যায়নে ধারণাগুলো উপস্থাপিত হয়।

গ্রামীণফোন ছাড়া সেরা তিন ধারণার মধ্যে আরেক দল হচ্ছে বুলগেরিয়ার সিগন্যাল যারা দূর হতে স্মার্টফোন ব্যক্তিগতকরণ ও বয়স্কদের সহায়তা করার ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করছে।

আল-আমীন দেওয়ান

কম দামে বেশি স্পেকট্রাম চায় অপারেটরগুলো

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ফোরজি সেবায় বেশি দামে কম স্পেকট্রামের পরিবর্তে তুলনামূলক কম দামে পুরো স্টেকট্রাম কিনতে চায় মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো।

প্রতি মেগাহার্ডজ স্পেকট্রামের মূল্য দুই কোটি ডলারের নিচে নামিয়ে আনতে সরকারকে অনুরোধ জানিয়েছে দেশের বড় তিন অপারেটরের মূল কোম্পানি।

গ্রামীণফোনের মূল কোম্পানি টেলিনর, রবির মূল কোম্পানি আজিয়াটা ও বাংলালিংকের মূল কোম্পানি ভিয়েনের পক্ষ থেকে এ দাবি জানানো হয়েছে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে গত ২৯ মে পাঠানো যৌথ এ চিঠিতে তিন কোম্পানির তিন শীর্ষ কর্মকর্তা সই করেছেন।

GP-banglalink-robi-4G-techshohor

তারা বলছেন, ২০১৩ সালে দেশে থ্রিজি চালুর আগে সরকারের হাতে থাকা স্পেকট্রামের মাত্র কিছু অংশ বিক্রি হয়েছিল। উচ্চ মূল্যের কারণেই অপারেটরগুলো অল্প স্পেকট্রাম কিনে থ্রিজি সেবা চালু করতে বাধ্য হয়।

এখন থ্রিজি ব্যান্ডে অনেক অবিক্রিত স্পেকট্রাম রয়ে গেছে। সরকার তখন নিলামে এই স্পেকট্রামের ভিত্তিমূল্য ধরেছিল প্রতি মেগাহার্ডজ দুই কোটি ডলার। নিলামে তা দুই কোটি ১০ লাখ ডলারে বিক্রি হয়।

দেশে ফোর জি সেবা চালু করতে এখন কয়েকটি ব্যান্ডের স্পেকট্রাম বিক্রি করতে চায় বিটিআরসি। নিরামে এগুলোর কোনোটির ভিত্তিমূল্য তিন কোটি থেকে সাড়ে তিন কোটি ডলার পর্যন্ত ধরা হচ্ছে।

এত দাম না বাড়িয়ে অপারেটরগুলো বরং সরকারকে ভিন্নভাবে চিন্তা করতে অনুরোধ করছে। তারা প্রতি মেগাহার্ডজ স্পেকট্রামের মূল্য দুই কোটি ডলারের নিচে নামিয়ে আনার অনুরোধ করেছে।

দাম কমানো হলে অপারেটরগুলো বেশি স্পেকট্রাম কিনতে বিনিয়োগ করতে পারবে, তাতে ফোরজিতে গ্রাহক সেবার মান উন্নত হবে বলে চিঠিতে উল্লেখ করেন কর্মকর্তারা।

একই সঙ্গে তারা ফোরজিতে অপারেটরগুলোর রাজস্ব ভাগাভাগি কিছুটা কমিয়ে আনা এবং স্পেকট্রামে বাড়তি মূল্য না নিয়ে প্রযুক্তি নিরপেক্ষতা দেওয়ার ‍অনুরোধ করেন।

উদ্ভাবনে যৌথ পুরস্কার পেল হুয়াওয়ে-গ্রামীণফোন

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : চাহিদার ভিত্তিতে মোবাইল ব্রডব্যান্ড (এমবিবি) নেটওয়ার্ক ভিলারেডিও উদ্ভাবনে যৌথ পুরস্কার পেয়েছে হুয়াওয়ে এবং গ্রামীণফোন।

লন্ডনে অনুষ্ঠিত গ্লোবাল টেলিকম বিজনেস ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ডস ২০১৭-এর ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনোভেশন ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার পায় প্রতিষ্ঠান দুটি।

আবাসিক এলাকাগুলোতে গভীরতম ও শক্তিশালী নেটওয়ার্ক কাভারেজ সমস্যা দূর করাই ভিলারেডিও উদ্ভাবনের মূল উদ্দেশ্য।

অধিক ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা, অতিরিক্ত জিএসএম ট্রাফিক, এবং থ্রিজি ও ফোরজি সেবার দ্রুত বর্ধনশীল চাহিদা পূরণের ক্ষেত্রে উন্নত নেটওয়ার্ক স্থাপনের লক্ষে অভিনব প্রোগ্রাম কভারেজ সল্যুশনস প্রয়োজন যা ব্যবহার করে গ্রাহকদের চাহিদা পূরণ সম্ভব হবে। একই সঙ্গে টেকসই অবকাঠামো যেমন-ফাইবার রিসোর্সেস এবং টেকসই বিদ্যুৎ সরবরাহ যা বিশ্বের অনেক শহরে এখনও অপ্রতুল।

গ্রামীণফোনের সিইও এবং সিটিও মাইকেল ফোলে বলেন, জায়গার সংকুলান এবং প্রচলিত সমাধান না থাকায় ঢাকা শহরের মতো ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ করা একটি কষ্টসাধ্য কাজ। বিভিন্ন এলাকা যেখানে গ্রাহকরা নেটওয়ার্ক পেতে ঝামেলা পোহাতে হয়। স্থানগুলোতে ডাটা ও ভয়েস ট্রাফিকের ক্রমবিকাশমান চাহিদা পূরণে ভিলারেডিও সল্যুশনের প্রয়োগ ছিলো একটি সফল পদক্ষেপ যা গ্রাহকসেবার ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নতি সাধন হয়েছে।

হুয়াওয়ের স্মল সেল প্রোডাক্ট লাইনের প্রেসিডেন্ট রিচি পেং বলেন, অপারেটরগুলোর আরওআই উন্নয়ন এবং লভ্যাংশ বৃদ্ধি দ্রুততর করার লক্ষে সম্ভাবনাময় বাজারে বিনিয়োগ শক্তিশালীকরণ ছিল তাদের গুরুত্বপূর্ণ কৌশলের অংশ। সেটাই করছে হুয়াওয়ে।

ফ্রন্টেড বুকআরআরইউ, ফাইবার হিসেবে আরএইচইউবি ও বিদ্যুৎ সরবরাহ কনভার্জেন্স নোড এবং ব্যাসব্যান্ড প্রসেসিং ইউনিট (বিবিইউ)-এর সমন্বয়ে ভিলারেডিও সল্যুশনটি গঠন করা হয়েছে।

উচ্চমাত্রা একীভূতকরণ এবং ছোট মাত্রার বুকআরআরইউ বৃহৎ নেটওয়ার্ক ধারণক্ষমতাকে সহায়তা করে। আবাসিক এলাকাগুলোর বিভিন্ন পুল ও দেয়ালে সহজেই প্রতিস্থাপন করা যায় এটি, যা উক্ত এলাকার চারপাশে মিশ্রিত আকারে ছড়িয়ে যায়।

অধিক ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা যেখানে ভিন্ন ভিন্ন আকারের দালানকোঠা এবং ব্যয়বহুল নেটওয়ার্ক প্রতিস্থাপনের প্রতিবন্ধকতাকে দূর করে ভিলারেডিও। ৫০ মিটার পর্যন্ত উঁচু দালানকোঠাসমৃদ্ধ আবাসিক এলাকায় গভীর নেটওয়ার্ক কভারেজের ক্ষেত্রে উক্ত সল্যুশনটি উপযুক্ত।

ইমরান হোসেন মিলন

নষ্ট মোবাইল রিসাইকেল করবে গ্রামীণফোন

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নষ্ট, বাতিল মোবাইল হ্যান্ডসেট রিসাইক্লিং করবে দেশ সেরা মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন। এসব নষ্ট বা বাতিল ডিভাইস ভেঙে এর বিভিন্ন উপাদান পুনরায় ব্যবহার উপযোগী করবে।

এক্ষেত্রে গ্রামীণফোন এটা নিশ্চিত করছে যে, সেসব ডিভাইসের মধ্যে পুনর্ব্যবহার উপযোগী সকল উপকরণসহ সম্ভাব্য ক্ষতিকর উপাদান সঠিকভাবে প্রক্রিয়াকরণ করা হবে। আর এই পুরো প্রক্রিয়ায় অপারেটরটি অনুসরণ করবে আইএসও ১৪০০০, ওএসএইচএএস ১৮০০০ এবং ‘আন্তর্জাতিক স্ট্যাডার্ড’ বা আর ২।

সোমবার রাজধানীর ফার্মগেটে গ্রামীণফোন সেন্টারে ‘মোবাইল হ্যান্ডসেট রিসাইক্লিং’ কর্মসূচীর উদ্বোধন করা হয়। ৫ জুন বিশ্ব পরিবশে দিবস উপলক্ষ্যে কর্মসূচীটির যাত্রা করায় তারা।

গ্রামীণফোন তাদের প্রতিটি কাস্টমার সেন্টারে একটি করে বক্স রাখবে। যেখানে নষ্ট হ্যান্ডসেটগুলো ফেলা যাবে। এর বিনিময়ে একটি কৃতজ্ঞতা স্বীকার করে ফরম দেবে অপারেটরটি।

Photo_Handset-Recycling-techshohor

প্রধান অতিথি থেকে কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. রাইসুল আলম মণ্ডল। তিনি বলেন, সবুজ পরিবেশের জন্য পরিবেশ অধিদপ্তর সবসময় সোচ্চার থেকেছে। তবে আমরা এমন নষ্ট ফোনের মাধ্যমে যে কী পরিমাণে এবং কোন ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হই তা অনেকেই বুঝি না। এই কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে মানুষ সচেতন হবে এবং তাদের নষ্ট হ্যান্ডসেটগুলো গ্রামীণফোনের

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের মহাপরিচালক (ডিজি) মো. নাসিম পারভেজ বলেন, আমরা কখনো চিন্তা করি না যে দেশে প্রতিবছর কী পরিমাণে হ্যান্ডসেট অকেজো হয়ে পড়ে। আর সেগুলো কী হয়। দেশে এখন বছরে প্রায় তিন কোটি হ্যান্ডসেট নষ্ট হয়। যা রিসাইকেল করার কোনো ব্যবস্থা নেই। গ্রামীণফোন দেশে বিষয়টি প্রথম সামনে নিয়ে এলো।

গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী মাইকেল ফলি বলেন, পরিবেশের উপর বাতিল ফোনের নেতিবাচক প্রভাব হ্রাস করার ক্ষেত্রে রিসাইক্লিং একটি পরিবেশ বান্ধব নিরাপদ ও নৈতিক পদ্ধতি। পরিবেশগত দৃষ্টিকোণ থেকে অব্যবহৃত ও বাতিল ফোন মাটিতে মিশে যেতে না দিয়ে নিরাপদ, সুরক্ষিত ও নৈতিক উপায়ে রিসাইক্লিং করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আর সেটিই করবে তারা।

এজন্য অপারেটরটি সাধারণ মানুষের কাছে দায়বদ্ধ জানিয়ে তিনি বলেন, গ্রামীণফোন সরাসরি হ্যান্ডসেটের সঙ্গে জড়িত না। কিন্তু মোবাইল সেবায় তারা ওতোপ্রতভাবে জড়িত। তাই এটি তারা অস্বীকার করতে পারে না।

মোবাইল হ্যান্ডসেটে পারদ, ক্যাডমিয়াম, সীসা, বেরিলিয়াম এবং অগ্নি প্রতিরোধক সহ একাধিক ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান রয়েছে। এসব হ্যান্ডসেট সঠিকভাবে ধ্বংস না করা হলে কিংবা মাটিতে মিশে গেলে মোবাইল হ্যান্ডসেট থেকে নির্গত ক্ষতিকর উপাদান মাটি ও খাবার পানি দূষিত করে।

একটি মোবাইল ফোন থেকে যে পরিমাণ ক্যাডমিয়াম নির্গত হয় তাতে ছয় হাজার লিটার পানি দূষণ করতে পারে। মোবাইল ফোন নির্মাণে ব্যবহৃত অগ্নি প্রতিরোধক উপাদান, সীসা ও বেরিলিয়াম ক্যান্সার, যকৃত এবং স্নায়ুতন্ত্রের ক্ষতিসহ অনেক ঝুঁকিপূর্ণ রোগের কারণ। মোবাইল ফোনের ডিসপ্লে ও সার্কিট বোর্ডে ব্যবহৃত পারদ মস্তিষ্ক ও কিডনির ক্ষতি করতে পারে। এক চা চামচ পরিমাণ পারদ ২০ একরের একটি লেকের পানি আজীবনের জন্য দূষন করতে পারে।

কর্মকর্তারা জানান, গ্রামীণফোনের কাছে রিসাইক্লিং করার জন্য দেওয়া হ্যান্ডসেট কোনো অবস্থাতেই বিক্রি করা হবে না কিংবা পুনরায় ব্যবহার করা হবে না। হ্যান্ডসেটগুলো মাটি চাপা না দিয়ে বরং সঠিক উপায়ে ভেঙে ফেলা হবে এবং প্রাপ্ত উপাদানগুলো নতুন পণ্য তৈরিতে ব্যবহার করা হবে।

ইমরান হোসেন মিলন

মোরা বিধ্বস্ত এলাকায় গ্রামীণফোনের ফ্রি ব্যালেন্স

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : মোরা বিধ্বস্ত এলাকায় গ্রামীণফোন গ্রাহকরা ৩০ টাকা ফ্রি ব্যালেন্স পেয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে অপারেটরটি এই ঘোষণা দেয়। ফ্রি ব্যালেন্স দেয়ার অনুমতি পাওয়ার পর ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে গ্রাহকের ফোনে ইতোমধ্যে এই ব্যালেন্স পাঠিয়েও দেয়া হয়েছে।

কক্সবাজার, টেকনাফ, সেন্টমার্টিন, কুতুবদিয়া, হাতিয়া, সন্দ্বীপ, মহেশখালী, আনোয়ারা, বাশখালি, পতেঙ্গা, চকোরিয়া, সুবর্ণচর ও পেকুয়ার গ্রামীণফোন গ্রাহকরা এই ব্যালেন্স পেয়েছেন।

গ্রাহকদের *৫৬৬# ডায়াল করে ব্যালেন্স চেক করতে বলেছে অপারেটরটি।

গ্রামীণফোন জানায়, মোরা’য় আক্রান্ত এলাকার মানুষদের জরুরি যোগাযোগের এই ব্যালেন্স কাজে আসবে। দুর্যোগে সবার আপনজনের সঙ্গে যোগাযোগ নিরবচ্ছিন্ন রাখতে তাদের এই প্রচেষ্টা।

এছাড়া অপারেটরটি বলছে, বিধ্বস্ত এলাকায় তাদের নেটওয়ার্ক সচল রয়েছে। সার্বক্ষণিক নেটওয়ার্ক টিম কাজ করছে।

আল-আমীন দেওয়ান

 

ই-ক্যাবের সদস্য হল গ্রামীণফোন

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ই-কমার্স ব্যবসায় অনেক আগেই নেমেছে দেশসেরা মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন। এবার প্রতিষ্ঠানটি ই-কমার্স ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ বা ই-ক্যাবের সদস্য হিসেবে নিবন্ধন করেছে।

e-CAB---gp-techshohor

রোববার গ্রামীণফোনের প্রতিনিধিরা ই-ক্যাব গিয়ে সদস্য হিসেবে প্রতিষ্ঠানটিকে নিবন্ধন করেন। ই-ক্যাব সভাপতি রাজীব আহমেদ বলেন, একটি ব্যবসায়ীক সংগঠন হিসেবে আমরা চাই দেশে যারা ই-কমার্স ব্যবসায় আসবে আমরা তাদের অভিনন্দন জানাবো। গ্রামীণফোনকেও আমরা অভিনন্দন জানিয়েছি। আমরা চাই গ্রামীণফোনও ই-কমার্সে ভালো করবে।

তিনি বলেন, যেকোনো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ই-কমার্সে আসতে পারে। এমনকি এখন আমরা চাই গার্মেন্টগুলোকে ই-কমার্স ব্যবসায় আনতে চাই। দেশে ই-কমার্স ব্যবসা করতে গেলে অবশ্যই তাদের নিয়ে আসতে হবে।

ইমরান হোসেন মিলন

লাভা ও মাইক্রোম্যাক্সের সাথে ফোন আনল জিপি

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : মোবাইল ব্র্যান্ড মাইক্রোম্যাক্স ও লাভার সঙ্গে অংশীদারিত্বে দুটি ফোন এনেছে গ্রামীণফোন।

কো-ব্র্যান্ডেড মাইক্রোম্যাক্স কিউ৩৫৪ এবং লাভা আইরিস ৫০৫ এর নতুন সংস্করণ উন্মোচন করেছে গ্রামীণফোন।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ গ্রামীণফোনের উপ-প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রধান বিপণন কর্মকর্তা ইয়াসির আজমান, মাইক্রোম্যাক্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও প্রতিষ্ঠানটির ইন্টারন্যাশনাল বিজনেসের প্রধান সমীর কাকার এবং গ্রামীণ ডিস্ট্রিবিউশনের চিফ অপারেটিং অফিসার মো. জহুরুল হক বিপ্লব স্মার্টফোনের উন্মোচনে উপস্থিত ছিলেন।

SmartPhone_lava_micro-Techshohor

শাহজাহান মাহমুদ বলেন, সুলভ স্মার্টফোন দুটি চালু করে গ্রামীণফোন ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের দিকে আরো একটি পদক্ষেপ গ্রহণ করলো।

মাইক্রোম্যাক্স কিউ৩৫৪ স্মার্টফোনটিতে রয়েছে আকর্ষণীয় ৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে এবং ১.৩ গিগাহার্টজ কোর প্রসেসর। ১ জিবি র‍্যামের ফোনটিতে রয়েছে ৮ জিবি রম। ফোনটির পেছেনে রয়েছে ৫ এবং সামনে ২ মেগাপিক্সলে ক্যামেরা। অ্যান্ড্রয়েড ৬.০ ফোনটিতে রয়েছে ২২০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি।

ফোনটির দাম তিন হাজার ৯৯৯ টাকা। আর ফোনটি কেনার সাথে গ্রাহকরা বিনামূল্যে পাবেন ব্যাক কভার ও স্ক্রিন প্রটেক্টর। ফোনটি পাওয়া যাবে আকর্ষণীয় মিডনাইট ব্লু ও সিলভার কালারে।

৪.০ ইঞ্চি টিএফটি ডব্লিউজিএ স্ক্রিনের জনপ্রিয় লাভা আইরিস ৫০৫ ফোনটিতে রয়েছে ১.৩ গিগাহার্টজ ডুয়াল কোর প্রসেসর, ৪ জিবি রম এবং ৫১২ মেগাবাইট র‍্যাম। ফোনটির সামনে ও পেছেনে রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা এবং ১৪০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি।

ফোনটির দাম রাখা হচ্ছে দুই হাজার ৯৪৫ টাকা।

গ্রামীণফোনের লোগোযুক্ত ফোনদুটিতে রয়েছে থ্রিজি, এজ এবং ওয়াইফাই সুবিধা। এক বছরের ওয়্যারেন্টির পাশাপাশি, ত্রুটিপূর্ণ ফোনের ক্ষেত্রে ফোন কেনার ১৫ দিন পর্যন্ত নতুন ফোন পাওয়ার সুবিধা।

এছাড়াও, ক্রেতারা পাবেন ৭ দিনের মেয়াদসহ বিনামূল্যে ১.৫ জিবি ইন্টারনেট এবং আকর্ষণীয় ২৯ টাকায় ৫০ মিনিট কিনে ১ জিবি ফ্রি ইন্টারনেট অফার। গ্রাহকরা ১২ মাসে ছয়বার এ অফার নেয়ার সুযোগ পাবেন।

ফোনের উন্মোচন অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের ডেপুটি সিইও এবং প্রধান বিপণন কর্মকর্তা ইয়াসির আজমান, মাইক্রোম্যাক্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও প্রতিষ্ঠানটির ইন্টারন্যাশনাল বিজনেসের প্রধান সমীর কাকার, গ্রামীণ ডিস্ট্রিবিউশনের (লাভা ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের স্বীকৃত ডিস্ট্রিবিউটর) চিফ অপারেটিং অফিসার মো. জহুরুল হক বিপ্লব বক্তব্য রাখেন।

দেশজুড়ে গ্রামীণফোন সেন্টার, গ্রামীণফোন এক্সপ্রেস শপ এবং গ্রামীণফোনের রিটেইল আউটলেট, অনলাইনের ক্ষেত্রে জিপি শপে পাওয়া যাবে স্মার্টফোন দুটি।

ইমরান হোসেন মিলন