বাজারে কালো রঙের অপ্পো এফ৩

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সেলফির জন্য ক্যামেরায় বিশেষত্ব দিয়ে তৈরি অপ্পো  এফ৩ কালো রঙের সংস্করণে দেশের বাজারে এনেছে প্রতিষ্ঠানটি।

সেলফি স্পেশালিস্ট নামে পরিচিত ফোনটির সামনে রয়েছে ডুয়েল ক্যামেরা, যার একটি ১৬ মেগাপিক্সেলের। আরেকটি ৮ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা।

ডুয়েল সেলফি ক্যামেরার পাশাপাশি, এতে রয়েছে ১/৩ ইঞ্চি সেন্সর এবং এলইডি ফ্ল্যাশ যুক্ত ১৩ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা।

৫.৫ ইঞ্চির ডিসপ্লের রেজুলেশন ১৯২০ বাই ১০৮০ পিক্সেলস। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ২.৫ ডি কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ প্রযুক্তি।

ফোনটিতে রয়েছে ৪ জিবি র‍্যাম, ৬৪ জিবি ইন্টারনাল মেমোরি। ফোনটিতে দুটি ন্যানো সিমকার্ড ও একটি মাইক্রো এসডি কার্ড একসাথে কাজ করবে। এতে রয়েছে ৩২০০ এমএএইচ ব্যাটারি। ফোনটির দাম রাখা হয়েছে ২৫ হাজার ৯৯০ টাকা।

আনিকা জীনাত

ওয়ালটনের নতুন সেলফি ফোন বাজারে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর:  নতুন মডেলের সেলফি স্মার্টফোন বাজারে এনেছে ওয়ালটন।

প্রিমো এইচ৬প্লাস মডেলের হ্যান্ডসেটটির সামনে ও পেছনে যথাক্রমে  ৮ মেগাপিক্সেল ও ১৩ মেগাপিক্সেলের এলইডি ফ্ল্যাশসহ অটোফোকাস ক্যামেরা রয়েছে।

ওয়ালটনের গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর আরিফুল হক রায়হান জানান, ফোনটিতে ইন্টারনাল মেমোরি ১৬ জিবি। দেয়া হয়েছে ৬৪ বিটের ১.৩ গিগাহার্জের কোয়ার্ডকোর প্রসেসর এবং ৩ জিবি ডিডিআর৩ র‌্যাম। রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর।

walton.techshohor

সাড়ে ৫ ইঞ্চির আইপিএস এইচডি  ২.৫ডি কার্ভড গ্লাসের ডিসপ্লেতে রেজ্যুলেশন ১২৮০* ৭২০।  ডুয়াল সিমের ফোনটি থ্রিজি ও ফোরজি সাপোর্ট  করবে। অপারেটিং সিস্টেমে রয়েছে নোগাট ৭.০।

কালো ও সোনালি দুটি রঙের স্মার্টফোনটি ১১ হাজার ৯৯০ টাকায় কেনা যাবে। দেয়া হবে ১ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা।

আনিকা জীনাত

শাওমি ওয়াই-আই ফোরকে : মান ও বাজেটে ‘মাঝারি’ অ্যাকশন ক্যামেরা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শাওমি ক্যামেরা বানায় এমন তথ্য সাধারণের সবার খুব বেশি জানা নেই। সবাই মূলত এ ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন নিয়েই মাতামাতি করে বেশি। এরই মাঝে অন্যান্য ডিভাইসও বানাচ্ছে চীনা অ্যাপল খ্যাত কোম্পানিটি।

এরই অংশ হিসেবে অ্যাকশন ক্যামেরা গো-প্রো’র প্রথম সফল স্বল্পমূল্যের প্রতিদ্বন্দ্বী তৈরি করে শাওমির ওয়াই-আই টেকনোলজিস বেশ সাড়া ফেলেছে। সেই ক্যামেরাটির নতুন সংস্করণ ওয়াই-আই ফোরকে বাজারে এসেছে বেশ কিছুদিন আগে।

সর্বশেষ আপডেটের পর সেটি গো-প্রো’র তুলনায় কতটুকু সুবিধা করতে পেরেছে সেটাই এখন দেখার বিষয়। নতুন এ অ্যাকশন ক্যামেরার ফিচারগুলোর পাশাপাশি ভালো মন্দের বিচার বিশ্লেষণ থাকছে এ রিভিউতে।

এক নজরে শাওমি ওয়াই-আই ফোরকে

  • ১৫৫ ডিগ্রি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স
  • ১২ মেগাপিক্সেল সনি আইএমএক্স ৩৭৭ সেন্সর
  • ফোর-কে ৩০ এফপিএস, ১০৮০পি ১২০ এফপিএস ও ৭২০পি ২৪০ এফপিএস পর্যন্ত ভিডিও করার সুবিধা
  • ব্লুটুথ ও ডুয়াল-ব্যান্ড ওয়াই-ফাই সুবিধা
  • ২.২ ইঞ্চি টাচ স্ক্রিন ডিসপ্লে
  • মাইক্রো এসডি কার্ড স্লট
  • সরাসরি ক্যামেরায় চিত্র ও ভিডিও ধারণের সুবিধা ছাড়াও ফোনের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণের সুবিধা

4k-Yi-Action-Camera-Menu-techshohor

ডিজাইন
ক্ষুদ্রাকৃতির এ ক্যামেরার ডিজাইন বেশ সাধারণ। সামনে একটু পাশে রয়েছে এর লেন্স, ওপরে শাটার বাটন, পেছনের পুরোটা জুড়ে টাচ স্ক্রিন। ডান পাশে রয়েছে চার্জিং পোর্ট ও মাইক্রো এসডি স্লট ও নিচে স্ক্রু মাউন্ট ও ব্যাটারি ডোর।

বেশ শক্তপোক্ত প্লাস্টিকে তৈরি ম্যাট ব্ল্যাক ক্যামেরাটি হাতে নিলেই বোঝা যাবে এটি টুকটাক আঘাতও অনায়াসে সহ্য করে নিতে পারবে, এটি বলে দিতে হবে না।

ক্যামেরার বাটনটি কিছুটা অদ্ভুত স্থানে দেওয়ার ফলে ছবি তুলতে একটু অন্যরকম লাগবে। তবে সেটা অভ্যাসের ব্যাপার। ডিজাইনের মূল সমস্যা বলা যেতে পারে, ক্যামেরাটি পানি-নিরোধক নয়।

তাই পানির নিচে বা ভেজা অবস্থায় ব্যবহারের জন্য ওয়াটার প্রুফ কেস কেনা বাধ্যতামূলক।

Xiaomi-Yi-4K-Action-Camera-2-Harga-24-Jutaan

ব্যবহার
ক্যামেরাটির মূল প্রতিদ্বন্দ্বী বলা যেতে পারে গো-প্রো হিরো৪। অ্যাকশন ক্যামেরার মূল আকর্ষণ বলতে যা বোঝায় সেটির  প্রায় সবকিছুই ওয়াই-আই ৪কে ক্যামেরাটিতে করা যাবে। তবে দামের দিক থেকে গো-প্রো’র চাইতে এটি অনেক কম।

চলার পথে ভিডিও ধারণ, দ্রুত ঘটে যাওয়া ঘটনার স্লো-মোশন ভিডিও করাসহ সাধারণ ক্যামেরা যেখানে অচল – যেমন হেলমেট মাথায় থাকলে বা সাঁতার কাটার সময় – সেসব স্থানে ভিডিও করার জন্য ক্যামেরাটি অদ্বিতীয়।

টাচ স্ক্রিনের মাধ্যমে সহজেই ক্যামেরাটির প্রায় সব ফিচার ব্যবহার করা গেলেও ফোনের অ্যাপের সঙ্গে সংযুক্ত না করে আসলে এটির সম্পূর্ণ মজা পাওয়া যাবে  না।

ওয়াই-ফাই বা ব্লুটুথের মাধ্যমে ফোনের সঙ্গে একবার পেয়ারিং করার পর ফোন থেকেই সবটুকু নিয়ন্ত্রণ করে নেওয়া যাবে। তখন ক্যামেরাটি মনোপড, হেলমেট মাউন্ট, ইত্যাদির সঙ্গে জুড়ে অনেক ভিন্ন অবস্থানের ভিডিও ও চিত্র ধারণ করা সম্ভব হবে।

পারফরমেন্স
ক্যামেরার মূল পরিচয় নির্ভর করে ছবি ও ভিডিওর মানের উপর।  সেদিক থেকে ওয়াই-আই ৪কে অনেক বেশি এগিয়ে রয়েছে। স্ট্যাবিলাইজেশন থাকার ফলে প্রতিটি ফুটেজেই কাঁপুনি নেই বললেই চলে। অ্যাকশন ক্যামেরার জন্য যা খুবই গুরত্বপূর্ণ।

গো-প্রো হিরো৪-এর তূলনায় এ ক্যামেরায় ধারণ করা সব ফুটেজের ডিটেইলস তূলনামূলক কম। কন্ট্রাস্টের ঘাটতিও কিছুটা বেশি। তবে তূলনামূলকভাবে অন্ধকারেও কম নয়েজ পাওয়া গিয়েছে।

মূলত ভিডিওর জন্য তৈরি ক্যামেরাটি স্থিরচিত্র ধারণেও বেশ এগিয়ে রয়েছে। যারা সেলফি তুলতে ভালবাসেন তাদের কাছে ক্যামেরাটি ব্যবহারের পর বেশিরভাগ ফোনের ক্যামেরাই অপ্রতুল মনে হবে। শুধু সেলফি তোলার জন্য ক্যামেরাটি কেনার কোনোও মানে নেই।

এদিক থেকেও গো-প্রো’র পরিবর্তনযোগ্য ভিউইং অ্যাঙ্গেল আরও ভালো কাজ করে।

ফোরকে ছাড়াও ১০৮০পি ৬০এফপিএস ভিডিও মোডটি অ্যাকশন ভিডিও ধারণের জন্য বেশ কাজের। ২৪ এফপিএস মোড না থাকায় সিনেম্যাটিক ফুটেজ পাওয়া কিছুটা দুষ্কর।অবশ্য স্লো-মোশন মোডগুলো বেশ কাজের।

তবে গো-প্রো’র মতো ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল মোড বদলের সুযোগ না থাকায় সাবজেক্টের ওপর ফোকাস আনা বেশ কষ্টকর।

এসব শুনে মনে হবার কোনও কারণ নেই যে, ক্যামেরাটি খারাপ। গো প্রো হিরো৪ যেখানে ৪০ হাজার টাকার ওপরে বিক্রি হয়ে থাকে, সেখানে এটির ৭০ শতাংশ পারফরমেন্সের ক্যামেরা ২৪ হাজার টাকায় খুবই ভালো।

yi4k_vs_hero4black_first_impressions

ব্যাটারি লাইফ
গো-প্রো হিরো৪ এক চার্জে টানা ৩৮ মিনিট ভিডিও ধারণ করতে সক্ষম। সেখানে ওয়াই-আই ফোরকে সহজেই ৪৮ মিনিট ভিডিও ধারণ করতে পারে। এদিক থেকে ক্যামেরাটি বেশ এগিয়ে রয়েছে।

এর বিপরীতে গো-প্রো’র মতো এটির ব্যাটারি সহজে পাওয়া না যাওয়ায় দুটি-তিনটি ব্যাটারি অতিরিক্ত রাখলে চার্জ নিয়ে সমস্যাই পড়তে হবে না। কেননা এটিতে আলাদা চার্জ করার সুবিধাটি ঠিক নেই।

অ্যাপ
অ্যাকশন ক্যামেরার মূল বলা যেতে পারে এর অ্যাপ। এ দিক থেকে অনান্য চীনা প্রস্তুতকারদের চেয়ে ওয়াই-আই বেশ এগিয়ে রয়েছে।

ক্যামেরাটিতে ডুয়াল ব্যান্ড ওয়াই-ফাই থাকায় পেয়ারিং করতে কোনও দেরি হবে না। ভিডিও ধারণ করার পর সেটি ফোনে নিতেও খুবই কম সময় লাগবে।

অ্যাপটিতে যদিও এডিটিং বা শেয়ারিংয়ের সুবিধা গো-প্রো’র চাইতে বেশ কম। ফলে সেদিক থেকে কিছুটা মার্কস কাটা যাবেই।

পরিশেষ
সবদিক বিবেচনায় নিয়ে বলা যেতে পারে, অ্যাকশন ক্যামেরার রাজা গো-প্রো’র চীনা সংস্করণ এ ক্যামেরা। তবে হ্যা, মূল্য বিচারে এটিকে বাদ দিয়ে গো-প্রো কেনার কথা কোনও ভাবেই বলা যাবে না।

4k-Yi-Action-Camera-Menu-techshohor (2)

যেখানে ২৪ থেকে ২৫ হাজার টাকায় ওয়াই-আই ফোরকে কেনা যাবে, সেখানে মাত্র ৩০ শতাংশ বেশি ফিচারের জন্য ৪০ হাজারের বেশি টাকা ব্যয় করার কথা বলা খুবই কষ্টকর।

মূল্য : শুধু ক্যামেরা ও মনোপড ২৪ থেকে ২৫ হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

এক নজরে ভালো

  • ছবি ও ভিডিওর মান
  • ব্যাটারি লাইফ
  • গো-প্রো’র সব অ্যাকসেসরিজ ব্যবহারের সুবিধা

এক নজরে খারাপ

  • অ্যাপের আরও উন্নতি প্রয়োজন
  • পানি-নিরোধক নয়
  • বেশ কিছু ভিডিও মোড নেই

এ রিভিউ তৈরি করেছেন টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর এস. এম. তাহমিদ

ডুয়াল ক্যামেরা ফোন আনবে স্যামসাং

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আগামীতে ডুয়াল ক্যামেরা ডিভাইস আনতে পারে স্যামসাং। আর এজন্য কোম্পানিটি একটি প্যাটেন্ট আবেদন করেছে। ২০১৬ সালের মার্চে আবেদনটি করা হলেও সম্প্রতি এটি প্রকাশ করেছে ইউএসপিটিও।

ডিজিটাল ফটোগ্রাফিং অ্যাপারেটাস অ্যান্ড মেথড অব অপারেটিং দ্য সেম নামের এই প্যাটেন্ট অ্যাপ্লিকেশটিতে দুটি ক্যামেরা দেখাচ্ছে। যেখানে একটি ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স ও আরেকটি টেলিফটো লেন্স রয়েছে। সাবজেক্টের মোশন অনুযায়ী এই দুই লেন্সে কোন ছবিটি প্রধান হবে তা নির্ধারণ হবে।

যদি স্বাভাবিক গতির তুলনায় সাবজেক্টের ভেলোসিটি বেশি গতির হয় তাহলে প্রসেসর ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল ক্যামেরাকে গুরুত্ব দেবে। আর যদি ধীরগতির হয় তাহলে টেলিফটো ছবিটাই হবে প্রধান।

Samsung Dual Camera-TechShohor

পাশাপাশি অ্যাপ্লিকেশনটিতে দেখানো হয়েছে যে উভয় ক্যামেরার ছবিই ডিভাইসের স্ক্রিণে দেখাবে। প্রধান ছবিটি ফুল স্ক্রিণ ও দ্বিতীয় ছবিটি উপরে ছোট আকারে দেখাবে।

শুধু ছবি তোলায় নই এই ক্যামেরা সেটআপ ভিডিওতে ব্যবহার করা যাবে। প্রধান ছবিটি ইন্ট্রিগেটেড প্রসেসরের মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে পাল্টিয়ে সেটি করা যাবে। আর যদি প্রধান ছবিটি ডায়নামিকভাবে পরিবর্তন করা হয় তাহলে আরও ভালো কিছু ফিচার থাকবে। যার মাধ্যমে ভালোমানের ভিডিও করা যাবে।

তবে ঠিক কবে নাগাদ স্যামসাং তাদের স্মার্টফোনে এটি আনতে পারবে সেটি এখন দেখার বিষয়।

ফোন এরিনা অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

৯ ডিসেম্বর আসছে কোডাক একট্রা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বর্তমান সময়ে স্মার্টফোনগুলো ভার্চুয়ালি সবকিছু ভালো আনার চেষ্টা করছে। যেমন সেরা গেইমিং ডিভাইস, সেরা ওয়েব ব্রাউজার, সেরা এমপি৩ প্লেয়ার, সেরা ফিটনেস ট্রাকার ইত্যাদি। তবে সবচেয়ে বেশি যে বিষয়টিতে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে তা হলো ক্যামেরা।

স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো সময়ের সেরা ক্যামেরা আনার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ডুয়াল সেন্সর সেটআপ, উন্নত ওআইএস, লেজার অটো-ফোকাস ইত্যাদি দেওয়ার চেষ্টা করছে তারা।

কোডাক, ফটোগ্রাফি বিশ্বে সবচেয়ে বড় নাম। কোম্পানিটি গত অক্টোবরে তাদের নতুন কিছু স্মার্টফোন আনার ঘোষনা দেয়। নতুন তথ্য অনুযায়ী, কোডাক একট্রা নামের এই স্মার্টফোন আগামী ৯ ডিসেম্বর বিক্রির জন্য বাজারে আসছে।

Kodak-Ektra-TechShohor

একট্রা হবে এমনই স্মার্টফোন যাতে প্রত্যাশার বাইরে ক্যামেরা অভিজ্ঞতা থাকবে বলে জানিয়েছে কোডাক। আর সেটি এই বছরেই দেখা মিলবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রথম দেশ হিসেবে জার্মানীতে মিলবে কোডাক একট্রা। শিগগিরই অন্যান্য দেশগুলোতেও এটি পাওয়া যাবে। অ্যামাজরম মিডিয়া মার্কেট, রিংফটো, সাটার্ন, কোডাকফোনস ডটকম এবং নোটবুকসবিল্লিগার ডট ডি সাইটের মাধ্যমে প্রায় ৫৩২ ডলারে ফোনটি পাওয়া যাবে। এরপর ২০১৭ সালের ১৬ জানুয়ারি থেকে টেলিকম কোম্পানির মাধ্যমে ফোনটি বিক্রি শুরু হবে।

ফোনটিতে রয়েছে ডেকা-কোর হেলিও এক্স২০ প্রসেসর, ৩ গিগাবাইট র‍্যাম, ৩২ গিগাবাইট স্টোরেজ ও ৩০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি, ইউএসবি টাইপ-সি ইত্যাদি।

ফোন এরিনা অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

আইফোনে থ্রিডি ফটোগ্রাফি আসছে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : এই বছরের প্রথমে আইফোন নতুন এবং উন্নত স্মার্টফোন ফটোগ্রাফি প্রযুক্তি উন্মোচন করে। কিন্তু পরবর্তী আইফান আরও বেশি উন্নত ফিচার নিয়ে আসবে।

কোরিয়ান ইকোনমিক ডেইলির সংবাদে প্রকাশ, আইফোনে উন্নত স্মার্টফোন ক্যামেরা মডিউল বিশেষ করে থ্রিডি ফটোগ্রাফি আনার জন্য এলজির সাথে যৌথভাবে কাজ করছে অ্যাপল।

যদিও কবে নাগাদ এই প্রযুক্তিটি উন্মুক্ত করা হবে তা প্রকাশ করা হয়নি। তবে সংবাদে জানানো হয়, নতুন এই প্রযুক্তি অ্যাপলের পরবর্তী প্রজন্মের পণ্য বিশেষ করে আইফোনে নতুন মাত্রা যোগ করবে।

iphone-7-2-wide-angle-telephoto-TechShohor

এলজি ইনোটেক স্মার্টফোন ক্যামেরাতে থ্রিডি ক্যামেরা প্রযুক্তি কিভাবে যুক্ত করা যায় সে বিষয়ে অ্যাপল গবেষনা করবে। যদিও এলজি ইনোটেকের নিজস্ব থ্রিডি ক্যামেরা ও এ সম্পর্কিত প্রযুক্তি রয়েছে, তবে উভয় প্রতিষ্ঠানের যৌথ উদ্যোগ আগামী বছরের মধ্যে ভালো কিছু আনবে।

প্রযুক্তি পণ্যের জায়ান্টটি ইতিমধ্যে তাদের আইফোন ৭ প্লাসে এলজি ইনোটেক ডুয়াল ক্যাম সল্যুউশন ব্যবহার করছে। যেখানে পোর্টেট মুডও আনা হয়েছে।

অন্যান্য বিষয়ের মধ্যে, পরবর্তী প্রজন্মের আইফোন ক্যামেরা অগমেন্টেড রিয়েলিটির জগতে নতুন কিছু আনতে টুডি ও থ্রিডি সমর্থন করবে।

দ্য নেক্সট ওয়েব অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

আইফোন ৭ প্লাসে পোর্টেট ছবির সুবিধা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আইফোন ব্যবহারকারীদের কাছে ছবি তোলার ক্ষেত্রে পোর্টেট ছবির আক্ষেপ থেকে যায়। তবে সেই আক্ষেপ এবার ঘুচাবে। কারণ আইফোন ৭ প্লাস ক্যামেরায় পোর্টেট ছবি তোলার সুবিধা যুক্ত হয়েছে। নতুন আইওএস ১০.১ সংস্করণে এই আপডেট আনা হয়েছে।

শুধুমাত্র প্লাস মডেলের ব্যবহারকারীরাই এই সুবিধা পাচ্ছেন। অন্যান্য সংস্করণের আইফোন, এমনকি অপেক্ষাকৃত ছোট আকারের আইফোন ৭ এ পোর্টেট সুবিধাটি পাওয়া যাবে না।

Iphone portrait mode-TechShohor

শুধু পোর্টেট ছবি তোলার সু্বিধা নয়, আইফোন ৭ প্লাসের উভয় ক্যামেরায় বেশ কিছু বাড়তি ফিচার যুক্ত হয়েছে। বিভিন্ন ডেটা বিশ্লেষনের মাধ্যমে ব্যাকগ্রাউন্ড ঘোলা করাসহ উজ্জ্বল লেন্সের ডিএসএলআর অথবা মিররলেস ক্যামেরার ফিচারও যুক্ত হয়েছে। ফলে আইফোন ৭ প্লাস ব্যবহারকারীরা এসব ক্যামেরা ব্যবহারের অভিজ্ঞতা পাবেন!

এছাড়া অপারেটিং সিস্টেমটির নতুন সংস্করণে আগের কিছু ত্রুটি দূর ও উন্নত করা হয়েছে। কিন্তু সবকিছু ছাপিয়ে পোর্টেট মুডই ছিলো সবার প্রত্যাশা।

দ্য নেক্সট ওয়েব অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

ড্রোনসহ ক্যামেরা আনলো গোপ্রো

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঘুরে বেড়ানোর সময় কোনো এলাকার দৃশ্য ভূ-পৃষ্ঠের অনেক উপর থেকে ক্যামেরা বন্দি করতে চান? এর জন্য প্রয়োজন হেলিকপ্টার বা উন্নত মানের ড্রোন। তবে এর জন্য ব্যয় করতে হবে বেশ টাকাকড়ি। হেলিকপ্টারের তুলনায় ড্রোনের দাম কম হলেও ক্যামেরা, সঙ্গে ডিভাইস ইন্সটল অনেক ঝামেলার কাজ। এই সকল ঝামেলা থেকে মুক্তি দিতে ড্রোনসহ নতুন ক্যামেরা নিয়ে হাজির হলো অ্যাকশন ক্যামেরা প্রস্ততকারক প্রতিষ্ঠান গোপ্রো।

‘কারমা’ নামের ড্রোনটির সাহায্যে সহজেই যে কোনো দৃশ্য ক্যামেরা বন্দি করা যাবে উড়ন্ত অবস্থায়। ড্রোন নিয়ন্ত্রণের জন্য রয়েছে কট্রোলার। যা দিয়ে সহজেই নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি ক্যামেরায় যে দৃশ্য রেকর্ড করছে তা দেখা যাবে। উড়ন্ত অবস্থা থেকে ল্যান্ড করলে যেন ড্রোনটির ক্ষতি না হয় এর জন্য রয়েছে বিশেষ স্ট্যাড। আকষর্ণীয় বক্সসহ কারমা মূল্য নির্ধারণাকরা হয়েছে ৭৯৯ মার্কিন ডলার।

gopro-techshohor

গোপ্রো প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী নিক উডম্যান জানান, ভ্রমন পিপাসুদের জন্যই মূলত এই ক্যামেরা। তারা এখন আরও চমৎকার দৃশ্য ধারণ করতে পারবে কারমার সাহায্যে।

কারমা ড্রোনের ব্যবহার নতুন দুইটি ক্যামেরা এনেছে প্রতিষ্ঠানটি। হিরো ৫ ব্ল্যাক ও হিরো ৬ সেকশন নামের ক্যামেরা দুইটি কিনতে খরচ করতে হবে যথাক্রমে ৩৯৯ ও ২৯৯ মার্কিন ডলার। অক্টোবরের ২ তারিখ থেকে বিক্রি শুরু হবে ক্যামরা দুইটির।


উল্লেখ্য বর্তমান সময় লোকশানের মুখে আছে গোপ্রো। চলতি বছর জুলাই প্রান্তিকে ৯১.৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার লোকশান গুনেছে প্রতিষ্ঠানটি। তাই ড্রোনসহ ক্যামেরা এনে লাভের মুখ দেখতে চাইছে প্রতিষ্ঠানটি। এখন দেখার বিষয় কারমা ড্রোন দিয়ে বাজিমাত করতে পারে কিনা গোপ্রো।

সিনেট অবলম্বনে তুসিন আহমেদ

প্যানোরমা ফিচার পাচ্ছে উইন্ডোজ ক্যামেরা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অবশেষে উইন্ডোজ ব্যবহারকারীদের দু:খ ঘুচাচ্ছে। এতোদিন উইন্ডোজ ডিভাইসের নিজস্ব ক্যামেরা অ্যাপে প্যানোরমা ফিচারটি ছিলো না। তবে ব্যবহারকারীরা এবার সেই সুবিধা পাচ্ছেন।

লুমিয়া ৯৫০ কিংবা ৯৫০এক্সএল মডেলেও কেউ যদি প্যানোরমা ছবি তুলতে চাইলে আলাদা অ্যাপ ডাউনলোড করতে হতো। সলিড ক্যামেরা থাকার কারণে অনেকেই ডিফল্ট ক্যামেরা ব্যবহারে আগ্রহী ছিলেন না।

windows_phone_TechShohor

সম্প্রতি মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ক্যামেরা অ্যাপের আপডেট উন্মুক্ত করেছে, যাতে কয়েকটি ডিভাইসের জন্য প্যানোরমা ফিচারটি থাকছে। মাসখানের পরীক্ষামূলক সংস্করণে থাকার পর ব্যবহারকারীদের জন্য উন্মুক্ত করা হয়।

ইতোমধ্যে লুমিয়া ৫৫০, ৬৫০, ৯৫০, ৯৫০এক্সএল, ৬৪০, ৮৩০, আইকন, ৯৩০, ১৫২০ মডেলসহ বেশ কিছু উইন্ডোজ ফোনে এটি কাজ করছে বলে জানা গেছে।

শুধু মোবাইলই নয়, উইন্ডোজের ডেস্কটপ সংস্করণের জন্যও এটি প্রযোজ্য। ফলে যথাযথ হার্ডওয়্যার থাকলে এই সুবিধা পাবেন গ্রাহকরা। সারফোস (নন-প্রো) ৩, প্রো ৪ ও দ্য সারফেস বুক ব্যবহারকারীরা ফিচারটি ব্যবহার করতে পারছেন।

দ্য নেক্সট ওয়েব অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

কনসার্টের ছবি তোলা ঠেকাবে অ্যাপলের নতুন প্রযুক্তি

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : টেক জায়ান্ট অ্যাপল নতুন একটি প্রযুক্তির পেটেন্ট নিয়ে কাজ করছে। এটি বিভিন্ন কনসার্টে দর্শকদের ক্যামেরায় ছবি তুলতে বাধা দেবে।

যেকোনো ধরনের পাবলিক প্লেসে এই প্রযুক্তিটি স্মার্টফোনের ক্যামেরা থেকে একটি রিসিভিং কোড সংগ্রহ করতে পারবে। এটি করা হবে ইনফারেড প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে।

ক্যামেরার রিসিভিং কোডটি দিয়ে স্মার্টফোনের ক্যামেরাটি নিজের নিয়ন্ত্রণে নেবে এই প্রযুক্তি। ফলে ব্যবহারকারী চাইলেও ছবি বা ভিডিও করতে পারবেন না।

camera-techshohor

তবে এই প্রযুক্তিটিকে অনেকেই ভালো চোখে দেখছেন না। গ্যাজেট বিষয়ক ওয়েবসাইট পকেট লিনট’র প্রতিষ্ঠাতা স্টুয়ার্ট মাইলস প্রযুক্তিটি সম্পর্কে বলেন, এটি মানুষের চোখের ক্ষতি করতে পারে। এর পাশাপাশি এর দ্বারা মানুষের ‘ব্যক্তি স্বাধীনতা’ও ক্ষুণ্ণ হতে পারে। তিনি আরও বলেন, এটি  যে উদ্দেশ্যে বানানো হয়েছে, সেই উদ্দেশ্যে ব্যবহার নাও হতে পারে।

অ্যাপল এই প্রযুক্তিটির প্রথম পরীক্ষা চালায় ২০১১ সালে। এরপর থেকে সেটির উন্নয়নে কাজ যাচ্ছে তারা। তবে প্রযুক্তিটি নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি সিলিকনভ্যালির এই অভিজাত স্মার্টফোন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান।

বিবিসি অবলম্বনে শামীম রাহমান

শাওমির ফোনে স্যামসাংয়ের ডুয়াল ক্যামেরা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাজারে ইতিমধ্যেই সাড়া ফেলেছে ডুয়াল ক্যামেরার স্মার্টফোন। এই ধারাবাহিকতায় যুক্ত হচ্ছে চীনের জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড শাওমি। আর এজন্য তারা স্যামসাংয়ের ডুয়াল ক্যামেরা মডিউল ব্যবহার করবে।

হুয়াওয়ে পি৯, এলজি জি৫, এইচটিসি ওয়ান এম৮সহ আরো কিছু ডুয়াল ক্যামেরার স্মার্টফোন বাজারে আসছে। এখন প্রতীক্ষার পালা শাওমি, অপ্পো ও লিকো ব্র্যান্ডের মোবাইলে এই ফিচারের।

Dual Camera Smartphone-techShohor

কোরিয়ান হেরাল্ড ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, স্যামসাং উপরোক্ত ব্র্যান্ডগুলোকে ডুয়াল ক্যামেরা মডিউল সরবরাহ করবে। এই বছরের শেষের দিকে স্যামসাং ইলেক্ট্রো মেকানিক্স এসব মডিউল বাজারে আনবে।

ওয়েবসাইটটিতে আরো জানানো হয়, জিওমি তাদের জনপ্রিয় ফ্ল্যাগশিপ এমআই ৫, এমআই ৫এস-এ ডুয়াল ক্যামেরা মডিউল ব্যবহার করবে। যেহেতু স্যামসাং এই ধরণের মডিউল তৈরি করছে ও এর আগে এক শাওমিকে এক ক্যামেরার মডিউল সরবরাহ করেছে, সেহেতু এবারও স্যামসাংয়ের মডিউলই ব্যবহার করবে শাওমি।

এ বিষয়ে স্যামসাং কিংবা শাওমির পক্ষ থেকে অফিসিয়ালি কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

টিওই অবলম্বনে ফারজানা মাহমুদ পপি