নকিয়া ৩ স্মার্টফোনে রবি-এয়ারটেলের বান্ডেল অফার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নকিয়া থ্রি স্মার্টফোনে বান্ডেল অফার দিয়েছে মোবাইল অপারেটর রবি-এয়ারটেল।

এইঅফারে ১৩ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের নকিয়া ৩ হ্যান্ডসেটটি কিনলে রবি ও এয়ারটেল গ্রাহকরা প্রতিমাসে ১০০ মিনিট অন-নেট রবি-এয়ারটেল, এয়ারটেল-রবি বোনাস টক-টাইম, ৫০ মিনিট অফ-নেট (রবি/এয়ারটেল-অন্যান্য অপারেটর) বোনাস টক টাইম পাবেন।

এছাড়াও ৪ জিবি বোনাস ডাটাসহ তিন মাস এ অফার উপভোগ করতে পারবেন। প্রতিমাসের প্রথম ২১ দিনের মধ্যে এ বোনাস অফারগুলো গ্রহণ করতে হবে গ্রাহকদের।

Nokia-Robi-Airtel-Techshohor

গুলশান, ধানমন্ডি, যমুনা ফিউচার পার্ক, মিরপুর, উত্তরা, নারায়নগঞ্জ এবং চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ ও মুরাদপুরে অবস্থিত নির্ধারিত রবি সেবা কেন্দ্র এবং নকিয়ার আউটলেটগুলো থেকে এ অফারটি নেওয়া যাবে।

নকিয়া ৩ স্মার্টফোনটিতে রয়েছে এক বছরের ওয়ারেন্টি। রবি ও এয়ারটেলের বর্তমান ও নতুন সকল প্রি-পেইড এবং এসএমই গ্রাহকরা এই অফারটি গ্রহণ করতে পারবেন।

ইমরান হোসেন মিলন

চট্টগ্রামে ভিওআইপির অবৈধ সরঞ্জামসহ গ্রেপ্তার ২

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ ও বায়েজিদ থানার দুটি আবাসিক স্থাপনায় অভিযান চালিয়ে অবৈধ ভিওআইপি কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জাম ও ১২  হাজার ১৭৭টি সিমসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

গত রোববার বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ কমিশন (বিটিআরসি) ও র‌্যাবের পরিচালিত যৌথ ওই অভিযানে ১২ হাজার ১৭৭টি সিম ও এক কোটি টাকা সমমূল্যের অবৈধ ভিওআইপি সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

voip_TechShohor

অভিযানে দুটি স্থাপনা থেকে টেলিটকের ৮ হাজার ৩৯৯টি, এয়ারটেলের ৩ হাজার ৬৯০টি, গ্রামীণফোনের ৩৩টি, রবির ২০টিএবং বাংলালিংকের ৩৫টি সিম উদ্ধার করা হয়েছে।

এছাড়াও অবৈধ ভিওআইপির কাজে ব্যবহৃত ১৯টি সিমবক্স গেটওয়ে, চারটি ল্যাপটপ, ১৬টি থ্রিজি মডেম, ১৬টি ইথারনেট সুইচ, সাতটি ডেক্সটপ, ৩২২টি জিএসএম আউটডোর অ্যান্টেনাসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক মালামাল জব্দ করা হয়েছে।

আনিকা জীনাত

অবশেষে একীভূতকরণের স্বীকৃতি পাচ্ছে রবি

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নানা টানা টানাপড়েনের পর অবশেষে এয়ারটেলের সঙ্গে একীভূতকরণের জন্য আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি পেতে যাচ্ছে রবি।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির কাছ থেকে ‘অর্ডার অব মার্জার অব লাইসেন্স’ বৃহস্পতিবার পাওয়ার কথা বলে জানা গেছে।

প্রায় নয় মাসে একীভূতকরণের অনুমোদন পাওয়ার পর গত কয়েক মাসে শীর্ষ এ দুই অপারেটর কার্যত রবির মাধ্যমেই পরিচালিত হচ্ছে। তবে আর্থিক দেনাপাওনার হিসাব সংক্রান্ত জটিলতায় বিটিআরসি এতদিন এ লাইসেন্স দেয়নি।

airtel -robi_techshohor

বুধবার মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর সংগঠন অ্যামটবের বাজেট বিষয়ক এক সংবাদ সম্মেলনে রবির চিফ পিপলস অফিসার মতিউল ইসলাম নওশাদ বলেন, একীভূতকরণ শেষ পর্যন্ত যথাযথভাবে হচ্ছে। এ উদ্যোগ উভয় কোম্পানির জন্য সুফল নিয়ে আসবে।

পর্যায়ক্রমে তা গ্রাহকদের মধ্যেও সঞ্চারিত হবে বলে উল্লেখ করেন।

যদিও এর আগে রবি একাধিকবার বলেছে, টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের কাছ থেকে একীভূতকরণ বিষয়ে তাদের এ ধরণের কোনো লাইসেন্স নেওয়ার প্রয়োজন নেই।

সূত্র জানায়, শেষ পর্যন্ত বাধ্য হয়েই বিটিআরসির দাবি করা বাড়তি টাকা ও ভ্যাট সংক্রান্ত জটিলতা থাকায় ব্যাংক গ্যারান্টি দিয়েই ‘অর্ডার অব মার্জার অব লাইসেন্স’ বুঝে নিচ্ছে রবি।

ইতিমধ্যে তারা এয়ারটেলের ৩ দশমিক ৪ মেগাহার্জ তরঙ্গ বিটিআরসিকে ফেরত দিয়েছে।

 

২০১৬ সালের ২৬ অক্টোবর মোট ২১ শর্ত দিয়ে রবি ও এয়ারটেলের একীভূতকরণ অনুমোদন দেয় বিটিআরসি।

১০০ কোটি টাকা একীভূতকরণ ফি ও ৩০৭ কোটি টাকা এয়ারটেলের তরঙ্গ সমন্বয় ফি হিসেবে মোট ৪০৭ কোটি টাকা, যা ভ্যাট-ট্যাক্স মিলে ৪২৭ কোটি ৩৫ লাখ টাকা পরিশোধ করতে বলা হয়।

এর মধ্যে ২০ নভেম্বর ৩১৮ কোটি ৫২ লাখ টাকা পরিশোধ করে রবি। বাকি ১০৮ কোটি ৮৩ লাখ টাকা দুই কিস্তিতে পরিশোধের কথা থাকলেও তা দেয়নি অপারেটরটি। শর্ত প্রতিপালন না করায় অনুমোদনের পরও গত প্রায় নয় মাস ধরে একীভূতকরণ চূড়ান্তের বিষয়টি ঝুলে ছিল।

এ দীর্ঘ সময়ে একীভূতকরণের শর্ত পূরণ নিয়ে রবিকে বেশ কয়েক দফা চিঠি দেয় বিটিআরসি। পরে শোকজও করে।

এর মধ্যে একীভূতকরণ বাতিলের হুমকিও দেয়।

পরে টাকা পয়সা পরিশোধের শর্তে অর্ডার অব মার্জার অব লাইসেন্স নিতে বিটিআরসির কাছে আবেদন করলে এ জটিলতা নিরসন হয়।

ফ্রি সিমে এয়ারটেলের লোকসান ২৫০ টাকা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শুধু দোকানে নয়, বাসা বাড়িতে গিয়েও ফ্রি সিম দিচ্ছে এয়ারটেল। রবির সঙ্গে একীভূত হওয়া এ অপারেটর গ্রাহক বাড়াতে এ জন্য বড় অঙ্কের আর্থিক ক্ষতিও মেনে নিচ্ছে। সিমপ্রতি আড়াইশ টাকা লোকসান দিচ্ছে।

মুখে অবশ্য ফ্রি বললেও খানিকটা চাতুরি রেখে দিয়েছে তারা। এ কারণে বড়সড় করে কোনো প্রচারণাও চালাচ্ছে না।

বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, একশ’ টাকায় একটি এয়ারটেল সিম দিচ্ছেন তারা। গ্রাহক এজন্য টক টাইম পাবেন ৯৬ টাকার। এটিকেই ফ্রি বলছে অপারেটরটি।

বর্তমানে একটি সিমে সরকারের একশ’ টাকা ট্যাক্সসহ রিটেইলার ও ডিস্ট্রিবিউটরদের কমিশনসহ সব মিলে রবির অন্তত আড়াইশ’ টাকা ব্যয় হচ্ছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, একীভূত অপারেটরটি গ্রাহক বাড়াতে সাময়িক এ ক্ষতি মেনে নিলেও তা কতটুকু ফলপ্রসু হবে সেটা দেখার বিষয়। কেননা একটা সিম ফ্রি গ্রাহকের হাতে গেলে সেটি শেষ পর্যন্ত নিয়মিতভাবে ব্যবহার হয় না।

বর্তমান পরিস্থিতি পর্যালোচনায় দেখা গেছে অন্তত নতুন পাঁচটা সিম বাজারে গেলে শেষ পর্যন্ত টেকে মাত্র একটি। সে হিসাবে প্রতিটি নতুন গ্রাহক ধরতে একীভূত কোম্পানির অন্তত এক হাজার ২০০ টাকা খরচ করতে হচ্ছে।

রবির সঙ্গে একীভূত হওয়ার ২১ শর্তের একটি হলো আগামী দুই বছর এয়ারটেলের ব্র্যান্ডনেম ব্যবহার করা যাবে। একই সঙ্গে ০১৬ সিরিজের নম্বরও তারা এ সময় পর্যন্ত বিক্রি করতে পারবে।

এ সুযোগ নিয়ে দেদারছে ০১৬ বিক্রি শুরু করেছে অপারেটরটির মূল কোম্পানি রবি-আজিয়াটা। মাঝখানে রবি সিমের সঙ্গে একটি এয়ারটেল সিম ফ্রি হিসেবেও দিয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলেন, দুই বছর পর ০১৬ বা এয়ারটেল ব্র্যান্ড বন্ধ হওয়ার আগেই বড় একটি গ্রাহক সংখ্যা তৈরির পরিকল্পনা থেকে রবি এমন কৌশল নিয়েছে।

একই ভাবে ০১৬ নম্বর সিরিজ ধরে রাখতেও এমন পদক্ষেপ নিয়েছে অপারেটরটি। কেননা নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি ০১৬ সিরিজের নম্বরকে ০১৮-এ নিয়ে আসতে বললে তখন গ্রাহক সংখ্যা বেশি হওয়ার কারণে যাতে সেটি ‘অসম্ভব’ হয়ে পড়ে সেটিও আছে রবির পরিকল্পনায়। 

এখন ৭২ লাখের মতো ০১৬ নম্বর কার্যকর থাকলেও বাজারে এ সিরিজের নম্বর আছে তিন কোটির মতো।

ফলে নির্ধারিত দুই বছরের মধ্যে এ সংখ্যা আরও দুই-তিন কোটি বাড়িয়ে নিতে পারলে তখন প্রতিদ্বন্দ্বীদের চেয়ে অন্তত এ জায়গায় এগিয়ে থাকবে একীভূত রবি-এয়ারটেল কর্তৃপক্ষ।

সংশ্লিষ্টদের মতে, একটি অপারেটরের কাছে দুটি নম্বর সিরিজ থাকা মানেই- সে প্রতিদ্বন্দ্বীদের চেয়ে অন্তত দ্বিগুণ এগিয়ে থাকছে।

গ্রামীণফোন তাদের ০১৭ সিরিজ প্রায় শেষ হয়ে যাওয়ার পর এখন আর নতুন সিরিজ চেয়েও পাচ্ছে না। সে কারণে বাজারে তাদের গ্রাহক সংখ্যাও সেই অনুসারে বাড়াতে পারছে না।

তবে দুটি নম্বর সিরিজ থাকলে ১০ কোটির চেয়েও কয়েক কোটি বেশি গ্রাহকের কাছে সিম বিক্রি করতে পারবে রবি। এ কারণেই ০১৬ সিরিজ ধরে রাখতে ভবিষ্যতের কথা ভেবে বড় আর্থিক ক্ষতিও মেনে নিচ্ছে তারা।

আর. এস হুসেইন

বাহুবলি ২ এর সাথে এয়ারটেল

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আগামী ২৮ এপ্রিল মুক্তি পেতে যাচ্ছে জনপ্রিয় সিনেমা বাহুবলি এর সিক্যুয়াল ‘বাহুবলি ২ – দ্য কনক্লুশন’। গ্রাহকদের বিশেষ সুবিধা দিতে এই সিনেমার সাথে কৌশলগত অংশীদারিত্বের চুক্তি করেছে ভারতের টেলিকম সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান এয়ারটেল।

চুক্তির মাধ্যমে এয়ারটেল তার গ্রাহকদের জন্য ডেটা সুবিধাসহ বিশেষ ফোরজি সিম উন্মোচন করেছে। গত শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে এই সিম উন্মোচন করা হয়।

airtel_baahubali_2_TechShohor

বিশেষ এই বাহুবলি সিমের মাধ্যমে গ্রাহকরা ফোরজি গতিতে মুভির কনটেন্ট দেখতে পারবেন। ওকলা এবং ওপেনসিগন্যালের মতো ভারতের সবচেয়ে গতিশীল নেটওয়ার্কের স্বীকৃতি পেয়েছে এয়ারটেল, যদিও মাইস্প্রিড অ্যাপ সেটি মেনে নেয়নি। গ্রাহকদের জন্য বাহুবলি ২ ফোরজি রিচার্জ প্যাকও থাকছে। তবে তাতে গ্রাহকরা কি সুবিধা পাবেন সেটি উল্লেখ করা হয়নি।

এয়ারটেল গ্রাহকরা বিশেষ সুবিধা হিসেবে এয়ারটেল মুভিস থেকে বাহুবলি ২ মুভি তৈরি, পেছনের দৃশ্য ইত্যাদি এক্সক্লুসিভ কনটেন্ট দেখতে পাবেন। এয়ারটেলের মিউজিক অ্যাপেও বিশেষ প্লেলিস্ট থাকবে।

এছাড়া বিভিন্ন ডিজিটাল প্লাটফর্মে এয়ারটেল বাহুবলি ২ এর প্রচারণা চালাবে। দেশজুড়ে বিভিন্ন স্থানে আউটডোর ক্যাম্পেইনও হবে।

এডিটিভি অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

রবি-এয়ারটেল এক হওয়ার ব্যয় ৫০০০ কোটি টাকা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: মোবাইল ফোন অপারেটর রবি ও এয়ারটেল একীভূতিকরণে পাঁচ হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েছে।

এমন তথ্য দিয়েছেন একীভূত অপারেটর দুটির এক শীর্ষ কর্মকর্তা।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সঙ্গে সম্প্রতি প্রাক-বাজেট আলোচনায় মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর ব্যবসায়িক সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরে দাবি-দাওয়া উপস্থাপন করেন রবির নির্বাহী ভাইস প্রেসিডেন্ট শাহেদ আলম।

robi-airtel-techshohor

এ সময় ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা অন্তত পাঁচ হাজার কোটি টাকা খরচ করে দুই অপারেটরকে একীভূত করেছি। এরপরও এর সুফল ঘরে তুলতে পারছি না।’

মূলত বাজারে টিকে থাকার জন্য গ্রাহক বিচারে তৃতীয় ও চতুর্থ অপারেটর এক হয়ে ব্যবসা পরিচালনা করবে বলেও জানান তিনি।

এত টাকা খরচের পরেও এখন পর্যন্ত তাদের একীভূতিকরণের প্রক্রিয়া শেষ হয়নি-ফলে এ বিষয়ক চূড়ান্ত সার্টিফিকেট ইস্যু করেনি টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন।

অথচ গত অক্টোবর থেকে একত্রে ব্যবসা পরিচালনা শুরু করেছে অপারেটর দুটি। যদিও ভিন্ন ভিন্ন নামে এখনো দুটি নম্বর বাজারে রেখেছেন তারা।

এনবিআরের ওই প্রাক বাজেট বৈঠকে জানানো হয়, ২০০৯ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত এয়ারটেল চার হাজার ৮৩৮ কোটি টাকা লোকসান গুনেছে।

২০০৯ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত লাভ লোকসান মিলিয়ে রবির মুনাফা হয়েছে এক হাজার ১২ কোটি টাকা।

বিটিআরসির তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা রবির কার্যকর সংযোগ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছিল দুই কোটি ৭০ লাখ ১৭ হাজার।

ওই পরিসংখ্যানে এয়ারটেলের সংযোগ দেখানো হয়েছে ৮২ লাখ ১৯ হাজার। এ দুই অপারেটরের মোট সিমের সংখ্যাও সাড়ে তিন কোটির বেশি হচ্ছে না।

এয়ারটেল মাঝে একবার ২০১৫ সালের নভেম্বরে কোটি সংযোগ পেরুলেও খুব বেশি সময় সে স্থান ধরে রাখতে পারেনি।

৬ কোটি গ্রাহকের ল্যান্ডমার্ক পেরোলো গ্রামীণফোন

আল-আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের মোট জনসংখ্যার এক তৃতীয়াংশের বেশি এখন গ্রামীণফোনের গ্রাহক।

বাংলা নববর্ষের আগেই অপারেটরটি এই ছয় কোটি গ্রাহকের  ল্যান্ডমার্ক অতিক্রম করে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রামীণফোনের একাধিক উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

যদিও গ্রামীণফোনের  দিক হতে এ বিষয়ে কোনো  আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বা তথ্য দেয়া হয়নি। যোগাযোগ করা হলে অপারেটরটি রেগুলেটরি বিধি-নিষেধর কথা উল্লেখ করে এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

এবারের বৈশাখের আনন্দের মধ্যে নতুন ল্যান্ডমার্ক স্পর্শ  হবে  এই হিসাব আগে থেকেই ছিল। বাংলা নববর্ষের জাতীয় উৎসবে এই খবরটি ফিকে হয়ে যেতে পারে ভেবে অপারেটরটি নতুন এই অর্জনের খবর জানায়নি।

gp-techshohor

তবে আড়াই বছর আগে পাঁচ কোটি ল্যান্ডমার্ক অর্জনের সময় অপারেটরটি অনেক জমকালো ‘ধন্যবাদ’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের সর্বশেষ প্রকাশিত হিসাবে,  ফেব্রুয়ারি মাসের শেষে গ্রামীণফোনের গ্রাহক ছিল পাঁচ কোটি ৯৩ লাখ। সে হিসাবে নতুন অর্জন তাদের জন্য সময়ের ব্যপার ছিল।

অপারেটরটির নতুন এই অর্জনের ফলে তার প্রতিদ্বন্দ্বীরা এখন অনেক দূরে পড়ে রইল।

বিটিআরসির হিসাবে , ফেব্রুয়ারির শেষ পর্যন্ত বাংলালিংক আছে দ্বিতীয় অবস্থানে। তাদের কার্যকর সংযোগ আছে তিন কোটি ১৩ লাখ নয় হাজার।

রবি দ্বিতীয় স্থানে দুই কোটি ৭০ লাখ ১৭ হাজার গ্রাহক নিয়ে। বিটিআরসি’র হিসেবে রবি এবং এয়ারেটেলের একীভূতিকরণ এখনও সম্পন্ন হয়নি। সে কারণে এয়ারটেলের সংযোগ এই তালিকায় রবির সঙ্গে যুক্ত করা হয়নি।

ওই হিসাবে এয়ারটেলের সংযোগ দেখানো হচ্ছে ৮২ লাখ ১৯ হাজার। এই দুই অপারেটরের যোগ ফলও সাড়ে তিন কোটির বেশি হচ্ছে না।

গ্রামীণফোনই বাংলাদেশে মোবাইল ফোন গ্রাহকের ক্ষেত্রে নতুন নতুন মাইলফলক তৈরি করেছে। আর পরে বাংলালিংক এবং রবি বা তার আগে একটেল তাদের পথ অনুসরণ করে এগিয়েছে।

এয়ারটেল মাঝে একবার ২০১৫ সালের নভেম্বরে কোটি সংযোগ পেরোলেও খুব বেশি সময় তাদের লাগেনি সেই স্থান থেকে ছিটকে যেতে। গত বছর জুন আসতে না আসতেই মাত্র সাত মাসের মধ্যে কোটি থেকে আবার লাখের ঘরে চলে যায় এয়ারটেল।

আর বন্ধ হয়ে যাওয়া সিটিসেল কখনোই ২০ লাখও পেরোতে পারেনি। টেলিটকের সর্বোচ্চ অর্জন অর্ধকোটির নীচেই আটকে গেছে।

জিপির গ্রাহক মাইলফলকসমুহ :

এক কোটি ২০০৬ সালের অক্টোবর
দুই কোটি ২০০৮ সালের জুন
তিন কোটি ২০১১ সালের জানুয়ারি
চার কোটি ২০১২ সালের সেপ্টেম্বর
পাঁচ কোটি ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর
ছয় কোটি ২০১৭ সালের এপ্রিল

রাজধানীর বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে এয়ারটেলের ‘ইয়েলো ফেস্ট’

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রাজধানীর ১৫ সরকারী ও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে #ইয়োলো ফেস্ট’ আয়োজন করছে মোবাইল অপারেটর এয়ারটেল।

ফেস্টের অংশ হিসেবে ইয়োলো’র (ইউ অনলি লিভ ওয়ান্স) মূল সুরের সাথে তাল মিলিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে গেইমিং, কারাওকে কর্নার, অগম্যান্টেড ফটো বুথ ও মিউজিক্যাল কনসার্টের আয়োজন করা হচ্ছে।

এর মাধ্যমে একটি কমিউনিটি তৈরির চেষ্টা করছে এয়ারটেল।

Airtel-Music fest-Techshohor

শুধু তাই নয় #ইয়োলো ফেস্ট চলাকালে ক্যাম্পাসগুলোতে সংগীত পরিবেশন করছেন এয়ারটেল ইয়ন্ডার মিউজিকের জনপ্রিয় শিল্পীরা।

একটি শক্তিশালী #ইয়োলো ও মিউজিক কমিউনিটি গড়ে তুলতে শিগগিরই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয়, আইইউবিসহ আরও কয়েকটি ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হবে #ইয়োলো ফেস্ট।

ভবিষ্যতে ঢাকার বাইরের ক্যাম্পাসগুলোতেও #ইয়োলো ফেস্ট আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে এয়ারটেলের।

ইমরান হোসেন মিলন

সেবায় না থাকলেও ভিওআইপিতে আছে সিটিসেল

জামান আশরাফ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বেশ কয়েক মাস ধরে গ্রাহক সেবায় নেই মোবাইল ফোন অপারেটর সিটিসেল। তবে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের সাম্প্রতিক এক অভিযানে দেশের সবচেয়ে পুরনো অপারেটরটির অন্তত ২৭ সিম (রিম) পাওয়ায় বিস্মিত কর্মকর্তারা।

বিটিআরসির একটি দল গত ২২ মার্চ রাজধানীর মতিঝিল এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোট ৫ হাজার ৪৪৯টি সিম উদ্ধার করে, যা বিদেশ থেকে আসা কলের অবৈধ কার্যক্রমে ব্যবহার হচ্ছিল।

এগুলোর মধ্যে চার হাজার ১৮১ সিম রাষ্ট্রায়ত্ত অপারেটর টেলিটকের। ওখানে রবির সংযোগ ছিল ৫২০, গ্রামীণফোনের ৪৪১, এয়ারটেলের ১৮৪ ও বাংলালিংকের ১০৬।

Citycell_Logo_techshohor

তবে অন্য অপারেটরগুলোর সিম ভিওআইপিতে ব্যবহার স্বাভাবিক হলেও অপারেশনে না থাকা সিটিসেলের সংযোগ পাওয়ায় বিস্মিত হয়েছেন বিটিআরসির কর্মকর্তারাও।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দীর্ঘ দিন পরে অবৈধ ভিওআইপির কোনো অভিযানে সিটিসেলের সিম ধরা পড়ল। তাদের মতে, গ্রাহকবিহীন কার্যত বন্ধ এ অপারেটরের সংযোগ ব্যবহার করে অবৈধ সেবা দিলে তা কারও নজরে আসবে না- এমন সুযোগ নিতে চেয়েছে একটি চক্র।

বিটিআরসির বকেয়া টাকা পরিশোধ না করায় গত বছরের জুলাইতে নোটিশ দেওয়ার পর অক্টোবরে সিটিসেলের স্পেকট্রাম স্থগিত করে দেওয়া হয়। নানা চড়াই উৎরাই পেরিয়ে আদালতের আদেশে অপারেটরটি স্পেকট্রাম ফেরত পেলেও গ্রাহক সেবা আর আগের মতো চালু করতে পারেনি।

তবে সীমিত এলাকায় তাদের সেবা রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। এটাকেই সুযোগ হিসেবে নিয়েছে অপরাধীরা।

বন্ধ হওয়ার আগে বিটিআরসির হিসাব অনুসারে সিটিসেলের দেড় লাখ কার্যকর সংযোগ ছিল।

রবিকে শোকজ, একীভূতকরণ কেন বাতিল নয়?

আল-আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নির্দেশনা না মানায় রবিকে শোকজ করেছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা (বিটিআরসি)। বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেশন অ্যাক্ট-২০০১ এর অধীনে বেশ কড়া ভাষাতেই এই শোকজ নোটিশ দেয়া হয়েছে।

নির্দেশনা না মানার কারণে কেন আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে না তা ব্যাখ্যা করতে ৩০ দিনের সময় দেয়া হয়েছে অপারেটরটিকে। অথবা পাওনা অবশিষ্ট অর্থ জমা দিতে বলা হয়েছে ওই নোটিশে।

শোকজে ররি-এয়ারটেল একীভূতকরণ সম্পর্কিত বিটিআরসি-রবির পাঁচটি চিঠির রেফারেন্স দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ২০১৬ সালের ২৬ অক্টোবর মোট ২১টি শর্ত দিয়ে রবি এবং এয়ারটেলের একীভূতকরণে অনুমোদনের চিঠিও রয়েছে।

আর এই শোকজ নোটিশে এই চিঠি কেন বাতিল করা হবে না তাও জানাতে বলা হয়েছে। যার অর্থ দাঁড়ায় একীভূতকরণ কেন বাতিল করা হবে না তা জানাতে হবে অপারেটরটিকে।

১৫ মার্চ বিটিআরসির ইস্যু করা শোকজ নোটিশ রবি রিসিভ করেছে ১৬ মার্চ। আর নোটিশ রিসিভের দিন হতেই ৩০ দিন গোনা হবে।

শোকজ নোটিশে রবির শর্ত প্রতিপালন না করা, নির্দেশনা না মানার বিষয়গুলো রেগুলেশন অ্যাক্টের ধারা উল্লেখ করে বিশদভাবে তুলে দেয়া হয়েছে।

robi-techshohor

এর আগে আন্তঃসংযোগ অপারেটর বা আইসিএক্সের মধ্য দিয়ে কল যাওয়া সংক্রান্ত বিটিআরসির নির্দেশনা না মানায় রবি ও এয়ারটেলের কাছে ব্যাখ্যা চেয়ে একই চিঠি পৃথকভাবে দেয় নিয়ন্ত্রণ সংস্থা।

এদিকে এয়ারটেলের প্যাকেজ অনুমোদন করছে না বিটিআরসি। রবির সঙ্গে একীভূত হওয়া কোম্পানিটির জন্য একটি প্যাকেজ অনুমোদনের আবেদন আটকে দিয়েছে নিয়ন্ত্রণ সংস্থার সিস্টেম অ্যান্ড সার্ভিসেস বিভাগ। কমিশনের আইন বিভাগ এ অনুমোদন না দিতে পরামর্শ দেয়। ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশন বিভাগও অপারেটরটির  কিছু যন্ত্রপাতি আমদানির জন্য অনাপত্তি (এনওসি) অনুমোদন করেনি।

বিটিআরসি বলছে, অর্ডার অব মার্জার লাইসেন্স না হওয়া পর্যন্ত এয়ারটেলের কিছুর অনুমোদন হবে না।

এদিকে শত কোটি টাকার বেশি বকেয়া পরিশোধ ও স্পেকট্রামসহ কয়েকটি শর্ত পূরণে গরিমসির মাধ্যমে একীভূতকরণ চূড়ান্ত করার বিষয়টি এখনও ঝুলিয়ে রেখেছে শীর্ষস্থানীয় অপারেটর রবি। যদিও মোবাইল ফোন সেবাসহ যাবতীয় কার্যক্রম চলছে একক কোম্পানি হিসেবে। এটিকে নিয়মে ব্যতয় হিসেবে দেখছেন সংশ্লিষ্টরা।

একীভূতকরণের পর গ্রাহক সংখ্যার বিচারে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম অপারেটরে পরিণত হওয়া রবিকে গত মাসে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) শর্ত পূরণের সব তথ্য জানাতে ১০ দিন সময় বেধে দেয় ।

পাওনা পরিশোধের পাশাপাশি ছয়টি শর্তের বিস্তারিত উল্লেখ করে এ চিঠিতে শর্ত প্রতিপালনের তথ্য জানাতে নির্দেশ দেওয়া হয়। তা না হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানানো হয়।

তবে নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও সব শর্ত পূরণের বিস্তারিত তথ্য জানায়নি অপারেটরটি। কৌশলে চিঠির জবাব দিয়েছে তারা।

এমনকি রবি একীভূতকরণের পর কমিশনের অন্যতম দুই শর্ত স্পেকট্রাম চার্জ ও একীভূতকরণ ফি হিসাবে বকেয়া ১০৮ কোটি ৮৩ লাখ টাকা পরিশোধ এবং এয়ারটেলের ৫ মেগাহার্জ স্পেকট্রাম ফেরত দেওয়ার কোনোটিই এখন পর্যন্ত পূরণ করেনি ।

পাঁচ অপারেটরকে শোকজ

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বন্ধ হয়ে যাওয়া সিমে থাকা অব্যবহৃত ব্যালেন্স ফেরত না দেয়ায় রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংক, টেলিটক ও সিটিসেলকে কারণ দর্শানো নোটিশ দিয়েছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা (বিটিআরসি)।

মূলত ২০০৮ সাল থেকে ২০১৪ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়ে বন্ধ হওয়া সিমে গ্রাহকের অব্যবহৃত যে ব্যালেন্স আছে সেই টাকাই ফেরত চেয়েছিল বিটিআরসি। কিন্তু জিপি ছাড়া আর কেউ তা ফেরত দেয়নি।

telecom-oprator-techshohor

এখন এই বিষয়ে বাকি সব অপারেটরগুলোকে শোকজ করল বিটিআরসি।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে এই অব্যবহৃত ব্যালেন্স কেনো ফেরত দেয়া হয়নি সেটি জানাতে সাত দিন সময় দিয়ে অপারেটরগুলোকে চিঠি দেয় বিটিআরসি।

এর আগে গত ৩১ জানুয়ারি সব অপাটেরদেরকে চিঠি দিয়ে উল্লেখিত সাড়ে পাঁচ বছর সময়ে অবৈধ কল টার্মিনেশনে জড়িত থাকায় বন্ধ হওয়া সিমের ব্যালেন্স বিটিআরসিতে জমা দিতে নির্দেশনা দেয়।

জামান আশরাফ