বিং ব্যবহারে ‘পে’ করবে মাইক্রোসফট

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গুগলের সঙ্গে কোনো সার্চ ইঞ্জিনই পেরে উঠছে না। এক সময়ের জনপ্রিয় ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার বাতিলের খাতায় চলে যাওয়ার পর তা বাদই দিয়ে দিল আর টেক জায়ান্ট মাইক্রোসফট। এরপর বিং এনেও সুবিধা করতে পারছে না। নতুন এ সার্চ ইঞ্জিনকে জনপ্রিয় করতে অনেক দিন থেকে মরিয়া বিল গেটসের কোম্পানিটি।

তাইতো এবার গুগল ছেড়ে ব্যবহারকারীদের বিং-এ টেনে আনতে ব্যবহারকারীদের কেনাকাটায় উপহার দেবে  মাইক্রসফট।

অভিনব এ কৌশলের শুরুটা হচ্ছে যুক্তরাজ্য থেকে। পর্যায়ক্রমে ফ্রান্স, কানাডা ও জার্মানিতে ‌’পে’ করার বিষয়টি ছড়িয়ে দিতে চায় সফটওয়্যার জায়ান্টটি।

পুরস্কার প্রকল্প

এখন থেকে মাইক্রসফট বিং ব্যবহারকারীদেরকে পয়েন্ট দেবে। এ পয়েন্ট  দিয়ে অনলাইনে কেনাকাটা করা যাবে। ফ্রিতে নামানো যাবে গান কিংবা সিনেমা।

বর্তমান ব্যবহারকারীদের পাশাপাশি নতুনদের আকর্ষণে মাইক্রসফট এ পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

২. পয়েন্ট পাওয়ার উপায়

এ প্রক্রিয়ায় দুটি ধাপে পয়েন্ট পাওয়া যাবে। লেভেল ১-এর সদস্যরা প্রতি ১০ সার্চে পয়েন্ট পাবে এবং লেভেল ২তে যারা থাকবে তাদেরকে পয়েন্ট অর্জনের জন্য দিনে ৫০টি করে সার্চ করতে হবে।

প্রতিদিন নতুন করে পয়েন্ট অর্জন করতে হবে।

আরও কিছু তথ্য

দিন শেষে একজন সর্বোচ্চ ৩০ পয়েন্ট অর্জন করতে পারবেন। এর চেয়ে বেশি পয়েন্ট পেতে হলে তাকে কুইজে অংশ নিতে হবে।

এ ছাড়া যুক্তরাজ্যে অনলাইনে মাইক্রোসফট স্টোর থেকে কেনাকাটা করলে প্রতি পাউন্ডে ১ পয়েন্ট করে দেওয়া হবে।

শিগগির আসবে অন্য দেশে

শুধু যুক্তরাজ্য নয়, ধীরে ধীরে  ফ্রান্স, জার্মানি ও কানাডাকেও পুরস্কার প্রকল্পের আওতায় নিয়ে আসবে মাইক্রোসফট।

দ্য ইকোনোমিক টাইমস অবলম্বনে আনিকা জীনাত

সার্চ ইঞ্জিনে নিষিদ্ধ হতে পারে টরেন্ট

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অনলাইনে মুভি, গেইম, ভিডিও, মিউজিকসহ যে কোনো ফাইল ডাউনলোড করতে জনপ্রিয় সাইট টরেন্ট। এবার সেই টরেন্ট গুগল, ইয়াহু এবং বিং এর মত সার্চ ইঞ্জিনে নিষিদ্ধ হতে পারে। সার্চ ইঞ্জিন প্রতিষ্ঠানগুলো সম্প্রতি এক বৈঠকে এমন সিন্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছে টরেন্ট ফ্রিক।

টরেন্ট ফ্রিক জানিয়েছে, গুগল, ইয়াহু এবং বিং কর্তৃপক্ষ বৈঠক করেছে যুক্তরাজ্যের মেধাস্বত্ব বিভাগের সাথে।সেখানে আলোচনায় সিদ্ধান্ত হয়েছে, সার্চ ইঞ্জিনে টরেন্ট সাইট নিষিদ্ধ করে দেওয়া হতে পারে। এই বিষয়ে চূড়ান্ত চুক্তির বিষয়টি প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। দ্রুতই এই সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত ব্যবহারকারীদের জানাবে সার্চ ইঞ্জিন প্রতিষ্ঠানগুলো।

Domains-Blacklisted-in-techshohor

যুক্তরাজ্য চাইছে চলতি বছরের মাঝামাঝি থেকেই যেন এই সিন্ধান্ত কার্যকর করা হয়। এই বিষয়ে সার্চ ইঞ্জিন প্রতিনিধিদের সাথে মেধাস্বত্ব বিভাগের কর্মকর্তারা কয়েকটি গোলটেবিল বৈঠকও করেছেন।

বিষয়টি বর্তমানে শুধু যুক্তরাজ্য কেন্দ্রিক হলেও পরে টরেন্ট সাইট সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সার্চ ইঞ্জিনে নিষিদ্ধ করা হতে পারে।

উল্লেখ্য গেলে বছর মাঝামাঝি সময়ে জনপ্রিয় টরেন্ট ওয়েবসাইট কিকঅ্যাশটরেন্টস ওয়েবসাইটটির মালিক আর্টেম ভাউলিন গ্রেপ্তারের পরে মূল ওয়েবসাইটটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল।

টরেন্ট ফ্রিক অবলম্বনে তুসিন আহমেদ

আরও পড়ুন: 

গুগলে তথ্য খোঁজার বিকল্প ১০ উপায়

ইমরান হোসেন মিলন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : তথ্যপ্রযুক্তি ও ইন্টারনেটের অভাবনীয় উন্নতির এই সময়ে তথ্য খোঁজা নিমিষের ব্যাপার মাত্র। ওয়েব জগতে প্রবেশ করে মুহূর্তের মধ্যে কোনো কিছু সম্পর্কে হাজারো তথ্য জেনে নেওয়া যায়। সার্চের ক্ষেত্রে এখন পর্যন্ত একাধিপত্য গুগলের। অজানাকে সামনে তুলে ধরতে জুরি নেই এ সার্চ ইঞ্জিনের।

জেনে হয়ত অবাক হবেন, গুগলে কোনো তথ্য সার্চ করার ক্ষেত্রে আমরা সাধারণত একটি উপায়েই চেষ্টা করে থাকি। বড়জোর হয়ত আরও এক বা দুটি বিকল্প কিছু দিয়ে সার্চ করা হয়। তবে আরও কিছু উপায় রয়েছে, যেগুলো ব্যবহার করে কাঙ্খিত ফলাফল পাওয়া যেতে পারে।

প্রযুক্তি বিষয়ক সাইট ব্রাইটের মতে, ৯৬ শতাংশ ব্যক্তি জানে না গুগলে ঠিক কত উপায়ে প্রয়োজনীয় তথ্যের খোঁজ করা যায়। বিকল্প ১০ উপায়ের কথা জানিয়েছে সাইটটি। টেক শহর ডটকম পাঠকদের জন্য এ প্রতিবেদনে তুলে ধরা হচ্ছে এসব বিকল্প।

Google_Buy

হয় এটা, নয় ওটা
আমরা অনেক তথ্য সার্চের চেষ্টা করি যেগুলোর ক্ষেত্রে খুব নিশ্চিতভাবে কি-ওয়ার্ড বলতে পারি না। মানে অনেকটা দ্বিধাবিভক্ত অবস্থা থেকে এসব তথ্য বা কোনো নাম সার্চ দিয়ে থাকি। এটা কোনো সমস্যা নয়। খুব সহজে সেগুলোর প্রয়োজনীয় বিকল্প খুঁজে পেতে কিছু সিম্বল বা চিহ্ন দিয়ে খোঁজ করা যায়। সেক্ষেত্রে উদ্ধৃতি চিহ্ন (“”) ব্যবহার করে সার্চ দেওয়া যায়।

উদ্ধৃতি চিহ্নের পাশাপাশি ‘অথবা’ বা ইংরেজিতে or বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করলে সার্চের ফলাফল আপনার অধীনেই যাবে।

প্রতিশব্দ ব্যবহার
প্রায় প্রতিটি ভাষার জন্যই শব্দ ভাণ্ডার পরিপূর্ণ হয়েছে প্রতিশব্দের কারণে। ইংরেজিও বেলাতেও এটি প্রযোজ্য। তাই অনলাইনে কোনো কিছু খুঁজতে গেলে প্রতিশব্দ একটি ভালো উপায় হতে পারে।

এ কারণে গুগলে কোনো কিছু প্রথমবারে খুঁজে না পেলে, তখন সেখানে এমন প্রতিশব্দ দিয়ে খুঁজলে সহজে পাওয়া যাবে।

এ ক্ষেত্রে অবশ্য শব্দটি লিখে (~)ব্রাকেটের ভিতরের এমন চিহ্ন ব্যবহার করলে তা দ্রুত পাওয়া সম্ভব। যেমন : “healthy ~food”.

ওয়েবসাইট ধরে খোঁজা
আমরা অনেকেই আছি ইন্টারনেট ঘাঁটতে ঘাঁটতে কোনো ওয়েবসাইটে হয়তো কখনো মজার কোনো প্রবন্ধ বা নিবন্ধ চোখে পড়ে। পরে সেটি আপনার বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে চাইলেন। তখন সহজে ও খুব দ্রুততম সময়ে সেটি পেতে চাইলে নিচের টিপস ব্যবহার করতে পারবেন।

এ জন্য আপনাকে সার্চ অপশনে গিয়ে ওয়েবসাইটের নাম এবং তার সঙ্গে ওই প্রবন্ধ বা নিবন্ধের কোনো মূল শব্দ যোগ করলে খুব দ্রুত এবং সরাসরি সেটা পাওয়া সম্ভব।

তারকা চিহ্ন দিয়ে সার্চ
অনেক সময় স্মৃতি আপনার সাথে প্রতারণা করে বসে। সহজ একটি বিষয় সহজেই মনে করতে পারে না। তখন দেখা যায় কোনো একটি শব্দ বা শব্দগুচ্ছ দিয়ে সার্চ করলেই হয়তো যা চাওয়া হচ্ছে, সেটি পাওয়া সম্ভব।

অথচ সেটা মনে করতে না পারায় তাৎক্ষণিকভাবে প্রয়োজন মেটানো যায় না। এসব ক্ষেত্রে ওই শব্দ বা শব্দগুচ্ছের স্থানে একটি তারকা চিহ্ন দিয়ে সার্চ দিলে তা সহজেই পাওয়া যেতে পারে।

যখন অনেক শব্দ ভুলে যাবেন
অনেক সময় দেখা যায়, কোনো কিছু খুঁজতে গেলে অনেক শব্দ ভুলে যেতে হয়। কোনো ভাবেই যদি সেগুলো মনে করতে না পারেন তাহলে চেষ্টা করবেন ওই বিষয়ের শুরু ও শেষের শব্দ মনে করতে পারেন কিনা। তাহলেই দেখবেন সেটি পেতে কোনো সমস্যাই হবে না।

সে শব্দগুলো দিয়ে এমন করে সার্চ দিলেই আপনার কাজ সফল হবে। যেমন : ”I wandered AROUND(4) cloud.”

Custom_google_search-techshohor

সময়কাল ধরে
ইতিহাসের অনেক কিছু্‌ প্রতিনিয়ত প্রয়োজন হয়। অনেক সময় দেখা যায় আমাদের এমন কিছু দরকার পড়ে যেগুলো কোনো নির্দিষ্ট সময়কালে ঘটেছে।

এ ক্ষেত্রে সার্চের প্রশ্ন হিসেবে সেই সময়কাল উল্লেখ করা যেতে পারে। তখন দুটি সময়কালের মাঝে তিনটি ডট চিহ্ন দিতে হবে। যেমন : ১৮৯৯…১৯২০।

ইউআরএল বা টাইটেল দিয়ে
কোন আর্টিকাল খুঁজে পেতে চাইলে সেটির টাইটেল বা ওয়েব ঠিকানা দিয়েও সার্চ করা যেতে পারে।

তবে সার্চের আগে সেই আর্টিকেলের টাইটেল ও ইউআরএলে কোনো স্পেস রাখা যাবে না এবং মাঝে একটি কোলন চিহ্ন দিতে হবে। যেমন : intitle:husky

একই মতো ওয়েবসাইট দিয়ে
ওয়েবসাইটে ওই নামের সঙ্গে মিল আছে এমন কোনো সাইট খুঁজতে ‘রিলেটেড’ লিখে কোলন ব্যবহার করা যেতে পারে।

এ ক্ষেত্রে যে ধরনের সাইট খুঁজতে চান- সেটার নাম প্রবেশ করান। দেখবেন তা আপনার চোখের সামনে চলে এসেছে। যেমন : Related:nike.com। তবে এক্ষেত্রে কোনো শব্দের মাঝেই স্পেস দেওয়া যাবে না।

শব্দগুচ্ছ দিয়ে সার্চ
কোনো কিছু সার্চ করতে গিয়ে কোনো কোটেশন মার্ক ছাড়া শুধু শব্দগুচ্ছ দিয়ে সার্চ দিলে তা খুব সহজেই এবং কার্যকরভাবে পাওয়া যায়। এভাবে সার্চ দিলে রিলেটেড অনেক কিছুই পাওয়া যাবে। কিন্তু সেসব শব্দগুচ্ছে যদি কোটেশন মার্ক বা কোটেশন চিহ্ন দেওয়া হয় তবে শুধু ওই একটিই দেখাবে।

এভাবে কোনো গান বা কবিতার একটি লাইন থেকেই পুরোটা খুঁজে বের করা সম্ভব হয়।

গুরুত্বহীন শব্দ দিয়ে সার্চ
অনেক সময গুরুত্বহীন অনেক শব্দই হয়ে উঠতে পারে গুরুত্বপূর্ণ। তাই কোনো কিছু খুঁজতে গিয়ে সেসব শব্দ দিয়ে সার্চ করলে প্রয়োজনীয় বিষয় সহজেই পাওয়া সম্ভব হয়। এ ক্ষেত্রে অবশ্য বিয়োগ চিহ্ন ব্যবহার করা যেতে পারে।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, অনেক সময় কিছু আকর্ষণীয় বইয়ের সাইট খুঁজতে চান অনেকেই। সেক্ষেত্রে এভাবে interesting books-buy গুগলে সার্চ দিলেই প্রয়োজনীয় বিষয় পাওয়া যেতে পারে।

গুগলে খেলুন গেইম

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গুগলে কোনো গান সার্চ করে সহজেই খুঁজে পাওয়া থেকে শুরু করে তথ্য, ছবি, ভিডিও পাওয়া যায় মাত্র এক কয়েক ক্লিকেই। তবে সার্চ জায়ান্ট গুগল শুধু  তথ্যের খোঁজই দেয় না, সেই সঙ্গে যেন ব্যবহারকারীরা বিনোদন পেতে পারেন সেজন্য রয়েছে নানা ফিচার। খেলা যায় বিভিন্ন গেইমও। গুগল সার্চে খেলা যায় এমন তিনটি গেইম তুলে ধরা হলো এই টিউটোরিয়ালে।

পকেমন: ছেলে বেলার পকেমন গেইমের কথা মনে আছে? কাজের ফাঁকে আপনার এই গেইমটি খেলতে ইচ্ছা করলে কষ্ট করে গেইমটি ডাউনলোড বা ইন্সটল করতে হবে না। শুধু প্রথমে গুগল ডটকমে যেতে হবে। তারপর সার্চ বারে লিখতে হবে ‘PACMAN’। তাহলেই সার্চে  প্রথমে দেখা যাবে গেইমটি এবং ‘click to pay’ বাটনে ক্লিক করলেই গেইম চালু হবে। গেইমটি কিবোর্ডের সাহায্যে খেলা যাবে।

google-game-techshohor

কিওয়ার্ল্ড ফাইট: গুগলের কোন শব্দটি বেশি সার্চ হয় তা নিয়ে যুদ্ধ করা যাবে গুগলেই। শুনতে অবাক লাগলেও তা সত্যি। দুটি শব্দের মধ্যে তুলনা করে গুগল দেখিয়ে দেবে কোন শব্দটি অধিক সার্চ করা হয়েছে গুগলে। এর জন্য প্রথমে গুগল সার্চে googlefight লিখে সার্চ করতে হবে। তাহলে প্রথমে যে ওয়েবসাইট লিংকটা আসবে তাতে যেতে হবে। সেখানে গেলে দুটি কিওয়ার্ড লেখার অপশন পাওয়া যাবে। এতে দুটি কি-ওয়ার্ড দেয়ার পর ফাইট বাটনে ক্লিক করার কিছু সময় পর দেখা যাবে কি-ওর্য়াড দুটির মধ্যে কোনটি জয়ী হয়েছে।

সাপের গেইম: নকিয়ার যুগে মোবাইল ফোনের সাপের গেইমটি সবার কম-বেশি পছন্দের তালিকায় ছিল। এখন এসেছে নিত্য নতুন প্রযুক্তি ডিভাইস। তাই সেই সাপের গেইমটি খেলা হয় না। তবে যদি আপনার গেইমটি খেলতে ইচ্ছা করে গুগলে গিয়ে সার্চ বারে লিখুন google snake। এরপর এন্টার দিতে হবে। তাহলে সার্চে প্রথম রেজাল্টে দেয়া লিংকে প্রবেশ করে খেলতে থাকুন সাপের গেইম।

আরও পড়ুন: 

গুগল সার্চের নতুন ফিচার ‘অ্যানিমেল সাউন্ড’

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঘোড়া কিভাবে ডাকে? কিংবা বাঘের গর্জনের শব্দ কেমন? বড়দের জানা থাকলেও শিশুদের এ নিয়ে কৌতুহলের শেষ নেই। তবে এমন অনেক প্রাণী বা জীবজন্তু আছে যেগুলোর ‘ডাক’ হয়ত অনেকেই জানি না।

এখন থেকে আর সমস্যা নেই। বাঘ মামার গর্জন থেকে শুরু করে অজানা প্রাণীর ‘ডাক’ কেমন তা শুনিয়ে দেবে গুগল।

ব্যবহারকারীদের পশু-পাখি’র শব্দ সম্পর্কে কৌতূহল মেটাতে ‘অ্যানিমেল সাউন্ড’ নামে নতুন ফিচার সার্চে যুক্ত করেছে সার্চ থেকে টেক জায়ান্টে পরিণত হওয়া এ কোম্পানি।

maxresdefault

‘What sound does the duck make?’-এ ধরনের প্রশ্ন গুগলে সার্চে লিখলেই শব্দ ও হাঁসের ছবি স্ক্রিনে চলে আসবে।

নতুন ফিচারটিতে বিড়াল, গরু, কুকুর, হাঁস, হাতি, ঘোড়া, সিংহ, মার্কিন হরিণ মুজ, পেঁচা, জেব্রা’র শব্দসহ সর্বমোট ১৯টি পশু-পাখি শব্দ সহজে খুঁজে পাওয়া যাবে।

শব্দগুলো সরাসরি প্রাণীদের ডাক থেকেই ধারণ করা হয়েছে। এটি সব থেকে বেশি সার্চ হওয়া প্রাণী ও কিছু আদর্শ প্রাণীর আওয়াজের তালিকাও দেখাবে।

ওয়েবের মতই অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন ও আইওএস ডিভাইসে সহজেই ব্যবহার করা যাবে ফিচারটি।

ইয়াহু নিউজ অবলম্বনে তুসিন আহমেদ

স্কুলের শিশুদের উপর নজরদারি চালায় গুগল?

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সার্চ জায়ান্ট গুগল স্কুলের শিশুদের উপর নজরদারি চালায় বলে অভিযোগ করেছে একটি সিভিল লিবার্টি গ্রুপ।

ইলেক্ট্রোনিক্স ফ্রন্টিয়ার ফাউন্ডেশন (ইএফএফ) নামের গ্রুপটি জানিয়েছে শিশুদের ইন্টারনেট সার্চ কর্মকান্ডের উপর নজরদারি ও তাদের ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করে আসছে গুগল।

বিষয়টি নিয়ে এরই মধ্যে ইউএস ফেডারেল ট্রেড কমিশনের কাছে অভিযোগ করেছে ইএফএফ। অভিযোগে বলা হয়েছে শিশুদের শিক্ষামূলক সেবা দেওয়ার বিষয়ে গুগল তার প্রতিশ্রুতির পাশাপাশি বাণিজ্যিক নিয়মও ভঙ্গ করেছে।

Google has a new logoসিভিল লিবার্টি গ্রুপ ইএফএফ বলছে গুগলের যে সব পণ্য স্কুলে ব্যবহৃত হচ্ছে সেই সব পণ্য থেকে শিশুদের অভিভাবকদের অনুমতি ছাড়াই তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে গুগল। ইএফএফ -এর অভিযোগে বলা হয়েছে যে তথ্যগুলো সংগ্রহ করা হচ্ছে তা পরবর্তীতে পণ্য উন্নয়নে ও বিজ্ঞাপনের জন্য ব্যবহার করছে গুগল।

তবে সার্চ জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি বলছে স্কুলে তাদের পণ্যগুলো আইন অনুযায়ী কাজ করছে। মার্কিন স্কুলে গুগলের ক্রোমবুক ও প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষামূলক অ্যাপ ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

গুগল বলছে স্কুলে ব্যবহৃত পণ্যগুলো শিশুদের শিক্ষার জন্য নিরাপদ স্থান হিসেবে তৈরি করা হয়েছে। যে পণ্য সেবাগুলোতে কোন ধরণের বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপন দেওয়া হয় না।

বিবিসি অবলম্বনে সৌমিক আহমেদ

 

মোবাইলের জন্য নতুন সার্চ অ্যাপ আনল গুগল

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বৈশ্বিক সার্চ ইঞ্জিন গুগল মোবাইলের জন্য নতুন একটি অনুসন্ধান অ্যাপ্লিকেশন উন্মুক্ত করেছে। অ্যাপটি দৈনন্দিন প্রয়োজন অনুযায়ী স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের তথ্য অনুসন্ধানে বিশেষভাবে সাহায্য করবে।

এ ব্যাপারে গুগলের ভারতীয় বিপণন পরিচালক সান্দ্বীপ মেনন জানান, অনলাইনে প্রবেশ করার জন্য অগণিত ভারতীয় নাগরিক স্মার্টফোন ব্যবহার করেন। তাদের সুবিধার্থে নতুন পণ্য গুগল হাউস উন্মুক্ত করা হয়েছে। এটি মোবাইল থেকে গুগল ম্যাপস, ফটোস, ট্র্যান্সলেট, ইউটিউব ব্যবহারকে আরও সহজ করবে।
গুগলের এক জরীপ অনুযায়ী, ২০১৭ সালের মধ্যে প্রায় ৫০০ মিলিয়ন ভারতীয় কম্পিউটার বা ল্যাপটপ থেকে এবং ৪৯০ মিলিয়ন ভারতীয় স্মার্টফোন থেকে অনলাইন ব্যবহার করবেন।

Google launches new search app for mobile

তবে ওই জরীপ অনুযায়ী, ২০১৪ সালে ৩০০ মিলিয়ন ভারতীয় ডেস্কটপ থেকে এবং ১৫০ মিলিয়ন ভারতীয় স্মার্টফোন থেকে অনলাইন ব্যবহার করেন।
মেনন আরও বলেন, প্রতি মাসে ভারতে ৬ থেকে ৭ মিলিয়ন নতুন মোবাইল ব্যবহারকারী যোগ হচ্ছে। এই সংখ্যাটা নরওয়ের মোট জনসংখ্যার চেয়েও বেশি। এই বিশাল সংখ্যাকে অনলাইনমুখী করার জন্য নতুন অ্যাপটি সাহায্য করবে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে আহমেদ মনসুর

আরও পড়ুন: 

বাংলা ভয়েস সার্চ আনলো গুগল

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: ইংরেজির পর এবার বাংলা ভয়েস সার্চ চালু করতে যাচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন গুগল। ভারতের তথ্য-প্রযুক্তি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সি-ডিএসির সঙ্গে এ নিয়ে যৌথভাবে কাজ করছে এই জায়ান্ট।

ভারতে ২০ কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছেন। এর মধ্যে বাংলা ভাষীর সংখ্যাটাও অনেক।

ভারত ইন্টারনেট ব্যবহারে আগামী এক বছরের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। ওয়েব দুনিয়া নিজেদের দখলে নিতে ইতিমধ্যে ইন্ডিয়ান ল্যাঙ্গুয়েজ ইন্টারনেট অ্যালায়েন্স (আইএলআইএ)  নামে একটি প্রতিষ্ঠানও তৈরী করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির কাজ মূলত অনলাইনে বাংলাসহ ভারতের অন্যান্য অঞ্চলিক ভাষার বিভিন্ন কনটেন্ট প্রচার করা।

google voice -techshohor

আইএলআইএ আশা করছে, ২০১৭ সাল নাগাদ তারা আরও ৩০ কোটি ভারতীয় ভাষাভাষী মানুষকে ইন্টারনেটের সঙ্গে যুক্ত করতে পারবে। যারা মোবাইল যন্ত্র বা স্মার্টফোন থেকে প্রথমবারের মতো ইন্টারনেটের দুনিয়ায় আসছেন বা আসবেন তাদের উপযোগী কনটেন্ট তৈরিতে কাজ করবে  আইএলআইএ। এর আওতায় বাংলা ভাষীদের জন্যও কনটেন্ট তৈরি করবে তারা।

গুগল ভয়েস সার্চের সাহায্যে কিবোর্ড ছাড়াই ভয়েস কমান্ডের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় তথ্য খুঁজে বের করা যাবে। এজন্য গুগল ক্রোমে সার্চের বক্সের মাইক্রোফোন আইকনে কিক করে ভয়েস কমান্ড অপশনটি সক্রিয় করতে হবে। এরপর শুধু আপনি যা খুঁজে পেতে চান তা বলতে হবে।

-সাইমুম সাদ