পদত্যাগ করতে রাসেল উত্তম রাশিদুলকে বেসিস নির্বাচন বোর্ডের চিঠি

আল-আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বেসিসের বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট রাসেল টি আহমেদ, ভাইস প্রেসিডেন্ট এম রাশিদুল হাসান ও পরিচালক উত্তম কুমার পালকে পদত্যাগ করতে চিঠি দিয়েছে নির্বাচন বোর্ড।

দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের শীর্ষ বাণিজ্য সংগঠনটির ২০১৭-১৮ মেয়াদের তিনটি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠান প্রক্রিয়া শুরু করতে নিয়মতান্ত্রিকভাবে এই চিঠি দেয় বোর্ড।

পদত্যাগ নিয়ে কার্যনির্বাহী কমিটির মধ্যে সমঝোতা না হওয়ায় বোর্ড ‘পদে থাকার জ্যেষ্ঠতা’র ভিত্তিতে তাদের পদত্যাগ করতে বলেন।

তবে পদত্যাগ নিয়ে নির্বাচন বোর্ডের সিদ্ধান্তে ‘আপত্তি’ করছেন তিন নেতা। তারা আপিল বোর্ডে বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করতে আবেদন করেছেন।

নির্বাচন তফসিল অনুযায়ী ২৩ মে তারিখে পদত্যাগ করতে হবে। ৮ জুলাই হবে নির্বাচন। নির্বাচন বোর্ড নমিনেশন আহবান করে নোটিশ দেবে ২৫ মে।

বেসিস নির্বাচন বোর্ডের সদস্য রফিকুল ইসলাম রাউলি টেকশহরডটকমকে জানান, গঠনতন্ত্র ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ডিটিও শাখার নির্বাচন সংক্রান্ত নির্দেশনা মেনে নির্বাচন বোর্ড তিনজনকে পদত্যাগের চিঠি দিয়েছে।

আপিল বোর্ডে আবেদনের বিষয়ে বেসিসের সাবেক এই সভাপতি বলেন, এটা একটা প্রক্রিয়া। নির্বাচন সংক্রান্ত কোনো বিষয়ে আপত্তি থাকলে তার জন্য আপিল বোর্ডে আবেদন করার সুযোগ থাকে।

‘এখানে সবাই ইন্ডিপেন্ডেন্ট। এখানে আমরাও চাই না কাউকে কোনো ইনফ্লুয়েন্স করার জন্য। আমরা চাই ইন্ডিপেন্ডেন্টলি কাজ করার জন্য। এটা আপিল বোর্ডের ব্যাপার। আমরা আপিল বোর্ডের রেজাল্টের জন্য অপেক্ষা করবো।’

basis-techshohor-2

পদত্যাগে সমঝোতা না হওয়া এবং লটারি করতে গেলে ‌‌’সমতা’র অধিকার ভঙ্গের বিষয় নিয়ে বেসিস বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতি তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার এর কাছে জানতে চাইলে তিনি কিছু জানেন না বলে জানান।

তিনি উল্লেখ করেন, জাতীয় নির্বাচনসহ সব নির্বাচনেরই নির্বাচন কমিশন বা বোর্ডই গণমাধ্যমকে সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো অবহিত করে। কারণ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর হতে এ সংক্রান্ত বিষয়ে কিছু বলার এখতিয়ার শুধু নির্বাচন বোর্ডের। কোনো বিষয় প্রশ্ন থাকলে বোর্ড হতে জানতে পারবেন।

পদত্যাগ করতে বলা তিন নেতাই টানা চারটি সেশনে দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে বেসিসের কার্যনির্বাহী কমিটিতে রয়েছেন।

রাসেল টি আহমেদ ২০১২-১৩ ও ২০১৩-১৪ সেশনে মহাসচিব এবং ২০১৪-১৬’তে সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন। বর্তমান ২০১৬-১৯ সেশনের প্রথম টার্মেও তিনি সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট।

এম রাশিদুল হাসান ২০১২-১৩ ও ২০১৩-১৪ সেশনে যুগ্ম-মহাসচিব এবং ২০১৪-১৬’তে ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন। বর্তমান ২০১৬-১৯ সেশনের প্রথম টার্মেও তিনি ভাইস প্রেসিডেন্ট হয়েছেন।

উত্তম কুমার পাল ২০১২-১৩ সেশনে কোষাধ্যক্ষ, ২০১৩-১৪ সেশনে ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং ২০১৪-১৬’তে মহাসচিব ছিলেন। বর্তমান ২০১৬-১৯ সেশনের প্রথম টার্মেও তিনি ভাইস প্রেসিডেন্ট হয়েছেন।

বর্তমান কমিটির অন্যদের মধ্যে সভাপতি মোস্তাফা জব্বার এর আগে ১৯৯৭-৯৯ সেশনে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাকালীন ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন তিনি। ২০০২-০৩ সেশনে ছিলেন পরিচালক।

পরিচালক সৈয়দ আলমাস কবির ২০১০-১২ সেশনে ছিলেন পরিচালক, ২০১২-১৩-এ ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং ২০১৩-১৪ ‘তে সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট।

পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল ২০১৪-১৬ সেশনে যুগ্ম মহাসচিব ছিলেন।

ভাইস প্রেসিডেন্ট ফারহানা এ রহমান ২০০৮-০৯ সেশনে ছিলেন কোষাধ্যক্ষ, ২০১০-১২ তে ছিলেন ভাইস প্রেসিডেন্ট।

এছাড়া পরিচালক সোনিয়া বশির কবির এবং রিয়াদ এস এ হোসেইন এবারই প্রথম বেসিসের কার্যনির্বাহী কমিটিতে এসেছেন।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে সংশোধিত গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কার্যনির্বাহী কমিটির সেশন ৩ বছর। সে হিসেবে চলতি সেশন ২০১৬-১৯ সাল। তবে এই সেশন সময়ে প্রতি টার্মে কার্যনির্বাহী কমিটি হতে ৩ জন পদত্যাগ করবেন। এক বছর সময়ের ওই টার্মে পদত্যাগ করে শূন্য হওয়া ৩ পদে হবে নির্বাচন।

প্রতিটি টার্মে নতুন নির্বাচিত এবং পুরোনো মিলে ৯ পরিচালক নতুন করে কার্যনির্বাহী কমিটির পদের দায়িত্ব নেওয়ার নির্বাচন করবেন।

আরও পড়ুন: 

অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডে তাইওয়ান যাচ্ছে বেসিস

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর নেতৃত্বে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে ভূমিকা রাখা এশিয়া প্যাসিফিক আইসিটি অ্যালায়েন্স বা অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ড প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ।

তাইওয়ানের রাজধানী তাইপে শহরে ২ থেকে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিতব্য অ্যাওয়ার্ড সম্মেলনে অংশ নিতে রাতেই বেসিসের নেতৃত্বে মনোনয়ন পাওয়া নয়টি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এবং তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের দল অংশ নিচ্ছে।

প্রতিষ্ঠানগুলো টুইস্টার মিডিয়া টেকনোলজি লি., রিভ সিস্টেমস, আর এক্স ৭১ লি., ডক্টোরোলা, ফিউচার সল্যুশানস ফর বিজনেস লি., বিজনেস অটোমেশন লি., অ্যানালাইজেন বাংলাদেশ লি., ক্রান্তি অ্যাসোসিয়েটস লি., বন্ডসটেইন টেকনোলজিস, হিউম্যাক ল্যাব লিমিটেড এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে নির্বাচিত হয়েছে।

Basis-Apicta-Techshohor
এছাড়াও ট্রেটারি স্টুডেন্ট প্রজেক্ট শ্রেণীতে বুয়েট, এনএসইউ এবং আইইউবি বিশ্ববিদ্যালয়ের তিনটি দল অংশ নেবে।

সেখানেই ১৭টি দেশের বিভিন্ন প্রকল্পের সঙ্গে ১৭টি ক্যাটাগরিতে পুরস্কারের জন্য লড়বে বাংলাদেশের এই প্রতিষ্ঠানগুলো।

অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ, ব্রুনেই দারুসসালাম, চীন, চীনা তাইপে, হংকং, ইন্দোনেশিয়া, জাপান, ম্যাকাও, মালয়েশিয়া, মিয়ানমার, পাকিস্তান, সিঙ্গাপুর, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম এবং নেপালসহ ১৭টি অর্থনীতি অঞ্চলের সদস্য নিয়ে অ্যাপিকটা গঠিত।

বৃহস্পতিবার বেসিস সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডে অংশ নেওয়ার বিস্তারিত জানাতে সংবাদ সম্মেলন করে।

সেখানে আয়োজনের বিষয়ে বিস্তারিত জানান বেসিস জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ। তিনি জানান, এবার মোট ২৪০টি প্রতিষ্ঠোনকে মনোনয়ন দিয়েছে অ্যাপিকটা। যার মধ্য থেকে ১৭টিকে বেছে নেবে সংগঠনটি।

বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, তারা এবারের অ্যাওয়ার্ড সম্মেলন থেকে দেশে কয়েকটি ক্যাটাগতি বিজয়ী হবেন বলে আশা প্রকাশ করেন।

বেসিসের সঙ্গে সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের দুজন প্রতিনিধিও অংশ নেবেন।

মূলত প্রতিযোগিতাটি সমাজে আইসিটি সচেতনতা বৃদ্ধি এবং ডিজিটাল বিভাজনে সহায়তা করার লক্ষ্যে উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে আয়োজিত। এই অঞ্চলে আইসিটি উদ্ভাবক এবং উদ্যোক্তাদের নেটওয়ার্কিং এবং পণ্য বেঞ্চমার্কিংয়ের সুযোগ প্রদানের মাধ্যমে এই প্রোগ্রাম আইসিটিতে নতুনত্ব এবং সৃজনশীলতা উদ্দীপিতকরণ, অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক উন্নয়নে প্রযুক্তি স্থানান্তর সহজতরকরণ এবং ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্ট ও বিনিয়োগকারীদের উৎঘাটনের মাধ্যমে ব্যবসায়ের সুযোগ সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বেসিস সহ-সভাপতি এম রাশেদুল হাসান, পরিচালক উত্তম কুমার পাল।

ইমরান হোসেন মিলন

অ্যাপস ও গেইমের বিশ্ববাজার ধরতে বেসিসের প্রস্তুতি

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অ্যাপস ও গেইম ডেভেলপমেন্টের মাধ্যমে আয় বা মনিটাইজেশন নিয়ে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার বেসিসে আয়োজিত এই সেমিনারে সদস্য প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিসহ শতাধিক অ্যাপ ও গেইম ডেভেলপার অংশ নেন।

বেসিসের সিনিয়র সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদের সভাপতিত্বে সেমিনারে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বেসিসের সহ-সভাপতি ও বেসিসের মোবাইল অ্যাপস ও গেইমস সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিচালক এম রাশিদুল হাসান। আলোচক হিসেবে ছিলেন হামজা গেইমসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠাতা মো. রুবেল হামজা ও রিভেরি কর্পোরেশনের অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপার অনিন্দ্য দ্যুতি ধর। বক্তব্য রাখেন বেসিসের মোবাইল অ্যাপস ও গেইমস সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য মোহাম্মদ আবদুল হক অনু ও মোহাম্মাদ শাহজালাল।

BASIS_App-Game-TECHSHOHOR
বেসিসের সিনিয়র সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ বলেন, আমরা মোবাইল অ্যাপস ও গেইমস ডেভেলপমেন্টকেই গুরুত্ব দিই। কিন্তু ওই মোবাইল অ্যাপস ও গেইমসের সফলতার জন্য এর বিপণনে বেশি জোর দেওয়া প্রয়োজন। ডেভেলপমেন্টে ২০ থেকে ২৫ শতাংশ বাজেট ও বিপণনে ৭৫ থেকে ৮০ শতাংশ বাজেট খরচ করা প্রয়োজন বলে জানান তিনি।

বেসিসের সহ-সভাপতি এম রাশিদুল হাসান বলেন, ভারতসহ বিভিন্ন দেশের সাথে তারা অ্যাপস ও গেইম ডেভেলপমেন্ট শুরু করেছেন। সঠিক পরিকল্পনা, অ্যাপস স্টোর থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার অভাবসহ বেশ কয়েকটি কারণ থাকা স্বত্বেও প্রতিষ্ঠানগুলো এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের মোবাইল অ্যাপস ও গেইম ডেভেলপমেন্টের উন্নয়নে বেসিস কাজ করছে। আগামীতেও ট্রিলিয়ন ডলারের অ্যাপস ও গেইমসের বাজারে বাংলাদেশের দৃশ্যমান অংশগ্রহণে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

সেমিনারে আলোচকরা জানান, দেশে ভালো অ্যাপস ও গেইম ডেভেলপার থাকলেও বিশ্বব্যাপী গেইমের বাজারে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ খুবই কম। বিশেষ করে বাংলাদেশ থেকে গুগল প্লে স্টোরে অ্যাপস বিক্রির সুযোগ না থাকায় অনেকেই এক্ষেত্রে টিকতে পারছেন না কিংবা বিমুখ হচ্ছেন। তবে দীর্ঘমেয়াদী ও কৌশলগত পরিকল্পনা, অ্যাপস ও গেইমসের বিপণন এবং সরকারি-বেসরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে বাংলাদেশ এই খাতে বড় অবদান রাখতে পারবে বলেও তারা সেমিনারে বলেন।

ইমরান হোসেন মিলন

পর্দা নেমেছে জাতীয় কম-টেক ফেস্টের

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে পর্দা নেমেছে দুই দিনের তথ্যপ্রযুক্তির উৎসবের।

শুক্রবার রাজধানীর পান্থপথে ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ক্যাম্পাসে দুই দিনব্যাপী জাতীয় কম-টেক ফেস্টের সমাপণীর মধ্য দিয়ে পর্দা নামলো পঞ্চমবারের এই আয়োজনের।

দুই দিন ব্যাপী আয়োজনে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তাদের উদ্ভাবন নিয়ে হাজির হয়েছিল প্রদর্শনীর জন্য। এছাড়াও ছিল বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রযুক্তিপণ্য প্রদর্শনী।

WU_BANG_TECH_TECHSHOHOR
ছবি : সংগৃহীত

দুই দিনই ছিল শিক্ষার্থীদের উৎসাহ দিতে বিভিন্ন সেমিনার ও সেশন।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী এ.কে.এম. মোজাম্মেল হক। এছাড়াও অনুষ্ঠানে বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, বিশ্ববিদ্যালয়টির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল ইসলাম এবং উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুল মান্নান উপস্থিত ছিলেন।

এবারের আয়োজনের সহযোগী হিসেবে ছিল তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক নিউজ পোর্টাল টেকশহরডটকম

ইমরান হোসেন মিলন

অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডে বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবে বেসিস

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর নেতৃত্বে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের তথ্য প্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা এশিয়া প্যাসিফিক আইসিটি অ্যালায়েন্স বা অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ড প্রতিযোগিতায় প্রথমবারের মতো অংশ নেবে বাংলাদেশ।

২ থেকে ৫ ডিসেম্বর তাইওয়ানের তাইপে শহরে ওই প্রতিযোগিতায় যাবে বেসিসের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল। সেখানেই জোটভুক্ত ১৭টি দেশের সঙ্গে লড়বে বাংলাদেশ।

অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ, ব্রুনেই দারুসসালাম, চীন, চীনা তাইপে, হংকং, ইন্দোনেশিয়া, জাপান, ম্যাকাও, মালয়েশিয়া, মিয়ানমার, পাকিস্তান, সিঙ্গাপুর, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম এবং নেপালসহ ১৭টি অর্থনীতি অঞ্চলের সদস্য নিয়ে অ্যাপিকটা গঠিত।

এই বছর মোট ১৭টি শ্রেণীতে এই পুরষ্কার দেয়া হচ্ছে। প্রতিযোগিতাটি সমাজে আইসিটি সচেতনতা বৃদ্ধি এবং ডিজিটাল বিভাজনে সহায়তা করার লক্ষ্যে উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে আয়োজিত। এই অঞ্চলে আইসিটি উদ্ভাবক এবং উদ্যোক্তাদের নেটওয়ার্কিং এবং পণ্য বেঞ্চমার্কিংয়ের সুযোগ প্রদানের মাধ্যমে এই প্রোগ্রাম আইসিটিতে নতুনত্ব এবং সৃজনশীলতা উদ্দীপিতকরণ, অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক উন্নয়নে প্রযুক্তি স্থানান্তর সহজতরকরণ এবং ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্ট ও বিনিয়োগকারীদের উৎঘাটনের মাধ্যমে ব্যবসায়ের সুযোগ সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখে।

BASIS_APICTA_TECHSHOHOR
বেসিসের সদস্য কোম্পানিসমূহের মাঝে আগ্রহী প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে কয়েক ধাপে যাচাই বাছাইয়ের মাধ্যমে টুইস্টার মিডিয়া টেকনোলজি লি., রিভ সিস্টেমস, আর এক্স ৭১ লি., ডক্টোরোলা, ফিউচার সল্যুশানস ফর বিজনেস লি., বিজনেস অটোমেশন লি., অ্যানালাইজেন বাংলাদেশ লি., ক্রান্তি অ্যাসোসিয়েটস লি., বন্ডসটেইন টেকনোলজিস, হিউম্যাক ল্যাব লিমিটেডসহ মোট ১০টি কোম্পানিকে এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে নির্বাচন করা হয়।

এছাড়াও ট্রেটারি স্টুডেন্ট প্রজেক্ট শ্রেণীতে বুয়েট, এনএসইউ এবং আইইউবি বিশ্ববিদ্যালয়ের তিনটি দল অংশ নেবে।

প্রতিযোগিতায় ভালো ফলাফলের জন্যে বেসিসের পক্ষ থেকে গত ১৪ ও ১৫ই নভেম্বর সকল নির্বাচিত প্রতিযোগীদের বেসিস মিলনায়তনে দুই দিনব্যাপী প্রস্তুতি ও পরামর্শমূলক উপস্থাপনার ব্যবস্থা করা হয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন বেসিস নির্বাহী পরিষদের সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, সিনিয়র সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, সহ-সভাপতি এম রাশেদুল হাসান, পরিচালক উত্তম কুমার পাল, পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেলসহ আরো অনেকে।

উল্লেখ্য যে, প্রস্তুতিমূলক এই অনুষ্ঠানের জন্যে বিশেষজ্ঞ ও মেন্টর হিসেবে থাইল্যান্ড থেকে উপস্থিত ছিলেন অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডস প্রতিযোগিতার বিগত কয়েক বছরের সাবেক বিচারক মাইক সাচাফিলবুল্কিজ। তিনি প্রতিযোগীদের উপস্থাপনা পরবর্তী বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করেন।

বাংলাদেশ থেকেও বেসিসের নেতৃবৃন্দরা প্রতিযোগিতার বিচারক হিসেবে অংশ নেবেন।

ইমরান হোসেন মিলন

মেধাস্বত্ব সংরক্ষণে কাজ করবে বেসিস-আইপি ফোরাম

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সফটওয়্যার ও তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর সেবা খাতের মেধাস্বত্ব সংরক্ষণ এবং এ বিষয়ে সচেতনতা গড়ে তুলতে যৌথভাবে কাজ করবে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এবং বাংলাদেশ কপিরাইট অ্যান্ড আইপি ফোরাম (বিসিআইপিএফ)।

যৌথভাবে কাজ করতে প্রতিষ্ঠান দুটি বুধবার একটি সমঝোতা চুক্তি সই করেছে।

বেসিসের আইপিআর সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান আহমেদ হাসান ও বিসিআইপিএফের লিগ্যাল নির্বাহী কমিটির পরিচালক নাহিদ হোসেন নিজ নিজ সংগঠনের পক্ষ থেকে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন।

MoU - BASIS & IP Forum_Techshohor
এসময় উপস্থিত ছিলেন বেসিসের সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, সিনিয়র সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল, সৈয়দ আলমাস কবীর, বিসিআইপিএফের প্রধান নির্বাহী ব্যারিস্টার ব্যারিস্টার এ বি এম হামিদুল মিসবাহ প্রমুখ।

সমঝোতা অনুযায়ী, দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের প্রচার, প্রসার ও মেধাস্বত্ব সংরক্ষণে প্রয়োজনীয় আইন, নীতিমালা প্রণয়ন, পরিবর্তন বা পরিমার্জনে উভয় সংগঠন কাজ করবে।

এছাড়াও কপিরাইট ও আইপিআর সম্পর্কিত আইন বা নীতিমালার যথাযথ প্রয়োগে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সাথে কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। কপিরাইট ও মেধাস্বত্ব সম্পর্কে সচেতনতা গড়ে তুলতে সেমিনার, কর্মশালার আয়োজন করাসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী, চেম্বার অব কমার্স, পলিসি মেকার, নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটি প্লাটফর্ম তৈরি করা হবে।

ইমরান হোসেন মিলন

অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডে অংশ নেবে বাংলাদেশ

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : এশিয়ার তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বড় সংগঠন এশিয়া প্যাসিফিক আইসিটি অ্যালায়েন্স (অ্যাপিকটা) এর ৫২তম কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হলো তাইওয়ানের রাজধানী তাইপেতে।

অ্যাপিকটার দুদিনব্যাপী সেই সভায় সদস্য হিসেবে অংশ নেয় বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)।

শুক্রবার ও শনিবারের সভায় বেসিসের প্রতিনিধিত্ব করেন সংগঠনটির জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ। বেসিসের পাশাপাশি অ্যাপিকটার সদস্যভুক্ত প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরাও এবারের সভায় অংশ নিয়েছে।

APICTA-BASIS_TECHSHOHOR
এছাড়াও আগামী ২ থেকে ৫ ডিসেম্বর তাইপেতে আইসিটি খাতের অস্কার হিসেবে বিবেচিত অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠিত হবে। ১৭টি ক্যাটাগরিতে এবারই প্রথম বাংলাদেশের বিভিন্ন পণ্য ও সেবা প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবে। শিগগিরই বেসিসের সদস্যভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোকে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলে বলেন রাসেল টি আহমদ।

চলতি বছরের ১ ও ২ এপ্রিল বেসিস কার্যালয়ে অ্যাপিকটার ৫১তম কার্যনির্বাহী কমিটি সভা অনুষ্ঠিত হয়, যা বাংলাদেশে অ্যাপিকটার প্রথম সভা।

এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের বিভিন্ন দেশের তথ্যপ্রযুক্তি সংগঠনের এই জোট মূলত সদস্য দেশগুলোর পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে নিজ নিজ দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের কাঠামো গঠন ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে কাজ করে থাকে।

এছাড়া সদস্য দেশগুলোর নিজেদের তথ্যপ্রযুক্তিকে বিশ্ববাজারে তুলে ধরা, তথ্যপ্রযুক্তির সক্ষমতা উন্নয়ন এবং প্রযুক্তি ইনোভেশনগুলোকে এগিয়ে নিতে বেশ শক্ত ভূমিকা রাখে এই জোট।

বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের শীর্ষ সংগঠন হিসেবে গতবছর বেসিস অ্যাপিকটার সদস্যপদ লাভ করে।

ইমরান হোসেন মিলন

নাসা স্পেস অ্যাপসের অ্যাক্সিলারেটর কার্যক্রমের ঘোষণা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশে নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ প্রজেক্টের অ্যাক্সিলারেটর কার্যক্রমের ঘোষণা দিয়েছে যৌথ আয়োজক বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বেসিস মিলনায়তনে ‘স্পেস অ্যাপস প্রজেক্ট অ্যাক্সিলারেটর’ শীর্ষক কার্যক্রম সম্পর্কে জানাতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে এসব কথা জানান আয়োজকরা।

অনুষ্ঠানে স্পেস অ্যাপস বাংলাদেশের প্রধান আরিফুল হাসান অপু জানান, এই অ্যাক্সিলারেটর কার্যক্রমের অধীনে প্রাথমিকভাবে সারাদেশ থেকে চারটি দল নির্বাচন করে তাদেরকে গবেষণাগার, মেন্টরিং, প্রকল্পের ভবিষ্যৎ বাণিজ্যিক কর্মপদ্ধতি সম্পর্কে ধারণা দেওয়াসহ বিভিন্ন সহযোগিতা করা হবে।

Nasa-space-app-Techshohor
এছাড়া মহাকাশ ও অন্যান্য গবেষণা সম্পর্কিত যেকোনো তথ্য সরবরাহ করবে নাসা। প্রাথমিকভাবে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে অত্যাধুনিক ল্যাব প্রতিষ্ঠা করে এই কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। পরবর্তীতে সারাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে এই কার্যক্রম সম্প্রসারণ করা হবে বলে জানান অপু।

আগ্রহীদের আগামী ৩১ আগস্টের মধ্যে স্পেস অ্যাপস বাংলাদেশের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে নিবন্ধন করতে হবে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় আমাদের দেশের তরুণরা ইতিমধ্যেই ভালো করছে। বেসিস ও স্পেস অ্যাপস বাংলাদেশের এই উদ্যোগ অনেক ভালো প্রকল্প তুলে আনবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ সব সময় এসব তরুণদের সঙ্গে থাকবে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, তরুণরা নাসার মতো প্রতিষ্ঠানের আয়োজনে অ্যাপ তৈরি করে যে সক্ষমতা অর্জন করেছে তা কাজে লাগিয়ে বিশ্বের হাজার কোটি ডলারের অ্যাপের বাজারে প্রবেশ করতে হবে। নিজেদের সেখানে জানান দিতে হবে। এই প্রোগ্রামের ভালো প্রকল্পগুলোকে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের কানেক্টিং স্টার্টআপ, ইনোভেশন প্রজেক্টসহ বিভিন্ন প্রকল্প সহায়তায় যুক্ত করা হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই পরিচালক ও ফেনক্স ভেঞ্চার ক্যাপিটালের পার্টনার শামীম আহসান বলেন, বাংলাদেশ থেকে অনেকেই এখন নাসায় কাজ করছেন। নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জের মাধ্যমে তরুণরা নাসায় নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করে প্রধান বিজ্ঞানীর পদটিও দখল করুক বলে বলেন তিনি।

আরিফুল হাসান অপুর সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন বেসিস ও অনুষ্ঠানের সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, বেসিস জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, এই কার্যক্রমের অ্যাকাডেমি পার্টনার ও ড্যাফোডিল গ্রুপের চেয়ারম্যান সবুর খান।

ইমরান হোসেন মিলন

গেইম-অ্যাপসে ১০ হাজার ডেভেলপার তৈরির প্রস্তুতি শুরু

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শত কোটি ডলারের গেইম ও অ্যাপের বিশ্ববাজার ধরতে প্রস্তুতি শুরু করেছে সরকার। এ জন্য বেসরকারি খাতের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করার কথা জানিয়েছেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

তারই পূর্বপ্রস্তুতি হিসেবে রোববার ‘মোবাইল গেইমের বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের প্রস্তুতি’ নিয়ে একটি ব্রিফিংও করেছেন প্রতিমন্ত্রী।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) মিলনায়তনে ওই ব্রিফিংয়ে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, চলতি বছরে বিশ্ববাজারে মোবাইল গেইমের ৯৯ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার। যেখানে মোবাইল গেইমের বাজার রয়েছে ৩৬ দশমিক ৯ বিলিয়ন ডলার। সেই বাজার ২০১৮ সালের মধ্যে ১১৩ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করবে। যেখানে ৪৪ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলার আসবে শুধু মোবাইল গেইম থেকে।

App-Mobile game-techshohor
সেই বড় বাজারে বাংলাদেশকে নেতৃত্বস্থানীয় অবস্থানে নিয়ে যেতে সরকারি ও বেসরকারি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ২৮২ কোটি টাকার ‘মোবাইল গেইম ও অ্যাপ্লিকেশনের দক্ষতা উন্নয়ন’ প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে ১০ হাজার ডেভেলপার তৈরিসহ নানা ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান  জুনাইদ আহমেদ পলক।

সেই প্রস্তুতি হিসেবে প্রকল্পটির আওতায় দেশের সাতটি বিভাগীয় পর্যায়ে মোবাইল অ্যাপস এবং গেইম ডেভেলপমেন্ট একাডেমি, ৩০টি জেলার স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মোবাইল গেইম ও অ্যাপ ল্যাব, অ্যাপ টেস্টিং ল্যাব ও ট্রেনিং পয়েন্ট স্থাপন করা হবে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী পলক।

এজন্য পূর্ণাঙ্গ অ্যাপস ডেভেলপার হিসেবে আট হাজার ৭৫০ জনকে এবং গেইমিং অ্যানিমেটর হিসেবে দুই হাজার ৮০০ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বলে।  এসব কাজে সরকারকে সহযোগিতা করবে বাংলাদেশষ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) সহ বেসরকারি খাতের বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান।

এছাড়াও প্রকল্পে অধীনে অনলাইন কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স টেস্টিং ও বাছাইকরণ, ইন্ডাস্ট্রিতে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি, স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানকে সহযোগিতা, ভেঞ্চার সংশ্লিষ্ট উদ্যোগ ও কার্যক্রমে সহায়তা করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্ধৃত করে পলক বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে যারা আছেন তাদের নিয়ে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ইন্ডাস্ট্রিকে নতুনভাবে গড়ে তুলতে হবে।

দেশে মেধাবী লোকের ঘাটতি নেই এবং সরকার সবসময় এসব বিষয়ে আন্তরিক জানিয়ে বলেন, মোবাইল ও অ্যাপ ডেভেলপার যারা আছেন তারা এটিকে আপনাদের প্রকল্প ভেবে এই সুযোগটা গ্রহণ করবেন। আর আমাদের জনগণের কষ্টার্জিত প্রত্যেকটি পয়সা আপনারা সঠিকভাবে ব্যবহার করবেন।

জনগণের ২৮২ কোটি টাকা সঠিকভাবে ব্যবহার করে যেন দুই হাজার ৮২ কোটি টাকার ইন্ডাস্ট্রি তৈরি করা সম্ভব হয় এবং মোবাইল গেইমে বিশ্বদরবারে দেশের নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্য নিয়ে এগোনোর জন্য সেমিনারের আয়োজন বলে জানান প্রতিমন্ত্রী।

এ আগে গত ১৪ জুন মোবাইল গেইম ও মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন বা অ্যাপ উন্নয়নে ল্যাব স্থাপনের উদ্যোগ নিয়ে ২৮২ কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদন করে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি(একনেক)।

সেসময় পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল দেশের ১১ কোটি মোবাইল ব্যবহারকারীর কথা মাথায় রেখে ‘মোবাইল গেইম ও অ্যাপস ল্যাব’ স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে, যা ২০১৮ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানান।

ব্রিফিং এ উপস্থিত ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার, অতিরিক্ত সচিব সুশান্ত কুমার সাহা, বেসিস জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, ভেঞ্চার ক্যাপিটালের পার্টনার শামীম আহসান, তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মুনির হাসানসহ আরও অনেকে।

ব্রিফিংয়ের পরে ‘মোবাইল অ্যাপস ও গেইমিং ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে অগ্রযাত্রা’ শিরোনামে একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ইমরান হোসেন মিলন

যাত্রা শুরু করলো অনলাইন সার্ভিস প্লাটফরম সেবা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : যাত্রা শুরু করেছে অনলাইন সেবা প্রদানকারী ওয়েবসাইট সেবা ডট এক্সওয়াইজেড। এর মাধ্যমে গ্রাহকরা অনলাইনে ফরমায়েশ দিয়ে ঘরে বসে বিভিন্ন ধরনের সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

এসব সার্ভিসের মধ্যে থাকছে ইলেক্ট্রিক্যাল, পানির পাইপলাইন, তালা মেরামত, গ্যাসের চুলা, লন্ড্রি, জুতাসহ এসি, টিভি, ফ্রিজ, ওভেন, ওয়াশিং মেশিন মেরামত করার মত সেবা পাওয়া যাবে।

এছাড়াও বাড়ি সংস্কারে কিংবা পছন্দমত আসবাবপত্র তৈরিতে দক্ষ কাঠমিস্ত্রি ও রঙ-মিস্ত্রির সাথে যোগাযোগ ও যোগান সুবিধা পাওয়া, ডেস্কটপ, ল্যাপটপ, প্রিন্টার, মনিটর ও স্মার্টফোন মেরামতের সেবাও পাওয়া যাবে এই অনলাইন থেকে।

Seba xyz
শুক্রবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে সেবা’র ওয়েবসাইট ও একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন উদ্বোধন করা হয়।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ওয়েবসাইট এবং তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন উদ্বোধন করেন।

সেবা প্লাটফরমটির মাধ্যমে উপরোক্ত সেবাগুলোর হোম ডেলিভারি দেবে কর্তৃপক্ষ।

দেশে ২০১৫ সালের মাঝামাঝিতে কয়েকজন উদ্যমী তরুণ এই অনলাইন সেবা চালু করেন। যার টেলিযোগাযোগ অংশীদার হিসেবে কাজ করছে মোবাইল অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড। আর এজন্য রবি গ্রাহকরা সেবা’র সেবা নিলে পাবেন ১০ শতাংশ ছাড়।

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও সুপুন বীরাসিংহে, ফেনক্স ভেঞ্চার ক্যাপিটালের অংশীদার ও এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক শামীম আহসান, বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট রাসেল টি আহমেদ, রবি’র সিএলএম, ভয়েস অ্যান্ড প্রডাক্ট’র ভাইস প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম ভূঁইয়াও উপস্থিত ছিলেন।

ইমরান হোসেন মিলন

বেসিস নতুন কমিটির প্রথম সভা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারের বেসিস সভাকক্ষে নবনির্বাচিত সভাপতি মোস্তাফা জব্বারের সভাপতিত্বে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৫ জুলাই থেকে নতুন কার্যনির্বাহী পরিষদের (২০১৬-১৯) মেয়াদ শুরু হলে শনিবার পরিষদের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিদায়ী সভাপতি শামীম আহসান ও কোষাধ্যক্ষ শাহ ইমরাউল কায়ীশ উপস্থিত ছিলেন।

BASIS EC Meeting-techshohor

সভায় বেসিসের বর্তমান কার্যক্রম পর্যালোচনা এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ও কর্মপন্থা, আইসিটি বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিলে ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরের জন্য কর্মপরিকল্পনা দাখিল, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সাথে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড আয়োজনের প্রস্তুতি পর্যালোচনা, বিআইটিএম ব্যবস্থাপনা কমিটি পুনর্গঠন ও বিআইটিএমের অধীন চলমান এসইআইপি প্রকল্পের অগ্রগতি পর্যালোচনা, বেসিস বিভিন্ন স্থায়ী কমিটি ও উপ-কমিটি গঠনের প্রস্তাবসহ বেশ কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

সভায় বিদায়ী সভাপতি শামীম আহসানসহ বিদায়ী কার্যনির্বাহী পরিষদকে ধন্যবাদ জানান।

বেসিসের নতুন পরিষদের অভিষেক হবে আগামী ১৯ জুলাই রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি)।

সভায় পুরনো ও নতুন কার্যনির্বাহী পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, সহ-সভাপতি এম রাশিদুল হাসান, বিদায়ী কার্যনির্বাহী পরিষদের মহাসচিব ও নতুন পরিষদের পরিচালক উত্তম কুমার পাল ছাড়াও বিদায়ী পরিষদের যুগ্ম মহাসচিব, নতুন পরিষদের পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল, নতুন পরিষদের সহ-সভাপতি ফারহানা এ রহমান এবং পরিচালক সৈয়দ আলমাস কবির সভায় উপস্থিত ছিলেন।

গত ২৫ জুন বেসিস নির্বাচলে দুটি প্যানেল ও চারজন স্বতন্ত্র্য প্রার্থী অংশ নেয়। সেখানে ডিজিটাল ব্রিগেড প্যানেল থেকে সাতজন নির্বাচিত হন। ব্রিগেডের নেতৃত্বে থাকা মোস্তাফা জব্বার সভাপতি হোক।

ইমরান হোসেন মিলন