একজন ব্লগারের যে তিন সুপারপাওয়ার থাকতে হবে

মোশাররফ রুবেল, অ্যাপ ডেভেলপার  অতিথি লেখক : একজন ভাল ব্লগার হতে হলে আপনার অবশ্যই গল্প বলার ক্ষমতা থাকতে হবে। ভালো গল্প বলার কৌশল আপনাকে ভালো ব্লগার হতে সাহায্য করবে।

প্রথমত, আপনাকে গল্প বলার কাঠামোর উপর মনোযোগী হতে হবে। কিভাবে একটা ভালো কাঠামোর মাধ্যমে গল্পটাকে এগিয়ে নেয়া যায় এবং আপনি তা দিয়ে একটা আকর্ষনীয় ব্লগ পোষ্ট তৈরি করতে পারেন।

যে তিনটি সুপারপাওয়ার একজন ব্লগারের থাকা দরকার ও আপনি তা কিভাবে আয়ত্ত করতে পারেন তা নিয়ে এ টিউটোরিয়াল।

সুপারসনিক হিয়ারিং
লেখকদের একটা অবিশ্বাস্য বিষয় আছে যা সত্যি অবাক করার মতো। আপনাকে অন্যের কথা মনোযোগ দিয়ে শুনতে হবে। আড়িপাতার গুণ থাকলে সেটিও মাঝে মধ্যে কাজে লাগাতে হবে।

আপনি বিষয়টা নিয়ে জনপ্রিয় লেখকের সঙ্গে কথা বলে দেখতে পারেন। আমার মনে হয় তারা তা অকপটে স্বীকার করবে। যারা সত্যি ভালো লেখক তারা সব জায়গাতেই, যেমন-  বাসে, ট্রেনে, লঞ্চে ও ক্যাফেতে মানুষের আলোচনা মনোযোগ দিয়ে শোনেন।

এর কারণ সেখান থেকে গল্প ও ব্লগ লিখতে দারুণ সব আইডিয়া সংগ্রহ করেন তারা। লেখকদের অন্যের কথা বেশি বেশি শোনার ক্ষমতা থাকতে হবে। এতে নতুন আইডিয়া আসবে। চারিদিকে কি ঘটছে তারা তা জানতে পারবেন। অন্যেরক মনোজগতে কি চলছে তা বুঝতে পারবেন।

এটি আপনার জন্য কিভাবে কার্যকরি হবে
আপনাকে মনোযোগী শ্রোতা হতে হবে। দেখতে হবে যে আপনার আশেপাশের মানুষ কি বিষয় নিয়ে কথা বলে, তাদের কি ধরণের সমস্যা আছে। তারা সেটা নিয়ে কিভাবে ভাবছেন। তা থেকে আপনি আপনার কাঙ্খিত লেখার টপিক খুঁজে নিতে পারেন।

তাছাড়া আরও একটা বিষয় আপনাকে সাহায্য করতে পারে তা হলো আপনার আইডিয়াগুলো পিসিতে লিখে রাখতে পারেন। প্রতিদিন সেটা নিয়ে কাজ করতে পারেন এবং নতুন কিছু যোগ করতে পারেন।

blogger-techshohor

ব্যাটম্যান ভয়েস
আমাদের সকলেরই একটা ব্যাটম্যান ভয়েস আছে। আপনারও আছে। আজকে থেকে চেষ্টা করুন সেটাকে টেনে বের করে নিয়ে আসার।

একটা বিষয়ে বিশ্বে মিলিয়ন ব্লগ পোষ্ট আছে। তবে আপনি যখন সে বিষয় নিয়ে লিখবেন তখন সেটা আপনার নিজস্ব স্টাইলে লিখবেন। নতুন কিছু যোগ করবেন, আপনার মতামত তুলে ধরবেন যাতে সেটা কারো কপি না হয়ে যায়।

আপনি লিখবেন শুধু আপনার মতো করে, যা নিজস্ব স্টাইল তৈরি করতে সাহায্য করবে। এ গুণ আপনাকে অন্যদের থেকে আলাদা করবে।

এটি আপনার জন্য যেভাবে কার্যকরি হবে
নিজের মতামতকে প্রতিষ্ঠিত করার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে লেখা। আপনাকে লেখার জন্য অনেক আন্তরিক হতে হবে। ভাবতে হবে এটার সঙ্গে অনেক বেশি সংযুক্ত হতে হবে। আপনি একটা ডায়েরি রাখতে পারেন যাতে প্রতিদিনের চিন্তাগুলো লিখে রাখতে পারেন।

চারপাশে ঘটে যাওয়া সব ঘটনা লিখে রাখা বা মনে রাখার দরকার নেই, তবে এর মধ্য থেকে দু’একটি ঘটনা নিয়ে লিখতে থাকুন। এভাবেই চর্চা চালিয়ে যান। এটা আপনার মধ্যে ভয়ংকর সুপারপাওয়ার তৈরি করবে।

সাহসিকতা
‘যে কোনো কিছু করা সম্ভব যদি আপনার পর্যাপ্ত নার্ভ থাকে’- জনপ্রিয় লেখক জে কে রাউলিংয়ের এ কথা একবারে বাস্তব। প্রত্যেক সফল ব্লগার ও লেখকের প্রচন্ড সাহসিকতা নিয়েই এগিয়ে যেতে হবে। হেরে যাবার ভয় থাকলে চলবে না।

আপনার সাহসিকতাই সাহায্য করবে ভালো কিছু লিখতে ও তা ব্লগ পোষ্টের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতে।

ভালো ব্লগার হতে নিজের মধ্যেকার গুণতে নিজেই বাইরে নিয়ে আসার চেষ্টা করতে হবে। আপনার মধ্য থেকে আপনাকেই বের করে নিয়ে আসতে  হবে। প্রথমত, সবাই আপনার সাথে একমত নাও হতে পারে, কেউ কেউ এটাকে অপছন্দই করতে পারে। কিন্তু বিশ্বাস করুন এর মধ্য দিয়েও আপনি কিছু শিখতে পারবেন প্রতিমূহর্তে।

এটি আপনার জন্য যেভাবে কার্যকরি হবে
এখানে একমাত্র উপায় হচ্ছে সবকিছুর ভেতর দিয়ে লেখাটকে চালিয়ে যাওয়া। আপনি যদি সমালোচনার ভয়ে হাত গুটিয়ে বসে থাকেন তাহলে কখনও এগুতে পারবেন না। ধৈর্য নিয়ে লিখতে হবে। এর ফলস্বরূপ ভালো কিছু আপনি পাবেনই।

আরও ভালো হতে পারে আপনি যদি কমিনিউটিতে যেসব ভালো লেখক আছেন তাদের সঙ্গে গেটটুগেদার করেন ও আইডিয়া নেন।

একই সঙ্গে নিয়মিত হ্যাশট্যাগ চেক করুন। এ থেকে জানতে পারবেন চারিদিকে কি ঘটছে। ট্রেন্ডিং বিষয়গুলো কী। এগুলো থেকে আইডিয়া নেওয়ার চেষ্টা করুন।

rubel

আরও পড়ুন

সফল ট্রাভেল ব্লগার হওয়ার ৭ টিপস

ফারজানা মাহমুদ পপি, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঈদের সময় মজা করে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। দারুণ সব জায়গায় যাচ্ছেন। মজার সব অভিজ্ঞতা হচ্ছে। এর মধ্যে কয়েকজন সেগুলো তুলে ধরছেন অনলাইন। এ থেকে আয়ও করছেন বেশ। স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে- তাই না? তবে এটি স্বপ্ন নয়, বাস্তব। বিশ্বব্যাপী ভ্রমণ ব্লগের বড় বাজার রয়েছে, এর চাহিদাও বাড়ছে।

আপনি যেখানে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তার গল্পের ঢংয়ে তুলে ধরুন। ভ্রমন সম্পর্কে জানান। পাঠক আসবেই, যা টেনে নিয়ে আসবে বিজ্ঞাপনও। এ থেকে আয় হবে বড় অংকের অর্থ।

একজনের ভ্রমণ ব্লগারের গল্প বলি। ক্রিস্টি উডো নামের সান ডিয়াগো শহরের ৩৬ বছর বয়সী এক নারী ২০১০ সালে তার ভ্রমণ ব্লগ শুরু করেন। এর আগে তিনি নিজের হিসাবরক্ষণ ব্যবসার আর্থিক উপদেষ্টা ছিলেন।

travel-blogging-tips-TechShohor

প্রথমদিকে ব্লগ লিখে বিখ্যাত হয়ে ওঠা এ পর্যটক একটু কম উৎসাহী ছিলেন। ধীরে ধীরে তিনি অকুতোভয় গতিতে এগিয়ে চলেছেন। গত ছয় বছরে তিনি ভ্রমণ ব্লগার ও ফটোগ্রাফার হিসেবে বিশ্বভ্রমণ করেছেন। গত বছর লাখ ডলার ছিল তার বার্ষিক আয়।

বলছিলাম বিশ্বব্যাপী ভ্রমণ ব্লগের বড় বাজার রয়েছে। তবে সবার জন্য সহায়ক ও তথ্যপূর্ণ ব্লগ লেখা সহজ নয়। এজন্য আপনাকে বেশ মনোযোগী হতে হবে। অর্জন করতে হবে দক্ষতাও।

সর্বশেষ ট্রাভেল ট্রেন্ডস রিপোর্ট অনুযায়ী, ৯২ শতাংশ সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী ট্রাভেল ব্লগের মাধ্যমে অনুপ্রাণিত হন। এ ছাড়া প্রায় ৭২ শতাংশ লোক সোশ্যাল মিডিয়ায় তার বন্ধুদের মতামতের ভিত্তিতে ভ্রমণে স্থান নির্ধারণ ও পরিবর্তন করে থাকে।

তাই আপনি যদি ভ্রমণ করতে ভালোবাসেন ও এ বিষয়ে সবাইকে জানানোর মাধ্যমে আয় করতে চান তাহলে একজন ভ্রমন বিষয়ক ব্লগার হিসেবে কাজ শুরু করতে পারেন। একজন সফল ভ্রমণ ব্লগার হওয়ার সাতটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস দেওয়া হলো:

যথাযথ কারণ নির্ধারণ
আপনি একটি ভ্রমণ বিষয়ক ব্লগ লিখলেই সবাই পড়বে না। সেটির প্রতি অন্যদের আগ্রহ থাকতেও হবে। আপনাকে মনে করতে হবে আপনি যেখানে যাবেন সেখানকার ভ্রমণ খরচ, হোটেল ভাড়া সবাই আপনার এই লেখনীর মাধ্যমে উঠে আসতে হবে। আপনার ভবিষৎ রুপরেখা চূড়ান্ত করেই তবেই ভ্রমণ করুন ও লিখুন।

নিশ বিষয় বাছাই করুন
প্রথমদিন আপনি থাইল্যান্ডের একটি রাজকীয় হোটেল সম্পর্কে লিখলেন। দ্বিতীয়দিন আপনি বার্লিনের একটি সস্তা রেস্টুরেন্ট সম্পর্কে লিখলেন। বুঝতে পারছেন কি হবে? আপনার পাঠকরা দ্বিধান্তিত হবে।

আপনি যে বিষয়ে লিখবেন তাতে আপনার অভিজ্ঞ হতে হবে এবং নিজস্ব বিষয় থাকতে হবে। কারণ আপনার একটি নির্দিষ্ট বিষয় আপনাকে হাজারো ব্লগারের থেকে ভিন্ন করবে।

বিশ্বের সফল ব্লগাররা একটি নির্দিষ্ট বিষয় নিয়েই লিখে থাকেন। যেমন ফিমেল ট্রাভেল, ফ্যামিলি ট্রাভেল, লাক্সারি ট্র্যাভেল, ফ্যাশন ট্রাভেল, বাজেট ইউরোপ ট্রাভেল, সিনিয়র ট্রাভেল ইত্যাদি। তাই আপনাকে প্রথমেই আপনার কাঙ্খিত পাঠক খুঁজতে হবে এবং তাদের আগ্রহের বিষয়েই লিখতে হবে।

ভালো গল্প লিখুন
সবাই একটি ভালো গল্প পড়তে চায়। তাই যখনই আপনি কোনো বিষয়ে লিখবেন তার একটি ভালো গল্প থাকতে হবে। একটি সিনেমার মতোই আপনার শুরু, মধ্যকার কাহিনী ও শেষটা ভালো হওয়া চাই। একজন নায়ক এবং ভিলেনের বাইরে অন্যদের উত্তেজনাও আপনাকে চিন্তা করতে হবে।

Travel-girl-techShohor

সমাধান দিন
মানুষ একটি সমস্যার সমাধান চায়। তারা আদ্যোপান্ত জানতে চায়। তাই আপনার ব্লগের ডিজাইনটা হতে হবে একটি সমাধানের প্লাটফর্ম। ফলে একজন পাঠকের জানার আগ্রহের শেষটা পর্যন্ত আপনাকে আপনার ব্লগেই রাখতে হবে।

তাকে যেন একই বিষয়ের আরেকটি তথ্য পাওয়ার জন্য অন্য কোনো ব্লগে ভিজিট করতে না হয়। শুধু নিজের অভিজ্ঞতা না বলে পাঠক কিভাবে আরও ভালোভাবে তার ভ্রমণটি করতে পারে সেটি জানাতে হবে।

বিস্তারিত লিখুন
আবারও বলছি, শুধু আপনার ভ্রমণ অভিজ্ঞতা নিয়ে লিখলে হবে না। পাঠকদের এর বিস্তারিত জানাতে হবে। লেখার পাশাপাশি আপনাকে যথেষ্ঠ ছবিও দিতে হবে। ক্ষুদ্র কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বাদ দেওয়া চলবে না।

প্রয়োজনীয় তথ্য যেমন বিভিন্ন খরচ, কোন সময় খোলা থাকে, কিভাবে স্থানটি সহজে খুঁজে পাওয়া যাবে ইত্যাদি ছোট ছোট তথ্যও দিতে হবে।

হাল ছেড়ে দিবেন না
কিছুদিন লিখলেন। সফলতা না দেখে হাল ছেড়ে দিলেন এমনটি করলে চলবে না। ট্রাভেল ব্লগিংয়ে সফল হতে হলে অনেক পরিশ্রম ও সময় দিতে হয়। তাই হতাশ না হয়ে অপেক্ষা করতে হবে।

ভালো ফলোয়ার পেতে পরিমানের চেয়ে বরং মানের দিকে নজর দিন। সোশ্যাল মিডিয়া, সাবস্কাইবার, মেইলিং লিস্টসহ বিভিন্নভাবে ফলোয়ার অর্জন করুন। তবে অবশ্যই স্প্যামিং করবেন না। এতে হিতে বিপরীত হবে।

Lauren-Travel-blogger-techshohor

সাধ্যের বাইরে যাবেন না
আপনি একটি স্থানে না গিয়ে ইন্টারনেট ঘাটাঘাটি করে লিখে ফেললেন। এটি মোটেও করবেন না। একজন ভালো ট্রাভেল ব্লগার হতে খুব ভালো ব্লগিং কিংবা ওয়েব ডিজাইনে দক্ষতার প্রয়োজন নেই। এগুলো আস্তে আস্তে হয়ে যাবে। আপনাকে নিজের সাধ্যের মধ্যেই সর্বোচ্চ ভালোটা দেওয়ার চেষ্টা করতে হবে। তাই বলে থেমে থাকলে চলবে না।

আলবার্ট আইনস্টাইন বলেছিলেন, আপনি যদি পথে না নামেন তাহলে কিছুই ঘটবে না। তাই বুঝে শুনে, পরিকল্পনা করে, নিজের পছন্দের বিষয়বস্তু বুঝে এবং কাজ করার লক্ষ্য নিয়ে নেমে পড়ুন। চেষ্টা থাকলে অবশ্যই সফল হবেন।

সিএনএন অবলম্বনে

ভ্রমণ আর ব্লগিং করে লাখপতি!

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : জনি ওয়ার্ড। ৩২ বছর বয়সী এই আইরিশ ট্রাভেল ব্লগারের বার্ষিক আয় ছয় লাখ ডলারের বেশি। তার পুরো এ আয় আসে ব্লগিং থেকে। পাশাপাশি তিনি সস্ত্রীক পুরো বিশ্ব ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

ঘুরে বেড়ানো আর লেখালেখিকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন জনি। তবে তিনি এটাকে পেশা বলতে রাজি নন। তার ভাষায়, ভ্রমণের নেশা চেপে বসেছে তার মাথায়।

গল্পের শুরু ২০০৬ সালে। যুক্তরাজ্যের একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনার পাঠ চুকিয়ে থাইল্যান্ডে চলে যান জনি। সেখানে একটি কলেজে ইংরেজি পড়ানো শুরু করেন। বছর না পেরোতেই তিনি চলে আসেন অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে। শুরু করেন রেপ নামের এক ধরনের কাপড়ের ব্যবসা। প্রথমবারই তার লাভ হয় ২০ হাজার ডলার।

million-dollar-travel-blogger-techshohor

তবে একজন ব্যবসায়ী হিসেবে নিজেকে কখনোই দেখতে চাননি তিনি। তাই ব্যবসা করে কিছু টাকা জমানোর পর বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়াতে শুরু করেন। এ সময়ই তিনি একটি ব্লগ চালু করেন। তিনি যখন ইথিয়োপিয়াতে ছিলেন তখন এই ব্লগ থেকে বিজ্ঞাপন বাবদ ৫০০ ডলার আয় করেন।

সেই থেকে শুরু। এরপর ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে তার আয়। ২০১১ সালের দিকে তিনি প্রতিমাসে দেড় থেকে দুই হাজার ডলার আয় করা শুরু করেন। ব্লগিংয়ে ভালো রোজগারের সুযোগটিকে আরও ভালোভাবে কাজে লাগানোর জন্য তিনি আরও কয়েকটি সাইট চালু করেন।

বর্তমানে তার মাসিক আয় ৫০ হাজার ডলারের মতো। এক মাসে সর্বোচ্চ ৬০ হাজার ডলারের মত আয় করেছেন তিনি।

সিএনএন অবলম্বনে শামীম রাহমান

ব্লগ লেখায় অমনোযোগী : জেনে নিন ৫ টিপস

মোশাররফ রুবেল, অ্যাপ ডেভেলপার  অতিথি লেখক : কথায় আছে, সহজ কথা যায় না বলা সহজে। একটা ভালো লেখা পড়তে যতটা সহজ ও সুখপাঠ্য মনে হয়, লেখালেখিটা তেমন সহজ নয়। আনন্দের সঙ্গে লেখালেখি করতে পারলেই শুধু এটা সম্ভব। কেননা লেখার মধ্যে সুখ খুঁজে না পেলে বুঝতে হবে অমনোযোগিতা তৈরি হয়েছে। তখন লেখালেখি করা আরও কঠিন হয়ে যায়।

অনলাইনে লেখালেখির সময় অনেক কিছু আপনার মনোযোগ কেড়ে নিতে পারে, যেমন -ফেইসবুক নোটিফিকেশন, ই-মেইল ইত্যাদি। আপনি হয়তো বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছেন সমস্যাটা দূর করার জন্য।

এর সঙ্গে যোগ করে নিন কারিগরি দিক বিবেচনায় এ টিউটোরিয়ালের কিছু টিপস। এগুলো আপনাকে সহায়তা করবে। তবে হ্যাঁ, আপনাকে বলে রাখি লেখালেখিতে মনোযোগ ধরে রাখার মূল বিষয় হলো আনন্দের সঙ্গে কাজটি করা ও লেখালেখিটাকে প্রচন্ডভাবে ভালবাসা।

blogging-336376_1280

নিজের ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে লিখুন ব্লগওয়ার্ডপ্রেস ডিসট্রাকশন ফ্রি লেখার মোড ব্যবহার করুণ নিয়মিত। কেননা লেখালেখিতে অনেক বেশি মনোযোগ দিতে হয়। অথচ আপনি যখন ওয়ার্ডপ্রেসে লিখছেন, তখন সাইডবারের লেখা/অপশনগুলো আপনার মনোযোগ বিচ্যুত করতে পারে।

লেখার জন্য ওয়ার্ডপ্রেসে জায়গা থাকে অল্প একটু, বাকি জায়গায় অন্য অপশনে ভরপুর থাকে। তাই আপনাকে ডিসট্রাকশন ফ্রি লেখায় সাহায্য করতে ওয়ার্ডপ্রেস নতুন ভার্সনে ডিসট্রাকশন ফ্রি লেখার মোড অপশনটি নিয়ে এসেছে।

এ অপশনে আপনি শুধু একটি ডিসট্রাকশন ফ্রি ইন্টারফেস পাবেন, সেখানে শুধু আপনি কার্সর ছাড়া বাকি সব পরিষ্কার দেখতে পাবেন। কার্সরকে যদি একটু নাড়াছাড়া করেন তাহলে একটা ছোট টুলবার দেখতে পাবেন, যেখানে কিছু বাটন আছে।

হ্যাঁ, আপনি হয়তো ভাবছেন সাইডবার দেখতে না পওয়ায় এডিট করার অপশনটা হারিয়ে ফেলছেন, কিন্তু না আপনি এ অপশন থেকেই লেখা এডিট করতে পারবেন। তবে বেশিরভাগ ভালো লেখকরা বলে থাকেন- লেখার সময় এডিট না করাই ভালো। কারণ, তা ভালো লেখার ধারাকে নষ্ট করে।

আরও মনোযোগী হয়ে লিখতে মাল্টি-ট্যাব ব্রাউজিংকে বন্ধ রাখুন। আপনি যখন অনলাইনে থাকায় অবস্থায় ব্লগ পোষ্ট লিখছেন, তখন অনলাইনের অন্যান্য কার্যক্রম অনেক বেশি সময় নিয়ে। এটি লেখার মাঝে বিরতি তৈরি করছে।

আপনি বারবার করে সোস্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলো চেক করছেন, যা আপনার লেখায় মারাত্নক ক্ষতি করছে। তাই, খুব বেশি ভালো হয় আপনি লেখার সময় যদি ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ রাখেন।

bloger-women-techshohor

এমন পরিস্থিতিতে লেখার সময় আপনার টিউটোরিয়াল পোষ্ট দেখার প্রয়োজন হলে ইন্টারনেট ছাড়া অন্য উপায় বের করতে হবে। এ পদক্ষেপ আপনাকে ইন্টারনেট ব্যবহার থেকে দূরে রাখবে।

এমন ক্ষেত্রে আপনি কন্ট্রোলড মাল্টি-ট্যাব ব্রাউজিং ক্রোম এক্সটেনশন ব্যবহার করতে পারেন। যারা ফায়ারফক্স ব্যবহার করেন তারা উইন্ডো অ্যান্ড ট্যাব লিমিটার এডঅন ব্যবহার করতে পারেন।

আপনি লিখতে বসা মাত্রই ঠিক করে ফেলুন, আপনার লিখতে কয়টা ট্যাব লাগবে। তারপর শুধু তাই খুলুন।

নির্বিঘ্নে লেখালেখির জন্য করতে পারেন টাইম সেট। আপনি যখন কোনো কাজের জন্য নির্দিষ্ট সময় সেট করে নেবেন, তখন তা এক্সট্রা মটিভিশিন হিসাবে কাজ করবে । আপনি তখন সময়মত শেষ কাজটা শেষ করে ফেলতে পারবেন ।

কারণ, লেখার জন্য সময় সেট করে নিলে আপনি শুধু তখন লেখার কাজই করবেন। অন্যদিকে মনযোগ কম যাবে।

ধরুন, আপনি একটি লেখার জন্য ২৫ মিনিট ঠিক করে নিলেন। এ সময়ে তা হয়ে গেলে পরের ৫ মিনিট ব্রেক নিয়ে আরেকটি লেখা শুরু করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে, ফোকাস বুষ্টার টাইমার সফটওয়্যারটা আপনাকে সাহায্য করতে পারে। এটার অনলাইন ও অফলাইন দুই ভার্সনই আছে।

rubel

আরও পড়ুন: 

ব্লগিং শুরু করবেন কেন?

মোশাররফ রুবেল, অ্যাপ ডেভেলপার, অতিথি লেখক :  ব্লগিং, সাম্প্রতিক সময়ে আলোচিত একটি শব্দ। নিজের কথাগুলো নিজের মতো করে প্রকাশ করার দারুণ এক মাধ্যম। যদিও মত প্রকাশের এ মাধ্যমকে ঘিরে বেশ কিছু হত্যাকাণ্ডের ঘটনা নাড়া দিয়েছে পুরো দেশকে। ধর্মীয় বিষয়কেন্দ্রিক এসব ঘটনা চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে সবার মাঝে।

তবে এমন লেখালেখিরি বাইরেও ব্লগিংকে ঘিরে গড়ে উঠেছে অনেক রকমের পেশা। অনলাইনে জগতের বড় একটি জায়গা দখল করে আছে এটি। প্রশ্ন থেকে যায় ব্লগিং কেন করবো? পেশার জায়গা ছাড়াও, নিজের কথাগুলো সবার কাছে তুলে আনার জন্য ব্লগিংয়ের বিকল্প নেই।

blog-first-person

অর্থ আয়ের পথ হতে পারে ব্লগিং
ব্লগিং হতে পারে আয়ের একটি মাধ্যমও। ব্লগিংকে অনেকেই পেশা হিসেবে নিয়েছেন। তারা ব্লগ মনেটাইজ করে বড় অংকের অর্থ আয় করছেন।

উদাহরনস্বরুপ বলা যায় অমিত আগারওয়ালের কথা। যিনি ল্যাবনল নামে একটি ব্লগ সাইটের প্রতিষ্ঠাতা। তিনি এখন এ ব্লগ থেকে অনেক আয় করেন।

এ ছাড়া ব্লগিংয়ের মাধ্যমে এফিলিয়েশন করে আয় করা যায়।

ব্লগিং নতুন কিছু শিখতে সাহায্য করে
ব্লগিং হচ্ছে আপনি যা জানেন, যা জানতে চান , যা জানাতে চান এবং যা কিছু আপনি দেখতে চান আগামীতে সেগুলোর সমাহার বললে খুব বেশি বলা হবে না । একজন ব্লগারকে আগ্রহের জায়গা নিয়ে আরও জানতে হয়, পড়াশুনা করতে হয়।

প্রতিটা আর্টকেল লেখার আগে প্রচুর তথ্য জানতে হয়। পারিপার্শ্বিক ব্যাপারগুলোর বিষয়ে শুধু ধারণা নয়, সুস্পষ্ট বোঝাপোড়া থাকতে হয়। নতুন বিষয় নিয়ে পড়াশুনা করে ব্লগে সাজিয়ে তুলে আনতে হয়। ফলে দেখা যায় ব্লগিং নতুন নতুন অনেক কিছু শিখতে সাহায্য করে।

ব্লগিং থেকে ভালো লেখক
ব্লগিং করতে করতে এক সময় লেখায় স্বতঃস্ফুতর্তা চলে আসে। ধীরে ধীরে যে কোনো এক বিষয়ে জানার পরিমান বেড়ে যায় অনেকাংশে। ভালো লেখকের গুণাগুন আয়ত্ত করেন অনেকেই।

সাম্প্রতিক সময়ে দেশে নতুন ভালো লেখকদের অনেকেই খুব ভালো ব্লগার। প্রথম দিকে ব্লগিং করে পরে লেখক হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন এদের অনেকেই।

মতামত প্রকাশ করার মাধ্যম
নিজের চিন্তা-চেতনা ও মতামত প্রকাশের চমৎকার মাধ্যম হচ্ছে ব্লগ। সমাজ সংসারে ঘটে যাওয়া ঘটনা, কোনো কিছুর নিয়ে নিজস্ব মন্তব্য প্রকাশের জন্য এটি হচ্ছে আধুনিক সময়ের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম।

মানুষের হাতের কাছেই এখন ইন্টারনেট সংযোগের সুবিধা। সহজেই অনলাইন জগতে প্রবেশ করতে পারছেন সকলেই। ব্লগে লেখালেখির মাধ্যমে অন্যদের কাছে আপনার মতামত প্রকাশ করার জন্য এর বিকল্প কমই আছে।

অর্থপূর্ণ চিন্তায় সহয়তা করে ব্লগিং
ব্লগিং একজন ভাল লেখক হতে সাহায্য করে। একজন লেখকের জন্য অর্থপূর্ণ চিন্তা আবশ্যক। সেই ব্যপারটা একজন লেখকের মধ্যে গড়ে দিতে পারে ব্লগিংয়ের অভ্যাস।

ব্লগিংয়ের সময় কোন একটা আর্টিকেল লেখা শুরু করলে সেটা নিয়ে গভীর চিন্তা করতে হয়। এ বিষয়ে জেনে তা নিয়ে চিন্তা করে নিজের মতো করে লেখা তৈরি করতে হয় বলে অর্থপূর্ণ চিন্তা বিকশিত হয়।

 আত্মবিশ্বাসী করে তোলে
কোনো একটা বিষয়ে কেউ যদি ভালো করে জানেন, তাহলে সে বিষয়ের প্রতি তার আত্মবিশ্বাসটা বেড়ে যায় স্বাভাবিকভাবেই। নিয়মিত ব্লগিং করার কারণে একটা দুটো করে লিখতে গিয়ে এক সময় জানার পরিধি বাড়তে থাকে। তিনি নিজেও তা উপলব্ধি করেন। এভাবে তিনি এক সময় হয়ে উঠেন আত্মবিশ্বাসী একজন মানুষ।

 

সহজে শুরু করা যায় ব্লগিং
ব্লগিংয়ে তুলনামূলকভাবে বাধা অনেক কম। কম খরচেই সাইট বানিয়ে শুরু করা যায় ব্লগিং।

এ ছাড়া প্রচুর ফ্রি ব্লগ তৈরি করে লেখালেখির সুযোগ আছে। এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় দুটি হলো- ব্লগার ডটকম এবং ওয়ার্ডপ্রেস ডটকম।

Blog notes on Laptop

অডিয়েন্স পাওয়া
মান সম্পন্ন ব্লগিং এক সময় ব্লগারকে প্রচুর পরিমান অডিয়েন্স তৈরি করে দেয়। তৈরি হয় ফ্যান ও ফলোয়ার্স। অনলাইনে একটি নির্দিষ্ট শ্রেণীর পাঠক তৈরি হয়। তখন সহজেই নিজের বক্তব্য লেখনি মানুষের কাছে তুলে ধরা যায়। এসব পাঠকের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া যায় চিন্তা চেতনাগুলো।

অন্যকে অনুপ্রাণিত করা যায় সহজেই
একজন ব্লগার সহজেই অনুপ্রাণিত করতে পারেন অনেকেই। তার লেখনির মাধ্যমে, আদর্শের মাধ্যমে ফলোয়ার ও ফ্যানদেরকে উজ্জীবিত করে তুলতে পারেন।

সফল পেশাদার ব্লগারদেরকে এখন অনেকেই অনুসরণ করছেন। তাদের মতো করে নিজেদের গড়ে তোলার চেষ্টা করেন অনেকেই। সুনির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে ব্লগিং করে সফল হতে পারলে অর্থ উপার্জনের পাশাপাশি সুনামও তৈরি হয়, যা অনেকের মধ্যে অনুপ্রেরণা তৈরি করে।

rubel

আরও পড়ুন

ব্লগার নিলয় হত্যা : হতাশার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায়

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশে আবারো ব্লগার হত্যার ঘটনা বিশ্ব মিডিয়ায় খবরের শিরোনাম হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ সাইটেও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারণ মানুষ।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর পূর্ব গোড়ানে বাসায় ঢুকে নিলয় চট্টোপাধ্যায় নামের এক ব্লগারকে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা।

এরপর আল কায়দার বাংলাদেশ শাখা বলে দাবিদার জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলাম তাকে হত্যার দায় স্বীকার করে বিভিন্ন মিডিয়ায় ই-মেইল করেছে।

bloger niloy

বিবিসি বলেছে নাস্তিক মতবাদের জন্য পরিচিত বাংলাদেশী ব্লগারকে হত্যা করেছে ইসলামী জঙ্গিরা। নিলয় জঙ্গিদের প্রকাশিত ৮৪ জনের তালিকার মধ্যে ছিল। ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান বলেছে বাংলাদেশে জনপ্রিয় ব্লগার খুন।

ব্লগার খুনের ঘটনায় টুইটারে শোকপ্রকাশ করে খুনীদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ব্যারোনেস অ্যানিলে। টুইটার পোস্টে তিনি বলেছেন, বাংলাদেশে মুক্ত বাক জোরদারভাবে সুরক্ষিত হতে হবে।

মার্কিন সংবাদ চ্যানেল সিএনএন বলেছে এ বছরের চতুর্থ ব্লগার হিসেবে খুন হলেন নিলয়। দেশটির প্রভাবশালী দৈনিক দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস বলেছে বাংলাদেশে আবারো ধর্মনিরপেক্ষ ব্লগার খুন।

টাইমস অব ইন্ডিয়া বলেছেন এ বছরের চতুর্থ ব্লগার হিসেবে বাংলাদেশে আরো একজন ধর্মনিরপেক্ষ ব্লগার খুন। পাকিস্তানী দৈনিক ডন একই রকম শিরোনাম করেছে।

সামাজিক যোগাযোগ সাইট ফেইসবুকে ক্ষোভ প্রকাশ করে কাইমুল হক নামে একজন লিখেছেন হত্যাই সহজলভ্য।

অর্থনীতিতে ভালো করলেও মানবিক মানদন্ডে গোল্লায় যাচ্ছে দেশ। জীবনের নিরাপত্তা নেই। ফেইসবুকে এমন মন্তব্য করেছেন আরেক ব্যক্তি।

অভিজিৎ হত্যাকান্ড থেকে শুরু করে মুক্তিযোদ্ধার আত্মহত্যা নিয়ে আমাদের সব উত্তেজনা শেষ হয়ে যায়। আমরা সমস্যার মূলটা উৎপাটন করতে পারি না। কয়দিন পর নিলয় হত্যার শিকার হয়। আমরা কয়দিন খুব হইচই করি। তারপর তার নামও ভুলে যাই। নতুন এক হত্যাকান্ডের পর আগেরজন শুধুই এক রেফারেন্স। হত্যাকান্ডের বিচার না হওয়ায় হতাশ জাহিদ নেওয়াজ খান তার ফেইসবুকে এমন স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

সোস্যাল সাইট ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম অবলম্বনে

সৌদি আরবে ব্লগারকে হাজার দোররা, ১০ বছরের জেল

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাতের অভিযোগে সৌদি আরবে এক ব্লগারকে এক হাজার দোররা ও ১০ বছরের কারাদন্ডের আদেশ বহাল রেখেছেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত।

এর আগে গত বছর এক হাজার দোররা, ১০ লাখ রিয়াল জরিমানা ও ১০ বছরের কারাদন্ড দিয়েছিল রিয়াদের একটি আদালত। পরে এবছরের জানুয়ারিতে ৫০ টি দোররা কার্যকরের পর অসুস্থ হয়ে পড়ায় দোররা মারা স্থগিত রাখা হয়েছিল।

সৌদি সরকারের এমন পদক্ষেপের সমালোচনা করেছিল বিশ্বের অনেক দেশ, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালসহ বিভিন্ন মানবধিকার সংস্থাগুলো।

blogger Raif Badawi

সৌদি আরবে আলোচিত সমালোচিত ওই ব্লগারের নাম রাইফ বাদাউই। ফ্রি সৌদি লেবারেলস নামে একটি ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা ৩১ বছর বয়সী রাইফ।

মুক্ত চিন্তার এই ব্লগার ও সমাজকর্মী রাইফ বাদাউই তার ব্লগের লেখায় বিভিন্ন সময় সৌদি আরবের ধর্মীয় নেতাদের বিভিন্ন কর্মকান্ডের সমালোচনা করেছেন।

ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাতের অভিযোগে ২০১২ সালে গ্রেফতার হন রাইফ। তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ, সাইবার অপরাধ ও ধর্ম অবমাননার অভিযোগ আনা হয়।

সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর কানাডায় অবস্থান করা রাইফ এর স্ত্রী ইনসাফ হায়দার উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন শুক্রবার থেকেই হয়তো আবারো রাইফকে দোররা মারা হবে। রাইফের মুক্তির জন্য মানবধিকার সংস্থাগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

বিবিসি অবলম্বনে সৌমিক আহমেদ

এক পোস্টে আয় ১২ লাখ টাকা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ছবি ও ভিডিও শেয়ারিং সাইট ইন্সটাগ্রামে মাত্র একটি পোস্ট দিয়ে ১৫ হাজার মার্কিন ডলার বা প্রায় ১২ লাখ টাকা আয় করেন ড্যানিয়েল বার্নস্টেন নামের এক তরুণী।

২২ বছর বয়সী মার্কিন তরুণী ড্যানিয়েল বার্নস্টেন একজন ব্লগার। সামাজিক যোগাযোগ সাইট ইন্সটাগ্রামে তার ফলোয়ার সংখ্যা প্রায় ১০ লাখ।

এই বয়সেই মাসে ছয় অঙ্ক মানে লাখ টাকা রোজগার করছনে তিনি। এটা অবশ্য এমন অবাক হওয়ার বিষয় নয়, সে এতোটা আয় রোজগার করতেই পারেন।

Instagram

তবে বিষয় হলো এই সুন্দরী কোন চাকরি করেন না। এমনকি কোন ব্যবসাও নেই তার। বাপ-দাদার এমন সম্পদও নেই। তবে কিভাবে এতো আয় তার?

মজা টা এখানেই শুধু ইনস্টাগ্রাম পোস্ট করেই তার এত রোজগার। অবশ্য কোনও সাধারণ পোস্ট নয়, ইনস্টাগ্রামে ”We Wore What’ এর হয়ে স্টাইল ব্লগিং করে থাকেন বার্নস্টেন।

স্টাইল ব্লগিং এর ধারণা টি হলো এমন- যেখানে বিভিন্ন নামী-দামি প্রতিষ্ঠানের পোশাক  বা সাজসজ্জার কিছু পরে ছবি তুলে তা ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন ড্যানয়িলে। সঙ্গে ওই পোশাক কোথায় পাওয়া যাবে তার ছোট বর্ননা।

ফ্যাশন নির্ভর প্রথম মার্কিন ম্যাগাজিন হার্পার বাজারকে সম্প্রতি দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বার্নস্টেন বলেন, তার একটি ইন্সটাগ্রাম পোস্ট বিশ্বজুড়ে প্রায় ১০ লাখ ফলোয়ারের দেখে থাকেন।

ফলে কোন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান যদি তাদের ব্রান্ড বা পণ্য ১০ লাখ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে চায় তবে তার একটি ইন্সটাগ্রাম পোস্টই যথেষ্ট।

তবে, ব্লগিং ও ইন্সটাগ্রামের পোস্ট থেকে কত আয় করে থাকেন তা বলেননি এই সুন্দরী। তবে ভিন্ন ভাবে বলেছেন ২২ বছর বয়সে সে যত আয় করেছেন এতোটা আশা করেননি। আরও মজার যে প্রতিযোগী প্রতিষ্ঠানের পোশাক বা সাজসজ্জার কিছু পরে পোস্ট না করার জন্যও রোজগার হয় তার।

তবে হঠাৎ কেন প্রতিষ্ঠানগুলো অনলাইনে এত টাকা খরচ করছে? সোজা হিসাব বিক্রি বাড়ানো। বার্নস্টেনের ফলোয়ারদের মধ্যে যদি ২০ শতাংশও ওই পোশাক কিনেন তবে সে লাভটা প্রতিষ্ঠানের কাছে একেবারে কম হবে না।

প্রতি বছর বিশ্বের বিভিন্ন নামী ব্রান্ডের প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের পণ্যের বিজ্ঞাপন দিতে এক বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যায় করে থাকে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে সৌমিক আহমেদ

আরও পড়ুন: 

ব্লগারে পর্ণ পোস্ট বন্ধ হচ্ছে না

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ব্লগারে পর্ণ ভিডিও এবং ছবি নিষিদ্ধ করার বিষয়ে নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন করছে সার্চ জায়ান্ট গুগল

গত সপ্তাহে ব্লগারে পর্ণ সংশ্লিষ্ট পোস্ট নিষিদ্ধের ঘোষণা দেয় গুগল। গুগলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, জনপ্রিয় সেবা ব্লগারে যৌনতা বিষয়ক কিছু পোস্ট করা যাবে না। যেমন, যৌনতা ভরপুর লেখা, নগ্ন ছবি, পর্ণ অ্যামিনেশন ও ভিডিও।

এ জাতীয় পোস্ট সরিয়ে নিতে চাইলে সহায়তা করারও ঘোষণা দিয়েছিল গুগল টেকআউট।

images-Custom2

তবে, সপ্তাহ পার না হতেই অবস্থান পরিবর্তন করলো প্রতিষ্ঠানটি।

ব্লগারের পলিসি পরিবর্তনের বিষয়টি ব্যবহারকারীদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া তৈরী হয়। কয়েক লাখ অভিযোগও জমা হয় গুগলে। পরে, সমালোচনার মুখে নিজেদের অবস্থান থেকে সরে আসার ঘোষণা দিতে বাধ্য হয় গুগল।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ২৩ মার্চ থেকে ব্লগারে পর্ণ ভিডিও এবং ছবির উপর নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হওয়ার কথা ছিল।

আগের ঘোষণায় টেক জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছিল, পর্ণ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে ব্যবসা বন্ধ করতেই পলিসি পরিবর্তন করেছে তারা।

এতদিন অ্যাডাল্ট অপশনের মাধ্যমে প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য এ জাতীয় পোস্ট করতে পারতেন ব্যবহারকারীরা। এখন ওই পুরনো পদ্ধতিই বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিবিসি অবলম্বনে সৌমিক আহমেদ

আরও পড়ুন:

অভিজিৎ হত্যায় তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম

সৌমিক আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিল : মুক্তচিন্তাকে গলা টিপে হত্যার পর আসুন আমরা দলীয় আর ক্ষমতার রাজনীতি করে স্বমেহনের আনন্দ পাই। সম্মিলিত ক্লীবতার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ায় ক্ষমতা দখল করে নিক জঙ্গিবাদ।

শত সহস্র মানুষের মাঝেও নিরাপদ নন একজন হুমায়ুন আজাদ, অভিজিৎ রায়। এই দেশে আমার-আপনার জীবনের দাম সবচে কম। চাপাতি, পেট্টোল বোমা, বন্দুক যুদ্ধ, ক্রস ফায়ার, ক্লিন হার্ট সবই আম জনতার জন্য। আজো বেঁচে আছি। বেঁচে থাকার আনন্দে সৌভাগ্যবান।

লেখার জবাব তলোয়ারে, ভালোবাসার জবাব ঘৃনায়! নষ্ট সঙ্গমে বাংলাদেশ!

Ovijit_

লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায়কে হত্যার পর সামাজিক যোগাযোগ সাইট ফেইসবুকে এমনই মন্তব্য করেছেন কয়েকজন গণমাধ্যম কর্মী।

শুধু গণমাধ্যম কর্মী বা ব্লগার নন অভিজিৎ হত্যাকান্ডের নিন্দা জানিয়ে ফেইসবুক, টুইটার ও ব্লগে প্রতিবাদে সরব বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ। যারা মুক্তবুদ্ধি ও মুক্তচিন্তার চর্চাকে রুদ্ধ করতে চায় তাদের প্রতিরোধ করতে সর্বস্তরের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ সাইটগুলোর বিভিন্ন লেখায়।

দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিদাবির সঙ্গে চলছে ক্ষোভ প্রকাশ। জঙ্গিবাদ ও মৌলবাদের মূলউৎপাটনের দাবি তাদের অক্ষরে।

শুধু দেশে নয় হত্যাকান্ডের খবরটি বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে প্রচার করেছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো।

এপি, রয়টার্স, বিবিসি, গার্ডিয়ান, ওয়াশিংটন পোস্টসহ আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো ভিজ্যুয়াল, প্রিন্ট ও অনলাইন ভার্সন হত্যাকা- নিয়ে প্রতিবেদন করেছে। প্রধান খবর হিসেবেও প্রচার করেছে বেশকয়েকটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

এসব প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অভিজিৎ ছিলেন একজন প্রগতিশীল লেখক। হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানব বন্ধনের খবর এবং ছবি প্রকাশ করেছে তারা।

বিবিসি টেডিলভিশন ও আল জাজিরা অনলাইন প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে অভিজিৎকে নিয়ে। গার্ডিয়ানের শিরোনামে বলা হয়, মুক্তমনা ব্লগের ধর্মনিরপেক্ষ লেখক অভিজিৎ রায় ও তাঁর স্ত্রীর ওপর হামলা।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অবলম্বনে

ব্লগারে পর্ণ পোস্ট বন্ধ করছে গুগল

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ব্লগারে পর্ণ ভিডিও এবং ছবি নিষিদ্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে সার্চ জায়ান্ট গুগল।

এতদিন অ্যাডাল্ট অপশনের মাধ্যমে প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য এ জাতীয় পোস্ট করতে পারতেন ব্যবহারকারীরা।

ব্লগারে পর্ণ সংশ্লিষ্ট পোস্ট নিষিদ্ধের ঘোষণাটি ২৩ মার্চ থেকে কার্যকর হবে। টেক জায়ান্টটি জানিয়েছে, পর্ণ সংশ্লিষ্ট বিষয় দিয়ে ব্যবসা বন্ধ করতেই পলিসি পরিবর্তনের ঘোষণা দিয়েছে তারা।

images (Custom)

গুগলের জনপ্রিয় সেবা ব্লগারে যৌনতা বিষয়ে কিছু রয়েছে এমন পোস্ট করা যাবে না। যেমন, যৌনতা ভরপুর লেখা, নগ্ন ছবি, পর্ণ অ্যামিনেশন ও ভিডিও।

নতুন পলিসি অনুযায়ী যেসব ব্যবহারকারীদের ব্লগে এ জাতীয় কনটেন্ট রয়েছে তা মুছে ফেলবে না গুগল। তবে, এগুলোর ক্ষেত্রে প্রাইভেসি সেটিংস দিয়ে দেওয়া হবে। যাতে শুধু ব্যবহারকারীই দেখতে পারেন। অবশ্য চাইলে তা বন্ধুদের মধ্যে শেয়ার করা যাবে।

এ জাতীয় পোস্ট সরিয়ে নিতে চাইলে সহায়তা করবে গুগল টেকআউট।

তবে শিক্ষামূলক, শিল্প, ডকুমেন্টারি ও বিজ্ঞান বিষয়ক বড়দের উপযোগী ভিডিও এবং ছবি রাখা যাবে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে সৌমিক আহমেদ