সফটওয়্যার ছাড়া উইন্ডোজ ১০-এ পিডিএফ তৈরি

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : কম্পিউটার থেকে কোনো ডকুমেন্ট প্রিন্ট বা অন্যদের কাছে পাঠানোর চমৎকার ফরম্যাট পিডিএফ। ছবি বা ডক ফাইলের তুলনায় পিডিএফে প্রিন্ট করার ঝামেলা কম। ফন্ট ভাঙ্গার ঝামেলা এড়াতে অনেক সময় আমাদের যে কোনো ডকুমেন্টকে পিডিএফ করার প্রয়োজন হয়। তখন থার্ডপার্টি বিভিন্ন সফটওয়্যার ডাউনলোডের প্রয়োজন হয় পিডিএফ ফরম্যাট তৈরি করতে।

ব্যবহারকারীদের কথা চিন্তা করে উইন্ডোজ ১০ অপরেটিং সিস্টেমে ডক, ছবির মতো ফাইলগুলো পিডিএফ ফরম্যাটে প্রিন্ট করার ফিচার রয়েছে। এ জন্য আলাদা কোনো সফটওয়্যারের প্রয়োজন হবে না।

উইন্ডোজ ১০-এ ডিফল্টভাবে কাজটি করা যায়। যেভাবে কাজটি করতে হবে এ টিউটোরিয়ালে তা তুলে ধরা হলো।

windows 10-techshohor (1)

যে ফাইলটি পিডিএফে কনভার্ট করতে চান সেটির ওপর মাউস রেখে ডান ক্লিক করে সেখান থেকে ‘print’ অপশনে ক্লিক করতে হবে।

তাহলে যে পেইজ চালু হবে তার উপরে ‘printer’ অপশনটি ক্রল করলেই ‘microsoft print to pdf’ অপশনটি দেখা যাবে। এখন সেটি নির্বাচন করতে হবে।

windows 10-techshohor (2)

এটি নির্বাচন করে ‘print’ বাটনে ক্লিক করতে হবে। তারপর পিডিএফ ফাইলে সেখানে সংরক্ষণ করতে হবে তা দেখিয়ে দিতে হবে।

windows 10-techshohor (2)

তাহলে যে ফোল্ডারে ফাইলটি সংরক্ষিত করা হলো সেখানে পিডিএফ ফাইলটি পাওয়া যাবে।

এটি এখন প্রিন্ট কিংবা মেইল করতে পারবেন সহজেই।

আরও পড়ুন:

পিডিএফ থেকে ডক করুন গুগল ড্রাইভ দিয়ে

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রায়ই কোনো পিডিএফ ফাইলকে ডক বা টেক্সট ফরম্যাটে নেওয়ার প্রয়োজন হয়। তখন পিডিএফ থেকে সরাসরি ডকে রূপান্তর করতে কিছুটা ঝামেলা হয় । এ ঝামেলা থেকে মুক্তি দিতে রয়েছে বিভিন্ন কনভার্টার সফটওয়্যার। তবে সফটওয়্যারের ঝামেলা ছাড়াও এ কাজটি করা যায় গুগল ড্রাইভের সাহায্যে।

কিভাবে কাজটি করতে হবে  তা এ টিউটোরিয়ালে তুলে ধরা হলো।

প্রথমে গুগল ড্রাইভে গিয়ে আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে হবে। জিমেইল আইডি দিয়েই গুগল ড্রাইভে লগইন করলেই হবে।

google-drive-pdf-techshohor

এরপর যে পিডিএফ ফাইলটি টেক্সট ফাইলে রূপান্তর করতে হবে সেটি গুগল ড্রাইভে আপলোড করতে হবে।

আপলোডের পরে পিডিএফ ফাইলটির উপর মাউসের রাইট বাটনে ক্লিক করতে হবে। তারপর ‘open with’ থেকে ‘google docs’-এ ক্লিক করতে হবে।

তাহলে নতুন একটি পেইজে পিডিএফ ফাইলটি ডক ফরম্যাটে পরিবর্তন হয়ে যাবে। সেখানেই পাওয়া যাবে টেক্সট ও চাইলে তা এডিটও করা যাবে।

তবে এ পদ্ধতিতে ইংরেজি টেক্সট সহজেই ডকে রুপান্তরিত করা যায়। বাংলা ভাষায় লেখা পিডিএফ এ পদ্ধতিতে রূপান্তর ঠিকভাবে হয় না।

জেনে নিন ওয়েবপেইজ সেইভের দুই কৌশল

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : একটু আগেই ওয়েবসাইটটিতে কাজ করেছেন। এরপর অন্য এক সাইটে ঢুকেছেন। এমন সময় হঠাৎ ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেল। তখন বেশ ঝামেলায় পড়তে হয়। এমন পরিস্থিতিতে আগেরে পেইজটি সেইভ থাকলে অফলাইনে তথ্য পেতে সুবিধা হয়।

এ কারণে ওয়েবপেইজটি সেইভ থাকলে অফলাইনেও সেটি থেকে তথ্য পাওয়া সম্ভব। অনেকের কাছে ওয়েবপেইজটি সেইভ করা জটিল মনে হতে পারে।

তবে ছোট্ট একটি কৌশল জানা থাকলে অনায়াসে তা করে নেওয়া যায়। এ টিউটোরিয়ালে এমন দুটি কৌশল তুলে ধরা হলো।

টেক্সট পদ্ধতি
পেইজের ইমেজ বা অন্য কিছু ছাড়া শুধু টেক্সট কপি করার প্রয়োজন হলে দ্রুততম পদ্ধতি হল সম্পূর্ণ পেইজটাকে সিলেক্ট করতে Ctrl+A প্রেস করে এবং Ctrl+C চেপে কপি করতে হবে। তাহলে সম্পূর্ন টেক্সট কপি হয়ে যাবে।

এরপর তা যে কোনো ওয়ার্ড প্রসেসর বা টেক্সট এডিটরে সেইভ করা যাবে। এ জন্য ওয়ার্ড প্রসেসর বা টেক্সট এডিটর খুলতে হবে। সেখানে Edit ক্লিক করে Paste Special থেকে Unformated text-এ গিয়ে পেস্ট করতে হবে । এরপর তা সেইভ করতেহবে।

logo

পিডিএফ পদ্ধতি
গুগল ক্রোমে বিল্ট ইন PDF ফাইলে ‘প্রিন্টিং’-এর সুবিধা পাওয়া যায় । প্রথম যে ওয়েবসাইট থেকে তথ্য সংরক্ষণ করা হবে সেটিতে যেতে হবে।

এরপর কিবোর্ড থেকে Ctrl+p প্রেস করতে হবে। এরপর নতুন একটি পেইজ আসবে যেখানে থেকে ‘Change’-এ ক্লিক করতে হবে।এরপর কয়েকটি অপশন আসবে। যেখান থেকে ‘Save as PDF’ ক্লিক করতে হবে। তারপর ‘Save’ ক্লিক করতে হবে। তাহলেও পেইজটি পিডিএফ ফরম্যাটে সেইভ হবে।

আরও পড়ুন

সফটওয়্যার ছাড়াই মাইক্রোসফট অফিস থেকে পিডিএফ ফাইল তৈরি

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শুধু ওয়ার্ড ফাইলে এখন আর কাজ চলে না। দরকার পরে পিডিএফ ফাইলের। কেননা ফাইল চালাচালির সময় তা ওয়ার্ড ফাইলে পাঠানো হলে ফ্রন্ট ভেঙ্গে যাওয়ার আশংকা থাকে। গ্রাফ বা ডিজাইন থাকলেও তা আদান প্রদানে সমস্যা হয়। সেজন্য এখন কাজ অনেক সহজ হয়েছে পিডিএফ থাকায়। এ ধরনের ফাইল ফরম্যাটের ব্যবহারও বাড়ছে।

তাই অনেক সময় মাইক্রোসফট অফিস ফাইলকে পিডিএফ ফরম্যাটে নেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। এ জন বিভিন্ন ধরনের কনর্ভাটার অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে। তবে মাইক্রোসফট অফিস দিয়েই ফাইলটিকে পিডিএফ ফরম্যাটে রূপান্তর করা যায়। প্রশ্ন হলো কিভাবে?

এ জন্য কিছু ট্রিপস জানতে হবে। মাইক্রোসফট অফিস ২০১৩ তে ডিফল্টভাবে ফাইল পিডিএফ ফরম্যাটে সেইভ করার অপসন রয়েছে। এ টিউটোরিয়ালে কনভার্ট করার প্রক্রিয়াটি তুলে ধরা হলো।

প্রথমে যেতে হবে “file” মেনুতে।

আরও পড়ুন :আইপ্যাডের জন্য মাইক্রোসফট অফিস উন্মুক্ত

ms office-techshohor

সেখান থেকে “save as ” এ ক্লিক করতে হবে ।

এরপর থেকে নির্দিষ্ট ফোল্ডার নির্ধারণ করে দিতে হবে সেখানে ফাইল সংরক্ষণ করা হবে।

sssssssssssssssssss

এরপর সেইভ করার আগে ফাইল নেইম দিতে হবে। তারপর “save as type” অপশনটিতে ক্লিক করলে ফাইলটি কোনো ফরম্যাট সেইভ করতে চান তা দেখাবে।

সেখান থেকে ‘pdf’ অপশনটি নির্ধারণ করে দিতে হবে। তাহলে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড ফাইলটি পিডিএফ ফরম্যাটে সেইভ হয়ে যাবে।

আরও পড়ুন 

মাইক্রোসফট অফিস ৩৬৫ এর ব্যক্তিগত সাবক্রিসপশন চালু

মাইক্রোসফট অফিস হাতেখড়ি : পেইজ লেআউট মেন্যু পরিচিতি

অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস গতিময় রাখার পাঁচ টিপস

অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে নিরাপদে তথ্য সংরক্ষণ

 

পিডিএফ সম্পাদনার দারুণ সফটওয়্যার নিটরো

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ডকুমেন্ট বড় হলে পোর্টেবল ডকুমেন্ট ফরম্যাটে (পিডিএফ) ফাইল আদান প্রদান বেশি হয়ে থাকে। বিশেষ করে ই-বুক তৈরির জন্য বেশি ব্যবহৃত হয় ফরম্যাটটি।

পিডিএফ ফাইল পড়ার জন্য রয়েছে অনেক সফটওয়্যার। এর মধ্যে জনপ্রিয় জন্য এডোবি পিডিএফ রিডার। তবে  পিডিএফকে সম্পাদন করার জন্য নিটরো পিডিএফ রিডার বেশ কাজের এবং জনপ্রিয়।

sss

এক নজরে সফটওয়্যারটির ফিচারগুলো

১. এটি ব্যবহার করে নিজের পছন্দমত করে পিডিএফ সম্পাদনা করা যাবে খুব সহজে।

২. এটি দিয়ে পিডিএফ পড়াসহ যে কোনো ডকুমেন্ট বা ওয়েব পাতাকে পিডিএফে রূপান্তর করা যাবে।

৩. পিডিএফ ডকুমেন্টে লেখা বা ডিজিটাল স্বাক্ষর সংযোজন করা যাবে।

৪. যে কোন পিডিএফ ফাইলে জল ছাপ দেওয়া যাবে।

৫. পিডিএফ ফাইল থেকে নতুন পেইজ সংযোগ কিংবা রিমুভ করা যায়।

৬. সফটওয়্যারটির মাধ্যমে পিডিএফ ফাইলের যে কোনো অংশে ছবি যুক্ত করা যায়।

দারুণ কাজের সফটওয়্যারটি এ ঠিকানা থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে।

 

স্মার্টফোনে বই পড়তে ইজেড পিডিএফ রিডার

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রযুক্তির অগ্রযাত্রায় কাগজের বইয়ের স্থান দখল করে নিচ্ছে ইলেকট্রনিক্স বই (ইবুক)। হাতে থাকা স্মার্টফোন কিংবা ট্যাবলেটকে অনেকেই ব্যবহার করছেন বই পড়ার ডিভাইস হিসেবে।

ডিজিটাল এই যুগে স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট ডিভাইসে বই পড়ার জন্য পিডিএফ ফাইল ফরম্যাট সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। তাই পিডিএফ ফরম্যাটের ফাইল পড়ার জন্য রয়েছে নানা অ্যাপ্লিকেশন। এর মধ্যে সবচেয়ে ফিচারসমৃদ্ধ হলো ‘ইজেড পিডিএফ রিডার’ নামের অ্যাপ্লিকেশনটি।

download-techshohor

এক নজরে অ্যাপ্লিকেশনটির ফিচারসমূহ:

১. অ্যাপটি সহজ এবং গতিশীল।

২. যে কোনও পিডিএফ ফাইলে টেক্সট বক্স এবং স্টিকি নোট ইন টেক্সট যুক্ত করা যায়।

৩. পাতা স্ক্রল করার জন্য রয়েছে চমৎকার পদ্ধতি। চাইলে স্ক্রল করার ইফেক্ট পরিবর্তন করা যায়।

৪. থাম্বনেইল চিত্রের মাধ্যমে সবগুলো বই এবং বইয়ের পাতাগুলো একত্রে দেখা যায়।

৫. রাতে পড়ার জন্য রয়েছে নাইট মোড।

৬. ইন্টারনেট সংযোগ থাকলে অ্যাপটি ব্যবহার করে যে কোনও পিডিএফ ফাইল ইমেইলে পাঠানো সম্ভব।

অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা এই ঠিকানা থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন।

সফটওয়্যার ছাড়া পিডিএফ থেকে ওয়ার্ড-এক্সেলে রুপান্তর

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নানা প্রয়োজনে বিভিন্ন সময় পিডিএফ ফরম্যাটে থাকা ফাইলটিকে মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে রূপান্তর করতে হয়। এক্ষেত্রে নিয়ম জানা না থাকলে পুরো ফাইলটির কনটেন্ট নতুন করে লেখার প্রয়োজন হয়। অনেক বড় ফাইল হলে সময় ও পরিশ্রম অনেক বেশি হবে।

অনলাইনের মাধ্যমে বাড়তি এ ঝামেলা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। এ কাজটি করা যাবে সফটওয়্যার ছাড়াও।

এ টিউটোরিয়ালে তুলে ধরা হল কেমন করে অনলাইনের পিডিএফ ফাইলকে ওয়ার্ডে পরিণত করা যায়।

প্রথমে এ ওয়েবসাইটে যেতে হবে।

তারপর সেখানে থেকে যে ফরম্যাটে কনভার্ট করতে চান সেটি নির্ধারণ করতে হবে।

pdf-techshohor
এবার  “Drag your file below to convert it” এখানে  পিডিএফ ফাইলটি নির্বাচণ করে দিতে হবে।
এরপর ই-মেইল আইডিটি দিতে হবে। তারপর convert  এ ক্লিক করতে হবে।

তাহলে ই-মেইল আইডিতে ফাইলটি চলে যাবে।

একাধিক ফাইলকে এক পিডিএফে রূপান্তর

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : যারা কম্পিউটার ব্যবহার করেন, তারা কমবেশি পিডিএফ (PDF) ফাইলের সঙ্গে পরিচিত। বিশেষ করে কোনো ডকুমেন্ট বা ই-বুক এই ফরমেটে থাকে। অনেক সময় একাধিক পিডিএফ ফাইলকে একত্রে বা এক ফাইলের আওতায় আনার প্রয়োজন হয়। একটি সফটওয়্যার হলেই এ কাজটি করা যাবে। http://code.google.com/p/pdfbinder/ লিংকে গিয়ে নিচের বাম পাশে Download অংশে ক্লিক করে PDFBinder  সফটওয়্যার নামিয়ে নিন। এরপর নিচের ধাপ অনুসরণ করুন-

১। ডাউনলোড করা PDFBinder  কম্পিউটারে ইনস্টল করুন।

২। ইনস্টল হওয়ার পর সফটওয়্যারটি চালু করুন।

৩। এরপর Add File ক্লিক করে পর্যায়ক্রমে পিডিএফ ফাইলগুলো যুক্ত করুন।

PDFBinder_pic

৪। সবশেষে Bind ক্লিক করলে সব পিডিএফ ফাইলগুলো একটি ফাইলে রূপান্তর হবে।

সবশেষে নতুন ফাইলটির নাম দিয়ে আপনার কম্পিউটার এ সংরক্ষণ করুন। কিছুক্ষণ এর মধ্যেই আপনারনতুন তৈরি হওয়া PDF ফাইলটি দেখতে পাবেন।

– তারেক হাবিব