ঢাবিতে সেফ, স্মার্ট ও সোশ্যাল বিষয়ে সচেতনতা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) মেয়েদের পাঁচটি আবাসিক হলে সাইবার সিকিউরিটি অ্যাওয়ারনেস ফর উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট শিরোনামে সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক সচেতনতামূলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার  ‘সেফ, স্মার্ট, সোশ্যাল’ প্রতিপাদ্যে এই কর্মশালার আয়োজন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি (ডিইউআইটিএস)।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শামসুন্নাহার হলে অয়োজিত কর্মশালায় শিক্ষার্থীদের সাইবার অপরাধ বিষয়ক নানা প্রশ্নের উত্তর দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. জিয়া রহমান।

IMG_6946

সাইবার অপরাধের শিকার হলে করনীয়, তথ্য-প্রযুক্তি আইন এবং সাইবার জগতে সচেতন থাকার উপায় বিষয়ে কথা বলেন ডিইউআইটিএসের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইমরান এবং সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ ইফতেখার আলম।

এর আগে শনিবার কবি সুফিয়া কামাল হলে এবং রোববার বেগম রোকেয়া হলে এই কর্মসূচী সম্পন্ন হয়। সোমবার বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব মঙ্গলবার বাংলাদেশ  কুয়েত মৈত্রী হলে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে।

শামীম রাহমান

প্রযুক্তি উৎসবের ইতি : ফ্রি ল্যাপটপ পেলেন ৫০ শিক্ষার্থী

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সোমবার পর্দা নামলো দুই দিনব্যাপী চতুর্থ জাতীয় ক্যাম্পাস তথ্যপ্রযুক্তি উৎসবের। সমাপনী অনুষ্ঠানে তথ্যপ্রযুক্তি ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক উপস্থিত থেকে ওয়ান স্টুডেন্ট ওয়ান ল্যাপটপ প্রকল্পের আওতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০ জন শিক্ষার্থীকে ল্যাপটপ প্রদান করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি (ডিইউআইটিএস) সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি ও যোগাযোগ (আইসিটি) বিভাগের সঙ্গে চতুর্থবারের মতো এই আয়োজন করে।

ল্যাপটপ হাতে পেয়ে শিক্ষার্থীরা তথ্য প্রযুক্তি ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রীর কাছে অঙ্গীকার করেন, এর সঠিক ব্যবহারের মধ্য দিয়ে নিজেদের প্রতিষ্ঠা করবেন এবং একদিন নিজেরাও এই কর্মসূচীতে একটি করে ল্যাপটপ দেবেন।

DUITS

সোমবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে পলক বলেন, একটি ল্যাপটপ একজন শিক্ষার্থীর প্রযুক্তি নিয়ে এক একটা স্বপ্ন পূরণ করে। যে স্বপ্ন একদিন দেশকে বিশ্বদরবারে প্রযুক্তির দেশ হিসেবে চিহ্নিত করবে।
তিনি এ সময় ডিইআইটিএসের আয়োজনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থী ও প্রযুক্তিপ্রেমীদের আরও বেশি করে প্রযুক্তি জ্ঞান আহরণ ও বিতরণে কাজ করার আহ্বান জানান।

এছাড়া অনুষ্ঠানে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রায় তিন লাখ টাকা সমমূল্যের পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা।

দুদিনব্যাপী অনুষ্ঠানে ছিল আইসিটি ইন এডুকেশন শীর্ষক একটি সেমিনার, মিট দ্যা পার্সোনালিটি, শিক্ষার্থীদের প্রকল্প প্রদর্শন, অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট , গেমিং, বিতর্ক ও কুইজ প্রতিযোগিতা। উৎসবে দেশের শীর্ষস্থানীয় ৮০টি স্কুল-কলেজের ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রায় দুই হাজার শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও প্রযুক্তিপ্রেমী অংশ নেন।

সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এক্সিম ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ড. মোহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া, ডেলের কান্ট্রি ডিরেক্টর আতিকুর রহমান, ডিইআইটিএসের উপদেষ্টা ও সিএসই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মামুনুর রশীদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য প্রযুক্তি ইন্সটিটিউটের পরিচালক ও ডিইউআইটিএসের উপদেষ্টা ডঃ কাজী মুহাইমিন আস সাকিব, প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক আরিফ দেওয়ান এবং ডিইউআইটিএসের সাধারণ সম্পাদক মাফরুহুর রহমান ফারুকীসহ আরও অনেকে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিইউআইটিএসের মডারেটর ও টেলিভিশন অ্যান্ড ফিল্ম স্টাডিজ ডিপার্টমেন্টের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ড. শফিউল আলম ভূইয়া। পুরো অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ডিইউআইটিএসের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইমরান।

সব শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

ইমরান হোসেন মিলন

জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব শুরু

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : উচ্চ শিক্ষায় তথ্যপ্রযুক্তির জ্ঞানকে সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে চতুর্থবারের মতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটির (ডিইউআইটিএস) আয়োজনে উৎসবে প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও প্রযুক্তিপ্রেমী অংশ নিয়েছে।

রোববার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ডিইউআইটিএসের মডারেটর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র অধ্যয়ন বিভাগের অধ্যাপক শফিউল আলম ভূঁইয়া।

অধ্যাপক শফিউল বলেন, এখন সময় এসেছে অনলাইন কার্যক্রমের মাধ্যমে নারী সহিংসতার প্রতিবাদ করার। এ ধরনের সহিংসতা রুখতে ফেইসবুক, টুইটার, ব্লগসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে লেখালেখির মাধ্যমে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে।

DUITS

নারী সহিংসতা মোকাবেলায় তরুণদের অ্যাপস এবং সফটওয়ার উদ্ভাবন করারও আহ্বান জানান তিনি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিইউআইটএসের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইমরান, সাধারণ সম্পাদক আরিফ দেওয়ান, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মাফরুহুর রহমান ফারুকীসিহ অন্যান্যরা।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কে এম ইমরানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন ডিইউআইটিএসের সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফ ইবনে আলী।

উদ্বোধনী শেষে অংশগ্রহণকারীদের নিয়ে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে টিএসসিতে গিয়ে শেষ হয়।

এবারও ডিইআইটএসের সঙ্গে সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ এই আয়োজনে যুক্ত আছে।

র‌্যালি শেষে শিক্ষার্থীদের প্রকল্প প্রদর্শন, অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, ব্রেইনস্ট্রোমিং, গেইমিং ও কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

এ ছাড়া বিকেলে ‘আইসিটি ইন এডুকেশন’ শীর্ষক একটি সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রামের অনুষ্ঠান সহকারী আসাদুজ্জামান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মামুনুর রশীদের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেবেন সিম্ফনির জেনারেল ম্যানেজার শাহরিয়ার সাত্তার এবং আইসিটি জার্নালিস্ট ফোরামের সাবেক সভাপতি কাউসার উদ্দীন।

‘মিট দ্যা পার্সোনালিটি’ পর্বে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেবেন অভিনেত্রী মিথিলা, পরিচালক রেদওয়ান রনি, এরিকসন বাংলাদেশের হেড অব মিডিয়া মেহনাজ কবির এবং ইন্টেলের কান্ট্রি ম্যানেজার জিয়া মনজুর।

দুই দিনব্যাপী এই আয়োজনে স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ৮০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও প্রযুক্তিপ্রেমীরা অংশ নিয়েছেন।

সোমবার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার এবং ‘ওয়ান স্টুডেন্ট ওয়ান ল্যাপটপ’ প্রকল্পের আওতায় শিক্ষার্থীদের মাঝে ল্যাপটপ বিতরণ করবেন আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

এবারের উৎসবে গোল্ড স্পন্সর হিসেবে থাকছে মোবাইল ব্র্যান্ড সিম্ফনি, সিলভার স্পন্সর ডেল এবং নিবন্ধন পার্টনার বিকাশ।

ইমরান হোসেন মিলন

ঢাবির প্রযুক্তি উৎসবে ৮০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শুরু রোববার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঢাকা বিশ্বাবদ্যালয়ে চতুর্থ জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব শুরু হচ্ছে রোববার। উচ্চ শিক্ষায় তথ্যপ্রযুক্তির জ্ঞানকে সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে এই আয়োজন করে আসছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি (ডিইউআইটিএস)।

উৎসব উপলক্ষে সব ধরনের প্রস্তুতি প্রায় শেষের দিকে। এবারও ডিইউআইটিএসের সঙ্গে এই আয়োজনে যুক্ত আছে সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ।

রোববার শুরু হয়ে সোমবার শেষ হবে আয়োজনটি। দুই দিনব্যাপী এই আয়োজনে স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ৮০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও প্রযুক্তিপ্রেমী অংশ নেবেন।

DUITS

এছাড়াও ডিইউআইটিএস বছরব্যাপী নানা আয়োজনের ধারাবাহিকতার সার্কভুক্ত দেশগুলোকে নিয়ে সেপ্টেম্বরে আরও বড় পরিসরে একটি তথ্যপ্রযুক্তি উৎসব করার চিন্তা আছে বলেও জানান আয়োজকরা।

ডিইউআইটিএসের প্রচার সম্পাদক মুখলিসুর রহমান মাহিন বলেন, উৎসব উপলক্ষে আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন। এখন শুধু অপেক্ষা প্রযুক্তিপ্রেমীদের বরণ করে নেওয়ার। আশা করছি, উৎসবটি এবারও সফলভাবে আয়োজন করতে পারবো।

ডিইউআইটিএস জানায়, রোববার সকাল ৯ টায় টিএসসি চত্ত্বরে অংশগ্রহণকারীদের নিবন্ধনের মধ্য দিয়ে শুরু হবে এই আয়োজন। এরপর টিএসসি অডিটোরিয়ামে ১১ টায় ঢাবি উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করবেন। এরপর একটি বর্ণাঢ্য র্যা লি দিয়ে দিনের শুরু হবে।

পরে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের প্রকল্প প্রদর্শন, অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট, ব্রেইনস্ট্রোমিং, গেইমিং ও কুইজ প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে শেষ হবে প্রথম দিন।

দ্বিতীয় দিনে আইসিটি ও সাইবার সিকিউরিটি বিষয়ক কর্মশালা, আউটসোর্সিং ও উদ্যোক্তা সম্মেলন, তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর বিতর্ক ও বিজনেস আইডিয়া নিয়ে সেশন। এছাড়া মিট দ্য পারসোনালিটি অনুষ্ঠানে থাকবে দেশের বিখ্যাতসব ব্যক্তিদের সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ।

এরপর বিকেল তিনটায় প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার ও ক্রেস্ট তুলে দিবেন তথ্য যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

সবশেষে থাকবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
এবারের উৎসবে গোল্ড স্পন্সর হিসেবে থাকছে মোবাইল ব্র্যান্ড সিম্ফনি, সিলভার স্পন্সর ডেল এবং নিবন্ধন পার্টনার বিকাশ।

ইমরান হোসেন মিলন

চতুর্থ ক্যাম্পাস তথ্যপ্রযুক্তি উৎসব শুরু রবিবার থেকে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রবিবার থেকে শুরু হচ্ছে চতুর্থ জাতীয় ক্যাম্পাস তথ্যপ্রযুক্তি উৎসব। উচ্চ শিক্ষায় তথ্যপ্রযুক্তির জ্ঞানকে সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে এই উৎসব আয়োজন করে থাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি (ডিইউআইটিএস)।

ডিইউআইটিএসের সঙ্গে সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ এই আয়োজনে যুক্ত আছে।

দুই দিনব্যাপী এই আয়োজনে স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ৮০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও প্রযুক্তিপ্রেমীরা অংশ নেবেন।

DUITS

উৎসব আয়োজন সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) মুনির চৌধুরী অডিটোরিয়ামে সংবাদ সম্মেলন করে ডিইউআইটিএস।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ৩১ সে সকাল ৯টায় টিএসসি চত্ত্বরে অংশগ্রহণকারীদের নিবন্ধনের মধ্য দিয়ে শুরু হবে এই আয়োজন। টিএসসি অডিটোরিয়ামে ১১টায় ঢাবি উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করবেন। এরপর একটি বর্ণাঢ্য র্যা লি দিয়ে দিনটি শুরু হবে।

পরে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের প্রকল্প প্রদর্শন, অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট, ব্রেইনস্ট্রোমিং, গেইমিং ও কুইজ প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে শেষ হবে প্রথম দিন।

দ্বিতীয় দিনে আইসিটি ও সাইবার সিকিউরিটি বিষয়ক কর্মশালা, আউটসোর্সিং ও উদ্যোক্তা সম্মেলন, তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর বিতর্ক, বিজনেস আইডিয়া, মিট দ্য পারসোনালিটি অনুষ্ঠানে থাকবে দেশের বিখ্যাত সব ব্যক্তিদের সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ।

এরপর বিকেল তিনটায় প্রতিযোগীতার বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার ও ক্রেস্ট তুলে দিবেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।
সবশেষে থাকবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এছাড়াও ডিইউআইটিএস বছরব্যাপী নানা আয়োজনের ধারাবাহিকতার সার্কভুক্ত দেশগুলোকে নিয়ে সেপ্টেম্বরে আরও বড় পরিসরে একটি তথ্যপ্রযুক্তি উৎসব করার চিন্তা আছে বলেও জানান আয়োজকরা।

এবারের উৎসবে গোল্ড স্পন্সর হিসেবে থাকছে মোবাইল ব্র্যান্ড সিম্ফনি, সিলভার স্পন্সর ডেল এবং নিবন্ধন পার্টনার বিকাশ।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঢাবি আইটি ইন্সটিটিউটের পরিচালক ও ডিইআইটিএসের উপদেষ্টা ড. মোহায়মেন আস সাকিব, সভাপতি মাফরুহুর রহমান, প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি আব্দুল্লাহ আল ইমারান, প্রতিষ্ঠাকালীন সাধারণ সম্পাদক আরিফ দেওয়ান, সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফ ইবনে আলী, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কে এম ইমরান, প্রচার সম্পাদক মুখলিসুর রহমান মাহিন, এডিসন গ্রুপের মার্কেটিং ম্যানেজার জাহিদুল ইসলাম।

ইমরান হোসেন মিলন

থ্রিজির শিক্ষামূলক ব্যবহার নিয়ে বিশেষ আয়োজন ডিইউআইটিএসের

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : তথ্যপ্রযুক্তি সম্পর্কিত জ্ঞানের প্রসার ও প্রযুক্তিনির্ভর ক্যাম্পাস গঠন করতে সম্প্রতি বছরব্যাপী নানা কর্মসূচী পালনের ঘোষণা দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি (ডিইউআইটিএস)। এরই অংশ হিসেবে ২৩ মে ‘রবি-ডিইউআইটিএস ক্যাম্পাস ৩.৫জি ডে’ নামের এক বিশেষ অনুষ্ঠান আয়োজন করতে যাচ্ছে সংগঠনটি।

এতে থ্রিজি টেকনোলজির অপার সম্ভাবনা ও শিক্ষামূলক ব্যবহার সম্পর্কে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের ধারণা দেয়া হবে।

এ নিয়ে বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) সংবাদ এক সম্মেলনের আয়োজন করে সংগঠনটি।

duits-robi

 

ডিইউআইটিএস সাধারণ সম্পাদক বলেন, সর্বাধুনিক ইন্টারনেট প্রযুক্তির শিক্ষামূলক ব্যবহার সম্পর্কে জানাতে এই অনুষ্ঠান আয়োজন করা হচ্ছে।

অনুষ্ঠানের প্রধান পৃষ্টপোষক রবির আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক বিপ্লব ব্যানার্জী বলেন, রবি বিশ্বাস করে, মানুষ তার অন্তর্নিহিত শক্তি বা ক্ষমতা দিয়ে সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় যে কোনো বাধা জয় করতে পারে। ইন্টারনেট মানুষকে শক্তিমান করে। আর আজকের দিনে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলো ও ইন্টারনেটের নানান ওয়েবসাইট যোগাযোগ ও ঐক্যবদ্ধ হওয়ার সবচেয়ে সহজ প্লাটফর্ম।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যপ্রযুক্তি ইন্সটিটিউটের পরিচালক ও ডিইউআইটিএসের উপদেষ্টা ড. মোহাইমেন আস সাকিব বলেন, শিক্ষার্থীদের সর্বাধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির বহুমাত্রিক ব্যবহার সম্পর্কে অবহিত করতে কাজ করে ডিইউআইটিএস। এই ধারাবাহিকতায় এবারের আয়োজনটিও শিক্ষার্থীদের জ্ঞানের তৃষ্ণা মেটাবে বলে বিশ্বাস রাখি।

এরিকসন বাংলাদেশের যোগাযোগ বিভাগের প্রধান মেহনাজ কবির বলেন, এরিকসন নেটওয়ার্ক সোসাইটি তৈরির লক্ষ্য নিয়ে মবিলিটির মাধ্যমে কাজ করছে যা নতুন ধারার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির পরিবর্তনের চালিকা শক্তি। এই পরিবর্তনের মাধ্যমে মোবাইল প্রযুক্তির বিভিন্ন উদ্ভাবন এবং সাধারণ মানুষ তা গ্রহণ করায় বাজারে নির্দিষ্ট চাহিদা তৈরি হয়েছে। এরিকসনের প্রযুক্তি বিস্তারের মাধ্যমে নতুন প্রাযুক্তিক সুবিধাগুলো গ্রাহকদের হাতে এসে পৌঁছেছে। তাই ব্যবসায়িক সফলতা বৃদ্ধি, সামাজিক উন্নয়ন এবং সর্বোপরি সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে এরিকসন শীর্ষস্থানীয় অপারেটরদের সাথে কাজ করে যাবে ।

সংবাদ সম্মেলনে অারো উপস্থিত ছিলেন, ইউআইটিএসের সাধারণ সম্পাদক মাফরুহ-উর রহমান ফারুকি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কে এম ইমরান, সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফ ইবনে আলী, প্রচার সম্পাদক মুখলিসুর রহমান মাহিন প্রমুখ।

আয়োজকরা জানান, দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে থ্রিজি টেকনোলজি নিয়ে সেমিনার, কর্মশালা, কুইজ প্রতিযোগিতা এবং কনসার্ট ফর আইসিটি আয়োজন করা হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য টিএসসি মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করবেন।

অনুষ্ঠান সকাল ১১টায় শুরু হয়ে চলবে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত।

ইমরান হোসেন মিলন

৪র্থ জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব শুরু ৩১ মে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দুই দিনব্যাপী ‘জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব ২০১৫’। ৩১ মে থেকে ১ জুন পর্যন্ত উৎসবটি অনুষ্ঠিত হবে। এটি দেশের বৃহৎ ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব।

এ উৎসবে অংশ নেবে দেশের প্রায় শতাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই হাজার শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও প্রযুক্তিপ্রেমী।

টিএসসি চত্বরে আয়োজিত উৎসবের মূল পর্বে থাকছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের প্রকল্প প্রদর্শন, অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট, ব্রেইনস্ট্রোমিং, গেইমিং ও কুইজ প্রতিযোগিতা, সাইবার সিকিউরিটি বিষয়ক কর্মশালা, আউটসোর্সিং ও উদ্যোক্তা সম্মেলন, তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর বিতর্ক, বিজনেস আইডিয়াসহ নানা আয়োজন।

4th National Campus IT Fest

এছাড়াও উৎসবে মিট দ্য পার্সোনালিটি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকছে। উৎসবে মোট ২টি সেমিনার, ১টি কর্মশালা ও আলোচনা পর্ব থাকছে।

বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের জন্য থাকছে প্রায় তিন লাখ টাকা সমমূল্যের অর্থ পুরষ্কার এবং সার্টিফিকেট ও ক্রেস্ট।

ঢাবি আইটি সোসাইটির ( ডিইউআইটিএস) আয়োজনে এই অনুষ্ঠানে এবার সহ-আয়োজক হিসেবে থাকছে আইসিটি মন্ত্রণালয়।

উৎসবের এবারের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘উন্নত শিক্ষায় চাই তথ্য-প্রযুক্তিনির্ভর ক্যাম্পাস’।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট মিলনায়তনে ৩১ মে উৎসবের উদ্বোধন করা হবে। উদ্বোধন শেষে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ ও স্কুলের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সিনেট ভবন থেকে টিএসসি অভিমুখে একটি র্যােলি বের করা হবে।

বর্তমানে বিভিন্ন ইভেন্টে অংশগ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশনের কাজ শুরু হয়েছে। রেজিস্ট্রেশন চলবে ২৮ মে পর্যন্ত। রেজিস্ট্রেশন ও অন্যান্য তথ্যের জন্য যোগাযোগ করা যাবে এই ওয়েবসাইটে

আহমেদ মনসুর

চতুর্থ বছরে ডিইউআইটিএস

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণার দিনটিকে আইসিটি দিবস করার দাবি জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি (ডিইউআইটিএস)।

মঙ্গলবার চতুর্থ বছরে পা দেয় ডিইউআইটিএস। এ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এ দাবী জানান সংগঠনটির নতুন সভাপতি বায়েজীদ খান।

আলোচনা সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও সংগঠনটির প্রধান পৃষ্ঠপোষক অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমেই সারা বিশ্ব হাতের মুঠোয় চলে এসেছে। তাই এর ইতিবাচক ব্যবহার করে দেশের উন্নয়ন করতে হবে। তবে তিনি প্রযুক্তির নেতিবাচক ব্যবহার থেকে দূরে থাকতেও বলেন।

DUITS

আলোচনার সভার পর কেক কাটা, পায়রা উড়ানো, র্যা লি এবং সন্ধ্যায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বর্ষ পূর্তির এ আয়োজন শেষ হয়।

ডিইউআইটিএস গত ৩ বছর ধরে ধারাবাহিকভাবে তিনটি সফল ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব আয়োজন, মাসিক ই-আড্ডা , ডিইউআইটিএস পিসি ক্লিনিক, সেমিনার, তথ্য প্রযুক্তি নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য জাগরণী আন্দোলনসহ নানান কাজ করে।

সংগঠনটির মডারেটর ড. শফিউল আলম ভুঁইয়ার সভাপতিত্বে বর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন টিএসটির পরিচালক আলমগীর হোসেন, ডিইউআইটিএসের সাবেক সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইমরানসহ চলতি ও বিদায়ী কমিটির নেতৃত্ববৃন্দ।

ফখরুদ্দিন মেহেদী

আরও পড়ুন:

সার্ক ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসবের সহযোগিতায় বেসিস

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সার্কভূক্ত ৮টি দেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অংশগ্রহণে প্রথমবারের মতো দেশে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সার্ক ক্যাম্পাস আইটি ফেস্টিভ্যাল আয়োজনে সহযোগিতা করবে বাংলাদেশ অ্যাসেসিয়েশন অব সফটওয়ার এন্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)।

চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটির (ডিইউআইটিএস) উদ্যোগে এ ফেস্টিভ্যাল অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে।

বৃহস্পতিবার ডিইউআইটিএস প্রতিনিধিদের সাথে এক বৈঠকে বেসিস সভাপতি শামীম আহসান এ সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

BASIS-1

ডিইউআইটিএসের উপদেষ্টা আবদুল্লাহ আল ইমরানের নেতৃত্বে এই প্রতিনিধি দলে ছিলেন সংগঠনের সভাপতি বায়জিদ খান, সাধারণ সম্পাদক মাফরুহ-উর-রহমান ফারুকী, সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফ ইবনে আলী এবং প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সিফাতুল ইসলাম।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারের বেসিস কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই বৈঠক প্রসঙ্গে ডিইউআইটিএস সভাপতি বায়েজিদ খান জানান, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের ভবিষ্যৎ নেতাদের মধ্যে সেতুবন্ধন রচনা এবং তথ্যপ্রযুক্তি বান্ধব ক্যাম্পাস গঠনে আঞ্চলিক উদ্ভাবনী ভাবনা বিনিময়ের উদ্দেশ্যে সার্কভূক্ত ৮টি দেশের প্রথিতযশা সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে সার্ক ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব আয়োজনে সার্বিক সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন বেসিস সভাপতি।

উল্লেখ্য, এরআগে ফেস্টিভ্যাল আয়োজনের প্রস্তুতি বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভীর সাথে এক সৌজন্য বৈঠক করে ডিইউআইটিএস প্রতিনিধি দল।

বৈঠকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিককে প্রধান পৃষ্টপোষক ও ড. গওহর রিজভীকে প্রধান উপদেষ্টা করে ডিইউআইটিএসের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইমরানের নেতৃত্বে ১৯ সদস্যের উৎসব বাস্তবায়ন কমিটি গঠনের প্রস্তাব করা হয়।

সেই বৈঠকে ডিইউআইটিএসের উপদেষ্টা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যপ্রযুক্তি ইন্সটিটিউটের পরিচালক ড. মোহাইমিন আস সাকিবের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের ঐ প্রতিনিধি দলে ইমরান ছাড়াও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আরিফ দেওয়ান, ইফতেখার আলম এবং সিফাতুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

ড. মোহাইমেন আস সাকিব জানান, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের ভবিষ্যৎ নেতাদের মধ্যে সেতুবন্ধন রচনা এবং তথ্যপ্রযুক্তি বান্ধব ক্যাম্পাস গঠনে আঞ্চলিক উদ্ভাবনী ভাবনা বিনিময়ের উদ্দেশ্যে সার্কভূক্ত ৮টি দেশের প্রথিতযশা সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে এই উৎসব আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে।

আবদুল্লাহ আল ইমরান টেকশহরডটকমকে জানান, ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে ৩য় জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে সার্ক প্রযুক্তি উৎসব আয়োজনের ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। এখন সেই ঘোষণা বাস্তবায়ন নিয়ে কাজ করছি আমরা।

চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে এ উৎসব আয়োজন করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, খুব শীঘ্রই তারিখ ঘোষণা করা হবে।

আল-আমীন দেওয়ান

প্রথম সার্ক ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব বাংলাদেশে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সার্কভূক্ত ৮টি দেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অংশগ্রহণে প্রথমবারের মতো দেশে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে সার্ক ক্যাম্পাস আইটি ফেস্টিভ্যাল।

চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটির (ডিইউআইটিএস) উদ্যোগে এ ফেস্টিভ্যাল অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে।

বুধবার এ ফেস্টিভ্যাল আয়োজনের প্রস্তুতি বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভীর সাথে এক সৌজন্য বৈঠক করেন ডিইউআইটিএস প্রতিনিধি দল।

sarcc campus

বৈঠকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিককে প্রধান পৃষ্টপোষক ও ড. গওহর রিজভীকে প্রধান উপদেষ্টা করে ডিইউআইটিএসের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইমরানের নেতৃত্বে ১৯ সদস্যের উৎসব বাস্তবায়ন কমিটি গঠনের প্রস্তাব করা হয়।

বৈঠকে ডিইউআইটিএসের উপদেষ্টা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যপ্রযুক্তি ইন্সটিটিউটের পরিচালক ড. মোহাইমিন আস সাকিবের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের ঐ প্রতিনিধি দলে ইমরান ছাড়াও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আরিফ দেওয়ান, ইফতেখার আলম এবং সিফাতুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

ড. মোহাইমেন আস সাকিব জানান, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের ভবিষ্যৎ নেতাদের মধ্যে সেতুবন্ধন রচনা এবং তথ্যপ্রযুক্তি বান্ধব ক্যাম্পাস গঠনে আঞ্চলিক উদ্ভাবনী ভাবনা বিনিময়ের উদ্দেশ্যে সার্কভূক্ত ৮টি দেশের প্রথিতযশা সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে এই উৎসব আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে।

আবদুল্লাহ আল ইমরান টেকশহরডটকমকে জানান, ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে ৩য় জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে সার্ক প্রযুক্তি উৎসব আয়োজনের ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। এখন সেই ঘোষণা বাস্তবায়ন নিয়ে কাজ করছি আমরা।

চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে এ উৎসব আয়োজন করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, উৎসব কমিটির পরবর্তী বৈঠকেই তারিখ ঠিক করা হবে।

আল-আমীন দেওয়ান

স্বাধীনতা বিরোধীদের বিরুদ্ধে সাইবার যুদ্ধ ডিইউআইটিএসের

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অনলাইনে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করে নানা প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে এক দল ব্লগার ও ফেইসবুক ব্যবহারকারী। এদের বিরুদ্ধে গিয়ে আবার স্বাধীনতার প্রকৃত বাস্তবতা তুলে ধরতে কাজ করে যাচ্ছেন কিছু তরুণ। এদেরকে নিয়ে সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি (ডিইউআইটিএস) আয়োজন করে ‘অনলাইনে মুক্তিযুদ্ধ’ শীর্ষক মুক্ত আলোচনা ও ডকুমেন্টারি প্রদর্শনী।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ড. লুৎফর রহমান বলেন, স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তির বিরুদ্ধে আমাদের সাইবার যুদ্ধ চালিয়ে যেতে হবে। এর জন্য সবার আগে দেশের তরুণদের এগিয়ে আসতে হবে।

DUTIS

সভাপতির বক্তব্যে ডিইউআইটিএসের মডারেটর শফিউল আলম ভূইয়া বলেন, ভিশন ২০২১ বাস্তবায়ন করতে স্বাধীনতা বিরোধীদের রুখতে হবে। এর জন্য ডিইউআটিসের মতো তারুণ্যনির্ভর সংগঠন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

ডিইউআইটিএসের সভাপতি বায়েজিদ খানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বীর প্রতীক মাহবুব এলাহী। আরও বক্তব্য রাখেন অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট সাদমান সাদিক, নাবিলা তাবাস্সুম চৌধুরী, ডিইউআইটিএসের উপদেষ্টা আবদুল্লাহ আল ইমারন, আরিফ দেওয়ান প্রমুখ।

-সাদ

আরও পড়ুন: