দেশে আসুস আল্ট্রাবুক সিরিজের জেনবুক

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ‘সবার জন্য জেনবুক’ ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে দেশে আল্ট্রাবুক সিরিজের জেনবুক এনেছে গ্লোবাল ব্র্যান্ড (প্রা.) লিমিটেড।

ইতোমধ্যে দেশে পরিবেশক এই প্রতিষ্ঠানের সবগুলো শাখাতে পৌঁছে গেছে নোটবুকটি। আজ থেকে বিক্রিও শুরু হচ্ছে।

সোমবার রাজধানীর বাংলামোটরে বিআইজেএফ সম্মেলন কক্ষে জেনবুকটির উন্মোচনে সংবাদ সম্মেলন করে প্রতিষ্ঠানটি।

সংবাদ সম্মেলনে জেনবুকের এক্স ৪১০ মডেলটির বিস্তারিত জানান আসুসের পণ্য ব্যবস্থাপক আশিকুজ্জামান।

DSC_4020

তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী হালকা গড়নে শক্তিশালী নোটবুক হিসেবে আল্ট্রাবুকের চাহিদা বেড়েই চলেছে। আল্ট্রাবুক সিরিজের ল্যাপটপ সাধারণ ল্যাপটপ থেকে দেখতে আকর্ষনীয় এবং হালকা।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, দেশে জেনবুকের অনেকগুলো মডেল পাওয়া যাবে। তবে শুরুটা হচ্ছে ইউ এক্স ৪১০ মডেল দিয়ে। এর বিশেষত্ব হচ্ছে ডিসপ্লের দুপাশে ৬ মিলিমিটার ব্যাজেল রয়েছে। ফলে এর স্ক্রিন বডি অনুপাত ৮০ শতাংশ।

মাত্র ১.৪ কেজি ওজনের এই জেনবুকে আরও থাকছে ১৪ ইঞ্চির ফুল এইচডি ডিসপ্লে। এতে ব্যাকলিট কি-বোর্ড থাকায় কম আলোতেও নোটবুকটিতে টাইপ করা যাবে।

ইউএক্স ৪১০ মডেলের জেনবুকটি ৮ ঘণ্টা পর্যন্ত ব্যাটারি ব্যাকআপ দিতে সক্ষম। ফুল মেটাল বডির আল্ট্রাবুকটি ইন্টেল এর সপ্তম প্রজন্মের কোর আই থ্রি বা কোর আই ফাইভ দুটি প্রসেসর দিয়েই মিলবে।

কোয়ার্টজ গ্রে আর গোল্ড দুটি আকর্ষণীয় রঙ থেকে ক্রেতারা তাদের পছন্দসই নোটবুকটি পছন্দ করে নিতে পারবেন।

জেনবুকের মোট ১২ টি মডেল থেকে ক্রেতারা ইউএক্স সিরিজের ডিভাইস বেছে নিতে পারবেন। এই সিরিজের মূল্য শুরু হবে ৪৭ হাজার টাকা থেকে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আসুসের কান্ট্রি ম্যানেজার আল ফুয়াদ, আসুসের পরিবেশক গ্লোবাল ব্র্যান্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রফিকুল আনোয়ার, পরিচালক জসিম উদ্দিন খোন্দকারসহ আরও অনেকে।

ইমরান হোসেন মিলন

বাজারে আসুসের নতুন গ্রাফিক্স কার্ড

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আসুস ব্র্যান্ডের এনভিডিয়ার জিটিএক্স-১০ সিরিজের গ্রাফিক্স কার্ড ইএক্স-জিটিএক্স১০৫০টিআই-ও৪জি বাজারে এসেছে। দেশের বাজারে গ্রাফিক্স কার্ডটি নিয়ে এসেছে আসুসের পরিবেশক গ্লোবাল ব্র্যান্ড প্রাইভেট লিমিটেড।

এই গ্রাফিক্স কার্ডটিতে একটি ডিভিআই, একটি এইচডিএমআই এবং একটি ডিসপ্লে পোর্ট রয়েছে। এর মেমোরি ইন্টারফেস ১২৮ বিট, মেমোরি ক্লক ৭০০৮ মেগা হার্জের কুডা কোর ৭৬৮।

Grafix card-GB-Techshohor

গ্রাফিক্স কার্ডটিতে নতুন প্রযুক্তির ফ্যান ব্যবহার করা হয়েছে যা আগের তুলনায় দ্বিগুণ টেকসই এবং এটি সহজে গরম হয় না।

অতিরিক্ত পাওয়ার সাপ্লাই প্রয়োজন হয় না বলে যেকোনো সাধারণ পিসিতেও কার্ডটি ব্যবহার করা যায়।

গ্রাফিক্স কার্ডটির মূল্য ১৭ হাজার ৫০০ টাকা। সঙ্গে পাওয়া যাবে দুই বছরের রিপ্লেসমেন্ট ওয়ারেন্টি।

ইমরান হোসেন মিলন

দেশে কিউন্যাপ ডুয়াল কনট্রোলার স্টোরেজ সার্ভার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গ্লোবাল ব্র্যান্ড প্রাইভেট লিমিটেড বাজারে এনেছে কিউন্যাপ ব্র্যান্ডের প্রথম ডুয়াল কনট্রোলার বেইস্ড নেটওয়ার্ক এটাচ্ড স্টোরেজ সার্ভার।

এই ব্র্যান্ডের স্টোরেজ সার্ভারটি দেশে প্রথম আনলো প্রতিষ্ঠানটি। মূলত এটি একটি হাইপার কনভার্জড এন্টারপ্রাইজ নেটওয়ার্ক স্টোরেজ। যার মডেল টিডিএস-১৬৪৮৯ইউ।

Sarver-global-Techshohor
কিউন্যাপ টিডিএস-১৬৪৮৯ইউ এ আছে ডুয়াল ইন্টেল জিওন ই-৫ প্রসেসর। সঙ্গে এক টেবারাইট র‌্যাম সম্প্রসারণের সুবিধা। এছাড়াও এই স্টোরেজগুলোতে রয়েছে ৪০ জিবিই রেডি নেটওয়ার্ক পোর্ট (এস.এফ.পি প্লাস)।

মূলত স্টোরেজটি ডিজাইন করা হয়েছে বিগ ডাটা কম্পিউটিং এবং বিভিন্ন ধরনের মিশনে ক্রিটিক্যাল টাস্ক সম্পন্ন করার জন্য। এতে এন্টারপ্রাইজ নেটওর্য়াক স্টোরেজ ফিচারও রয়েছে। সঙ্গে  ১২ জিপি/এস স্যাস ড্রাইভার্স এবং ৪০ জিবিই সমন্বিত নেটওয়ার্ক পোর্ট।

গ্লোবাল ব্র্যান্ড এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, টি.ডি.এস ১৬৪৮৯ইউ ব্যবসার জন্য একটি দক্ষ, আকার পরিবর্তনযোগ্য এবং অতুলনীয় ইউনিফাইড স্টোরেজ সলিউশন প্রোডাক্ট। এর ন্যাস ও আইপি স্যান প্রোটোকল সম্পন্ন করবে ডাটা স্টোরেজ, ফাইল এবং ব্লক ডাটা শেয়ারিং ব্যাকআপ কার্যক্রম খুবই দক্ষতার সাথে।

৫ বছরের ওয়ারেন্টিসহ স্টোরেজ সার্ভারটি পাওয়া যাচ্ছে গ্লোবাল ব্র্যান্ডের প্রধান শাখায়।

ইমরান হোসেন মিলন

সিপি-প্লাসের সিকিউরিটি পণ্য আনল গ্লোবাল ব্র্যান্ড

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশে জার্মান প্রযুক্তির সিকিউরিটি পণ্য আনল গ্লোবাল ব্র্যান্ড প্রাইভেট লিমিটেড। জার্মানির ব্র্যান্ড সিকিউরিটি অ্যান্ড সারভাইলেন্স বা সিপি-প্লাসের তিনটি পণ্য নিয়ে তারা দেশে যাত্রা শুরু করেছে।

রোববার রাজধানীতে একটি অনুষ্ঠান করে পণ্যগুলো উন্মোচন করেছে গ্লোবাল ব্র্যান্ড।

GB_CP_TECHSHOHOR
পণ্য উন্মোচন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গ্লোবাল ব্র্যান্ডে চেয়ারম্যান আবদুল ফাত্তাহ, গ্লোবালব্র্যান্ডের এমডি রফিকুল আনোয়ার, গ্লোবাল ব্র্যান্ডের ডিরেক্টর জসিমউদ্দিন খন্দকার, সিপি-প্লাসের মার্কেটিং ম্যানেজার অক্ষয় আরোরা ও গ্লোবালব্রান্ডের সিপি-প্লাস পণ্যের প্রোডাক্ট ম্যানেজার আবু সালেহ মুহাম্মদ জুবায়ের।

অনেকেই পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে নিকট সিপি-প্লাসের পণ্যের গুণাগুন বর্ণনা করেন।

ইমরান হোসেন মিলন

প্রিয়শপে পাওয়া যাচ্ছে গ্লোবাল ব্র্যান্ডের প্রযুক্তিপণ্য

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রযুক্তিপণ্য পরিবেশক প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ব্র্যান্ড (প্রা.) লিমিটেডের সবগুলো প্রযুক্তিপণ্য অনলাইন কেনাকাটার সাইট প্রিয়শপ ডটকমে পাওয়া যাবে।

গ্লোবাল ব্র্যান্ডের চেয়ারম্যান আবদুল ফাত্তাহ ও প্রিয়শপ ডটকমের প্রধান নির্বাহী আশিকুল আলম খাঁন সম্প্রতি এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠান দুটির পক্ষে একটি চুক্তি করেছে।

এই চুক্তির ফলে প্রিয়শপ থেকে খুচরা মূল্যে গ্লোবাল ব্র্যান্ডের প্রযুক্তিপণ্য ল্যাপটপ, ডেস্কটপ, ট্যাব, মোবাইলফোন, অ্যান্টিভাইরাস নানা ধরনের অ্যাক্সেসোরিজসহ বিভিন্ন পণ্য কিনতে পারবেন।

priyoshop
প্রিয়শপ ডটকমের প্রধান নির্বাহী আশিকুল আলম খাঁন বলেন, ক্রেতারা অনলাইনে কোনও ঝামেলা ছাড়াই তাদের পছন্দের ইলেকট্রনিক পণ্য একই ওয়ারেন্টিসহ অর্ডার করতে পারবেন। এই চুক্তির ফলে বাংলাদেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে ক্রেতারা সংশ্লিষ্ট ব্র্যান্ডের পণ্য কিনতে পারছেন।

এছাড়া শিগগিরই যাতে গ্রাহকরা বিভিন্ন ব্যাংকের কার্ড এবং মার্চেন্ট কার্ড ব্যবহার করে কিস্তিতে (সুদ ছাড়া) পণ্য কিনতে পারেন তারও ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান আশিকুল আলম খাঁন।

গ্লোবাল ব্র্যান্ডের সব প্রযুক্তি পণ্য কিনতে হলে ভিজিট করুন এই ঠিকানায়। অথবা সাইটে ঢুকে গ্লোবাল ব্র্যান্ডের লিংকে ক্লিক করেও পণ্য কিনতে পারবেন ক্রেতারা।

ইমরান হোসেন মিলন

কম্পিউটার ভিলেজে আসুস ব্র্যান্ড উইক

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রযুক্তি ব্র্যান্ড আসুস এবং প্রযুক্তিপণ্য বিক্রয় প্রতিষ্ঠান কম্পিউটার ভিলেজ যৌথ ব্যবস্থাপনায় ঢাকা ও চট্টগ্রামে আয়োজন করেছে ‘আসুস ব্র্যান্ড উইক ২০১৬।

৬ আগস্ট শুরু হওয়া এই আয়োজনে আসুস ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ, ব্র্যান্ড পিসি, নেটওয়ার্কিং পণ্য, ট্যাবলেট পিসিসহ সব ধরনের প্রযুক্তিপণ্য যা পাওয়া যাবে বিশেষ ছাড়ে।

Asus-global-techshohor
এছাড়াও আসুসের পণ্যক্রয়ে থাকছে আকর্ষণীয় উপহার। আসুস ব্র্যান্ড উইক চলবে ১২ই আগস্ট পর্যন্ত।

আর এই আয়োজনের সমন্বয় করেছে আসুসের বাংলাদেশের পরিবেশক গ্লোবাল ব্র্যান্ড।

ইমরান হোসেন মিলন

শিক্ষার্থী বান্ধব আসুসের ল্যাপটপ বাজারে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শিক্ষার্থীদের কথা মাথায় রেখে স্বল্প বাজেটের আসুস ল্যাপটপ বাজারে এনেছে প্রযুক্তিপণ্য পরিবেশক প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ব্র্যান্ড (প্রা.) লিমিটেড।

ইন্টেল সেলেরন ডুয়েল কোর প্রসেসরের ‘আসুস এক্স৪৫৩এসএ-এন৩০৫০’ মডেলের ল্যাপটপটি বাজারে বিক্রিও শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

দুই জিবি ডিডিআর৩ র‍্যাম ও ৫০০ জিবি হার্ডডিস্ক ড্রাইভের ল্যাপটপটিতে রয়েছে ১৪ ইঞ্চির ফুল এইচডি এলিডি ডিসপ্লে।

Asus-Laptop-techshohor
এক টেরাবাইট সাটা হার্ডডিস্কের ল্যাপটপটি অবশ্য এক রঙা। শুধু কালো রঙের এই ল্যাপটপটি দেশের বাজারে দুই বছরের ওয়ারেন্টি দিয়ে বিক্রি করছে গ্লোবাল ব্র্যান্ড।

শিক্ষার্থী বান্ধব ল্যাপটপটির দাম রাখা হয়েছে ১৯ হাজার ৯৯৯ টাকা।

ইমরান হোসেন মিলন

দেশের বাজারে ডেল ভস্ত্র ৩৪৫৯ ল্যাপটপ

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের বাজারে বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ড ডেল নতুন ভস্ত্র ৩৪৫৯ মডেলের একটি ল্যাপটপ নিয়ে এসেছে। দেশে পরিবেশক প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ব্র্যান্ড (প্রা.) লিমিটেড এটি বাজারজাত করবে।

ষষ্ঠ প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই ফাইভ ল্যাপটপটিতে রয়েছে ২.৩ গিগাহার্জ গতির প্রসেসর, চার জিবি ডিডিআর৩ র‍্যাম এবং ৫০০ জিবি হার্ডডিস্ক।

Dell-Vostro-techshohor
১৪ ইঞ্চির ডিসপ্লের সঙ্গে ফোর সেল ব্যাটারি। ইন্টেল এইচডি ৫০২ গ্রাফিক্স কার্ড। এছাড়াও ওয়াইফাই, ব্লুটুথ, এইচডি ওয়েবক্যাম রয়েছে।

গ্লোবাল ব্র্যান্ড ল্যাপটপটি বিক্রি করবে ৪৮ হাজার ৭৬০ টাকায়। যাতে রয়েছে তিন বছরের ওয়ারেন্টি। তবে এর ব্যাটারি ওয়ারেন্টি এক বছর বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

ইমরান হোসেন মিলন

দেশে কারখানা করার পরিকল্পনা আইটেলের

স্বল্প দামে উন্নতমানের পণ্যের প্রতিশ্রুতিতে দেশে যাত্রা শুরু করলো চীনা মোবাইল ব্র্যান্ড আইটেল। নতুন এ হ্যান্ডসেট নিয়ে কথা বলেছেন ব্র্যান্ডটির কান্ট্রি ম্যানেজার শ্যামল সাহা। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন ইমরান হোসেন মিলন।

টেকশহর : দেশের বাজারে অনেক ব্র্যান্ডের ফোন রয়েছে। তারপরও কেনো নতুন ব্র্যান্ড?

শ্যামল সাহা : হ্যাঁ, বাজারে এখন অনেক ব্র্যান্ডের ফোন আছে। তবে মানুষের চাহিদাও কিন্তু বেশি। সেই চাহিদার মধ্যে আছে কম দামে ভালো মানের ফোন। আমরা গ্রাহকদের সেই চাহিদা পূরণ করতেই দেশে আইটেল মোবাইলের যাত্রা শুরু করেছি।

টেকশহর : বাজারে ইতোমধ্যে প্রতিষ্ঠিত ব্র্যান্ডের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে পারবে আইটেল?

শ্যামল সাহা : আমরা আসলে প্রতিযোগিতায় যাবো না। আমাদের মতো করে দেশের মানুষের কাছে পৌঁছাতে চেষ্টা করছি। তবে একটা টার্গেটতো থাকেই। সেটা সামনে রেখেই বাজারে নেমেছি। আশা করছি কয়েক বছরের মধ্যে দেশের প্রথমসারির ব্র্যান্ডগুলোর কাতারে উঠে আসবো।

টেকশহর : দেশের বাজারে আপনাদের বিনিয়োগ কেমন?

শ্যামল সাহা : দেশে এর শুরুর কার্যক্রম বলতে গেলে বছর খানেক আগের। অফিস, কাস্টমার কেয়ার সেন্টার, সাব অফিস, কর্মী নিয়োগসহ নানা কার্যক্রমে একটা বড় বিনিয়োগ রয়েছে।

টেকশহর : ভবিষ্যতে এই ফোন দেশে তৈরির কোনো পরিকল্পনা আছে কী?

শ্যামল সাহা : দেখুন আমরা কিন্তু উৎপাদক ও বিপণন প্রতিষ্ঠান। আমাদের গবেষণা ও উন্নয়ন সেন্টারে কাজ হয়, সেগুলো থেকে সেট তৈরি, এর মান নিয়ন্ত্রণ, বিভিন্ন দেশে বিপণন এমনকি বিক্রয়ত্তোর সেবাটাও আমরাই দিয়ে থাকি। এখন মোট পাঁচটি উৎপাদন কারখানা থাকলেও পার্শ্ববর্তী দেশে ভারতে আরও কয়েকটি কারখানা তৈরির কথা চলছে। এরপর বাংলাদেশেও কারখানা তৈরির পরিকল্পনা আছে।

Shaymol-itel-techshohor

টেকশহর : গ্রাহকরা এই ফোনে কী সুবিধা পাবে?

শ্যামল সাহা : আইটেল বিশ্বে ফিচার ফোনের জন্য অধিক পরিচিত। প্রথমত এই সেটের ব্যাটারি ক্ষমতা বেশি। আর স্বল্প দাম হওয়াতে সব শ্রেণির গ্রাহক এটা কিনতে পারবেন। বাংলাদেশে আইটেল মোবাইলের দাম শুরু হয়েছে মাত্র ৮৭০ টাকা থেকে। আর সর্বোচ্চ ছয় হাজার ৪০০ টাকা পর্যন্ত। তবে দাম কম হলেও ফোনগুলোতে সেলফি ক্যামেরা রয়েছে।

টেকশহর : ঢাকার বাইরের গ্রাহকদের বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন কেন?

শ্যামল সাহা : দেশের অধিকাংশ মানুষ কিন্তু এখনো গ্রামে বাস করে। তাদের প্রায়োরিটি দিচ্ছি আমরা। তাই প্রত্যন্ত এলাকা থেকেই কাজ শুরু করেছি। উত্তরাঞ্চলকে এখন বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি দেশের দক্ষিণাঞ্চলেও এর কার্যক্রম প্রসারিত করা হয়েছে। ঢাকার আশেপাশেও আমাদের কাজ চলছে।

টেকশহর : আপনাকে ধন্যবাদ।

শ্যামল সাহা : টেকশহরকেও ধন্যবাদ।

দেশে মোবাইল ফোনের নতুন ব্র্যান্ড আইটেল

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশে মোবাইল ফোনের নতুন ব্র্যান্ড হিসেবে যাত্রা শুরু করেছে আইটেল মোবাইল। চার মাস আগে দেশে তাদের কার্যক্রম শুরু করলেও বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিল তারা।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) সংবাদ সম্মেলন করে দেশে আইটেল মোবাইলের যাত্রার কথা ঘোষণা দেয় ট্রানশন হোল্ডিং নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

দেশে আইটেল মোবাইলের বিপণন কার্যক্রম পরিচালনা করবে গ্লোবাল ব্র্যান্ড (প্রা.) লিমিটেড

itel Mobile-techshohor
প্রাথমিক অবস্থায় ছয়টি মডেলের ফোন নিয়ে এসেছে আইটেল। যার মধ্যে চারটি ফিচার এবং দুটি স্মার্টফোন। এগুলোর দাম ৮৭০ টাকা থেকে শুরু হয়ে ৬ হাজার ৪০০ টাকা পর্যন্ত।

উন্নত প্রযুক্তি ও পণ্যের গুণগত মান নিশ্চিত করে দেশের প্রত্যন্ত এলাকা থেকে এই মোবাইল তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন আইটেল মোবাইলের বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার শ্যামল সাহা।

শ্যামল সাহা টেকশহরডটকমকে বলেন, অন্যদের চেয়ে আমাদের বিশেষত্ব হচ্ছে আমরা নিজেরাই এই ফোন উৎপাদন, বিপণন ও বিক্রয়োত্তর সেবা দিয়ে থাকি। বলতে গেলে এটা একেবারেই আমাদের ফোন।

তিনি বলেন, আমাদের মার্কেটিং কৌশল অন্যদের চেয়ে ভিন্ন। আমরা একেবারে রুট লেভেল থেকে কাজ শুরু করেছি। এরই ধারাবাহিকতায় দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোতে এই কার্যক্রম জোরেশোরে শুরু হয়েছে। সেখানে ১০ জেলায় কাস্টমার সেন্টারও চালু করা হয়েছে।

আইটেল মোবাইল মূলত চীনা ব্র্যান্ড। চীনে তিনটি, আফ্রিকায় দুটি উৎপাদন কারখানা রয়েছে ব্র্যান্ডটির। আর বিশ্বের ৪০টির অধিক দেশে এই ব্র্যান্ড তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বিশেষ করে আফ্রিকার দেশগুলোতে আইটেল মোবাইল বেশি পরিচিত।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আইটেলের সেলস ম্যানেজার স্টিফেন ও জেরি হি সহ অন্যান্যরা।

ইমরান হোসেন মিলন

আরও পড়ুন: 

ঝুঁকিতে বাংলাদেশ, ফুলছে ইন্টারনেট সিকিউরিটির ব্যবসা

ইমরান হোসেন মিলন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশে মোট স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর ২৭.৬ শতাংশ ম্যালওয়ারে আক্রান্ত। এই আক্রান্তের হার বিবেচনায় বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্বে দ্বিতীয়।

অন্যদিকে কম্পিউটার ম্যালওয়ারে আক্রান্তের দিক থেকে বাংলাদেশ সপ্তম। আর দেশের ৬৩ শতাংশ কম্পিউটার এই ম্যালওয়ারে আক্রান্ত।

সম্প্রতি ইন্টারনেট সিকিউরিটি সেবাদাতা রাশিয়ান প্রতিষ্ঠান ক্যাসপারেস্কির ২০১৬ সালের প্রথম প্রান্তিকের বৈশ্বিক একটি সমীক্ষার ফলাফলে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

Antivirus-techshohor

এই তথ্যগুলোকে কাজে লাগিয়েই বিভিন্ন ইন্টারনেট সিকিউরিটি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান দেশে অ্যান্টিভাইরাসের বাজার তৈরিতে তাদের কার্যক্রম জোরালো করেছে। আর বাজার তৈরিতে প্রতিষ্ঠানগুলোর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের বাংলাদেশে আনাগোনাও বেড়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে ফুলেফেঁপে উঠছে কোম্পানিগুলোর ব্যবসা।

এছাড়াও সম্প্রতি দেশের বেশকিছু প্রতিষ্ঠানে সাইবার আক্রমণের ফলে ইন্টারনেট সিকিউরিটির বিষয়টি সামনে এসেছে।  সবদিক বিবেচনা করে ইন্টারনেট সিকিউরিটি প্রতিষ্ঠানগুলো বাংলাদেশে তাদের আনাগোনা ও কর্মকাণ্ড বাড়িয়ে দিয়েছে।

সম্প্রতি বাংলাদেশে এসেছিলেন জার্মান প্রতিষ্ঠান অ্যাভিরার এশিয়া ও মধ্য আরবের বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার প্রদীপ্ত ভৌমিক।

বৈশ্বিক বিবেচনায় অ্যাভিরা অ্যান্টিভাইরাস ও সিকিউরিটি সেবায় এখন এক নম্বরে জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে ম্যালওয়ারে আক্রান্ত হওয়ার পরিমাণ বেশি। তবে সবকিছুর আগে দরকার সচেতনতা। আমরা ডিস্ট্রিবিউটর স্মার্ট টেকনোলজিসের সঙ্গে বাংলাদেশে সিরিউরিটি সচেতনতায় নানা কার্যক্রম হাতে নিচ্ছি। এর জন্য প্রতিষ্ঠানটি বিরাট অংকের টাকা বিনিয়োগ করছে বলেও জানান তিনি।

অ্যাভিরা বাংলাদেশে গ্রাহক বিবেচনায় তিন-চারে অবস্থান করছে বলে জানান স্মার্ট টেকনোলজিসের জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) মুজাহিদুল আর বিরুনী সুজন।

তিনি বলেন, এখন দেশে অ্যাভিরার ভালো একটা বাজার রয়েছে। তবে ঠিক কতোটা বাজার অ্যাভিরা দখল করে আছে তা ব্যবসায়িক প্রতিবন্ধকতায় না বললেও জানান, স্মার্ট টেকনোলজিস যেসব কম্পিউটার বিক্রি করে তার সঙ্গে অ্যাভিরা বিনামূল্যে দেওয়া হচ্ছে। আর এর বাইরেও মাসে কয়েক হাজার অ্যাভিরা অ্যান্টি ভাইরাস বিক্রি করে স্মার্ট।

সাত থেকে আট লাখ গ্রাহক নিয়ে বাংলাদেশে ক্যাসপারেস্কির অবস্থান এখন প্রথম বলে দাবি করেন ক্যাসপারেস্কি বাংলাদেশ ও ভুটানের পরিবেশক অফিস এক্সট্র্যাক্টসের প্রধান নির্বাহী প্রবীর সরকার।

তবে হঠাৎ করেই দেশে ইন্টারনেট সিকিউরিটি ও অ্যান্টিভাইরাসের কার্যক্রম বেড়ে যাওয়ার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে প্রবীর সরকার টেকশহরডটকমকে বলেন, দেশের বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানে কোনো সিকিউরিটি এক্সপার্ট কর্মকর্তা নেই। এজন্য কম্পিউটারের তথ্য সুরক্ষা রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। সেই সিকিউরিটির কাজ এখন আমরা কিছুটা হলেও করতে পারছি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে এখনো ক্যাসপারেস্কি এন্ট্রি লেবেলে কাজ করছে। মূল কাজ বলতে গেলে স্মার্টফোন ও কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের সচেতন করে তোলা। সেজন্য দেশে বেশকিছু ক্যাম্পেইনও পরিচালনা করা হচ্ছে।

আরেক অ্যান্টিভাইরাস ব্র্যান্ড পান্ডা দেশে জোর প্রচারণায় বাজার দখলে ব্যস্ত। ইতোমধ্যে দেশে পান্ডার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর নিয়োগও দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রযুক্তি পণ্য পরিবেশক প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ব্র্যান্ডের কর্মকর্তারা বলছেন, দেশে অ্যন্টিভাইরাসের বাজার তৈরি করতে অফার, ক্যাম্পেইনসহ বিভিন্ন কাজ করা হচ্ছে।

দেশে স্লোভাকিয়ান অ্যান্টিভাইরাস ই-সেট বিপণন করে স্টারটেক অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক মাহবুব আল রাকিব বলেন, দেশে আমরা প্রতিমাসে প্রায় দুই হাজার অ্যান্টিভাইরাস অ্যাক্টিভ করে থাকে। তবে এটি দিন দিন বাড়ছে।

দেশের বাজারে ই-সেটকে পরিচিত করাতে নানা ধরনের অফারসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের কম্পিউটারের সঙ্গে বিনামূল্যে দিচ্ছে বলেও জানান রাকিব।