নতুন গেইমিং ল্যাপটপ আনলো এসার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাজারে এসার ভিএক্স১৫ মডেলের নতুন গেইমিং পিসি নিয়ে এসেছে পরিবেশক প্রতিষ্ঠান স্মার্ট টেকনোলজিস (বিডি) লিমিটেড।

ইন্টেল সপ্তম প্রজন্মের ৭৭০০এইচকিউ মডেলের কোর আই সেভেন প্রসেসরের  ল্যাপটপটিতে রয়েছে আট জিবি ডিডিআর৪ র‌্যাম, এনভিদিয়া জিফোর্স জিটিএক্স ১০৫০ মডেলের ৪ জিবি গ্রাফিক্স কার্ড।

Acer-Laptop-Gaming-Techshohor

১২৮ জিবি এসএসডি, এক টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ। রয়েছে ১৫ দশমিক ৬ ইঞ্চি ফুল এইচডি আইপিএস ডিসপ্লে।

এছাড়াও ব্লটুথ, ওয়াইফাই এবং ব্যাকলিট কীবোর্ড রয়েছে ল্যাপটপটিতে।

২ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবাসহ ল্যাপটপটির দাম ৯৭ হাজার ৫০০ টাকা।

ইমরান হোসেন মিলন

গেইমিংয়েও বিশ্ব মাতাবে বাংলাদেশ

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : স্মার্টফোনে অনেক গেইম বিনামূল্যে কয়েক ক্লিকে ডাউনলোড করে খেলা হয়। কিন্তু যে সকল প্রতিষ্ঠান গেইমগুলো তৈরি করেন তাদের লাভ কি? কিভাবে গেইমিং প্রতিষ্ঠানগুলো মুনাফা পায় কিংবা কিভাবে গেইম তৈরি করা যায় ? গেইমিংয়ে বাংলাদেশের ভবিষ্যত গন্তব্য কোথায়?- এমনি নানা প্রশ্নের উত্তর মিলল বেসিস সফটএক্সপোর ‘আইডিয়া ওয়ার্কশপ ফর গেইম ডেভেলপমেন্ট’ সেমিনারে।

সফটএক্সপোর দ্বিতীয় দিনে সেলিব্রেটি হলে এই সেমিনারে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সুশান্ত কুমার সাহা বলেন, সরকার দেশের গেইমিং খাতকে এগিয়ে নেয়ার জন্য অনেক প্রকল্প গ্রহণ করেছে। তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ হতে গেইমিং প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া আইডিয়া নিয়েও আরেকটি প্রকল্পের কাজ চলছে সেখানে যে কেউ তাদের আইডিয়া শেয়ার করতে পারবে।

softexpo-techshohor

ড্রিম ৭১ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাশাদ কবির বলেন, গেইমিং থেকে মূলত দুইটি উপায় মুনাফা পাওয়া যায়। প্রথমত  বিজ্ঞাপন এবং দ্বিতীয়ত ইন পারচেজের মাধ্যমে।

উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘আমরা যখন গেইম খেলি তখন কোনো লেভেল পার করার পর নানা ভিডিও প্রদর্শিত হয় কিংবা এড দেখা যায়। এছাড়া গেইম খেলার সময় বিভিন্ন টুলস কিনতে হয়। যা হতে গেইমিং প্রতিষ্ঠানগুলোর আয় হয়।’

আইটিআইডব্লিউ’য়ের প্রধান নিবার্হী তানভীর আহমেদ বলেন, ‘বর্তমান সময়ে গেইমিং একটি জনপ্রিয় খাত। এই খাত বাংলাদেশের যাত্রা খুব বেশি দিনের নয়। এখনো দেশে অনেক গেইমিং প্রতিষ্ঠান কিংবা স্টার্টআপের প্রয়োজন আছে। আমাদের দেশে এ খাতটির দারুণ ভবিষ্যত সামনে।

সেমিনারের বিশেষ অতিথি এটুআই পরিচালক(ইনোভেশন) মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,‘অনেকেরই গেইমসের আসক্তি রয়েছে। এই আসক্তি কাজে লাগিয়েও আমরা গেইমিং মাকের্ট ক্যাপচার করতে পারছি না। এর কারণ আমরা ডিমান্ড নিয়ে না ভেবেই সাপ্লাই নিয়ে কাজ করি। কিন্তু গেমস ডেভেলপমেন্টের শুরুতেই ব্যবহারকারীর ডিমান্ড বুঝতে মার্কেট রিসার্চ করতে হবে। গেইমস ডেভেলপমেন্ট করার জন্য প্রথমেই আইডিয়া জেনারেশন করতে হবে। আর আইডিয়া পাওয়ার জন্য আউটবক্স চিন্তা করতে হবে। আমাদের দেশের সংস্কৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে গেইমের আইডিয়া ভাবতে হবে।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বেসিসের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং আইবিসিএস-প্রিমিক্স সফটওয়্যার(বিডি) লিমিটেডের কর্ণধার এ তৌহিদ।

তিনি বলেন, গেইমসের আন্তর্জাতিক বাজার অনেক বিস্তৃত। দেশেও এর চাহিদা রয়েছে। ভালো গেইমস ডেভেলপমেন্টের জন্য বেসিসের পক্ষ থেকে সব রকমের সহায়তা দেয়া হবে। তরুণ ডেভেলপারদের আইডিয়াগুলো বাস্তবায়ন করতে সরকারের সঙ্গে একযোগে কাজ করছে বেসিস।

সেমিনারে গেইমসের আইডিয়া ডেভেলপমেন্ট নিয়ে দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন রাইস আপ ল্যাবসের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরশাদুল হক, ম্যাসিভ স্টারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মাহবুবুল আলম, ৮ পিয়াস সলিউশন্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ শাহজালাল, গেইম ওভার স্টুডিও এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জামিলুর রশিদ, ড্রিম ৭১ বাংলাদেশে লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাশেদ কবীর, পোর্ট ব্লিসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাশা মুস্তাকিম।

ভিডিও গেইমিংয়ে বাংলাদেশের ভারত জয়

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বিশ্বের অন্যতম ভিডিও গেইম টুর্নামেন্ট আয়োজনকারী দ্য ইলেক্টোনিক স্পোর্টস লিগ (ইএসএল) এর ইন্ডিয়া প্রিমিয়ারশিপ জিতেছে বাংলাদেশের গেইমিং দল দি কাউন্সিল।

ভারতের বেঙ্গালুরুতে ১১ থেকে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ‘ইএসএল ইন্ডিয়া প্রিমিয়ারশিপ চ্যালেঞ্জার ২’ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হিসেবে দলটি ট্রফি ও দেড় লাখ রুপি পুরস্কার পায়।

ESL2.techshohor

পাঁচ সদস্যদের দলটির সদস্য ফারহান ইসলাম টেকশহরডটকমকে জানান, বিশ্বের প্রায় ১২০০ দল হতে ওই গেইমিং টুর্নামেন্টের চূড়ান্ত পর্বে অংশ নেয়ার সুযোগ পায় ৮টি দল। এর মধ্যে ৭টিই ভারতের।

ডটা২’ গেইমভিত্তিক এ প্রতিযোগিতায় তারা ভারতের ওরাম পো দলকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

দলটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন রাহিব রেজা (দলনেতা), আইমান ইকবাল, জুন্নুন ইকবাল এবং মহিউদ্দিন রাহমান।

ESL3.techshohor

ইএসএল এর সদস্য সংখ্যা ছয় মিলিয়নের মতো। বিশ্বজুড়ে এই ছড়িয়ে থাকা গেইমাররা এর বিভিন্ন টুর্নামেন্টে অংশ নিয়ে থাকেন।

ইএসএল ইন্ডিয়া প্রিমিয়ারশিপ গেইমারদের জন্য বেশ সম্মানজনক প্রতিযোগিতা। এতে ভারতের মতো দেশের দলগুলোর আধিপত্যকে খর্ব করে বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়ন হওয়াটাকে দারুণ কৃতিত্ব হিসেবে দেখছেন দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের নেতারা।

আল-আমীন দেওয়ান

গেইম-অ্যাপসে ১০ হাজার ডেভেলপার তৈরির প্রস্তুতি শুরু

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শত কোটি ডলারের গেইম ও অ্যাপের বিশ্ববাজার ধরতে প্রস্তুতি শুরু করেছে সরকার। এ জন্য বেসরকারি খাতের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করার কথা জানিয়েছেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

তারই পূর্বপ্রস্তুতি হিসেবে রোববার ‘মোবাইল গেইমের বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের প্রস্তুতি’ নিয়ে একটি ব্রিফিংও করেছেন প্রতিমন্ত্রী।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) মিলনায়তনে ওই ব্রিফিংয়ে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, চলতি বছরে বিশ্ববাজারে মোবাইল গেইমের ৯৯ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার। যেখানে মোবাইল গেইমের বাজার রয়েছে ৩৬ দশমিক ৯ বিলিয়ন ডলার। সেই বাজার ২০১৮ সালের মধ্যে ১১৩ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করবে। যেখানে ৪৪ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলার আসবে শুধু মোবাইল গেইম থেকে।

App-Mobile game-techshohor
সেই বড় বাজারে বাংলাদেশকে নেতৃত্বস্থানীয় অবস্থানে নিয়ে যেতে সরকারি ও বেসরকারি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ২৮২ কোটি টাকার ‘মোবাইল গেইম ও অ্যাপ্লিকেশনের দক্ষতা উন্নয়ন’ প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে ১০ হাজার ডেভেলপার তৈরিসহ নানা ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান  জুনাইদ আহমেদ পলক।

সেই প্রস্তুতি হিসেবে প্রকল্পটির আওতায় দেশের সাতটি বিভাগীয় পর্যায়ে মোবাইল অ্যাপস এবং গেইম ডেভেলপমেন্ট একাডেমি, ৩০টি জেলার স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মোবাইল গেইম ও অ্যাপ ল্যাব, অ্যাপ টেস্টিং ল্যাব ও ট্রেনিং পয়েন্ট স্থাপন করা হবে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী পলক।

এজন্য পূর্ণাঙ্গ অ্যাপস ডেভেলপার হিসেবে আট হাজার ৭৫০ জনকে এবং গেইমিং অ্যানিমেটর হিসেবে দুই হাজার ৮০০ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বলে।  এসব কাজে সরকারকে সহযোগিতা করবে বাংলাদেশষ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) সহ বেসরকারি খাতের বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান।

এছাড়াও প্রকল্পে অধীনে অনলাইন কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স টেস্টিং ও বাছাইকরণ, ইন্ডাস্ট্রিতে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি, স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানকে সহযোগিতা, ভেঞ্চার সংশ্লিষ্ট উদ্যোগ ও কার্যক্রমে সহায়তা করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্ধৃত করে পলক বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে যারা আছেন তাদের নিয়ে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ইন্ডাস্ট্রিকে নতুনভাবে গড়ে তুলতে হবে।

দেশে মেধাবী লোকের ঘাটতি নেই এবং সরকার সবসময় এসব বিষয়ে আন্তরিক জানিয়ে বলেন, মোবাইল ও অ্যাপ ডেভেলপার যারা আছেন তারা এটিকে আপনাদের প্রকল্প ভেবে এই সুযোগটা গ্রহণ করবেন। আর আমাদের জনগণের কষ্টার্জিত প্রত্যেকটি পয়সা আপনারা সঠিকভাবে ব্যবহার করবেন।

জনগণের ২৮২ কোটি টাকা সঠিকভাবে ব্যবহার করে যেন দুই হাজার ৮২ কোটি টাকার ইন্ডাস্ট্রি তৈরি করা সম্ভব হয় এবং মোবাইল গেইমে বিশ্বদরবারে দেশের নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্য নিয়ে এগোনোর জন্য সেমিনারের আয়োজন বলে জানান প্রতিমন্ত্রী।

এ আগে গত ১৪ জুন মোবাইল গেইম ও মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন বা অ্যাপ উন্নয়নে ল্যাব স্থাপনের উদ্যোগ নিয়ে ২৮২ কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদন করে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি(একনেক)।

সেসময় পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল দেশের ১১ কোটি মোবাইল ব্যবহারকারীর কথা মাথায় রেখে ‘মোবাইল গেইম ও অ্যাপস ল্যাব’ স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে, যা ২০১৮ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানান।

ব্রিফিং এ উপস্থিত ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার, অতিরিক্ত সচিব সুশান্ত কুমার সাহা, বেসিস জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, ভেঞ্চার ক্যাপিটালের পার্টনার শামীম আহসান, তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মুনির হাসানসহ আরও অনেকে।

ব্রিফিংয়ের পরে ‘মোবাইল অ্যাপস ও গেইমিং ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে অগ্রযাত্রা’ শিরোনামে একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ইমরান হোসেন মিলন

দামি তবুও বিক্রি বাড়ছে গেইমিং ল্যাপটপের

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সর্বশেষ খবর অলিম্পিকে যুক্ত হচ্ছে ই-গেইম। এটিই প্রমাণ করে ভিডিও গেইম এখন বিনোদনের উৎস। ছোট বড় সব বয়সীরাই গেইমে মত্ত থাকেন বেশ একটা সময় জুড়ে। আর উন্নত গ্রাফিক্সের গেইম খেলতে প্রয়োজন ভালো মানের কম্পিউটার। তবে বর্তমানে ডেস্কটপের পরিবর্তে ল্যাপটপে গেইম খেলার আগ্রহ বাড়ছে। এ কারণে চাহিদাও বাড়ছে গেইমিং উপযোগী ল্যাপটপের।

রাজধানীর প্রযুক্তিবাজারগুলো ঘুরে দেখা গেছে, অন্যান্য সাধারণ ল্যাপটপের পাশাপাশি গেইমিং ল্যাপটপের বিক্রি বেড়েছে। বিক্রেতারা জানান, সাম্প্রতিক সময়ে শুধু কিশোর কিংবা তরুন নন, বড়দেরও এ ধরনের ডিভাইস কিনতে দেখা যাচ্ছে।

আইডিবি ভবনে আমির হোসেন নামের এক বিক্রেতা টেকশহরডটকমকে বলেন, একটা সময় গেইমিং ডেস্কটপের চাহিদা বেশি ছিল। সাম্প্রতিক সময়ে সে ধারা বদলে বিভিন্ন ব্র্যান্ড ল্যাপটপের বিক্রি বাড়ছে।

laptop-bazaar

বিক্রেতারা জানান, আসুস, এমএসআই, ডেল, এইচপি  ব্র্যান্ডের গেইমিং উপযোগী ল্যাপটপ ভালো বিক্রি হচ্ছে। র‍্যাম, প্রসেসর ও মাদারবোর্ডের ক্ষমতা বেশি এমন ল্যাপটপ কিনছেন বেশিরভাগ।

সিটি কলেজের শিক্ষার্থী রাব্বানি ইসলাম টেকশহরডটকমে জানান, তিনি মূলত গেইম খেলার জন্য ল্যাপটপ কিনতে এসেছেন। তার পছন্দের তালিকায় রয়েছে এমএসআই ব্র্যান্ডের ডিভাইসগুলো।

বাজার ঘুরে টেকশহরডটকমের পাঠকদের জন্য গেইমিং ল্যাপটপগুলো সম্পর্কে তুলে ধরা হলো। গত পর্বে সাশ্রয়ী দামে ল্যাপটপ সম্পর্কে তুলে ধরা হয়েছিলো।

মএসআই জিএস৬০ ২কিউডি
ফোরকে ডিসপ্লের গেইমিং ল্যাপটপ এটি। ১৫.৬ ইঞ্চি ডিসপ্লের রেজুলেশন হলো ৩৮৪০x২১৬০। প্রসেসর হিসেবে রয়েছে ৩.৭ গিগাহার্টজের ইন্টেল কোর আই৭ প্রসেসর।

উন্নত মানের গ্রাফিক্স সুবিধা দিতে রয়েছে দুই গিগাবাইট জিডিডিআর৫ এনভিডিয়া জিফোরস জিটিএক্স ৯৬৫এম গ্রাফিক্স কার্ড। ফলে যেকোনো গেইম চলবে অনায়াসে। গেইম খেলাকে আরও গতিময় করতে ল্যাপটপটিতে রয়েছে ১৬ গিগাবাইট র‍্যাম।

স্টোরেজ সুবিধার জন্য এতে রয়েছে ১ টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ ও ১২৮গিগাবাইট এসএসডি কার্ড। ব্যাটারি ব্যাকআপের জন্য রয়েছে ৬ সেল ব্যাটারি। মাল্টি কালার কিবোর্ড, ওয়াই-ফাইসুবিধাযুক্ত ল্যাপটপটির ওজন ২.৬ কেজি।

দেশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে এক লাখ ৫৯ হাজার ৯৯০ টাকায়।

 MSI_GS60_Ghost_05-1

এমএসআই জিটি৭২ ২কিউই ডোমেনাটর প্রো
১৭.৩ ইঞ্চির ডিসপ্লের ল্যাপটপটির রেজুলেশন ১৯২০x১০৮০। প্রসেসর হিসেবে রয়েছে চতুর্থ প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই ৭ প্রসেসর।

উন্নত মানের গ্রাফিক্স সুবিধা দিতে রয়েছে ৮ গিগাবাইট জিডিডিআর৫ এনভিডিয়া জিফোরস জিটিএক্স ৯৮০এম গ্রাফিক্স কার্ড। ফলে যেকোনো গেইম চলবে দারুণ।

গেইম খেলাকে আরও গতিময় করতে দুটি স্লটে রয়েছে ১৬ গিগাবাইট র‍্যাম। চাইলে এটি ৩২ গিগাবাইট পর্যন্ত বৃদ্ধি করা যাবে।

স্টোরেজ সুবিধার জন্য এতে রয়েছে ১ টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ ও ২৫৬ এসএসডি কার্ড। ব্যাটারি ব্যাকআপের জন্য রয়েছে ৯ সেল ব্যাটারি।

মাল্টি কালার কিবোর্ড, ওয়াই-ফাই সুবিধাযুক্ত ল্যাপটপটির ওজন ৩.৯ কেজি। এছাড়া রয়েছে ব্লুটুথ, এইচডিএমআই ও তিনটি ইউএসবি পোর্ট সুবিধা।

দেশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে দুই লাখ ৩৯ হাজার টাকায়।

আসুস আরওজি জি৭৫২ভিইউ
এ ল্যাপটপে রয়েছে ইন্টেল কোর আই৭-এর যষ্ঠ প্রজন্মের প্রসেসর। বড় ডিসপ্লের সুবিধা দিতে রয়েছে ১৭.৩ ইঞ্চি ডিসপ্লে, যার রেজুলেশন ১৯২০x১০৮০।

১৬ গিগাবাইট র‍্যামের পাশাপাশি স্টোরেজ সুবিধা দিতে রয়েছে ২ টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ ও ১২৮ গিগাবাইট এসএসডি কার্ড। উন্নত সব গেইম খেলার জন্য রয়েছে এনভিডিয়ার ৮ গিগাবাইট গ্রাফিক্স কার্ড। ৮ সেলের ব্যাটারির ল্যাপটপটি ব্যাকআপ দিবে ৪ ঘণ্টার অধিক।

ল্যাপটপটির মূল্য ১  লাখ ৭১ হাজার টাকা।

Asus_GL752VW

আসুস আরওজি জিএল৫৫২ভিডব্লিউ
এ ল্যাপটপে রয়েছে ইন্টেল কোর আই৭-এর যষ্ঠ প্রজন্মের প্রসেসর। ১৫ ইঞ্চির পর্দাকে বড় ডিসপ্লে বলা যাবে। ডিসপ্লের রেজুলেশন ১৯২০x১০৮০।

১৬গিগাবাইট র‍্যামের পাশাপাশি বড় স্টোরেজ সুবিধা দিতে রয়েছে ২ টেরাবাইট  হার্ডড্রাইভ।

উন্নত সব গেইম খেলার জন্য রয়েছে এনভিডিয়ার ৪ গিগাবাইট গ্রাফিক্স কার্ড। ৪ সেলের ব্যাটারি ব্যাকআপ দেবে ৪ ঘণ্টার অধিক। ল্যাপটপটির মূল্য ৯৭ হাজার টাকা।

ডেল অ্যালিয়েনওয়ার ১৭
১৭.৩ ইঞ্চি ডিসপ্লের ল্যাপটপটিতে রয়েছে ১৬ গিগাবাইট র‍্যাম ও ১ টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ। ২৫৬ গিগাবাইট এসএসডি ব্যবহার করা যাবে।

২.৬ গিগাহার্টজ ইন্টেল কোর আই সেভেন প্রসেসরের সঙ্গে উন্নতমানের গেইম খেলার জন্য রয়েছে এনভিডিয়া জিটিএক্স ৯৮০এম ৪ গিগাবাইট গ্রাফিক্স কার্ড।

ছবি ও ভিডিও চ্যাটের জন্য রয়েছে ওয়েবক্যাম, যা দিয়ে ১০৮০ পিক্সেল ভিডিও করা যাবে।

ল্যাপটপটির মূল্য ধরা হয়েছে এক লাখ ৮৬ হাজার টাকা।

Lenovo-IdeaPad-Y5070


লেনেভো আইডিয়াপ্যাড ইয়াই৫০৭০
১৫.৬ ইঞ্চি ডিসপ্লের ল্যাপটপটিতে রয়েছে ৮ গিগাবাইট র‍্যাম ও ১ টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ। রয়েছে ২.২ গিগাহার্টজ প্রসেসর।

উন্নতমানের গেইম খেলার জন্য রয়েছে এনভিডিয়া জিফোরস জিটি৮৬০এম ২ গিগাবাইট ডিডিআর ৫ গ্রাফিক্স কার্ড। ছবি ও ভিডিও চ্যাটের জন্য এতে রয়েছে ওয়েবক্যাম, যা দিয়ে ৭২০ পিক্সেল ভিডিও করা যাবে।

ল্যাপটপটির মূল্য ৯০ হাজার টাকা।

এইচপি প্যাভিলিয়ন এবি০৫৬টএক্স
১৫ ইঞ্চি ডিসপ্লের ল্যাপটপটিতে রয়েছে ৪ গিগাবাইট র‍্যাম ও ১ টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ। এতে রয়েছে ২.৪০ গিগাহার্টজ ইন্টেল কোর আই সেভেন প্রসেসর।

উন্নতমানের গেইম খেলার জন্য রয়েছে এনভিডিয়া জিফোরস ৯৪০এম ২ গিগাবাইট গ্রাফিক্স কার্ড। ছবি ও ভিডিও চ্যাটের জন্য রয়েছে ওয়েবক্যাম, যা দিয়ে ৭২০ পিক্সেল ভিডিও করা যাবে। এতে রয়েছে ৪ সেল ব্যাটারি।

ল্যাপটপটির মূল্য ধরা হয়েছে ৫৯ হাজার দুইশত টাকা।

এছাড়া  তোশিবা’র ৫০০ গিগাবাইট হার্ডডিস্ক ড্রাইভ ৩ হাহার ৬০০ টাকা ও ১ টেরাবাইট ৪ হাজার ২০০টাকা।  সিগেট ১ টেরাবাইট ৫হাজার ২০০ টাকা এবং ট্রানসেন্ড  ২৫৬ গিগাবাইট এসএসডি কার্ড ৮ হাজার ৭০০ ও ৫১২ গিগাবাইট ১৬ হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ব্র্যান্ড অনুযায়ী বিভিন্ন ব্র্যান্ডের র‍্যাম বিক্রি হচ্ছে ১৫ টাকা থেকে শুরু করে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত।

প্রসেসরের ক্ষেত্রে ইন্টেল কোর আই থ্রি-৫৫০ ৩.২ গিগাহার্টজ ৬ হাজার ২০০ টাকা, কোর আই ফাইভ-৪৪৬০ ৩.২ গিগাহার্টজ ১৪ হাজার৭০০ টাকা। উন্নত গতিময় সুবিধা পেতে কোর আই সেভেন-৪৭৯০ ৩.৬ গিগাহার্টজ ২৪ হাজার ৮০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

আরও পড়ুন

আসুসের ১০০ সিরিজের গেইমিং মাদারবোর্ড বাজারে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আসুসের ১০০ সিরিজের চারটি মডেলের গেইমিং মাদারবোর্ড বাজারে এনেছে গ্লোবাল ব্র্যান্ড প্রাইভেট লিমিটেড।

এই মডেল চারটি হল ম্যাক্সিমাস-৮রেঞ্জার, জেড-১৭০প্রো-গেইমিং, বি-১৫০প্রো-গেইমিং-ডি৩ এবং এইচ-১৭০প্রো-গেইমিং। মাদারবোর্ডগুলো ষষ্ঠ প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই৭, ৫ ও ৩ পেন্টিয়াম/সেলেরন প্রসেসর সমর্থন করে।

মাদারবোর্ডের চারটি মডেলে আরো আছে উএসবি-৩.১ কনট্রোলার (টাইপ এ, টাইপ সি) এবং ইউএসবি বায়োস ফ্ল্যাশব্যাক বাটন।

Maximus VIII Motherboard

আধুনিক প্রযুক্তির চিপসেটগুলো সর্বোচ্চ ব্যান্ডউইথ ও ফ্লেক্সিবিলিটি নিশ্চিত করবে।

মাদারবোর্ডের চারটি মডেলের দাম রাখা হয়েছে যথাক্রমে ২১ হাজার, ১৮ হাজার, ১২ হাজার ও ১৫ হাজার টাকা।

ইমরান হোসেন মিলন

ডেল গেইমিং ল্যাপটপে ১০ হাজার টাকা ছাড়

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গেইমারদের জন্য এলিয়েনওয়্যার মানের গেইমিং ল্যাপটপ দেশের বাজারে এনেছে কম্পিউটার সোর্স। ইন্সপায়রন সিরিজের ডেল ৭৪৪৭ মডেলের ল্যাপটপটির পর্দার আকার ১৪ ইঞ্চি। উচ্চ রেজ্যুলেশনের এই পর্দা ‘এন্টিগ্লেয়ার’ হওয়ায় এতে বাইরের কোনো ছায়া প্রতিফলিত হয় না।

চতুর্থ প্রজন্মের এই ল্যাপটপটিতে রয়েছে এইচ সিরিজের ৩.৫ পর্যন্ত গিগাহার্ডজ গতির কোর আই৫ প্রসেসর এবং ৪জিবি এনভিডিয়া জিফোর্স ডিডিআর-থ্রি গ্রাফিক্স। ডিভাইসটির ৪জিবি র্যা মকে ১৬জিবি পর্যন্ত বাড়িয়ে নিতে পারবেন হার্ডকোর গেইমাররা।

নিরবিচ্ছিন্ন গতিতে গেইম খেলার সুবিধা নিশ্চিত করতে এতে রয়েছে আধুনিক কুলিং সিস্টেম। এতে আরও রয়েছে ৫০০ জিবি সাটা হার্ডডিস্ক, এইচডি ওয়েবক্যাম, সাবওফারসহ ২টি স্পিকার, এইচডিএমআই, ডিভিডি ড্রাইভ, ব্লু-টুথ ৪.০, ইউএসবি ২.০ ও ৩.০ পোর্ট এবং সিকিউরিটি লক।

Dell Gaming Laptop

এক বছরের বিক্রয়োত্তর সেবাসহ ডেল ৭৪৪৭ আলটিমেট গেইমিং ল্যাপটপটির সঙ্গে রয়েছে অরিজিনাল ক্যারিকেস।

ঈদ উল আযহা উপলক্ষে ডেল ৭৪৪৭ ল্যাপটপটির দাম ১০ হাজার টাকা কমিয়ে ৬৫ হাজার ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

আহমেদ মনসুর

ইউটিউব থেকে কোটিপতি!

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আসল নাম ফেলিক্স জেলবার্গ। কিন্তু ইউটিউবের সবাই পিউডাইপাই নামে চেনে। বয়স ২৫। বয়সের তুলনায় তার জনপ্রিয়তা ও উপার্জন তাক লাগিয়ে দেয়ার মতো।

ইউটিউবে তার ফলোয়ারের সংখ্যা ৩৭ মিলিয়ন! তিনি ভিডিও শেয়ারের ওয়েবসাইটটির জনপ্রিয়তমদের একজন। তবে তার পেশা মূলত গেইমিং, যেখান থেকে ২০১৪ সালেই কেবল সাত মিলিয়ন মার্কিন ডলার উপার্জন করেছেন এই তারকা!

নিউ মিডিয়া নিয়ে গবেষণাকারী প্রতিষ্ঠান ইন্ডারস অ্যানালাইসিসের ল্যান মাউড নামের এক কর্মকর্তা জানান, টিনেজার ও তরুণদের মধ্যে জেলবার্গ এক বিস্ময়ের নাম। শুধু ইউটিউব থেকে এতো অর্থ উপার্জন সত্যিই অবাক করার মতো। প্রচুর পরিমাণ মানুষ তার ভিডিও দেখে থাকে।

আরও পড়ুন: ইউটিউবের জন্য হুমকি নয় ফেইসবুকের ভিডিও স্ট্রিমিং

gaming star PewDiePie

সম্প্রতি জেলবার্গ ‘লেটস টক অ্যাবাউট ম্যানি’ নামের একটি ভিডিও ইউটিউবে পোস্ট করেন। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ভিডিওটি ১.৬ মিলিয়ন বার দেখা হয়েছে।

ভক্তদের উদ্দেশ্যে সুইডিশ এই গেইমার বলেন, বছরে আমার উপার্জিত অর্থের খবর শুনে অনেকে অবাক হয়েছেন। অনেকে আবার হয়েছেন ঈর্ষান্বিতও।

২০১৪ সালের জুলাই মাসে জেলবার্গ তার এক অ্যাডিয়েন্সকে নিশ্চিত করেন, ২০১৩ সালে তিনি প্রায় ৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করেছেন।

gaming star PewDiePie 2

নিন্দুকদের সমালোচনার জবাবে জেলবার্গ জানিয়েছেন, আমার উপার্জিত অর্থের যতটা না নিজের জন্য খরচ করি তার চেয়ে বেশি করি চ্যারিটির পেছনে।

ইন্ডারস অ্যানালাইসিসের ল্যান মাউড জেলবার্গের জনপ্রিয়তার কারণ সম্পর্কে বলেন, দর্শকরা বিশেষ কিছু দেখতে চায়। এই বিশেষ কিছু তার মাঝে আছে। অনেক গেইমার আছেন যারা টাকা বা খ্যাতি পাচ্ছেন না। এর কারণ, এই বিশেষ কিছু তাদের মধ্যে নাই।

‘লেটস টক অ্যাবাউট ম্যানি’ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ১.৬ মিলিয়ন বার দেখা নিয়ে জেলবার্গ বলেন, ভক্তদের সমর্থনের কারণেই এটা সম্ভব হচ্ছে। এ জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ।

বিবিসি অবলম্বনে আহমেদ মনসুর

আরও পড়ুন: 

কুলার মাস্টার স্টোর্ম অকটেন : কম দামের সেরা কম্বো

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : পিসি কুলিং এর ক্ষেত্রে বিখ্যাত কোম্পানি কুলার মাস্টার সম্প্রতি নিয়ে এসেছে একেবারে কম দামে এক অসাধারণ গেমিং কিবোর্ড। শুধু কিবোর্ড নয়, গেইমিং মাউস এবং কিবোর্ডের সমন্বয়ই হলো এই কম্বো কুলার মাস্টার স্টোর্ম অকটেন।

ডিজাইন
অনেকটা রোবটের মত দেখতে এর ডিজাইন। প্লাস্টিক প্লাস্টিক ভাব রয়েছে। অনেকের কাছে যেটা অস্বস্তিকর হতে পারে। গেইমিংয়ের সময় কিবোর্ড অনেক নড়াচড়া করতে পারে। কিন্তু এখানে তা হবে না। কিবোর্ডের চারপাশে শক্ত করে ধরে রাখার জন্য রাবারের গ্রিপ রয়েছে।

কিবোর্ডটি ব্যাকলিট। তার মানে, পেছনে সবসময় আলো থাকবে, যেটা প্রিমিয়াম কিবোর্ডেই বেশিরভাগ দেখা যায়। মাউসটাও দেখতে অনেকটা আয়রন ম্যানের মত! কিন্তু বেশ হালকা। যথাযথ বাটন গুলো ছাড়াও গেইমিংয়ের জন্য বাড়তি বাটন রয়েছে।

cooler master storm octane

পারফরমেন্স
কমদামের কম্বো হলেও এর পারফরমেন্সও খারাপ নয়। হাত খাপে খাপে বসে যায় সব বাটনে, তাই একটা চাপতে গিয়ে আরেকটা চাপার সম্ভাবনা কম। বিশেষ করে, গেমিংয়ে এ ব্যাপারটা জরুরি।

গেইমে বিভিন্ন কম্বো দ্রুততার সাথে কাজ করবে, একটুও ল্যাগ হবে না। মাউসও একই ধরনের দ্রুত এবং সঠিক রেসপন্স দেবে।

cooler master storm octane 2

ফিচার
কিবোর্ডে অনেক শর্টকাটে সেট করা যাবে। তাছাড়া মিডিয়ার জন্য প্লে-পস ইত্যাদি কিছু বাটন রয়েছে, যেগুলো খুবই কাজে আসবে।

কুলার মাস্টারের বক্তব্য অনুযায়ী, ১০ মিলিয়নের বেশি ক্লিক নিতে পারে এই স্টোর্ম অকটেন মাউস। যত খুশি ক্লিক করে শুটিং, ফাইটিং যে কোনো গেইম খেলা যাবে, মাউস নষ্ট হওয়ার ভয় নেই!

দাম
ডিভাইসটি মাত্র ৩ হাজার ৯০০ টাকায় পাওয়া যাবে।

cooler master storm octane 3

এক নজরে ভালো
– ব্যাকলিট কিবোর্ড, আকর্ষণীয় ডিজাইন
– কম দামে সেরা কম্বো
এক নজরে খারাপ
– ডিজাইন অনেকের পছন্দ না হতে পারে

মাল্টিপ্লানে স্মার্ট টেকনোলজিসের গেইমিং প্রতিযোগিতা শুরু

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের অন্যতম কম্পিউটার মার্কেট মাল্টিপ্লান সেন্টারে শুরু হয়েছে গিগাবাইট গেইমিং প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে।

প্রথমসারির প্রযুক্তিপণ্য আমদানিকারক ও পরিবেশক প্রতিষ্ঠান স্মার্ট টেকনোলজিস লিমিটেড এ প্রতিযোগিতা আয়োজনের উদ্যোক্তা। সাত দিনব্যাপী এ আয়োজন চলবে ১২ মার্চ পর্যন্ত।

প্রতিযোগিতায় ফিফা ১৫ এবং মোষ্ট ওয়ান্টেড গেইমে অংশ নিচ্ছেন প্রতিযোগিরা।

গেইমিং

গিগাবাইট বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার খাজা মোহাম্মদ আনাস খান টেকশহরডটকমকে জানান, প্রথমদিনে ৫০০ প্রতিযোগি নিবন্ধন করেছে। এরমধ্যে আসন স্বল্পতায় ৩০০ জন সুযোগ পেয়েছেন।

শনিবারও আগ্রহীরা নিবন্ধন করতে পারবেন জানিয়ে তিনি বলেন, এবারের প্রতিযোগিতায় ১৪ জন গেইমারকে পুরস্কৃত করতে হবে। পুরস্কার হিসেবে রয়েছে ৩০ হাজার টাকার প্রাইজমানি, হেডফোন এবং ক্রিকেট ব্যাট।

আল-আমীন দেওয়ান

শেষ হলো হাজী দানেশের একুশে প্রযুক্তি উৎসব

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রোগ্রামিং ও গেইমিং প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে শেষ হলো হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একুশে প্রযুক্তি উৎসব। বিশ্ববিদ্যালয়টির কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) অনুষদ এই উৎসবের আয়োজন করে।

এতে সিএসই অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরাই কেবল অংশ নেন। তবে এতে অতিথি হয়ে উপস্থিত ছিলেন দেশের বিভিন্ন আইটি প্রফেশনাল।

শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া এই প্রযুক্তি উৎসব শেষ হয় শনিবার বিকালে। এই উৎসবে প্রযুক্তি জগতে বাংলা ভাষা সমৃদ্ধ করার উপর গুরুত্ব দেওয়া হয়।

ekushey prozukti utsab

শনিবার উৎসব শেষ হলেও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান হয় রবিবার। এতে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সিএসই অনুষদের ডীন নওসের ওয়ান বলেন, এ ধরনের আয়োজন ছাত্রছাত্রীদের উৎসাহিত করে। তাদের উদ্ভাবনে আগ্রহী করে তোলে। প্রযুক্তিই এ যুগের সব সমস্যার সমাধান, তাই এ ধরনের উৎসবে সিএসই অনুষদ সব সময়ই সহায়তা করবে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন টেলিকমিউনিকেশন অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রভাষক তানজিলা সুলতানা ও ফসবিডির মহাসচিব সাজেদুর রহিম জোয়ার্দারসহ অনেকেই।

উৎসবটির অয়োজনে ছিলো এইচএসটিইউ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক, প্রোগ্রামারস এরেনা ও বেসিস স্টুডেন্ট ফোরাম এইচএসটিইউ চ্যাপ্টার।

ফখরুদ্দিন মেহেদী