গুগলে তথ্য খোঁজার বিকল্প ১০ উপায়

ইমরান হোসেন মিলন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : তথ্যপ্রযুক্তি ও ইন্টারনেটের অভাবনীয় উন্নতির এই সময়ে তথ্য খোঁজা নিমিষের ব্যাপার মাত্র। ওয়েব জগতে প্রবেশ করে মুহূর্তের মধ্যে কোনো কিছু সম্পর্কে হাজারো তথ্য জেনে নেওয়া যায়। সার্চের ক্ষেত্রে এখন পর্যন্ত একাধিপত্য গুগলের। অজানাকে সামনে তুলে ধরতে জুরি নেই এ সার্চ ইঞ্জিনের।

জেনে হয়ত অবাক হবেন, গুগলে কোনো তথ্য সার্চ করার ক্ষেত্রে আমরা সাধারণত একটি উপায়েই চেষ্টা করে থাকি। বড়জোর হয়ত আরও এক বা দুটি বিকল্প কিছু দিয়ে সার্চ করা হয়। তবে আরও কিছু উপায় রয়েছে, যেগুলো ব্যবহার করে কাঙ্খিত ফলাফল পাওয়া যেতে পারে।

প্রযুক্তি বিষয়ক সাইট ব্রাইটের মতে, ৯৬ শতাংশ ব্যক্তি জানে না গুগলে ঠিক কত উপায়ে প্রয়োজনীয় তথ্যের খোঁজ করা যায়। বিকল্প ১০ উপায়ের কথা জানিয়েছে সাইটটি। টেক শহর ডটকম পাঠকদের জন্য এ প্রতিবেদনে তুলে ধরা হচ্ছে এসব বিকল্প।

Google_Buy

হয় এটা, নয় ওটা
আমরা অনেক তথ্য সার্চের চেষ্টা করি যেগুলোর ক্ষেত্রে খুব নিশ্চিতভাবে কি-ওয়ার্ড বলতে পারি না। মানে অনেকটা দ্বিধাবিভক্ত অবস্থা থেকে এসব তথ্য বা কোনো নাম সার্চ দিয়ে থাকি। এটা কোনো সমস্যা নয়। খুব সহজে সেগুলোর প্রয়োজনীয় বিকল্প খুঁজে পেতে কিছু সিম্বল বা চিহ্ন দিয়ে খোঁজ করা যায়। সেক্ষেত্রে উদ্ধৃতি চিহ্ন (“”) ব্যবহার করে সার্চ দেওয়া যায়।

উদ্ধৃতি চিহ্নের পাশাপাশি ‘অথবা’ বা ইংরেজিতে or বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করলে সার্চের ফলাফল আপনার অধীনেই যাবে।

প্রতিশব্দ ব্যবহার
প্রায় প্রতিটি ভাষার জন্যই শব্দ ভাণ্ডার পরিপূর্ণ হয়েছে প্রতিশব্দের কারণে। ইংরেজিও বেলাতেও এটি প্রযোজ্য। তাই অনলাইনে কোনো কিছু খুঁজতে গেলে প্রতিশব্দ একটি ভালো উপায় হতে পারে।

এ কারণে গুগলে কোনো কিছু প্রথমবারে খুঁজে না পেলে, তখন সেখানে এমন প্রতিশব্দ দিয়ে খুঁজলে সহজে পাওয়া যাবে।

এ ক্ষেত্রে অবশ্য শব্দটি লিখে (~)ব্রাকেটের ভিতরের এমন চিহ্ন ব্যবহার করলে তা দ্রুত পাওয়া সম্ভব। যেমন : “healthy ~food”.

ওয়েবসাইট ধরে খোঁজা
আমরা অনেকেই আছি ইন্টারনেট ঘাঁটতে ঘাঁটতে কোনো ওয়েবসাইটে হয়তো কখনো মজার কোনো প্রবন্ধ বা নিবন্ধ চোখে পড়ে। পরে সেটি আপনার বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে চাইলেন। তখন সহজে ও খুব দ্রুততম সময়ে সেটি পেতে চাইলে নিচের টিপস ব্যবহার করতে পারবেন।

এ জন্য আপনাকে সার্চ অপশনে গিয়ে ওয়েবসাইটের নাম এবং তার সঙ্গে ওই প্রবন্ধ বা নিবন্ধের কোনো মূল শব্দ যোগ করলে খুব দ্রুত এবং সরাসরি সেটা পাওয়া সম্ভব।

তারকা চিহ্ন দিয়ে সার্চ
অনেক সময় স্মৃতি আপনার সাথে প্রতারণা করে বসে। সহজ একটি বিষয় সহজেই মনে করতে পারে না। তখন দেখা যায় কোনো একটি শব্দ বা শব্দগুচ্ছ দিয়ে সার্চ করলেই হয়তো যা চাওয়া হচ্ছে, সেটি পাওয়া সম্ভব।

অথচ সেটা মনে করতে না পারায় তাৎক্ষণিকভাবে প্রয়োজন মেটানো যায় না। এসব ক্ষেত্রে ওই শব্দ বা শব্দগুচ্ছের স্থানে একটি তারকা চিহ্ন দিয়ে সার্চ দিলে তা সহজেই পাওয়া যেতে পারে।

যখন অনেক শব্দ ভুলে যাবেন
অনেক সময় দেখা যায়, কোনো কিছু খুঁজতে গেলে অনেক শব্দ ভুলে যেতে হয়। কোনো ভাবেই যদি সেগুলো মনে করতে না পারেন তাহলে চেষ্টা করবেন ওই বিষয়ের শুরু ও শেষের শব্দ মনে করতে পারেন কিনা। তাহলেই দেখবেন সেটি পেতে কোনো সমস্যাই হবে না।

সে শব্দগুলো দিয়ে এমন করে সার্চ দিলেই আপনার কাজ সফল হবে। যেমন : ”I wandered AROUND(4) cloud.”

Custom_google_search-techshohor

সময়কাল ধরে
ইতিহাসের অনেক কিছু্‌ প্রতিনিয়ত প্রয়োজন হয়। অনেক সময় দেখা যায় আমাদের এমন কিছু দরকার পড়ে যেগুলো কোনো নির্দিষ্ট সময়কালে ঘটেছে।

এ ক্ষেত্রে সার্চের প্রশ্ন হিসেবে সেই সময়কাল উল্লেখ করা যেতে পারে। তখন দুটি সময়কালের মাঝে তিনটি ডট চিহ্ন দিতে হবে। যেমন : ১৮৯৯…১৯২০।

ইউআরএল বা টাইটেল দিয়ে
কোন আর্টিকাল খুঁজে পেতে চাইলে সেটির টাইটেল বা ওয়েব ঠিকানা দিয়েও সার্চ করা যেতে পারে।

তবে সার্চের আগে সেই আর্টিকেলের টাইটেল ও ইউআরএলে কোনো স্পেস রাখা যাবে না এবং মাঝে একটি কোলন চিহ্ন দিতে হবে। যেমন : intitle:husky

একই মতো ওয়েবসাইট দিয়ে
ওয়েবসাইটে ওই নামের সঙ্গে মিল আছে এমন কোনো সাইট খুঁজতে ‘রিলেটেড’ লিখে কোলন ব্যবহার করা যেতে পারে।

এ ক্ষেত্রে যে ধরনের সাইট খুঁজতে চান- সেটার নাম প্রবেশ করান। দেখবেন তা আপনার চোখের সামনে চলে এসেছে। যেমন : Related:nike.com। তবে এক্ষেত্রে কোনো শব্দের মাঝেই স্পেস দেওয়া যাবে না।

শব্দগুচ্ছ দিয়ে সার্চ
কোনো কিছু সার্চ করতে গিয়ে কোনো কোটেশন মার্ক ছাড়া শুধু শব্দগুচ্ছ দিয়ে সার্চ দিলে তা খুব সহজেই এবং কার্যকরভাবে পাওয়া যায়। এভাবে সার্চ দিলে রিলেটেড অনেক কিছুই পাওয়া যাবে। কিন্তু সেসব শব্দগুচ্ছে যদি কোটেশন মার্ক বা কোটেশন চিহ্ন দেওয়া হয় তবে শুধু ওই একটিই দেখাবে।

এভাবে কোনো গান বা কবিতার একটি লাইন থেকেই পুরোটা খুঁজে বের করা সম্ভব হয়।

গুরুত্বহীন শব্দ দিয়ে সার্চ
অনেক সময গুরুত্বহীন অনেক শব্দই হয়ে উঠতে পারে গুরুত্বপূর্ণ। তাই কোনো কিছু খুঁজতে গিয়ে সেসব শব্দ দিয়ে সার্চ করলে প্রয়োজনীয় বিষয় সহজেই পাওয়া সম্ভব হয়। এ ক্ষেত্রে অবশ্য বিয়োগ চিহ্ন ব্যবহার করা যেতে পারে।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, অনেক সময় কিছু আকর্ষণীয় বইয়ের সাইট খুঁজতে চান অনেকেই। সেক্ষেত্রে এভাবে interesting books-buy গুগলে সার্চ দিলেই প্রয়োজনীয় বিষয় পাওয়া যেতে পারে।

প্রাণীর ডাক শেখাচ্ছে গুগল

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাচ্চাদের প্রাণী চেনানো ও তারা কেমন শব্দ করে সেটি শেখাতে চান? তাহলে যেখানেই থাকুন না কেনো গুগল সার্চ করলেই সেটি পারবেন। সম্প্রতি এমনই ফিচার চালু করেছে শীর্ষ ইন্টারনেট জায়ান্টটি।

গুগল সার্চে গিয়ে “animal noises” লিখলে সার্চ রেজাল্টে বিভিন্ন প্রাণীর ইলাস্ট্রেশন দেখাবে। সেখানে প্রাণীগুলোর নাম ও তারা কেমন ডাকে সেটিও শোনার ব্যবস্থা রয়েছে।

Animal Sound-Google-TechShohor

অপরদিকে, ব্যবহারকারী “What does the dog say”, এমন লিখেও সার্চ করতে পারে। এর মাধ্যমে উক্ত প্রাণীর তথ্য, ছবি এবং তাদের শব্দ দেখা ও শোনা যাবে।

প্রাথমিকভাবে গুগল জেব্রা, উল্লুক, বিড়াল, সিংহ, হরিণ, গরু, ঘোড়া, হাতিসহ ১৯টি প্রাণীকে এই নতুন সুবিধায় যুক্ত করেছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে ফারজানা মাহমুদ পপি

শাওমি ফোনে গুগল সার্চবার ব্যবহারের কৌশল

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইন্টারনেটের এই যুগে কোনো তথ্য খোঁজার জন্য প্রধান ভরসা হলো গুগল সার্চ। স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা যেন সহজেই গুগল সার্চ ব্যবহার করতে পারেন সেজন্য গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে রয়েছে বিশেষ সার্চ অ্যাপ।

অ্যাপটির বিশেষ সুবিধার মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হলো গুগল সার্চবার। এই ফিচারটি ব্যবহার করে স্মার্টফোনের হোম স্ক্রিন থেকেই সার্চ করা যাবে যেকোনো তথ্য।

অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারীরা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই এ সুবিধা পেয়ে থাকেন। তবে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং চালিত হলেও শাওমি স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের ফিচারটি ব্যবহার করতে কিছু কৌশল জানতে হবে। কীভাবে শাওমি স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা গুলল সার্চবার ব্যবহার করবেন তা তুলে ধরা হলো এ টিউটোরিয়ালে।

প্রথমে এ ঠিকানা থেকে গুগল অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করতে হবে।

তারপর হোম স্ক্রিনের দুই আঙুলে ট্যাপ করতে হবে।

1xaimi-techshohor0

এরপর চালু হবে ‘Widgets’ অপশন।

সেখান থেকে ‘Google App(2) ট্যাপ করতে হবে।

এরপর ড্রগ করে ‘google app’ হোম স্ক্রিন এনে রাখতে হবে।

তাহলেও শাওমি স্মার্টফোন থেকেই ফিচারটি ব্যবহার করা যাবে।

আরও পড়ুন: 

বছর সেরা অ্যাপ ফেইসবুক, শীর্ষ দশে নেই মাইক্রোসফট

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : চলতি বছরের শীর্ষ স্মার্টফোন অ্যাপ্লিকেশনের তালিকা প্রকাশ করেছে বাজার গবেষণাকারী প্রতিষ্ঠান নিয়েলসন। এতে বছরের সেরা অ্যাপের জায়গাটা দখল করে নিয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক। তবে এই তালিকার শীর্ষ দশে জায়গা হয়নি মার্কিন সফটওয়্যার জায়ান্ট মাইক্রোসফটের।

চলতি বছর বিশ্বজুড়ে ফেইসবুক অ্যাপ সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়েছে। এ বছর প্রতি মাসে গড়ে ১২৬ মিলিয়ন ব্যবহারকারী অ্যাপটি ব্যবহার করেছেন। প্রতিষ্ঠানটির আরও দুটি অ্যাপ শীর্ষ দশে জায়গা করে নিয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে দ্রুত জনপ্রিয় হওয়া অ্যাপ হিসেবে তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে ফেইসবুক ম্যাসেঞ্জার। আর তালিকার অষ্টম স্থান দখল করেছে ফেইসবুক অধিকৃত অ্যাপ ইনস্টাগ্রাম

top 10 apps in 2015

চলতি বছর মোবাইল বান্ধব বেশ কিছু অ্যাপ এনেছে মাইক্রোসফট। প্রতিষ্ঠানটির উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমেও রয়েছে মোবাইলে ব্যবহার উপযোগী বেশ কিছু অ্যাপ। তা স্বত্বেও এই তালিকায় স্থান হয়নি প্রতিষ্ঠানটির।

নিয়েলসনের বছর সেরা দশ অ্যাপের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ইউটিউব, চতুর্থ স্থানে গুগল সার্চ, পঞ্চম স্থানে গুগল প্লে, ষষ্ঠ ও সপ্তম স্থানে যথাক্রমে গুগল ম্যাপ ও জিমেইল। নবম ও দশমে স্থানে আছে অ্যাপল মিউজিকঅ্যাপল ম্যাপ

সিএনএন ও সিলিকন অ্যাঙ্গেল অবলম্বনে আহমেদ মনসুর

আরও পড়ুন: 

গুগলে ইমেজ অনুসন্ধানেও লিঙ্গ বৈষম্য!

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গুগল ইমেজে ‘সিইও’ লিখে সার্চ দিলে নারী মুখাবয়ব দেখানো হয় কম। তবে ‘ফার্স্ট উইমেন সিইও’ লিখে সার্চ দিলে পেপসিকোর ইন্দ্রা নোয়ি বা আইসিসি ব্যাংকের চান্দ্রা কোচারের পরিবর্তে দেখানো হয় ‘সিইও বার্বি’ নামের একটি অ্যানিমেটেড ফিগার!

ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের একদল গবেষক সম্প্রতি এইসব তথ্য প্রকাশ করে জানিয়েছেন, গুগল ইমেজ অনুসন্ধান ফলাফলে লিঙ্গ ভিত্তিক পক্ষপাতটা প্রকট। এতে কোনো পেশার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সম্পর্কে জানতে সার্চ দিলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নারীদের ছবি দেখানো হয় কম।

গবেষণাপত্রের লেখক সিনথিয়া মাতুসজেক জানিয়েছেন, ভিন্ন ভিন্ন পেশার নাম লিখে গুগল ইমেজে সার্চ দিলে ফলাফলে পুরুষের তুলনায় নারীদের ছবি কম দেখানো হয়।

GENDER BIAS

পুরুষের সাথে নারীর তুলনা ছাড়াও এতে বিভিন্ন পেশার নারী ও বিভিন্ন দেশের নারীদের ছবি দেখানোর শতাংশটাও তুলে ধরা হয়েছে।

গবেষণা ফলাফল অনুযায়ী, সিইও লিখে সার্চ দিলে পুরুষের তুলনায় নারীদের মাত্র ১১ শতাংশ ছবি দেখানো হয়। এর মধ্যে আবার ২৭ শতাংশই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নারী।

‘অথর’ লিখে সার্চ দিলে পুরুষের তুলনায় নারীদের মাত্র ২৫ শতাংশ ছবি দেখানো হয়। এর মধ্যে আবার ৫৬ শতাংশই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নারী।

‘ইঞ্জিনিয়ার’ লিখে সার্চ দিলে পুরুষের তুলনায় মাত্র ১৩ শতাংশ নারীর ছবি দেখানো হয়। তবে টেলিমেকার, নার্স বা ফার্মাসিস্ট লিখে সার্চ দিলে নারীদের ছবিই দেখানো হয় বেশি।

ইকোনোমিকস টাইমস অবলম্বনে আহমেদ মনসুর

আরও পড়ুন:

রকমারি পর্নো সন্ধানে সেরা পাকিস্তান!

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : পর্নো সার্চে শীর্ষ ৮টি দেশের তথ্য প্রকাশ করেছে গুগল। এই তালিকায় প্রথম স্থানে রয়েছে পাকিস্তান!

গুগলের দেওয়া তালিকায় বলা হয়েছে, শূকর, গাধা, কুকুর, বিড়াল, সাপ ইত্যাদি প্রাণীর সাথে মানুষের যৌন সঙ্গমের পর্নো খোঁজার ক্ষেত্রেও পাকিস্তান সেরা অবস্থানে আছে। গত বছরও দেশটি পর্নো অনুসন্ধানে প্রথম হয়।

নিউজ ডটকম নামের এক পোর্টালের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তান ২০০৪ সালে ঘোড়ার সাথে, ২০০৭ সালে গাধার সাথে, ২০০৫ সালে কুকুরের সাথে মানুষের যৌন মিলনের পর্নো সার্চের ক্ষেত্রে প্রথম হয়। এছাড়া ২০০৪ সালে ধর্ষণের ভিডিও খোঁজার ক্ষেত্রেও দেশটি প্রথম হয়।

pakistan

পোর্টালটিতে আরও বলা হয়েছে, ধর্ষণের ভিডিও চিত্র নিয়ে তৈরি পর্নো সার্চে ২০০৪ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত টানা ছয়বার এবং শিশু পর্ণ সার্চে ২০০৪, ২০০৭ ও ২০০৯ সালে প্রথম হয়।

গুগলের প্রকাশ করা সেরা পর্নো সার্চের ৮টি দেশের মধ্যে ৬ টিই মুসলিম প্রধান। এর মধ্যে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মিশর, চতুর্থ স্থানে ইরান, পঞ্চম স্থানে মরক্কো, সপ্তম স্থানে সৌদি আরব এবং অষ্টম স্থানে তুরস্ক। দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের এক প্রতিবেদনে এ কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, লেবানন ও তুরস্ক ছাড়া অন্যান্য আরব দেশগুলোতে পর্নোগ্রাফিক বিষয়বস্তু বিক্রি নিষিদ্ধ। সম্প্রতি সৌদি আরব পর্নো লিংক খুঁজে পাওয়ায় ৯ হাজার টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেয়।

 

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে ফখরুদ্দিন মেহেদী

অবৈধ সাইটের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেবে গুগল

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অনলাইন পাইরেসি রোধে সার্চ পলিসিতে পরিবর্তন আনার ঘোষণা দিয়েছে গুগল। এখন থেকে সার্চের ক্ষেত্রে সবার উপরে থাকবে রেজিষ্টার্ড বা বৈধ সাইটগুলো।

দীর্ঘ সমালোচনার পর অবশেষে সার্চ পলিসিতে এ পরিবর্তন আনার কথা জানিয়েছে সার্চ জায়ান্টটি। বর্তমানে কোন সাইট সার্চ করলে গুগল সার্চ ইঞ্জিন যে ফলাফল দেয়; তাতে এমন সব সাইট শুরুর দিকে থাকে যেগুলো সাধারণত বেশিবার সার্চ করা হয়েছে। এ কারণে ফ্রি সাইটগুলো শুরুর দিকে স্থান পায়।

নতুন নিয়ম অনুযায়ী এখন থেকে সার্চের ক্ষেত্রে সবার উপরে বৈধ সার্ভিসগুলোর একটি লিস্ট দেখাবে। এটা দেখানো হবে প্রথম পৃষ্ঠার উপরে ডান পাশে একটি বক্সে।

আরও পড়ুন: গুগলের একগুচ্ছ ফ্রি আইকন উন্মুক্ত

গুগল

এজন্য অবশ্য গুগলকে সার্ভিস চার্জ দিতে হবে। অনলাইন পাইরেসি রোধে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে গুগল।

অনলাইন পাইরেসির কারণে দীর্ঘ দিন ধরেই গুগলের সার্চ পলিসির সমালোচনা করে আসছিল মিউজিক গ্রুপ বিপিআই ও ইউএস ইকুভ্যালেন্ট। শেষমেশ গ্রুপ দুটির অনুরোধে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সার্চ জায়ান্টটি।

অবৈধ সাইটগুলো থেকে ডাউনলোডের কারণে মিউজিক ইন্ড্রাষ্টিজের কোটি কোটি ডলার ক্ষতি হচ্ছে বলে জানিয়েছিল তারা।

নতুন সার্চ সিস্টেমে সন্তোষ প্রকাশ করেছে বিপিআই। তবে ব্যবহারকারীদের সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে কোন ধরনের সার্ভিস চার্জ আরোপ করা উচিত নয় বলেও মনে করে গ্রুপটি।

– বিবিসি অবলম্বনে আহমেদ মনসুর

আরও পড়ুন:

ললিপপচালিত তিন ডিভাইস আনল গুগল

গুগলের হিউম্যান রিসোর্স বসের দৃষ্টিতে পছন্দের সিভি

গুগলের মুছে দেওয়া আর্টিকেল আবার প্রকাশ করবে বিবিসি

গুগল সার্চ ব্যবহার করে ইভেন্ট তৈরির উপায়

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঈদের ছুটিতে অনেক ব্যবস্তা উৎসব আয়োজনের। নানান কাজের ভিড়ে হয়ত অনেক প্রয়োজনীয় একটি কাজের কথা ভুলে যাওয়া ঘটনা ঘটতেই পারে। তবে প্রযুক্তির এই যুগে চাইলে প্রযুক্তিই মনে করিয়ে দেবে কখন কি কাজ করতে হবে।

খুব সহজে কাজের কথাগুলো স্মার্টফোন কিংবা ট্যাবের মতো ডিভাইসে টুকে রাখলে তা সময়মতো স্মরণ করিয়ে দেবে ব্যবহারকারীদের। অনেকেই এ সেবা দিয়ে থাকেন বিভিন্ন অ্যাপের মাধ্যমে। তবে এ ক্ষেত্রে গুগল বেশ এগিয়ে আছে।

স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা ভয়েস কমান্ডের সাহায্যে গুগল সার্চ অ্যাপলের মাধ্যমে যে কোন ইভেন্ট তৈরি করতে পারবেন।

plan-girl-write-on-glass-iStock_000015336631Small-700x441

ডেস্কটপ ব্যবহারকারীরাও গুগল সার্চ ব্যবহার করে খুব সহজে ইভেন্ট তৈরি করতে পারবেন। এ টিউটোরিয়ালে তা তুলে ধরা হলো।

প্রথমে গুগলের হোম পেইজ এ যেতে হবে।

এরপর সার্চ বক্সে ইংরেজিতে লিখতে হবে ক্রিয়েট ইভেন্ট। তার পর একটি স্পেস দিয়ে কোন দিন ইভেন্ট হবে সেটা লিখে তারপর at, এরপর একটি স্পেস দিয়ে ইভেন্টের সময় এবং সবশেষে একটি স্পেস দিয়ে ইভেন্টের নাম।

নিচে একটি উদাহরণ দেখুন : create event [day of week] at [time of day + AM/PM] [event name or details]  উদাহরণ : create event friday at 6 am eating

1

এরপর Create event এ ক্লিক করতে হবে।

তাহলে ইভেন্ট তৈরি হয়ে যাবে নির্দিষ্ট তারিখে। তা সরাসরি যুক্তি হবে গুগল ক্যালেন্ডারে। তবে গুগল একাউন্ট দিয়ে লগইন থাকবে হবে।

চাইলে পরে ইভেন্টটি সম্পাদনাও করা যাবে।

গুগল সার্চের শীর্ষ ২০ বিশ্ববিদ্যালয়

সৌমিক আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শিক্ষার্থীরা শিক্ষা জীবনের কোন না কোন অংশ ইন্টারনেটে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের খোঁজ খবর নিয়ে থাকে। বিশ্বের প্রায় সব সর্বত্র ইন্টারনেটের সহজলভ্যতায় এ হার ইদানিংকালে আরও বেড়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট সার্চ বিশ্বব্যাপী শিক্ষার্থীদের কাছে অতি জনপ্রিয় একটি বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রোগ্রামের বিষয়ে সার্চ করে থাকেন। এসব সার্চের তথ্যের ভিত্তিতে একটি ভিন্ন রকম তালিকা তৈরি করেছে সার্চ জায়ান্ট গুগল।

সচরাচর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তৈরি সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি তালিকা থেকে এটি পৃথক। অনলাইনে সবচে বেশি সার্চেরভিত্তিতে গুগল প্রকাশিত বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় নেই বিশ্বের অনেক নামী বিশ্ববিদ্যালয়।

ইদানিং শিক্ষার্থীদের অনলাইন প্রোগ্রামের প্রতি বেশি আগ্রহের কারণে এক নামে পরিচিত অনেক বিশ্ববিদ্যালয় ঠাঁই পায়নি এ তালিকায় বলে উল্লেখ করেছে গুগল।

ল্যাপটপ-টেকশহর

গুগল প্রকাশিত শীর্ষ ২০ এর এ তালিকায় রয়েছে ভারতের পাঁচ বিশ্ববিদ্যালয়। এ তথ্যেরভিত্তিতে অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় উঠে এসেছে, তা হলো শিক্ষার্থীরা গতানুগতির ক্যাম্পাস প্রোগ্রামের চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন প্রোগ্রামের প্রতি বেশি ঝুঁকছে। অন্তত সার্চের ফলাফল তাই বলছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আরিজোনার ইউনিভারসিটি অব ফিনিক্স রয়েছে গুগল প্রকাশিত তালিকার শীর্ষে। বিশ্ববিদ্যালয়টির ই-ক্যাম্পাস প্রোগ্রাম অনেক জনপ্রিয়। আন্ডারগ্রাজুয়েট, গ্রাজুয়েট, মাস্টার্স ডিগ্রি প্রোগ্রাম ছাড়াও অনেক শর্ট কোর্স রয়েছে গত শতাব্দীর ৭০ দশকে (১৯৭৬) প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়টির।

শুধু অনলাইন প্রোগ্রামে এগিয়ে থাকার কারণে শিক্ষার্থীদের সার্চ তালিকায় বিশ্ববিদ্যালয়টি পেছনে ফেলেছে হার্ভার্ড, স্টানফোর্ড ও কলম্বিয়ার মতো বিশ্ববিদ্যালয়কে।

অনলাইন-টাস্ক-ম্যানেজমেন্ট-বিশ্ববিদ্যালয়-টেকশহর

এরপর রয়েছে আরেক নামী মার্কিন বিশ্ববিদ্যালয় ম্যাসাচ্যুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি। অনলাইন প্রোগ্রামের অগ্রপথিক বলা হয় বিশ্ববিদ্যালয়টিকে। এটির প্রোগ্রাম সবসময়ই আপডেট থাকে বলে শিক্ষার্থীদের আগ্রহ এ বিশ্ববিদ্যালয়কে ঘিরে।

ইউরোপের ঐতিহ্যবাহী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে পেছনে ফেলে শিক্ষার্থীদের সার্চের তৃতীয় অবস্থানে আছে দ্যা ওপেন ইউনিভারসিটি। যুক্তরাজ্যের এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন বা ই-ক্যাম্পাস ইউরোপের দেশগুলোর অনলাইন পড়াশোনায় নেতৃত্ব দিচ্ছে।

ছাত্র-ছাত্রীদের আগ্রহের কারণে উন্নয়ন ঘটানো হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন প্রোগ্রামে। যুক্তরাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সার্চ করা শিক্ষার্থীদের মধ্যে এশীয় ও পশ্চিম ইউরোপের দেশগুলো এগিয়ে। দেশটির বিশ্ববিদ্যালয় সার্চ করেছে এমন শিক্ষার্থীর ৪০ ভাগই অন্য দেশের।

২০১১ সালেও শিক্ষার্থীদের যুক্তরাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয় সার্চে ওপেন ইউনিভার্সিটির চেয়ে এগিয়ে ছিল অক্সফোর্ড ও ক্যামব্রিজের মতো ঐতিহ্যবাহী বিশ্ববিদ্যালয়। ২০১৪ সালে সার্চে ইউকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে পেছনে ফেলে কুশেরা। এটি অনলাইন কোর্সের যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি প্রতিষ্ঠান।

ম্যাসিভ ওপেন অনলাইন কোর্স প্রদান করে থাকে এমন অনেক প্রতিষ্ঠান ইউকে ইউনিভারসিটি থেকে সার্চে এগিয়ে আছে। এর মধ্যে ইডিএক্স ও ফিউচারলার্ন।

অবাক করার মতো বিষয় হচ্ছে পরের অবস্থানটি অর্থাৎ চতুর্থ অবস্থানটি একটি ভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের। কেরালার কালিকাট বিশ্ববিদ্যালয়। ভারতীয় শিক্ষার্থীদের অনলাইন ডিগ্রির আগ্রহ বা টেকনোলজির ব্যবহারে তাদের এগিয়ে যাওয়ার এটি একটি প্রমাণ।

গুগলের তালিকার শীর্ষ ১০ রয়েছে আরও একটি ভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। চেন্নাইয়ের আন্না বিশ্ববিদ্যালয়। অবস্থান ৬ নম্বরে। মাঝের অবস্থানটি ইউনিভারসিটি অব ক্যালিফোরর্নিয়ার।

অনলাইন-শপিং-শিক্ষা-ভার্সিটি-টেকশহর

ভারতীয় আরও তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান হচ্ছে ১১ নম্বরে ইউনিারসিটি অব মুম্বাই, ইউনিভারসিটি অব রাজস্থান ১৮ ও আন্নামালাই ইউনিভারসিটি রয়েছে ২০ নম্বরে।

শিক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছতে ইন্টারনেট এখন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। অনলাইনে শিক্ষার্থীদের আগ্রহ বিবেচনায় নিয়ে বিভিন্ন কোর্স ক্রমবর্ধমানহারে বাড়াচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো।

ইন্টারনেট আগ্রহের কারণে ঐতিহ্যবাহী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যাচ্ছে ই-ক্যাম্পাসভিত্তিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। বিশ্লেষকদের মতে, এ কারণে প্রচলিত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে এখন নতুন করে ভাবতে হবে। পরিকল্পনা করতে হবে, তারা পরিবর্তনকে স্বাগত জানিয়ে এগিয়ে যাবে অথবা খাপখাওয়ানোর চেষ্টা না করে ভবিষ্যৎতের ঝুঁকি নিয়ে এগিয়ে যাবে।

যদিও সব বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন ইন্টারনেট থাকাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়। কেননা ইন্টারনেট বিশ্ববিদ্যালয়কে শিক্ষার্থীদের কাছে নিয়ে যাওয়ার প্রাথমিক ধাপ। অনলাইন ডিসিশন নিতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। কেননা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট শিক্ষার্থীদের সিদ্ধান্ত নিয়ে সহায়তা করছে।

বিশ্বকাপে সাজছে গুগলও

ফখরুদ্দিন মেহেদী, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর :  দুয়ারে কড়া নাড়ছে বিশ্বকাপ ফুটবল। আর মাত্র পাঁচদিন পরেই পর্দা উঠতে যাচ্ছে জমকালো এই আসরটির। বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এ আসরটি নিয়ে জল্পনা-কল্পনার শেষ নেই। বিশ্বকাপ সংক্রান্ত তথ্যপ্রযুক্তির নানান সুযোগ নিয়ে হাজির হয়েছে প্রযুক্তি জায়ান্টগুলো। পিছিয়ে নেই সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগলও। বিশ্বকাপের প্রত্যেকটি মাঠের ষ্ট্রিট ভিউ দেখতে গুগল নিয়ে এসেছে ‘গুগল বিশ্বকাপ ম্যাপ’।

গুগলের ম্যাপটি দিয়ে খেলার ১২টি স্টেডিয়ামই দেখা যাচ্ছে স্ট্রিট ভিউতে। এমনকি রোড পয়েন্টগুলোর দৃশ্যও ক্যামেরাবন্দি করা যাবে। তাছাড়া ম্যাপটি ব্যবহারকারীকে সঠিক তথ্য এবং ভয়েস নির্দেশনা দিবে। তাই পথ হারাবার ভয় একদমই নেই।

fifa-google-techshohor

ম্যাপটি সম্পর্কে স্ট্রিট ভিউ প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডিনা ঋক একটি ব্লগপোষ্টে লিখেছেন, আপনার যদি ব্রাজিল বিশ্বকাপ খেলা দেখতে যাওয়ার সৌভাগ্য হয়ে থাকে, তবে গুগল ম্যাপটি সঙ্গে রাখতে ভুলবেন না। কারণ, এটি আপনাকে পথ চিনিয়ে নিয়ে যাবে।

আর যদি আপনি অভাগাদের দলের হয়ে থাকেন, তাহলেও মন খারাপ করবেন না। কারণ, গুগল ম্যাপটিই আপনার বিশ্বকাপ টিকিট। এটি আপনাকে ঘরে বসেই মাঠের স্বাদ দিবে।

শুধু তাই নয়, গুগল সম্প্রতি যুক্ত করেছে বিশ্বকাপ ফুটবলের খবর সহজে পাওয়ার সুবিধা। গুগলের এই বিশেষ ফিচারটি উপভোগ করতে গুগল সার্চে গিয়ে “World Cup” লিখে সার্চ দিলেই দেখা যাবে বিশ্বকাপ সর্ম্পকে সকল তথ্য। এমন কি কখন কোন ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে সেই তথ্যও দেখা যাবে। আর World Cup Fixture 2014 লিখে সার্চ করলে পুরো খেলার তালিকাই চলে আসবে।

যদি গুগলে নির্দিষ্ট দলের খেলাগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে গুগলে ওই দলের নাম বনাম বিপক্ষ দলের নাম লিখে সার্চ করলেও দল দুটির সব খবর, ম্যাচের বিস্তারিত, কোথায় ও কখন হবে, তা সহজেই জানা যাবে।

শুধু কম্পিউটার, ল্যাপটপে বসেই নয়, স্মার্টফোনে গুগল সার্চ ব্যবহার করেও এই সেবা পাওয়া যাবে। তাই কোনও আক্ষেপ নয়, এই ঘরে বসেই ব্রাজিলে ঘুরে আসা যাবে!

গুগলের সার্চ রেজাল্টে পরিবর্তন

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগল তাদের সার্চ রেজাল্টে পরিবর্তন এনেছে। আপাতভাবে ডেস্কটপে এই পরিবর্তন উপভোগ করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। সাধারণ ও বিজ্ঞাপন ভিত্তিক উভয় সার্চ রেজাল্টের ক্ষেত্রে এই পরিবর্তন আনা হয়েছে।

গুগল জানিয়েছে, সার্চের নতুন এই পরিবর্তনের ফলে আগের তুলনায় দ্রুত এবং সহজে তথ্য পাবেন ব্যবহারকারীরা। এই পরিবর্তনে ফন্টগুলো বড় করা হয়েছে। আগে থাকা সার্চ রেজাল্ট থেকে আন্ডারলাইন সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

Google-Search-Change-TechShohor

সার্চ রেজাল্টে বিজ্ঞাপনগুলো ছোট করে হলুদ রঙে ‘ad’ লেখা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন থেকেই মূলত গুগলের প্রধান আয়। তাই বিজ্ঞাপন আরও সুন্দরভাবে দেখানো ও ব্যবহারকারীদের আগের তুলনায় ভালো অভিজ্ঞতা দিতে গুগল প্রায়ই সার্চ ইঞ্জিনে পরিবর্তন আনে। গত সেপ্টেম্বরে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের জন্য বিজ্ঞাপন প্রদর্শনে পরিবর্তন আনে গুগল।

– দ্য নেক্সট ওয়েব অবলম্বনে তুসিন আহমেদ