আইনের আওতায় আসছে উবারসহ অ্যাপভিত্তিক পরিবহন সেবা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : উবারসহ অ্যাপভিত্তিক পরিবহন সেবাগুলোকে আইনি কাঠামোয় আনতে কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার উবারের ইস্ট রিজিওন এর পাবলিক পলিসি বিষয়ক প্রধান চাঁদ তুলাল মজুমদারের নেতৃত্বে তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে সাক্ষাত করেন।


এসময় মন্ত্রী বলেন, ‌ঢাকা মহানগরীতে উবারসহ অন্যান্য মোবাইল অ্যাপ নির্ভর যাত্রী পরিবহন সেবা জনগণের জন্য উন্মুক্ত করে দিতে চায় সরকার। এ লক্ষ্যে খসড়া নীতিমালা প্রণয়নের কাজ এগিয়ে চলেছে।

বৈঠকে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এমএএন ছিদ্দিক ও বিআরটিএর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। অ্যাপভিত্তিক পরিবহন সেবার জন্য নীতিমালা চূড়ান্ত করতে জনগণের পাশাপাশি শিগগিরই অংশীজনদেরও মতামত নেওয়া হবে বলে মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেন তিনি।

এতে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রযুক্তি নির্ভর সেবা থেকে আমরা বিচ্ছিন্ন থাকতে পারি না। তবে এ সকল সেবা দেশের প্রচলিত আইন ও কাঠামোর আওতায় আনতে হবে। এখানে যাত্রী স্বার্থের পাশাপাশি নিরাপত্তার বিষয়টিও বিবেচনায় রয়েছে ।

অবৈধ সেবা হিসেবেই সাত মাস ধরে ঢাকায় উবারের চাকা ঘুরছে। অ্যাপ মাধ্যমে ট্যাক্সি সেবাদানকারী কোম্পানিটি ঢাকায় যাত্রা শুরু করে ২০১৬ সালের ২২ নভেম্বর।

আর এর দু’দিন পর ২৪ নভেম্বর দেশে এর কার্যক্রমকে অবৈধ ঘোষণা করে নিষেধাজ্ঞা দেয় বিআরটিএ। কিন্তু সে নিষেধাজ্ঞা মাড়িয়ে এখনও কার্যকম চালিয়ে যাচ্ছে কোম্পানিটি।

এছাড়া ঢাকায় অ্যাপ মাধ্যমে চলো, পাঠাও, আমার রাইডসহ বেশ কয়েকটি পরিবহন সেবা চলছে।

আল-আমীন দেওয়ান

পদত্যাগ করেছেন উবার প্রধান ট্রাভিস কালানিক

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : উবারের সিইও ও সহ-প্রতিষ্ঠাতা ট্রাভিস কালানিক পদত্যাগ করেছেন। ৭০ বিলিয়ন ডলারের প্রতিষ্ঠানটি থেকে তিনি পদত্যাগ করলেও উবারের বোর্ড অব ডিরেক্টরসের প্যানেলে থাকবেন ট্রাভিস।  বিনিয়োগকারীদের অনবরত চাপের মুখে তিনি পদত্যাগ করতে বাধ্য হন।

বিনিয়োগকারী প্রধান পাঁচটি প্রতিষ্ঠান উবার প্রধানের পদত্যাগ দাবি করে শিকাগোতে তার কাছে একটি চিঠি পাঠায়। চিঠিটির শিরোনাম ছিল ‘মুভিং উবার ফরোয়ার্ড’। সেখানে তারা বোর্ড অব ডিরেক্টরস প্যানেলে এমন দুজন বোর্ড সদস্যের অর্ন্তভুক্তির দাবি জানায়, যারা চিন্তাধারায় স্বতন্ত্র হবেন।

এরপরই ট্রাভিস বোর্ড অব ডিরেক্টরসের এক সদস্য ও বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে এ বিষয়ে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেন। ওই বৈঠকের পরই উবারের নেতৃত্ব থেকে তিনি সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন।

পদত্যাগের পর এক বিবৃতিতে  ট্রাভিস বলেছেন, পৃথিবীতে অন্য সবকিছুর চেয়ে আমি উবারকে বেশি ভালবাসি। ব্যক্তিগতভাবে সময়টি আমার জন্য কঠিন হলেও বিনিয়োগকারীদের অনুরোধ আমি মেনে নিয়েছি যাতে  উবার অন্য সবকিছু বাদ দিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারে।

উবারের বোর্ড অব ডিরেক্টরসের সদস্যরা এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ট্রাভিসের কাছে অন্য সবকিছুর চেয়ে উবারই বেশি প্রাধান্য পেয়ে এসেছে। চিফ এক্সিকিউটিভ হিসেবে তার সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্তটা কোম্পানিকে নতুন একটি অধ্যায়ের সূচনা করার অবকাশ দিয়েছে।

তবে উবারের মুখপাত্র, ট্রাভিসের পদত্যাগের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

নিউইর্য়ক টাইমস অবলম্বনে আনিকা জীনাত 

নারী বিদ্বেষী মন্তব্যে পদত্যাগে বাধ্য উবার পরিচালক

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : উবারের পরিচালক ডেভিড বোন্ডারম্যান প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা কমিটি থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

মঙ্গলবার উবার কর্মীদের এক সভায় নারীদের প্রতি অসম্মানজনক মন্তব্য করায় কর্মীরা বোল্ডারম্যানের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে তিনি পদত্যাগ করতে বাধ্য হন।

উবারের সেই বৈঠকে আরেক বোর্ড সদস্য আরিয়ানা হাফিংটন নারী কর্মীদেরকে বোর্ড অব ডিরেক্টরসে নিয়োগ দেওয়ার গুরুত্ব সম্পর্কে কথা বলেন। তার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বোন্ডারম্যান জানান, এতে করে শুধু কথা বলাই বাড়বে। কাজের কাজ কিছু হবে না।

UBER-techshohor

তার এই মন্তব্যের অডিও রেকর্ডিং ইয়াহুতে প্রকাশ করা হয়। এরপরই বোন্ডারম্যান একটি ইমেইলের মাধ্যমে তার কর্মীদের কাছে ক্ষমা চান। সেখানে তিনি লেখেন, অসতর্কভাবে মন্তব্যটি করেছি। যা বোঝাতে চেয়েছি তার বিপরীতটা বলেছি।

এর আগে উবারে যৌন হয়রানির ঘটনায় কোম্পানিটির র্শীষ কয়েকজন র্কমকর্তা পদত্যাগ করেন। ওয়েইমো থেকে তথ্য চুরির দায়ে মে মাসে বরখাস্ত হন উবারের মালিকানাধীন অটো কোম্পানির প্রকৌশলী অ্যান্থনি লিওয়ান্দ্রস্কি।

তাই আগের বছরের চেয়ে উবারে আয় বৃদ্ধি পেলেও টাল-মাটাল অবস্থায় রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজমেন্ট।

রয়েটার্স অবলম্বনে আনিকা জীনাত

উবারের ২০ কর্মী বরখাস্ত

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : যৌন হয়রানির ঘটনায় ২০ কর্মীকে বরখাস্ত করেছে অ্যাপভিত্তিক ট্যাক্সিসেবা প্রতিষ্ঠান উবার।

বরখাস্ত হওয়া এসব কর্মীদের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি ও কোম্পানির নিময় ভঙ্গের অভিযোগ ছিল। তদন্ত প্রক্রিয়ায় অভিযুক্তরা দোষী প্রমাণিত হওয়ায় মঙ্গলবার উবারের প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক স্টাফ মিটিংয়ে তাদেরকে  বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

যৌন হয়রানি ছাড়াও বৈষম্য, মানসিক হয়রানি, অপেশাদার আচরণ, উৎপীড়ন, প্রতিশোধ গ্রহণ করা ও অন্যায্য ছাঁটাইসহ মোট ২১৫টি অভিযোগের বিরুদ্ধে তদন্ত করে উবার।

UBER-20-fired-techshohor

অভিযোগের মাত্রার ভিত্তিতে ২০ কর্মীকে ছাঁটাই করা হয়। নিজেদের সংশোধনে অপর ৩১ কর্মীকে পাঠানো হয়েছে ‘বিশেষ’ প্রশিক্ষণে। শেষবারের মতো সতর্ক করা হয় ৭ কর্মীকে।

উল্লেখ্য, উবারে চাকরি করার সময় যৌন হয়রানির শিকার হন এক নারী প্রকৌশলী। তিনি সেই অপ্রীতিকর অভিজ্ঞতার কথা একটি ব্লগ পোস্টে লেখেন। সুসান ফ্লাওয়ার নামে সেই প্রকৌশলী লেখেন, অনেকবার অভিযোগ করার পরও কোম্পানি এর বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। এরপরই যৌন হয়রানির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত প্রক্রিয়া শুরু করে উবার।

কর্মীদের অভিযোগের সমাধান দিতে ব্যর্থ হওয়ায় কোম্পানিটির র্শীষ কয়েকজন কর্মকর্তা পদত্যাগ করেন। এরপরই উবারের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ত্রাভিস ক্যালানিক তদন্ত শুরু করার নির্দেশ দেন।

বিবিসি অবলম্বনে আনিকা জীনাত

ঢাকায় উবারের ড্রাইভার কমপ্লিমেন্টস ফিচার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঢাকায় ড্রাইভার কমপ্লিমেন্টস ফিচার চালু করেছে উবার। বৃহস্পতিবার ফিচারটি উন্মুক্ত করেছে উবার।

এর মাধ্যমে ঢাকায় যাত্রীদের উবার চালকদের উৎসাহিত করার সুযোগ বাড়ালো এবং এর মাধ্যমে যাত্রীরা চালকদের ভালো ব্যবহারকে স্বীকৃতি দিয়ে, তাদের উৎসাহিত করে পরস্পরের মানবিক সুসম্পর্ক গড়ে তুলতে পারবেন বলে জানায় উবার কর্তৃপক্ষ।

uber-techshohor1

উবার ইন্ডিয়া ও দক্ষিণ এশিয়ার সেন্ট্রাল অপারেশন প্রধান প্রদীপ পরমেশ্বরন বলেন, ঢাকায় ড্রাইভার কমপ্লিমেন্টস যুক্ত করতে পেরে তারা আনন্দিত। তাদের চালকরা প্রতিদিন হাজারো নিরাপদ ভ্রমণ নিশ্চিত করেন এবং কখনো কখনো তাদের দায়িত্বের বাইরেও ভূমিকা রাখেন বলে বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আমরা চাই আমাদের যাত্রীরা যেন তাদের কিছুটা সময় চালকদের ভালো কাজের মূল্যায়নে দেন। এতে চালক অংশীদারগণ আরও ভালো করতে উৎসাহিত হবেন।

যখন একজন যাত্রী কমপ্লিমেণ্টস দেবেন তখন চালক অ্যাপে নোটিফিকেশন দেখে মেসেজ ও কমপ্লিমেন্টস ব্যাজ যা তিনি সংগ্রহ করেছেন তা দেখতে পাবেন। কখনো ব্যাজ হবে দক্ষ চালনা, দারুণ সঙ্গীত কিংবা পেশাদার সার্ভিসের জন্য। কখনো কখনো এসব ছোট ছোট উৎসাহ বড় ভূমিকা রাখে আর এসবে শুধুমাত্র পাঁচ তারকা দিয়ে সব বলা যায় না বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানায় উবার।

ইমরান হোসেন মিলন

তথ্য চুরির দায়ে উবার কর্মকর্তা বরখাস্ত

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গুগলের মাতৃপ্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেট থেকে তথ্য চুরির দায়ে বরখাস্ত হয়েছেন উবারের এক কর্মকর্তা।

এমনকি ওই প্রকৌশলী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে চলা মামলার তদন্তে সহায়তা না করায় উবার তাকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে।

প্রকৌশলী অ্যান্থনি লেভান্ডোস্কি অ্যালফাবেট মালিকানাধীন স্বয়ংক্রিয় গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ওয়েইমোর কর্মী ছিলেন। ২০১৬ সালে ওয়েইমোর চাকরি ছাড়ার আগে তার বিরুদ্ধে ১৪০০ গোপন ফাইল ডাউনলোড করার অভিযোগ ওঠে। পরে একই বছরের অাগস্টে তিনি উবারের মালিকানাধীন কোম্পানি অটোতে যোগদান করেন।

uber-engineer-techshohor

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে অ্যান্থনির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। তবে মামলার সাক্ষ্য দিতে তিনি অস্বীকৃতি জানান। এ ঘটনার পরই মঙ্গলবার তাকে বরখাস্ত করে উবার।

তবে উবার বরাবরই অ্যান্থনির ডাউনলোড করা তথ্য ব্যবহারের অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছে। এ ব্যাপারে তাদের ভাষ্য, উবার যে প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করে তা ওয়াইমো থেকে অনেকটাই ভিন্ন।

বিবিসি অবলম্বনে আনিকা জীনাত

দুর্ঘটনায় মাকে হারালেন উবার সিইও

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান উবারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ট্রাভিস কালানিকের মা দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করেছেন। নৌকা দুর্ঘটনার কবলে পড়ে একইসাথে তার বাবাও আহত হয়েছেন। গত শুক্রবার এই দুর্ঘটনা ঘটে।

কালানিকের পিতা-মাতা ডোনাল্ড ও বনি গত শুক্রবার ক্যালিফোর্নিয়ার ফ্রেসনোর নিকটবর্তী পাইন ফ্ল্যাট লেকে নৌকায় ভ্রমণ করছিলেন। এসময় পাথরের সাথে ধাক্কা লেগে নৌকা ডুবে যায় বলে জানিয়েছে স্থানীয় আইন প্রয়োগকারী সংস্থা।

Uber CEO & his mother-TechShohor

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শেরিফ কার্যালয় থেকে জানানো হয়, একজন নারী ও পুরুষকে উদ্ধার করা হয়েছে। পুরুষটি গুরুতর আহত ও নারী নিহত হয়েছেন। তাৎক্ষনিকভাবে কালানিকের পিতাকে হেলিকপ্টারে করে স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়া হয়।

এই ঘটনায় উবারের পক্ষ থেকে শোকবার্তা প্রকাশ করা হয়েছে। এই মাসে প্রথম দিকে নারী দিবসে কালানিক তার মাকে নিয়ে ফেইসবুকে একটি ছবি প্রকাশ করেন।

সিনেট অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

ইতালিতে আবার চলবে উবার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইতালির একটি আদালত উবারের উপর থাকা নিষেধাজ্ঞা নাকচ করে একটি নতুন রায় দিয়েছে। নতুন ওই রায় এমন এক সময় দেওয়া হলো যখন দেশটিতে উবার এবং স্থানীয় ট্যাক্সি ক্যাবগুলোর সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে একটা বিবাদ চলে আসছে।

চলতি বছরের এপ্রিলে দেওয়া নিষেধাজ্ঞা ইতালির একটি নিম্ন আদালত প্রত্যাহার করে দিয়েছে। ওই নিষেধাজ্ঞার ফলে এতোদিন দেশটিতে উবার অ্যাপের মাধ্যমে কেউ ট্যাক্সি সেবা নিতে পারেননি। এমনকী উবারকে সব ধরনের বিজ্ঞাপন প্রচার থেকেও বিরত থাকতে হয়েছে।

শুক্রবার রায়ের পর উবার ইতালির এক টুইটে বলা হয়, আমরা আনন্দের সঙ্গে ঘোষণা করছি যে আপনারা ইতালিতে আমাদের অ্যাপ আবার ব্যবহার করতে পারবেন।

uber-dhaka-techshohor

কঠোর নীতিমালার মধ্যে পরিচালনা করে আসা ইতালীয় ট্যাক্সি চালকদের দাবি, কম পর্যবেক্ষণে থাকা উবারের মতো অ্যাপগুলোর কারণে তারা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন। এসব অ্যাপ ব্যবহারকারীদেরকে কাছে থাকা চালকদের সঙ্গে স্মার্টফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে দেয়।

এর আগে চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে ক্ষুদ্ধ ট্যাক্সি চালকরা এমন অ্যাপ ও এর ব্যবহার বৃদ্ধি ঠেকানোর প্রতিবাদে ছয় দিনের ধর্মঘট ডেকেছিল।

ইতালীয় সরকার চলতি বছরের শেষের মধ্যে প্রচলতি ট্যাক্সি আর তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী পরিবহন সেবাদাতাদের মধ্যকার প্রতিযোগিতা নিয়ে স্পষ্ট নীতিমালা প্রণয়নের অঙ্গীকার করেছে।

শুক্রবার উবারের এক মুখপাত্র বলেন, তারা হাজার হাজার চালক ও যাত্রীদের জন্য আনন্দিত যে, তারা ইতালিতে উবার ব্যবহার শুরু করতে পারবেন। তবে ইতালিতে সব শহর আর যাত্রী আধুনিক প্রযুক্তির সুবিধা পেতে চাইলে অবশ্য দেশটিতে থাকা বিদ্যমান আইন বদলাতে হবে।

অভিযোগের পাহাড়েও ঢাকায় জনপ্রিয় ‘অবৈধ’ উবার

ইমরান হোসেন মিলন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বর্তমান সময়ে ঢাকাতে যে কয়েকটি ফেইসবুক পেইজ খুব সক্রিয় তার মধ্যে অন্যতম ‘উবার ইউজার ইন বাংলাদেশ’। গ্রুপটিতে প্রায় ৫০ হাজার ফেইসবুক ব্যবহারকারী যুক্ত আছেন।

তবে গ্রুপটিতে যেসব পোস্ট এবং মন্তব্যে কথোপকথন হয় তার উল্লেখযোগ্য অংশই দেশে উবারের ‘বাজে’ সার্ভিস নিয়ে। বেশিরভাগ পোস্ট যাত্রীদের হয়রানি, বাড়তি ভাড়া, যাত্রী না নিয়েই রাইড চালু করে রাখা এবং উবার চালকদের দুর্ব্যবহারের অভিযোগ সংক্রান্ত।

কিন্তু এতো এতো অভিযোগ থাকলেও দেশে ‘অবৈধ’ উবারের জনপ্রিয়তা এশিয়ার অন্যান্য দেশগুলোর চেয়ে বেশি বলে বলছে উবার কর্তৃপক্ষ।

গত বছরের ২২ নভেম্বর দেশে উবার অ্যাপের মাধ্যমে ট্যাক্সি সার্ভিস চালু করে সানফ্রানসিসকো ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটি।

uber bd

উবার কর্তৃপক্ষ বলছে, চালুর পর পাঁচ মাসে প্রতি মাসে দুই অঙ্কের বেশি হারে চালক ও যাত্রী বেড়েছে ঢাকাতে।

এশিয়ার শহরগুলোর মধ্যে এই বৃদ্ধির হার ঢাকাতেই সবচেয়ে বেশি। ঢাকায় উবারের যাত্রা শুরু একটিমাত্র প্রোডাক্ট উবার এক্স দিয়ে। আর গত বছরের ৫ ডিসেম্বর থেকে ২৪ ঘণ্টায় সার্ভিসটি চলছে।

তবে ইতোমধ্যেই অনেক যাত্রীর ভাড়া গুণতে হয়েছে বেশ কয়েকগুণ। আর সে কারণেই যাত্রীদের নাভিশ্বাস উঠেছে অল্প পথ পেরোতে সিএনজি-অটোরিক্সার চেয়ে ক্ষেত্র বিশেষে তিনগুণ বা তার বেশি।

একজন উবার ব্যবহারকারী ওয়াহিদ সামি উবার ইউজার গ্রুপ বাংলাদেশে লিখেছেন, উবারের বর্তমান ভাড়া সিএনজির চেয়ে ক্ষেত্র বিশেষ ৩ গুণ! ৫.৫ কি.মি. রাস্তায় প্রতিদিনই ৩০৫-৩৩০ টাকা বিল উঠে; এমন কোনো যানজটও না। যদি ভাড়াটা ২০০ টাকার মতো হতো, আমার ধারণা অনেকাংশে লোক এমনকি ব্যক্তিগত গাড়ি আছে এমন লোকও উবার ব্যবহারের দিকে বেশী ঝুঁকে পড়তো। আর গাড়ি বেশী মানে উবারের কমিশনও বেশী। আর উবারের লস তো সেবা বন্ধ। আমার পরামর্শ উবারের ভাড়া কিছু কমানো উচিত।

এর আগে উবার যে ভাড়ায় ঢাকায় তাদের সার্ভিস শুরু করে চলতি বছরের ২৩ মার্চ থেকে তারা তা বাড়িয়ে দেয়।
শুরুতে প্রতি কিলোমিটারের ভাড়া ১৮ টাকায় শুরু হলেও তা বেড়ে ২১ টাকা হয়েছে। প্রতি মিনিট ওয়েটিং চার্জ ২ টাকা থেকে হয়েছে ৩ টাকা। আর এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ৫০ টাকা বেইজ ভাড়া।

উবার ভাড়া বাড়ালেও ঢাকাতে এখন প্রতিদিনই নতুন সব গাড়ি উবারে যুক্ত হচ্ছে বলে জানায় উবার কর্তৃপক্ষ।
তবে নতুন গাড়ি যুক্ত হওয়ায় অনেক যাত্রী বিড়ম্বনায় পড়েছেন বলেও অনেকেই ফেইসবুকে পোস্টের মাধ্যমে জানিয়েছেন।

ফাহমিদা আখতার নামের একজন নিজের টাইমলাইনে পোস্টে লিখেছেন, তাকে তিন মিনিটের দূরত্বে দেখানো গাড়ি পেতে দেরি করতে হয়েছে ২০ মিনিট।

চালক ম্যাপ দেখেও রাস্তা না চেনায় এমন ঘটেছে উল্লেখ করে তিনি লিখেছেন, যতো বেশি নেটওয়ার্কে যোগ হবে তত ভালো খবর কিন্তু সার্ভিস যেন খারাপ না হয় সেদিকেও লক্ষ রাখতে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তিনি। এজন্য চালকদের অন্তত কিছুটা হলেও প্রশিক্ষণ দেওয়ার দরকার বলেও লিখেন তিনি।

এশিয়ার ৩৩তম শহর হিসেবে ঢাকায় উবার চালুর তিন দিনের মাথায় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে অ্যাপে পরিবহন সেবা দেওয়ার এই প্রতিষ্ঠানকে বেআইনি ও অবৈধ ঘোষণা করে।

কিন্তু তারপর ছয় মাস সময় পেরোলেও তা এখনো কোনো কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বৈধতা পায়নি।

উবারের মুখপাত্র এক বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়েছেন, , তারা এখনো সরকারের সঙ্গে কাজ করছেন। তারা নীতিমালার আওতায় আসতে চান এবং এই আলোচনা একটি সঠিক দিকে গেলে তারা খুশি হবেন।

দেশে রাইড শেয়ারিং ব্যবস্থার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে, যা এই শহরে যাতায়াত ব্যবস্থায় ভালো একটি প্রভাব ফেলবে বলেও মনে করে উবার কর্তৃপক্ষ।

উড়ন্ত কার সেবা আনছে উবার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : উবারের উড়ন্ত কার সেবা আনার পরিকল্পনা বাস্তবে রুপ পেতে যাচ্ছে। ডালাসে অনুষ্ঠিত ইলিভেট সামিটে প্রান্তিক অঞ্চলে যোগাযোগ নেটওয়ার্ক তৈরির এই ঘোষনা দেওয়া হয়েছে। তিন দিনের এই সম্মেলনে উবারের উড়ন্ত কারের পরিকল্পনাকে ছড়িয়ে দেওয়ার সুবিধা নেওয়া হয়েছে।

গত অক্টোবরে একটি হোয়াইট পেপারে ‘উবার এলিভেট’ নামে একটি অপ্রকাশিত অন-ডিমান্ড ফ্লাইট সিস্টেম সম্পর্কে জানানো হয়। ঐ পরিকল্পনাটি ইলেকট্রিক ভার্টিক্যাল টেক-অফ ও ল্যান্ড করার প্রযুক্তি তৈরির উপর নির্ভর করছিলো, যাতে সাধারণ কারের মতোই অবকাঠামো থাকবে। উড়ন্ত কার তৈরির লক্ষে গত ফেব্রুয়ারিতে নাসার প্রকৌশলী মার্ক মুরকে প্রকল্প উন্নয়নের জন্য নিয়োগ করা হয়।

Uber Flying Car-TechShohor

উবারের প্রধান পণ্য কর্মকর্তা জেফ হোল্ডেন অনুষ্ঠানে উবারের বর্তমান প্রকল্প নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন। যাতে অ্যারোস্পেস কোম্পানির সাথে অংশীদারিত্ব, কোথায় এই সেবা চালু হবে এবং ২০২০ সাল নাগাদ এটি চালুর জন্য নানা পরিকল্পনার কথা উঠে আসে।

হোল্ডেন জানান, প্রায় কয়েক দশক ধরেই উড়ন্ত কারের স্বপ্ন দেখতে মানুষ। এখন সেটি বাস্তবে রুপ নিতে যাচ্ছে। আমরা কতো দ্রুত এটিকে বাস্তবে রুপ দিতে পারি সেই চেষ্টা করে যাচ্ছি। তার এই বক্তব্যের মাধ্যমে উড়ন্ত কার প্রকল্পকে বাস্তবে আনার দৃড় প্রতিজ্ঞা প্রকাশ পায়।

ম্যাশেবল অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ

অ্যাপ স্টোর থেকে উবারকে সরানোর হুমকি!

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ২০১৫ সালে উবারের সিইও ট্রাভিস কালানিক অ্যাপলের প্রধান কার্যালয়ে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা টিম কুকের সাথে দেখা করেন। এসময় কুক নিশ্চিত করেন যে, উবারের গোপন ফিচারে অ্যাপল সন্তুষ্ট নয়।

গোপন ফিচারের মাধ্যমে উবারের যেসকল গ্রাহক আইফোন ব্যবহার করেন তা চিহ্নিত করা ও ট্যাগ করারর বিষয়টি অ্যাপলের মোটেই ভালো লাগেনি। এটি অ্যাপলের নীতির বাইরে। তাই যদি এই গোপন ফিচারটি সরানো না হয় তাহলে অ্যাপ স্টোর থেকে উবার অ্যাপকে সরানো হবে।

uber-TechSHohor

প্রথমদিকে উবারের এই গোপন ফিচার অ্যাপল ইঞ্জিনিয়ারদের মাথার উপর দিয়ে যায়। এমনকি যখন নির্ধারিত ফোন থেকে উবার অ্যাপ সরিয়ে ফেলা হয় তখনও ব্যবহারকারীকে উবার ট্যাগ ও যোগাযোগ করতে থাকে। আর বিষয়টি অ্যাপলের অ্যান্টি-ফ্রড রুলস ভঙ্গ করে।

সভায় টিম কুক উবারের প্রধান নির্বাহীকে হুমকি দেন যে, যদি উবার আইফোন গ্রাহকদের ট্যাগিং করা থেকে বিরত না হয় তাহলে অ্যাপ স্টোর থেকে উবার অ্যাপ সরিয়ে ফেলা হবে। লাখ লাখ ব্যবহারকারীকে হারানোর চেয়ে বরং আইফোন গ্রাহকদের ট্রাকিং বন্ধ করতে রাজি হন কালানিক।

তবে শেষ পর্যন্ত অ্যাপল উবারের এই গোপন ফিচার বন্ধের সুযোগ পায় এবং উবার অ্যাপ স্টোরে থাকার সুযোগ পায়।

ফোন এরিনা অবলম্বনে রুদ্র মাহমুদ