উদ্যোক্তাদের যে ৫ মুভি দেখা উচিত

তুহিন মাহমুদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শিল্প বিপ্লবের মতোই এখন উদ্যোক্তা বিপ্লবের যুগ। উদ্যোক্তা হতে গেলে বাধা আসবে এটাই স্বাভাবিক। এই মুহুর্তে বিশ্বকে মাতিয়ে রাখা কোম্পানি কিংবা ব্যক্তিদের ইতিহাস ঘাটলে দেখা যাবে তাদের প্রায় সবারই শুরুটা নানা প্রতিকূলতার মাধ্যমে পার হয়েছে। বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে অনুপ্রেরণা ও নিজের ইচ্ছাশক্তিতে তারা এগিয়ে গেছেন।

উদ্যোক্তা ও উদ্যোগ নিয়ে অনেক মুভি রয়েছে। এসব মুভি থেকে নানা ইতিহাস জানা যায়। দেখা যায় কিভাবে সকল প্রতিকূলতা পেরিয়ে এগিয়ে যাওয়া যায়। উদ্যোক্তাদের অনুপ্রেরণামূলক এমনই ৫ মুভি নিয়ে এই প্রতিবেদন। উদ্যোক্তাদের সময় করে এসব মুভি ডাউনলোড কিংবা অনলাইনে দেখা উচিত।

দ্য সোশ্যাল নেটওয়ার্ক (২০১০)
২০১০ সালে হলিউড ব্লকবাস্টার ‘দ্য সোশ্যাল নেটওয়ার্ক’ মুভিটা মুক্তি পায়। এটি মার্ক জুকারবার্গ ও তার প্রতিষ্ঠিত বর্তমানে বিশ্বের শীর্ষ সামাজিক যোগাযোগ ওয়েবসাইট ফেইসবুক এর ইতিহাস নির্ভর মুভি। এটি অনুপ্রেরণামূলক মুভির দিক থেকে শীর্ষস্থানে রয়েছে।

এটি একটি মুভি যেখানে কিভাবে আপনার পরিকল্পনাকে স্বপ্ন থেকে বাস্তবে রুপ দিতে পারবেন তা দেখানো হয়েছে। এটি আরও শিক্ষা দেয় কিভাবে ডর্ম রুম থেকে কোটি কোটি ব্যবহারকারীর কোম্পানি গড়ে তোলা যায়। মুভিটি নিয়ে নানা প্রশ্ন থাকলেও সকল উদ্যোক্তাদের জন্য এটি অনুপ্রেরণার একটি বৃহৎ উৎস।

পাইরেটস অব সিলিকন ভ্যালি (১৯৯৯)
‘পাইরেটস অব সিলিকন ভ্যালি’ মুভিটি মূলক মাইক্রোসফটের বিল গেটস ও অ্যাপলের স্টিভ জবসের সফলতার উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে। এটা কোনো সন্দেহ নেই যে, তারা দুজন সবথেকে ভালো পাইরেটস!

দ্য পারস্যুট অব হ্যাপিনেস (২০০৬)
এটিও একটি জনপ্রিয় প্রেরণামূলক মুভি। শীর্ষ বিক্রি হওয়া বই ‘দ্য পারস্যুট অব হ্যাপিনেস’ অবলম্বনে মুভিটি তৈরি করা হয়েছে, যা হলিউডের আরেকটি ব্লকবাস্টার মুভি। মুভিটি একদিনে যেমন আপনাকে আনন্দ দেবে, তেমনিভাবে আপনার চোখে পানি ঝরিয়ে দেবে। বিনিয়োগকারী, স্টকব্রোকার, অনুপ্রেরণাদায়ী বক্তা, লেখকসহ নানা গুনে গুনান্তিত আমেরিকান উদ্যোক্তা ক্রিস গার্ডনারের জীবন কাহিনী নিয়ে এই সিনেমা তৈরি হয়েছে।

দ্য শশাংক রেডেম্পশন (১৯৯৪)
আইএমডিবি রেটিংয়ে সবসময়ে শীর্ষ দশে থাকা এই মুভিটি দুজন কারাবন্দি মানুষের জীবনের উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে। তারা একটি মিথ্যা হত্যা মামলায় কারাবরণ করেন। কিভাবে একটি আশা আপনাকে বন্দিদশা কিংবা প্রতিকূল অবস্থা থেকে মুক্ত করতে পারে তার প্রমাণ মিলবে এই মুভিতে।

ফরেস্ট গাম্প (১৯৯৪)
এটি একটি সাধারণ মানুষের সুন্দর গল্প। একজন সাধারণ মানুষ ভালো কিছু করার মানসিকতা থেকে হটাৎ বিষ্ময়কর সাফল্যের দেখা পান। পিং-পং বা টেবিল টেনিস খেলোয়াড় থেকে মেডেল পান, একটি কোম্পানি গড়ে তোলেন। পরে সারা বিশ্বের মানুষকে অনুপ্রেরণা দিয়ে যান। প্রতিভাবান না হয়েও কিভাবে সারা বিশ্বকে জয় করা যায় তার প্রমাণ দেখানো হয়েছে এই মুভিতে।

বোনাস মুভি
উপরের মুভিগুলো ছাড়াও আরও কিছু প্রেরণামূলক মুভি রয়েছে যেগুলো দেখা আবশ্যক। এগুলো হলো মানিবল (২০১১), দ্য গডফাদার (১৯৭২), দ্য ওয়াল স্ট্রিট (১৯৮৭), রকি (১৯৭৬), জেরি ম্যাকগুয়ের (১৯৯৬), স্টার্টআপ ডটকম (২০০১), সামথিং ভেঞ্চারড (২০১১), বয়লার রুম, অফিস স্পেস (১৯৯৯), কন্ট্রোল-অল্টার-কমপিট (২০১১) ইত্যাদি।

Related posts

টি মতামত

*

*

Top