ফ্রি এসএমএস সফটওয়্যার নিষিদ্ধের পক্ষে গোয়েন্দারা

অনন্য ইসলাম, টেক শহর কাউন্সিলর : দেশে বিনামূল্যের এসএমএস সফটওয়্যারের ব্যবহার বাড়ছে। অনেকেই এই ওপেন সোর্সেস সফটওয়্যার ব্যবহার করে যত্রতত্র এসএমএস পাঠাচ্ছে। ইন্টারনেটে ফ্রি পাওয়ার সুযোগ নিয়ে একটি গোষ্ঠী এর অপব্যবহারও করছে। এর মাধ্যমে বিভ্রান্তিকর এসএমএস ছড়ানো হচ্ছে বলেও একটি গোয়েন্দা সংস্থা দাবি করেছে। টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিটিআরসিও এ ধরনের ঘটনা চিহ্নিত করেছে বলে জানা গেছে।

সংস্থাটি ফ্রি এসএমএস সফটওয়্যারের মাধ্যমে অন্যের মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে পাঠানো এসএমএসের কারণে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে বলেও জানিয়েছে।

এ জন্য সংস্থাটি সম্প্রতি বিটিআরসিকে লেখা এক চিঠিতে এই ওপেন সোর্সেস সফটওয়্যার ব্যবহার করে এসএমএস করার এ পদ্ধতির ওপর কড়াকড়ি আরোপ বা নিষিদ্ধ করার অনুরোধ জানিয়েছে।

চিঠিটির অনুলিপি একই সঙ্গে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়কেও পাঠানো হয়েছে।

এ চিঠির বিষয়ে বিটিআরসির ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, বিষয়টি তাদেরও নজরে এসেছে। খুব তাড়াতাড়ি মোবাইল ফোন অপারেটরদের সঙ্গে বৈঠক করে তারা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবেন। তিনি আরও বলেন, সামনে নির্বাচনের সময়ে ওপেন সোর্সেস এসব সফটওয়্যারের ব্যবহার আরও বৃদ্ধি পাওয়ার আশংকা রয়েছে। এ দিক বিবেচনা করে তারা দ্রুত ব্যবস্থা নেবেন।

free sms software_techshohor

গোয়েন্দা সংস্থার চিঠিতে বলা হয়েছে, “সম্প্রতি দেখা যাচ্ছে অসাধু ব্যবহারকারীরা ইন্টারনেটে ফ্রি এসএমএসের জন্যে বিদ্যমান ওপেন সোর্সেস সফটওয়্যারের মাধ্যমে অন্যের সেল নম্বর ব্যবহার করছে। এর মাধ্যমে তারা অসৎ উদ্দেশ্য সাধনে লিপ্ত হচ্ছে এবং নানাধরণের বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানোর মাধ্যমে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি করছে। এ পরিস্থিতিতে জরুরিভিত্তিতে উক্ত সফটওয়্যারের ব্যবহার বাংলাদেশে রহিতকরণের জন্য ব্যবস্থা নিতে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হল।”

গত সপ্তাহে হরতালের আগে ওপেন সোর্সেস সফটওয়্যারের মাধ্যমে নানা হুমকিমহৃলক এসএমএস পুলিশ বিভাগের অনেক সদস্য পেয়েছেন। ফলে তারাও বিষয়টি নিয়ে উদ্বগ প্রকাশ করছেন বলে জানা গেছে।

তবে বিষয়টি নিয়ে মোবাইল ফোন অপারেটরের নীতি নির্ধারক পর্যায়ের কোনো কর্মকর্তা মন্তব্য করতে রাজি হননি।

Related posts

*

*

Top