সেইফটি শিল্ড নিয়ে মাইক্রোসফট জয় করতে চায় একাত্তর

আল আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : যাত্রা পথে কোথায় কি ঘটছে তার আগাম খবর কিংবা দুর্ঘটনা থেকে উদ্ধারের তথ্য সঙ্গে সঙ্গে জানা গেলে কেমন হয়? বর্তমান অনিশ্চিত প্রেক্ষাপটে কিছুটা হলেও দুশ্চিন্তামুক্ত থাকার এমন ভাবনা থেকেই জন্ম মাইক্রোসফটের পুরস্কার জয়ী অ্যাপ সেইফটি শিল্ডের।

নির্দিষ্ট গন্তব্যে যাত্রা শুভ বা অশুভ তার আগাম খবর যেমন মিলবে অ্যাপটি থেকে, তেমনি বিপদের সময় তাৎক্ষনিক উদ্ধারেও পথ বাতলে দিতে সহায়তা করতে এটি।

অনিশ্চয়তা কমানোর পাশাপাশি দুর্ঘটনার সময় জীবন সুরক্ষার এ গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বটি নেবে এ মোবাইল অ্যাপ। যেটি তৈরি করেছে ‘একাত্তর’ নামের আড়ালে একদল তরুণ শিক্ষার্থী। যারা এখনও বিশ্ববিদ্যালয়ের গন্ডি পেরুয়নি।

ekattor_techshohor

সম্প্রতি মাক্রোসফট আয়োজিত ইমাজিন কাপ প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের সেরা উদ্ভাবনের পুরস্কার পেয়েছে এটি। ইনোভেশন ক্যটাগরিতে বিজয়ী হয়ে ‘সেইফটি শিল্ড’ নিয়ে ওয়ার্ল্ড সেমিফাইনালে যাচ্ছে আমেরিকান আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের (এআইইউবি) একাত্তর দল।

দেশ সেরা এ জয়ীদের দলে রয়েছেন বিশ্ববিদ্যলয়টির কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ফায়মি শাহরিয়ার, আহসান আহমেদ, ফাহাদ আহমেদ ও মোহাম্মদ রোকন উদ্দিন। যারা এই প্রতিযোগিতার ২৫০টি দলকে পেছনে ফেলেছে জয়ী হয়েছেন।

নিজেদের এ অসাধারণ উদ্ভাবন, প্রতিযোগিতার উত্তেজনা, বিজয়ী হওয়ার অনুভুতি ও বুকের ভেতর লালন করা বিশ্ব জয়ের স্বপ্নের কথা টেকশহরডটকমকে শুনিয়েছেন দল একাত্তর। এখন প্রস্তুতি নিচ্ছেন পরের রাউন্ডে জয়ী হয়ে দেশের মুখ উজ্জল করার।

মাইক্রোসফট আয়োজিত এবারের ইমাজিন কাপে অংশ নিচ্ছে বিশ্বের ১৯০ দেশের প্রায় সাড়ে ১৬ লাখ শিক্ষার্থী। এ বিপুল প্রতিযোগিদের পেছনে ফেলে ‘সেইফটি শিল্ড’ নিয়ে একাত্তর প্রস্তুত হচ্ছে অনলাইন সেমিফাইনালে লড়তে। এতে জয়ী হতে পারলে দলটি আরও একধাপ এগিয়ে লড়তে যাবে মাইক্রোসফটের মূল কার্যালয় যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলে।

এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার আগে দলের কেউই পরস্পরকে সেভাবে জানতেন না। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির ছয় মাস পরে পরিচয়। প্রথমে ক্লাসমেট তারপর বন্ধু। মাইক্রোসফটের ইমাজিন কাপের বিষয়টি জানতে আগে থেকেই। বিভাগের সিনিয়ররা শুরু থেকে অংশ নিয়ে আসছেন। কিছু একটা করবেন এমন আত্মবিশ্বাস নিয়েই দল গঠন করলেন এবং নিবন্ধন করলেন ইমাজিন কাপে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আরও ২০টি দলকে টপকে এবারের প্রতিযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোনয়ন পেলেন।

দলনেতা শাহরিয়ার বলছিলেন, ভাবছিলাম এমন কিছু করব- যা স্মরণীয় হবে। প্রযুক্তির উন্নয়নের ধারাবাহিতায় সেটি হয়ত আরও নিখুঁত আরও অসাধারণ হবে। তবে প্রথম হিসেবে আমরাই যেন স্থায়ী হয়ে থাকি। নতুন কিছু যা মানুষের কল্যাণে অবদান রাখবে বলে তিনি তাদের পরিকল্পনারি কথা জানান।

আহসান, ফাহাদ ও রোকনও একই স্বপ্নের কথা জানান। দেশের মধ্যে চূড়ান্ত পর্বে জয়ী হয়ে সেই স্বপ্ন পূরণের পথে অনেকটা এগিয়েছেন বলে জানান তারা।

ekattor_imazin cup_techshohor

তারা জানান, সেইফটি শিল্ড এমন একটি অ্যাপ (অ্যাপ্লিকেশন) যা আমাদের মতো দেশের দৈনন্দিন জীবনধারাই বদলে দিতে পারে। মানুষ অনেক বেশি জীবনের নিয়শ্চয়তা পাবে। দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতায় গন্তব্যের যাত্রা পথের অনিশ্চয়তার অনেকটাই দূর করবে।

কোথাও কোনো দুর্ঘটনা বা গোলমালে পথ বন্ধ রয়েছে কি না যাত্রাপথের শুরুতেই তা জানিয়ে দেবে অ্যাপটি। পথে কোনো সমস্যা আছে কি না? থাকলে তার ধরণ ও বিকল্প উপায়েরও তথ্য জানাবে এটি।

এ ছাড়া কেউ যদি ঘটনাক্রমে দুর্ঘটনায় পড়ে, তাহলেও এটি তাৎক্ষণিক তার অবস্থান দেখে করণীয় বলে দেবে। সে ক্ষেত্রে যদি কারও ওই স্থানের সবচেয়ে কাছের হাসপাতালের ঠিকানা দরকার হয় কিংবা পুলিশি সেবার দরকার হয়, এমনকি প্রয়োজনে বিকল্প রাস্তাও দেখিয়ে দেবে এটি।

পরিস্থিতি বুঝে ওই আ্যাপ গ্রাহক বিশেষ জরুরি সাহায্য বার্তাও দিতে পারবেন, যা মুহূর্তের মধ্যে পৌঁছে যাবে আত্মীয়স্বজনসহ উদ্ধার সংশ্লিষ্ট সহায়তাকারীদের কাছে।
দলনেতা শাহরিয়ার বললেন, অ্যাপটি এখনও বেটা পর্যায়ে থাকলেও এটির বেসিক কাজ প্রায় সব শেষ। এখন যত ডেটা ইনপুট দেওয়া যাবে, এটি তত বেশি কার্যকর হবে।

একাত্তরের এ গর্বিত সদস্য বলেন, আমরা সরকারের বিভিন্ন দপ্তর, হাসপাতাল, ট্রাফিকসহ চলার পথে যত সরকারি ও বেসরকারি সেবার প্রয়োজন হয় সব ডেটা ইনপুট দিচ্ছি। সরকার ডেটা দিয়ে সহযোগিতা করতে পারে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তথ্য আপডেটের জন্য সব ধরণের মাধ্যম ব্যবহার করা হয়েছে জানিয়ে একাত্তরের সদস্যরা বলেন, এমনকি ফেসবুক স্ট্যাটাসও আমাদের গুরুত্বপূর্ণ সোর্স।

তারা বলেন, আজকাল এটি খুব স্বাভাবিক বিষয়ে পরিণত হয়েছে যে অনেক ঘটনার আপডেট থাকছে কারও না কারও স্ট্যাটাসে। এ অ্যাপস স্ট্যাটাসের তথ্যও প্রয়োজনে ব্যবহার করবে।

Related posts

*

*

Top