কাজের কাজী পাঁচ ওয়েব ব্রাউজার

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইন্টারনেটের বিশাল এই জগতে প্রবেশের জন্য যে সফটওয়্যারটি ব্যবহার করা হয় সেটি হলো ওয়েব ব্রাউজার। বিভিন্ন ওয়েবসাইট ভিজিট করা থেকে শুরু করে গান শোনা, গেইমস খেলা, ভিডিও দেখা, ইমেইল আদান প্রদান, সংবাদপত্র পড়া, ছবি দেখা  ইত্যাদি যাবতীয় ইন্টারনেটের কাজ করা যায়।

ব্যবহারকারীদের কাজ সহজে সম্পাদন করা জন্য নিত্য নতুন ফিচারে সমৃদ্ধ রয়েছে অনেক ব্রাউজার। তবে এত সব ব্রাউজারের মধ্যে কোন ব্রাউজারটি ভাল এবং নিরাপদ, এমন প্রশ্নে অনেকেই ঘুরপাক খান। বর্তমানে বিশ্বে জনপ্রিয় ও কাজের দিক থেকে শীর্ষে থাকা ৫ ব্রাউজার সম্পর্কে এখানে জানানো হলো।

গুগল ক্রোম:
ইন্টারনেট জায়ান্ট গুগলের ‘গুগল ক্রোম’ ব্রাউজারটি বর্তমানে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। সহজ, সাধারণ সুন্দর ডিজাইন এবং ব্রাউজিং গতি ভালো হওয়ার কারণে ব্যবহারকারীদের কাছে এটির জনপ্রিয়তা বেশি। গুগল ক্রোমের সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো, এই ব্রাউজারটির সাহায্যে গুগলের অন্যান্য সেবা যেমন: ইউটিউব, জিমেইল, ড্রাইভ, পিকাসাতে দ্রুত অ্যাক্সেস করা যায়।

googlechrome_techshohor

এছাড়া ব্যবহারকারীরা যাতে নিজের পছন্দ মতো ব্রাউজটারটি সাজিয়ে নিতে পারে সেজন্য গুগল ক্রোমে রয়েছে বিভিন্ন থিম। ব্যবহারকারীরা চাইলে নিজের পছন্দ মতো থিম তৈরি করে নিতে পারবে। গুগল ক্রোম উপযোগি অসংখ্য অ্যাড-অন রয়েছে। প্রয়োজন অনুযায়ী বাড়তি ফিচারের জন্য এগুলো ব্যবহার করা যায়।

এই ঠিকানা থেকে ব্রাউজারটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে।

মজিলা ফায়ারফক্স:
জনপ্রিয়তার দিক থেকে গুগল ক্রোমের পরের অবস্থান ওপেন সোর্স ভিত্তিক সংস্থা মজিলা ফাউন্ডেশনের তৈরি মজিলা ফায়ারফক্স ওয়েব ব্রাউজারটি। ২০১২ সালে জনপ্রিয়তায় শীর্ষ স্থানে ছিলো মজিলা ফায়ারফক্স। ব্রাউজারটি অনেক দ্রুতগতির ও নিরাপদ।

mozilla-firefox_techshohor

এটি একটি উন্মুক্ত কোডের ওয়েব ব্রাউজার। মোজিলা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সারা বিশ্বের অনেক প্রোগ্রামারের প্রচেষ্টায় এটি তৈরি ও প্রতিনিয়ত আপডেট করা হয়। ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি কম থাকায় অনেক ব্যবহারকারী বর্তমানে ফায়ারফক্স ব্যবহার করে থাকে। ফায়ারফক্সের মধ্যে রয়েছে পপ-আপ বন্ধ করার ব্যবস্থা, ট্যাবকৃত পৃষ্ঠা প্রদর্শনের কৌশল, এবং এর বাড়তি কাজের জন্য রয়েছে অ্যাড-অন।

ব্রাউজারটি এই ঠিকানা থেকে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে।

ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার:
ওয়েব ব্রাউজারের বাজারে দীর্ষ সময় ধরে রাজত্ব করেছিলো ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার। ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তায় শীর্ষস্থান হারিয়েছে সফটওয়্যার জায়ান্ট মাইক্রোসফটের এই ব্রাইজারটি। বিজ্ঞাপন বন্ধ করা কিংবা অ্যাড ব্লকার না থাকা, ধীর গতি, নিয়মিত আপডেট না হওয়ার কারণে পিছিয়ে পড়তে হয়েছে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারকে।

internet-explorer_techshohor

তবে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার এবার তাদের নতুন সংস্করণ ‘ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ১১’ নিয়ে এসে ব্রাউজার বাজারে শক্ত অবস্থান গড়ে তুলেছে। ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার অপেরা, সাফারির মতো ব্রাউজারকে পিছনে ফেলে এখন শীর্ষ তিন-এ অবস্থান করছে।

এই ঠিকানা থেকে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ব্রাউজারটির নতুন সংস্করণ ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে।

অপেরা:
অপেরা ওয়েব ব্রাউজারটি তৈরি করে সফটওয়্যার কোম্পানি অপেরা। এটি মোবাইল ও ডেস্কটপ উভয় সংস্করণে পাওয়া যায়। অপেরা মিনি নামে অপেরার মোবাইল ফোন ওয়েব ব্রাউজারটি সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়।

Opera_Logo_Red_techshohor

ব্রাউজারটিতে রয়েছে ট্যাব ব্যবহার করে ব্রাউজিং করা, পৃষ্ঠা বড়-ছোট করা, মাউস গেসচার, নিজস্ব ডাউনলোড ম্যানেজার ইত্যাদি ফিচার। এছাড়া এর নিরাপত্তামূলক ফিচারগুলোতে ফিশিং এবং ম্যালওয়্যার প্রতিরোধ ব্যবস্থা থাকে। ওয়েব ব্রাউজিংয়ের সময় শক্তিশালী এনক্রিপশন ব্যবস্থা কাজ করে এবং প্রয়োজনে কুকি থেকে ব্যক্তিগত তথ্য বা ডাটা এবং ব্রাউজিং ইতিহাস এক ক্লিকেই মুছে ফেলা যায়।

জনপ্রিয় এই ব্রাউজারটি এই ঠিকানা থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

ম্যাক্সথন:
ওয়েব ব্রাউজারের জগতে ম্যাক্সথন দ্রুতই জনপ্রিয়তা অর্জন করছে। এই ব্রাউজারের ফিচারগুলো চমৎকার। রয়েছে থিম অপশন, সেখান থেকে নিজের পছন্দ মতো থিম পছন্দ করে ব্যবহার করা যায়। এতে স্পিড বাড়ানোর জন্য বিশেষ কিছু প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে।

maxthon-screenshot_techshohor

এতে রয়েছে মাউস গেসচার। যার ফলে মাউস পয়েন্টার ড্র্যাগ করে বেশ কিছু কমান্ড দেওয়া যায়। এছাড়া ট্যাব ব্রাউজিং, অ্যাড ব্লকার, কনটেন্ট নিয়ন্ত্রণ সুবিধা রয়েছে।

ব্রাউজারটি এই ঠিকানা থেকে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে।

Related posts

*

*

Top