অনেক কাজের ৩ অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমভিত্তিক স্মার্টফোনের জন্য অ্যাপের কমতি নেই। বহুবিধ ব্যবহারের এসব অ্যাপ দৈনন্দিন কাজে এনেছে সাচ্ছন্দ্য। একটু খোঁজখবর রাখলে দেখা যাবে হাতের স্মার্টফোনে থাকা এসব অ্যাপ আরও গুরুত্বপূর্ণ করে তুলবে প্রযুক্তির ব্যবহারকে।

ব্যবহার ও প্রয়োজনের দিক থেকে জনপ্রিয় ১০ অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপসের একটি তালিকা তৈরি করেছে প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট ম্যাশেবল। আগের প্রতিবেদনে এমন চারটি অ্যাপস ব্যবহারের খুঁটিনাটি তুলে ধরা হয়েছিল।

এ প্রতিবেদনে থাকছে আরও তিনটি অ্যাপসের পরিচিতি। এগুলো নামিয়ে রাখলে দৈনন্দিন কাজে লাগার পাশাপাশি প্রয়োজনের সময় তা গুরুত্বপূর্ণ সহায়ক হবে।

এভারনোট
স্মার্টফোনে নোট লিখে রাখার জনপ্রিয় অ্যাপ হচ্ছে এভারনোট। এটির মাধ্যমে লেখার পাশাপাশি ছবি, ভয়েস মেমো বা ভিডিও নোট সংরক্ষণ করা যায়। এতে ফাইল অ্যাটাচমেন্টেরও সুযোগ রয়েছে। স্মার্টফোনে ছবি তুলে বা অডিও ও ভিডিও রেকর্ড করে অনলাইনে এভারনোট অ্যাকাউন্টে সেন্ড করে সংরক্ষণ করা যায়।

evernote_techshohor

অ্যাপটিতে সেভ বাটন ছাড়াই নোটগুলো স্বয়ংক্রিয়ভাবে সংরক্ষিত হয়। এর টাইপ করার পদ্ধতি মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের মতো। ভুলবশত কোনো নোট মুছে গেলে সেটি ‘ট্রাশক্যান’ ফোল্ডারে সেভ থাকে। প্রয়োজনে এটি পুনরুদ্ধার সম্ভব।

শুধু সংরক্ষণ নয়, এভারনোটের ই-মেইল ঠিকানার মাধ্যমে নোট যে কাউকে পাঠানো যায়। নোট লেখা বা রেকর্ডের পর স্মার্টফোনে ইন্টারনেটে যুক্ত থাকলে সিনক্রোনাইজের মাধ্যমে নোটগুলো অনলাইনে সংরক্ষণ করা যায়। ফলে সহজে এভারনোট অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে সংশ্লিষ্ট সেলফোন ছাড়াও অন্য ডিভাইসে এ নোটগুলো ব্যবহার ও সম্পাদনা করা সম্ভব।

অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা এ ঠিকানা থেকে এটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন।

ড্রপবক্স
ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের অনেকেই ড্রপবক্সের সাথে পরিচিত। ক্লাউড স্টোরেজের জন্য এটি বেশ কাজের অ্যাপ। মোবাইল ডিভাইসে প্রয়োজনীয় জায়গা না থাকলে সব ফটো, ভিডিও, মিউজিক সহজে ড্রপবক্সে সংরক্ষণ করতে পারবেন।

dropbox_techshohor

এটি ব্যবহার করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে (অটোমেটিক) ক্যামেরা ব্যাকআপ করে রাথলে স্মার্টফোনে তোলা ছবি আর হারাবে না। কারণ সেগুলো সরাসরি ক্লাউডে আপলোড হয়ে যায়। এ ছাড়া বিভিন্ন ফাইল এবং ফোল্ডার বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারবেন।

চমৎকার অ্যাপটি এখান থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

সিস্টেম অ্যাপ রিমুভার
স্মার্টফোনে অনেক অ্যাপ থাকে যেগুলো পরে আর কাজে লাগে না। ডিভাইসটিকে গতিশীল রাখতে ও জায়গা বাঁচাতে অনেক সময় অনাবশ্যক অ্যাপগুলো মুছে ফেলতে হয়। এ কাজে সহায়তা করবে সিস্টেম অ্যাপ রিমুভার। তবে এজন্য মোবাইল রুট করা থাকতে হবে। যাদের মোবাইলের ইনটারনাল মেমরি কম তাদের জন্য এটি খুব কজের জিনিস।

removeapps_techshohor

কিছু অ্যাপস আছে যেগুলো হ্যান্ডসেটের সঙ্গে প্রি ইন্সটসড করা থাকে। এগুলো আন-ইন্সটল করা যায় না। তবে এগুলোর সঙ্গে সিস্টেমের কোনো যোগসূত্র নেই। যেমন : ফেইসবুক, পিং, এটিএন্ডটি ইত্যাদি। সিস্টেম অ্যাপ রিমুভার দিয়ে এগুলো সহজে মুছে ফেলা যায়।

অ্যাপটি এখানে থেকে বিনামূল্য অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবে।

Related posts

*

*

Top