ফেইসবুক একাউন্টে এনআইডি নম্বর চায় সংসদীয় কমিটি

অনন্য ইসলাম, টেক শহর প্রতিবেদক : এ যেন ডিজিটাল যুগে এনালগ চিন্তা। একই দিনে ফেইসবুক ব্যবহার নিয়ে দুটি সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বিপরীতমুখী পরামর্শ দিয়েছেন কমিটির সদস্যরা। একটি কমিটি সরকারের উন্নয়ন প্রচারে ফেইসবুক ও টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের কথা বলেছেন। আবার অন্য কমিটি ফেইসবুক নিয়ন্ত্রণের পদক্ষেপ নেওয়ার সুপারিশ করেছেন বলে জানা গেছে।

জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত মঙ্গলবারের এসব সভায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে গত পাঁচ বছরে দেশের আইসিটির (তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি) উন্নয়নে নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ প্রচারে ফেইসবুক ও টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে।

অন্যদিকে একই দিন অনুষ্ঠিত ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় স¤পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সাইবার অপরাধ প্রতিরোধে প্রকৃত ফেইসবুক ব্যবহারকারী সনাক্ত করতে ব্যবহারকারীর একাউন্টে জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) নম্বর বা জš§ নিবন্ধন নম্বর বা অন্য কোনো নিবন্ধন নম্বর ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা যায় কিনা তা খতিয়ে দেখতে বিটিআরসিকে সুপারিশ করেছে।

তবে বৈঠকে অংশ নেওয়া টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন বিটিআরসির চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টরা বলেছেন, এটি করতে হলে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষকে বাংলাদেশের জন্যে বিশেষভাবে ফেইসবুক ডিজাইন করতে হবে। বাস্তবতার নিরিখে সেটি অসম্ভব।

ফেইসবুক একাউন্ট খুলতে জাতীয় পরিচয়পত্র, টেক শহর

এ বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মোঃ আব্দুছ ছাত্তার সংবাদ সম্মেলনে ফেইসবুক নিয়ন্ত্রণের উপায় হিসেবে এমন পদক্ষেপ নেওয়া যায় কি না তা যাচাই করার তথ্য জানান।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, আলোচনার জন্যে প্রথম বিষয়টি তোলেন কমিটির সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন। পরে কমিটির সভাপতিও তাকে সমর্থন করে বিটিআরসিকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলেন।

তবে বিটিআরসি কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে তাদের অপারগতার কথা জানালেও কমিটি তাতে কর্ণপাত করেননি। বিটিআরসির চেয়ারম্যান সুনীল কান্তি বোস অবশ্য বলেন, সাইবার অপরাধ দমনে তারা বেশ কিছু ব্যবস্থা নিয়েছেন। এ সংক্রান্ত একটি প্রকল্প চলমান রয়েছে যেটি বাস্তবায়ন করতে হলে প্রায় দেড়শ কোটি টাকার প্রয়োজন হবে।

বৈঠকে দেশ হতে বিদেশে আউট গোয়িং কল করার ক্ষেত্রে অন্যান্য দেশের মতো কলিং কার্ড ব্যবহার করা যায় কি না তাও খতিয়ে দেখতে বিটিআরসিকে সুপারিশ করে কমিটি।

বৈঠকে বিটিআরসি এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের অন্তর্গত সকল বিভাগের বিগত ৫ বছরে টেলিযোগাযোগ খাতে উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের অগ্রগতির প্রতিবেদন উপস্থাপন ও বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।
বৈঠকে টেলিটকের নেটওয়ার্ক পুরো দেশে সম্প্রসারণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। প্রয়োজনে পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপের মাধ্যমে করা যায় কি না তা খতিয়ে দেখার পরামর্শ দেওয়া হয়।

বৈঠকে বিটিটিবির কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের চাকুরীর সমস্যা নিরসনকল্পে মন্ত্রণালয়ের অধীন স্থায়ী কাঠামো হিসেবে ডিপার্টপেন্ট অব টেলিকমিউনিকেশন (ডিওটি) গঠনের যাবতীয় কার্যক্রম দ্রুত শেষ করার সুপারিশ করা হয়।
বৈঠকে বাংলাদেশে দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবলের সংযোগ অতিদ্রুত সম্পন্ন করার সুপারিশও করে কমিটি।
বৈঠকে দোয়েল ল্যাপটপ আরও সাশ্রয়ীমূল্যে সমগ্র দেশে বাজারজাত করার পাশাপাশি টেলিফোন শিল্প সংস্থায় একজন সার্বক্ষণিক এমডি নিয়োগের সুপারিশ করা হয়।

এ ছাড়া বৈঠকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপনের লক্ষ্যে আরও দ্রুতগতিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য বিটিআরসিকে সুপারিশ করা হয়।

কমিটির সদস্য ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী সাহারা খাতুন, হুইপ আ স ম ফিরোজ, সোলয়মান হক জোয়ার্দ্দার (ছেলুন) এবং মোয়াজ্জেম হোসেন রতন বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

-টেক শহর

Related posts

*

*

Top