সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনায় ইসলামী ব্যাংকের টাকা ফেরত

আল-আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় সাধারণ মানুষের সমালোচনার তোপে অবশেষে ‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ অনুষ্ঠানের জন্য ইসলামী ব্যাংকের সহায়তা ফিরিয়ে দিয়েছে সরকার।

রোববার অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের যুগ্ম সচিব অরিজিত চৌধুরী ইসলামী ব্যাংকের তিন কোটি টাকা ফিরিয়ে দিতে সরকারের সিদ্ধান্তের কথা জানান।

ওই কমকর্তার পাঠানো এক বিবৃতিতে জানানো হয়, ইসলামী ব্যাংক সম্বন্ধে কারও তেমন ভালো ধারণা নেই এবং তাদের সহায়তা গ্রহণে আগেও অনেক প্রতিষ্ঠান অস্বীকৃতি জানিয়েছে। তাই দ্ব্যর্থহীনভাবে বলা যেতে পারে যে, ‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ অনুষ্ঠানে ইসলামী ব্যাংকের সহায়তা গ্রহণ করা হচ্ছে না।”

Lakho konthe sonar bangla-TechShohor

গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে রেকর্ডের জন্য ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে রাজধানীর জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে লাখো কণ্ঠে জাতীয় সংগীত গাওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়। তিন লাখের বেশি মানুষের কণ্ঠে একসঙ্গে জাতীয় সঙ্গীত যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়।

এ অনুষ্ঠানের পাশাপাশি ছিল আইসিসি ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টি বাংলাদেশ-২০১৪ আয়োজন। দুটি উদ্যোগেই সরকার বেসরকারি খাত থেকে অর্থ সহায়তা নেয়। এরমধ্যে লাখো কন্ঠে সোনার বাংলার জন্য সরকারের ৯০ কোটি টাকা সংস্থানের প্রয়োজন হয়।

এরপর গত ১৪ মার্চ গণভবনে বিভিন্ন টেলিকম প্রতিষ্ঠান, কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান, বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান, রাষ্ট্রীয় ও বেসরকারি ব্যাংক এবং বীমা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে এ দুই অনুষ্ঠানের জন্য আর্থিক সহায়তার চেক গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেদিন ইসলামী ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিয়ার মুস্তাফা আনোয়ার প্রধানমন্ত্রীর হাতে জাতীয় সংগীত গাওয়া অনুষ্ঠানের জন্য তিন কোটি টাকার চেক হস্তান্তর করেন।

ওইদিনই গণমাধ্যমের সংবাদে দেখা যায়, প্রধানমন্ত্রী ইসলামী ব্যাংকের চেক সহায়তা গ্রহণ করছেন। এরপর শুরু হয় ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার তীব্র ভৎসনা।

এক পর্যায়ে ১৮ মার্চ সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর জানান, ‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ অনুষ্ঠানের জন্য ইসলামী ব্যাংকের কাছ থেকে অনুদান নেওয়ার খবর সঠিক নয়। তবে একই দিনে আবার বিপরীত কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেছিলেন, ইসলামী ব্যাংকের টাকায় জাতীয় সংগীত হবে না। এই টাকা ফিরিয়ে দেওয়া উচিত।

অবশেষে লেজেগোবরে অবস্থার পর সরকার রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে ইসলামী ব্যাংকের অনুদান ফিরিয়ে দেওয়ার কথা জানায়। তবে থেমে নেই সমালোচনা। অবস্থাটা এখন ছেড়ে দে মা কেন্দে বাঁচি।

ফেইসবুকে সাজিদুল রহমান সজল তার স্টাটাসে বলেছেন, এই টাকাটা ফেরত না দিয়ে অনেক ভালো একটা কাজে ব্যাবহার করা যায়। বাকি যতোগুলো রাজাকারের ফাঁসি আসতেছে সামনে তাদের সবার ফাঁসির দড়ি কেনা যেতে পারে এই টাকা দিয়ে…

আশফাক লিখেছেন : বাংলাদেশী বাঙ্গালি যে রাজাকাররা বাংলাদেশকেই মানে না, তাদের টাকায় জাতীয় সঙ্গীতের বিশ্ব রেকর্ড বিশ্ববাসী মানলেও বাঙ্গালিরা মানে না।

জহির আহমেদ লিখেছেন, সরকারের নাটক, মিডিয়া দিয়ে বাস্তবে রুপান্তরিত করার চেষ্টা মাত্র।

অপরাজেয় অন্যন্যা বলেছেন, ধন্যবাদ…কিন্তু সংস্কৃতিমন্ত্রী যে বলল টাকা নেয়নি তবে এখন ফেরত দিচ্ছে কোথা থেকে।

বাদল আহমেদ বলেছেন, হা হা হা, ভালো সিদ্ধান্ত। তবে সরকারের মুখোস খুলে গেছে।

সুবীর চৌধুরী লিখেছেন, স্বাধীনতা বিরোধীদের টাকায় স্বাধীনতার গান! বিধাতা আমারে মাইরালাও।

আহমেদ ইফতি বলেছেন, এই রকম বোধবুদ্ধি কেমনে হইল সরকারের। স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকারদের টাকায় জাতীয় সংগীত গাওয়ার!

Related posts

*

*

Top