Maintance

রাজপথের পানিতে ভাসলো ফেইসবুকও

প্রকাশঃ ১:৫৩ পূর্বাহ্ন, জুলাই ২৭, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৪:৫৯ অপরাহ্ন, জুলাই ২৭, ২০১৭

তানিয়া রহমান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দু’দিন থেমে থেমে বৃষ্টির পর বুধবার সকাল থেকে টানা বর্ষণকে বৃষ্টির কান্না হয়ত বলা যেতে পারে। বর্ষণ মুখর দিনে নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরীর দরদী গলার গান ‘আজ এই বৃষ্টির কান্না দেখে মনে পড়ল তোমার অশ্রু ভরা দুটি চোখ’ হয়ত অনেকের মনেই দোলা দিয়েছে। বিশেষ করে যারা কাজে নেমে পড়ার প্রস্তুতি নিয়েও বের হতে পারছিলেন না। বারবার জানালা ও বারান্দা দিয়ে বৃষ্টি দেখেছেন।

বাদল দিনের এমন বর্ষণের সঙ্গে বৃষ্টির গানেরও কোথায় যেন একটা মিল আছে। তাই সকালটা রিমঝিম বরিষ ধারায় শুরু হলেও সময় যতো গড়িয়েছে দিনটা একদম অশান্তিতে কেটেছে রাজধানীবাসীর। বিষয়টা আর সুরেলা থাকেনি। পানিতে ভিজে, কাঁদায় পিছলে, গর্তে পড়ে নাকানি-চুবানি খেয়ে দিনটা বিষম গেছে। দিনভর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভোগান্তির নমুনাও চোখে পড়েছে।

Dhaka-water-logging-techshohor

ফেইসবুকে ফারহানা এ রহমান তাই বুঝি লিখেছেন, “বৃষ্টি খুব পছন্দ হলেও এখন ঢাকার জনজীবন বৃষ্টির জন্য একদম অসহ্য পর্যায় চলে গেছে। কোনো কিছুই নিয়ম মাফিক করা যাচ্ছে না। দুর্ভোগ বাড়ছে। আর কত দিন এমন চলবে?”

টানা তৃতীয় দিনের বৃষ্টিতে রাজধানীর রাজপথ বুধবার সকাল থেকেই নদী হয়ে পড়েছিল। এমনিতেই ভাঙ্গাচোরা রাস্তা নিয়ে নাজেহালের শেষ ছিল না। এর সঙ্গে কোথাও কোমর সমান, কোথাওবা বুক সমান পানি ভেঙ্গে পথ পাড়ি দিতে হওয়ায় ভোগান্তি ছাপিয়ে দু:খের নীল দরিয়ায় ভেসেছেন নগরবাসী।

“বাংলাদেশের মানুষ বড় বিচিত্র। চরম দুরবস্থাকে ও তারা উপভোগের বিষয় বানিয়ে ফেলে”- লিখেছেন প্রযুক্তিবিদ ও বেসিসের সভাপতি মোস্তফা জব্বার। এ দিন অতি বৃষ্টিতে ঢাকার পথের দুরবস্থার বেশ কিছু ছবিও তিনি শেয়ার করেন।

রাজনৈতিক ভরসা রাখার ট্রলের সঙ্গে সঙ্গে সাধারণ মানুষ তাদের পানিবন্দী দশার ছবি, ভিডিও শেয়ার করেছেন দিনভর।

Dhaka-water-selfie-techshohor
আরিফ নিজামীর পোস্ট করা ছবি – ফেইসবুক থেকে নেওয়া

 

ছিল বেশ হাস্যরসাত্মক ছবিও। যেমন- প্রযুক্তি কর্মী আরিফ নেজামি গলা সমান পানিতে দু’ব্যক্তির সেলফি তোলা নিয়ে মন্তব্য করেছেন, ‘চাল বেটা সেলফি লে লে রে’। আরও লিখেছেন, কি বনানী, কি চকবাজার ভেদাভেদ ভুলে ঢাকার রাস্তা সব একাকার।

দৈনিক আমাদের সময়ের সিনিয়র সহ-সম্পাদক লাবণ্য লিপি লিখলেন, আমাদের প্রাত্যহিক জীবনে পলিথিনের ব্যবহারের কুফল কিনা এই জলাবদ্ধতা।

পানিবন্দীর দুরাবস্থায় শুধু রাজধানীবাসী পড়েননি। বন্দরনগরী চট্টগ্রাম ডুবে আছে কয়েকদিন আগে থেকেই। তাইতো একজন ইভেন্ট খুলে হাক ছেড়েছেন-মাত্র ১৮৫ টাকায় তিনদিনে ঘুরে আসুন বাংলার ভেনিস, আগ্রাবাদ, চৌমুহনী, চট্টগ্রাম ।

প্রচণ্ড টাউন প্ল্যানিং এর সমস্যায় আছি আমরা, আজকে থেকে না, সেই অনেক দিন থেকেই-গুরুগম্ভীর মন্তব্য ফেইসবুক সেলিব্রেটি আরিফ আর হোসেনের।

কেউ কেউ বৈশ্বিক উষ্ণতাকে দোষারোপ করলেও আফসার আহমদ নামের এক সাংবাদিক তা মানতে একবারেই রাজি নন। তিনি তার পোস্টে লেখেন, কি নগর, কি গ্রামীণ জনপদ, বর্ষা মোকাবেলায় কোথাও কোনো ব্যবস্থাই গড়ে তুলতে পারেননি আমাদের কর্তারা।

দিন শেষে অতি বর্ষণের কারণে জলজট আর দুর্ভোগ তৈরির কারণ এবং সমাধান খুজতে চায়ের আড্ডার পাশাপাশি ফেইসবুকেও চলেছে ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ। তবে খিচুড়ি ও মাংসের সুগন্ধ ছড়িয়ে দিতেও কেউ কেউ দ্বিধা করেনি। তার রেশ ছড়িয়েছে জনপ্রিয় মাধ্যমটিতেও।

*

*

Related posts/