Maintance

বন্ধুর ভালোবাসায় সিক্ত ফেইসবুক

প্রকাশঃ ৮:০৫ অপরাহ্ন, আগস্ট ৭, ২০১৬ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৮:০৫ অপরাহ্ন, আগস্ট ৭, ২০১৬

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দিন বদলের সঙ্গে সঙ্গে বদলেছে বন্ধুত্বের সংজ্ঞা। ফেইসবুক এখন হয়ে উঠেছে বন্ধুত্বের প্রতি মনোভাব প্রকাশের আসল ঠিকানা। বলা যায় প্রযুক্তির কল্যাণ অস্বীকার না করে তার মাধ্যমে এখন অনেকেই প্রকাশ করছেন তাদের বন্ধুত্বের প্রকাশ, ভালোবাসার বন্দনা আর স্মৃতি রোমন্থন।

তাই তো বন্ধু দিবস এলে এখন সাইবার স্পেসে চলে বন্ধুদের নিয়ে স্মৃতি রোমন্থনের পর্ব।

‘ও আমার বন্ধুগো চিরসাথী পথ চলার/তোমার জন্য গড়েছি আমি মঞ্জিল ভালোবাসার’ এই মঞ্জিল তুমি আঁকড়ে রেখো জীবনভর। বন্ধু ছাড়া আসলেই লাইফ ইমপসিবল… এমন গান ও কথা লিখে বন্ধুদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন নাদিম নামের এক ফেইসবুক ব্যবহারকারী।

Friendsship day_techshohor
শুধু নাদিম নয়। এমন অনেকেই আছেন যারা ফেইসবুকের মাধ্যমে তাদের বন্ধুদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

আবার কেউ স্মৃতি আঁকড়ে সেই পুরোনো দিনে ফিরে গিয়ে দিয়েছেন ছোটবেলায় ঘটে যাওয়া নানা ঘটনার রোমান্সকর সব অভিজ্ঞতার কথা।

তবে বন্ধু দিবসে এখন যে ফেইসবুকেও ভালোবাসা বা শুভেচ্ছা প্রকাশের ভাষা বদলে গেছে এটা হয়তো আমরা নিজের অজান্তেই মেনে নিয়েছি। মেনে নেওয়া না বলে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি বললে বেশি ভালো শোনা যায়।

তাইতো গত দু’বছরের ব্যবধানেই ফেইসবুকে বন্ধুত্বের সংজ্ঞার সঙ্গে বদলেছে তার প্রকাশের চেহারা।

এই প্রকাশ এখন আর ক্ষুদে বার্তায় বা ছোট ছোট পোস্টে সীমাবদ্ধ নেই। এখন এর প্রকাশ শুরু হয়েছে ফেইসবুকে পোস্টের সঙ্গে দেওয়া ছবি, ভিডিওর মাধ্যমে।

তাইতো বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের ছবি পোস্ট করে হাসান নামের একজন লিখেছেন, বন্ধুত্বের কোন টাইম নাই—-।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক গীতি আরা নাসরিন তার টাইমলাইনে পোস্ট করা এক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, সকল হতাশা-অবিশ্বাস-পলায়নবাদীতার মধ্যেও আমার মুখে হাসি ফোটাতে পারে শুধু বন্ধুরাই।

ফাহিম আহমেদ নামের একজন লিখেছেন, জীবনের শুরু থেকে তোরা ছিলি এবং এখনো আছিস। জানি, তোরাই প্রকৃত বন্ধু হয়ে জীবনের বাকী দিনগুলোতে থাকবিও।

সাঈদ হাসান নামের একজন লিখেছেন, জীবনে আসলে তোদের ছাড়া কভ=খনো কিছু ভাবিনি। সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না, আনন্দ-বেদনায় তোরা ছিলি। এই বন্ধন কোনো আলগা বন্ধন না। এটা আসলে আত্মার বন্ধন। ছিন্ন করবো ক্যামনে? তোরা ভালো থাকিস বন্ধু।

১৯৩৫ সালে বন্ধু দিবস প্রথম পালন করা হয় আমেরিকায়। ওই বছর আমেরিকার সরকার এক ব্যক্তিকে হত্যা করে। দিনটি ছিল আগস্টের প্রথম শনিবার। হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে পরের দিন অর্থাৎ রোববার মৃত ব্যক্তির এক বন্ধু আত্মহত্যা করেন। পরে এটি নিয়ে হইচই পড়ে যায় সারাবিশ্বে।

এরপর তাদেরকে সম্মান জানাতে আমেরিকান কংগ্রেসে ১৯৩৫ সালে আগস্টের প্রথম রোববারকে বন্ধু দিবস হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেই থেকেই বিশ্বে বন্ধু দিবস পালন করা হয়ে আসছে।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/