ফেইসবুকের ক্রিকেট ক্ষোভ রাজপথে

আল আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ক্রিকেটে মাতুব্বরী মানি না, ভারত-অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড নিপাত যাক- এমন শত শত প্রতিবাদের ভাষায় ফেইসবুক উত্তাল হয়েছিল আগেই। তবে শেষ পর্যন্ত তা শুধু জনপ্রিয় এ সামাজিক মাধ্যমটিতে সীমাবদ্ধ থাকেনি। হাজারো তরুনের সেই প্রতিবাদ নেমে এলো রাজপথে। ঢাকার শাহবাগ ও চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়াম প্রাঙ্গনে বেশ ভালোই বিক্ষোভে ফেটে পড়েছেন ক্রিকেটপ্রেমী তরুনেরা।

বাংলাদেশ টেস্ট খেলতে পারছে না-গত বৃহস্পতিবার এমন খবরে ফেইসবুকের স্ট্যাটাসে উঠেছিল প্রতিবাদের ঝড়। শুক্রবার ফেইসবুকে একাধিক তরুণ এবং বিভিন্ন ফেইসবুক গ্রুপ থেকে শাহবাগে বিক্ষোভ প্রতিবাদে মানববন্ধনের ডাক আসে। শনিবার এ ডাকে সাড়া দিয়ে রাজধানীল শাহবাগ এবং বন্দরনগরী চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে শত শত মানুষ তিন মোড়লের প্রস্তাবিত নিয়মের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন।

bangladesh cricket_techshohor

এরপরই টনক নড়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নেতাদের। তারা এর আগে অন্য রকম সিদ্ধান্ত নেওয়ার ইঙ্গিত দিলেও শেষ পর্যন্ত তিন মোড়লকে না বলার সিদ্ধান্ত নেয়। শনিবার সন্ধ্যা নাগাদ তা গণমাধ্যমে জানানো হয়।

শনিবার বিকাল ৩টা থেকে নানা রকম ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে শাহবাগে জড়ো হতে থাকে ক্রিকেটপ্রেমীরা। জাতীয় জাদুঘরের সামনে থেকে জাতীয় গণগ্রন্থাগার এবং চারুকলার সামনের রাস্তা ধরে শত শত মানুষ মানববন্ধনে অংশ নেন। একই রকম প্রতিবাদ জানান চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের সামনে শত শত মানুষ।

ভারত, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ওই খসড়া প্রস্তাবে বলা হয়েছে, টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে ৯ ও ১০ নম্বরের দল টেস্ট ক্রিকেট খেলতে পারবে না। তারা  আইসিসি ইন্টারকন্টিনেন্টাল কাপ খেলবে। বর্তমান ৩৪ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ৯ এ আছে জিম্বাবুয়ে, ১৮ পয়েন্ট নিয়ে দশ নম্বরে বাংলাদেশ। প্রস্তাবটি অনুমোদন হলে বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেট খেলতে পারবে না।

এ সিদ্ধান্ত নিয়ে সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে গত কয়েকদিন থেকে প্রতিবাদের ঝড় বইতে থাকে।

তপু রায়হানের স্ট্যাটাস প্রজন্মরে আহ্বান : সেভ দ্যা ক্রিকেট, সেভ দ্য টাইর্গাস।

মুনতাসির শাকিল তার ফেসবুক স্টাটাসে লিখেছেন,ক্রিকেট বিশ্বের তিন স্বঘোষিত মোড়লের অন্যায্য ও “মামা বাড়ীর আবদার” ধরনের প্রস্তাব বাস্তবায়িত হলে থমকে যাবে ক্রিকেটে বাংলাদেশের অগ্রগতি।  ক্রিকেট একমাত্র ইস্যু যেখানে পুরো বাঙালী জাতিকে এক সুঁতোয় গাঁথা যায়। ক্রিকেট একমাত্র ইস্যু যার মাধ্যমে সকল দুঃখ-দূর্দশার মধ্যেও আমাদের মুখে হাসি ফুটে। আর আজ আমাদের এই গর্ব এবং উন্মাদনার জায়গায় আঘাত হানতে উদ্যত হয়েছে আইসিসির ৩ স্বঘোষিত মোড়ল সদস্য-দেশ।

আফসার আহমেদ লিখেছেন, বিষয়টা দেশপ্রেম, বিষয়টা জাতীয়তাবোধের, বিষয়টা জাতীয় সম্মানের। কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবিতে দেশপ্রেমিক লোকজনের অভাব দেখে লজ্জায়-ঘৃণায়-বিরক্তিতে আমি অতিষ্ঠ। বাংলাদেশের টেস্ট স্ট্যাটাস থেকে বাদ পড়তে যাচ্ছে, ভারত-ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার এমন একটি প্রস্তাবে পক্ষে ভোট দেন ২০ পরিচালক। দেশের স্বার্থে ভোট দেন মাত্র ৩ জন। আইসিসিতে প্রস্তাবটি পাস হলে নাকি বিসিবি টাকার ভাগ বেশি পাবে। সতুরাং বুঝতে বাকি নাই টাকার লোভের কাছে দেশপ্রেম পরাস্ত। এখন অর্থলোভী বিসিবি প্রেসিডেন্ট-পরিচালকদের পরাস্ত করতে হবে আমাদের। এই পরিচালকদের জন্য রইল অজস্ত্র ঘৃণা। প্রস্তাবটির বিপক্ষে আন্দোলনে নামা শাহবাগের তরুণদের অভিবাদন।

সম্পদ রায় লিখেছেন,রুখে দাড়াও বাংলাদেশ। মানবো না এই নিয়ম।

রুবায়েত হাসান লিখেছেন,খেলাকে টাকা কামানোর অস্ত্র বানানো চলবে না। তিন জমিদারকে বয়কট করা হোক।

আনিস ইসলাম লিখেছেন,বাংলার ক্রিকেটকে ধ্বংস হতে দেব না। ষড়যন্ত্র রুখে দাড়াও।

সুমি খান তার স্টাটাসে লিখেছেন,টাকার জোড়ে ক্রিকেটকে কিনে ফেলা চলবে না। খেলাকে খেলা থাকতে দাও।

ইমতিয়াজ আহমেদ বলেছেন,এ কোন অদ্ভুত নিয়ম। ক্ষমতা থাকলে কত রকম গন্ডগোল যে বাধাঁনো যায়।

সুমন ইসলাম লিখেছেন,বাংলাদেশ টেস্ট খেলবেই। দাবী শুধু একটাই।

রনি কাইয়ুম লিখেছেন,ভারত অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডকে একঘরে করা হোক।

Related posts

*

*

Top