ফেইসবুকে নির্বাচন নিয়ে হতাশা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নানা আলোচনা সমালোচনার পর অবশেষে অনুষ্ঠিত হলো জাতীয় সংসদ নির্বাচন। ভোট নিয়ে সবার আলোচনার শেষ নেই। সামাজিক যোগাযোগ সাইট ফেইসবুকেও চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। কেউবা নির্বাচনকে সুষ্ঠু, অবাধ হিসেবে দেখছেন। উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ভোট দেওয়ার কথা জানাচ্ছেন। কেউবা নির্বাচনকে বয়কট করার কিংবা এটিকে একটি একতরফা নির্বাচন হিসেবে বলছেন। কেউবা সারাদিন ঘুমে কাটিয়ে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন।

মুনির হাসান লিখেছেন : ১৯৭৯ সালের নির্বাচন শেষ হওয়ার মাত্র ৩৫ মিনিট পর সাতকানিয়া থেকে একজন প্রার্থীর বিজয়ের খবর শুনেছিলাম। আমাকে সকালের দিকে অনেকেই আশত্ব করেছে যে আজকে সে রেকর্ড ভাঙবে। কিন্তু সেটা আর হলো না!

Election_techshohor

তার কমেন্টে অমি আজাদ লিখেছেন- “১০/১৫টা ভোট কি রেকোর্ড না”? নিজের স্ট্যাটাসে অমি আজাদ লিখেছেন- “আমরা কি সর্বনিম্ন ভোটের রেকোর্ডটা ভাঙতে পারবো”?

ফেইসবুকে শেরিফ আল শায়ার লিখেছেন- “যে জেতে সেও শেষ পর্যন্ত হেরে যায়। ইতিহাসে ১৫ ফেব্রুয়ারি পর ০৫ জানুয়ারি আবারও প্রমাণ করতে যাচ্ছে”।

ভোট দেওয়ার প্রয়োজন বোধ না থাকার কথা জানিয়ে অনেকেই আক্ষেপ করেছেন। নুরুন্নবী চৌধুরী হাসিব লিখেছেন- “ আহারে..আজকে থাকার কথা ছিলো গ্রামের বাড়িতে..উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট দেয়ার কথা ছিলো..হলো না..আমার জেলা চাঁদপুরের কোন আসনেই নির্বাচনের প্রয়োজন হয়নি..ভাগ্যিস সব আসনে অন্তত একজন করে প্রার্থী ছিলেন..যদি অন্তত একজনও না থাকতেন? কি যে হতো..বলা হতো অমুক আসনে কোন প্রার্থীই নাই..”।

এদিকে নির্বাচনে অপ্রাপ্ত বয়স্কদের অংশগ্রহণ ও জালভোট দেওয়া নিয়ে অভিযোগ উঠেছে। সেই বিষয়টিকে ব্যাঙ্গ করে বয়জএক্স শাকিল লিখেছেন- “নির্বাচন অবাধ ,সুষ্ঠ ,নিরপেক্ষ এবং শিশুবান্ধব হইছে”।

আল-আমিন কবির লিখেছেন- “অফিস বন্ধ, কেবল ঘুমেত্তে উঠলাম। দেশের অবস্থা কি, নির্বাচণ কি হইছে? জিতলো কেডা? ইন্টারেস্টিং ঘটনাগুলোর লিংক দেন। চিপস নিয়া বসছি….”

কেউবা আবার এই নির্বাচনকে অগ্রাহ্য করে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। এমন নির্বাচনে অংশগ্রহণের প্রয়োজন নেই বলেও মনে করেন তারা। মশিউর রহমান মিঠু লিখেছেন- “feeling sleepy, Passed a ঘুম ঘুম national election day! I don’t want to spend more time to explain this event!!!!”

ফেইসবুকে তোফায়েল খান লিখেছেন- “আমাদের এখানে নির্বাচন হচ্ছে না। নির্বাচন হলে আব্বাকে যেতে নিষেধ করতাম। দরকার পড়লে চাকরি ছেড়ে দিবেন”।

আনাম রায়হান লিখেছেন- “নির্বাচন সুষ্ঠ হয়েছে কিনা সেটা আওয়ামীলীগ কিংবা তাদের সরিকদল কিভাবে বলে। এটা বলতে পারে শুধুমাত্র জনগণ আর ইসি। দেখি তো ইসির চাপায় কয়খানা দাঁত আছে এটি বলার…”

Related posts

*

*

Top