বিজয়ী হতে আত্মবিশ্বাসী বিবিঅ্যান্ডবি প্যানেল

আল আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আসন্ন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস) নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার প্রবল আত্মবিশ্বাস বেটার বিজনেস অ্যান্ড বিসিএস (বিবিঅ্যান্ডবি) প্যানেলের। মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে প্যানেলের নির্বাচনী ইশতেহার উপস্থাপনার সময় ‘বিজয়ী হবেনই’ অনেকটা এমন আত্মবিশ্বাস প্রদশর্ণ করেছেন প্যানেলটির সদস্যরা।

বিসিএস তার জৌলূস হারিয়েছে এমনটা স্বীকার করেই ‘শ্রেয়তর আগামীর জন্যই পরিবর্তন প্রয়োজন’ বলে মনে করছেন প্যানেলটি। সংগঠনের কার্যক্রমে আমূল পরিবর্তন এবং উন্নত আগামীর প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন তারা।

bb&b-bcs-TechShohor

২০১৪-২০১৫ সেশনের জন্য আগামী ২৯ মার্চের এ নির্বাচনে অংশ নিতে কম্পিউটার সোর্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এএইচএম মাহফুজুল আরিফের নেতৃত্বে গঠন করা হয়েছে এ প্যানেল।

নির্বাচনের বিজয়ী হচ্ছেন এমন আত্মবিশ্বাসেই আরিফ বলেন, আসন্ন নির্বাচন বিসিএস এর টানিং পয়েন্ট। আগামী এপ্রিল মে মাসে আমরা গণমাধ্যমের সঙ্গে আবার মতবিনিময় করবো। আমরা যখন ইলেক্টেড হবো বিসিএসকে প্রকৃত অর্থে ইন্টারঅ্যাক্টিভ সংগঠন হিসেবে গড়ে তুলতে সুনিদির্ষ্ট কার্যক্রম হাতে নেবো।

কেন দলগত ভাবে নির্বাচন টেকশহর ডটকমের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যে পরিবর্তনের কথা আমরা বলছি তা সবার ভালোর জন্য। সেখানে প্রয়োজন সুপরিকল্পিত রূপরেখা ও পরিকল্পনা বাস্তবায়নের সক্ষমতা এবং অভিজ্ঞতা। কিন্তু এককভাবে তা সম্ভব নয়। তাই সময় আর বাস্তবতার প্রয়োজনে একটি প্যানেলের নীচে ঐক্যবদ্ধ পথচলার শুরু।

‘পবিবর্তনে ঐক্যবদ্ধ, ব্যবসায় মুনাফা এবং জীবনের প্রয়োজনে পরিবর্তন’- এ স্লোগানকে সামনে রেখে প্যানেলটির নির্বাচনী ইশতেহারে সাতটি প্রতিশ্রুতি রয়েছে। সদস্যদের মধ্যে যোগাযোগ ও কার্যক্রম বৃদ্ধি, দেশে বিদেশে বিসিএসের উজ্জ্বল অবস্থান এবং অ্যাসোসিও ও ডব্লিউটিএসএর মধ্যে সম্পর্ক জোরদার করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ইশতেহার প্রকাশ করেছে। আইসিটি খাতের সকল ধাপে ব্যবসার ভালো পরিবেশ সৃষ্টি করা, সদস্যদের মধ্যে ঐক্য তৈরিতে একটি শক্তিশালী প্লাটফর্ম গঠন করে আইসিটির সকল শাখায় সংগঠনের সদস্যদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো নিশ্চিত করা, সংগঠনের কার্যক্রমে সদস্যদের অংশগ্রহণ বাড়ানো, নতুন বাজার সম্প্রসারনে একটি গবেষণা ও জরিপ কার্যক্রম গ্রহণসহ বিসিএস সদস্যদের জন্য ওয়ানস্টপ সেবার ব্যবস্থা করার কথাও বলা হয়েছে ইশতেহারে।

এই প্যানেলের অন্য সদস্যরা হলেন, মুজিবুর রহমান স্বপন (হাইটেক প্রফেশনালস), এটি শফিক উদ্দীন আহমেদ (ইন্টারন্যাশনাল কম্পিউটার ভিশন), ইউসুফ আলী শামীম (কম্পিউটার পয়েন্ট), নজরুল ইসলাম মিলন (পিসি মার্ট), কাজী শামসুদ্দীন আহমেদ লাভলু (এবিসি কম্পিউটার কর্ণার) ও আলী আশফাক (আরএম সিস্টেমস লিমিটেড)।

অন্যদিকে প্যানেলের বাইরে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন ছয়জন স্বতন্ত্র প্রার্থী। বিসিএস এ কার্যনির্বাহী কমিটির পদ সাতটি। এবারে মোট ভোটার ৭৩৩ জন।

স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন, মঈনুল ইসলাম (টেকভ্যালি), আব্দুল মোমেন খান (ডাটা সল্যুশন), সঞ্জয় কুমার সাহা (জান কম্পিউটার), ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকার (সিএনসি ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল), এস এম ওয়াহেদুজ্জামান (মাইক্রোসান সিস্টেম) ও নাজমুল আলম ভূঁইয়া (সাইবার কমিউনিকেশন)।

Related posts

*

*

Top