এপসন কে১০০ : দাম বেশি হলেও প্রিন্টিং ব্যয় কম

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ছোট দোকান বা বাসার সাদাকালো প্রিন্টিংয়ের উপযোগী চমৎকার একটি প্রিন্টার এপসন কে১০০। দাম কিছুটা বেশি হলেও হাই পারফরম্যান্স ও কম পরিচালন ব্যয়ের কারণে এটি অনেকের পছন্দের তালিকায় থাকতে পারে।

এটি মূলত দামি লেজার প্রিন্টারের বিকল্প বলা যেতে পারে, বিশেষ করে যারা অপারেটিং খরচ কমাতে চান। একই টোনারের লেজার প্রিন্টারের চেয়ে সব মিলিয়ে পৃষ্ঠা প্রতি খরচ অন্তত ৭০ ভাগ কম।

epson k100_techshohor

এ ছাড়া লেজার প্রিন্টারের আরেকটি বড় সুবিধার মতো এটিতেও রয়েছে – ডুপ্লেক্স প্রিন্টিং। তাই একসঙ্গে এ-পিঠ ও-পিঠ প্রিন্ট করা যাবে।

এর প্রিন্টিংয়ের গতিও ভালো। মিনিটে সাধারণত ১৬টি পেজ প্রিন্ট করা যায়। তবে এ জন্য প্রিন্টিং কোয়ালিটি মোটেই কমবে না। যে কোনো কাগজে কালো টেক্সট খুবই ঝকঝকে দেখা যাবে। লেখা দুমড়ে যাওয়া, কালির বিচ্যুতি—ইত্যাদি তেমন দেখা যাবে না।

সাদাকালো ছবি থেকেও একই আউটপুট মিলবে। কালার ব্যালেন্স নিখুঁত হওয়ায় আলো-ছায়ার সামঞ্জস্য চমৎকার ফুটে উঠবে। পিন্টিং রেজুল্যুশন ১৪৪০*৭২০ পিক্সেল।

এ ছাড়া কানেক্টিভিটির জন্য ইউএসবি ছাড়াও রয়েছে ইথারনেট, যা দিয়ে আরও দ্রুত গতিতে প্রিন্ট হবে। তবে ওয়্যারলেস কানেক্টিভিটি বা স্মার্ট ডিভাইসের সঙ্গে সংযুক্ত করার অপশন নেই।

প্রিন্টারটি যে কোনা ডেস্কে বসানোর উপযোগী, আকার সুবিধাজনক। ওজন ৪.৬ কেজি। এ৪ ছাড়াও বিভিন্ন আকার ও বিভিন্ন পুরুত্বের কাগজে প্রিন্ট করতে পারবে এটি। পেপার ট্রেতে ১৫০টি কাগজ রাখা।

বর্তমানে এর দাম ১২ হাজার টাকা। দাম কিছুটা বেশি হলেও সব মিলিয়ে এতে প্রতি পেজে মাত্র ৯০ পয়সা খরচ পড়বে।

এক নজরে ভালো
– কম খরচ, লেজার প্রিন্টারের বিকল্প
– চমৎকার কোয়ালিটি, হাই পারফরম্যান্স

এক নজরে খারাপ
– ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ বা স্মার্ট ফিচার নেই
– দাম কিছুটা বেশি

Related posts

*

*

Top