Maintance

জেডবুক এয়ার১৪ : ২০ হাজারের ল্যাপটপে পারফরমেন্সে কিন্তু থাকাই স্বাভাবিক

প্রকাশঃ ৩:০৮ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ২১, ২০১৮ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ২:৫০ পূর্বাহ্ন, জানুয়ারি ২৪, ২০১৮

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের বাজারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ব্র্যান্ড আই-লাইফ বেশ কিছু ল্যাপটপ নিয়ে এসেছে। এর মধ্যে জেডবুক এয়ার ১৪ একেবারেই কম দামের।

দৃষ্টিনন্দন ডিজাইনের হালকা পাতলা এ ল্যাপটপ কেনা কতটুকু সমীচীন, চলুন দেখা যাক।

এক নজরে আইলাইফ জেডবুক এয়ার ১৪

  • ১৪ ইঞ্চি, ফুল এইচডি ডিসপ্লে
  • ইন্টেল অ্যাটম কোয়াডকোর ৬৪বিট প্রসেসর
  • ২ গিগাবাইট ডিডিআর৩ র‌্যাম
  • ইন্টেল এইচডি ৪০০ জিপিউ
  • ৩২ গিগাবাইট ইএমএমসি স্টোরেজ, যা অপারেটিং সিস্টেম ও প্রোগ্রামের জন্য রাখা
  • আলাদা ৫০০ গিগাবাইট হার্ডডিস্ক
  • একটি করে ইউএসবি ২ ও ৩ পোর্ট
  • এইচডিএমআই পোর্ট
  • মাইক্রো এসডি কার্ড স্লট
  • হেডফোন ও পাওয়ার জ্যাক
  • বিল্ট-ইন অপরিবর্তনযোগ্য ব্যাটারি
  • কিবোর্ড ও টাচপ্যাড
  • ওয়েবক্যাম, স্পিকার

ডিজাইন

ডিজাইনের দিক থেকে জেডবুক এয়ারের সঙ্গে অ্যাপল ম্যাকবুক এয়ারের বেশ মিল রয়েছে। জেডবুকের রুপালি রঙের বডিটি সম্পূর্ণ প্লাস্টিকে তৈরি। ফিনিশিং কিছুটা রুক্ষ। এর ফলে বডিতে আঙুলের ছাপ পড়বে না।

দু’পাশে রয়েছে ইউএসবি পোর্ট, ডান পাশে এইচডিএমআই ও বাম পাশে হেডফোন জ্যাক। পাওয়ার পোর্টও রয়েছে বাম পাশে।

স্পিকার দুটি ল্যাপটপের তলায় রাখা হয়েছে, হার্ডডিস্ক দ্রুত খোলার জন্য একটি ছোট দরজাও রাখা হয়েছে ল্যাপটপটিতে।

ডিসপ্লের চারপাশে বেজেল কিছুটা বেশি হলেও মূল্য অনুযায়ী স্বাভাবিক। চিকলেট স্টাইলের কিবোর্ডটিতে টাইপ করা স্বস্তিকর। তবে টাচপ্যাড আরও স্মুথ ও অ্যাকুরেট হতে পারত।

ল্যাপটপটি সম্পূর্ণ প্লাস্টিকের হলেও খুব বেশি হালকা নয়, উপরন্ত শক্ত-পোক্ত ডিভাইস যারা খুঁজছেন তাদের কিছুটা হতাশ হতে হয়। সব মিলিয়ে ডিজাইনে ল্যাপটপটি মূল্য অনুযায়ী উতরিয়ে যায়।

ডিসপ্লে

অন্যান্য ল্যাপটপের চেয়ে জেডবুক এয়ার রেজুলেশনে এগিয়ে রয়েছে। একই মূল্যে ফুল এইচডি ডিসপ্লে সমৃদ্ধ ল্যাপটপ বাজারে মেলা ভার।

কালার, কন্ট্রাস্টেও ডিসপ্লেটি খারাপ নয়, যদিও সরাসরি না তাকিয়ে কিছুটা কাত করে দেখতে হবে ।কেননা সরাসরি তাকালে কালার সাদাটে মনে হবে। ভিউইং অ্যাঙ্গেল চলনসই। ডিসপ্লেটি গ্লসি ও ব্রাইটনেসে পিছিয়ে থাকায় সরাসরি রোদে ব্যবহার মুশকিল।

পারফরমেন্স

ইন্টেল অ্যাটম প্রসেসর একেবারে এন্ট্রি লেবেলের প্রসেসরগুলোর একটি। ফলে পারফরমেন্সের দিক থেকে আহামরি কিছু আশা করা যাবে না। ওয়েব ব্রাউজিং, এইচডি ভিডিও দেখা, অফিসের কাজ ও কিছু গেইম খেলা পর্যন্ত প্রসেসরটির ক্ষমতা সীমাবদ্ধ, কাজগুলো করতেও কিছু  সময় নেবে।

র‌্যামের স্বল্পতাও পারফরমেন্স কমিয়ে দিয়েছে অনেকখানি। আজকাল ওয়েব ব্রাউজ করতেই সর্বাধিক র‌্যাম প্রয়োজন। একসঙ্গে পাঁচটি ট‌্যাবে ব্রাউজ করার সময় এতে ল্যাগ পাওয়া গেছে।

ইএমএমসি স্টোরেজ খুবই কম গতির হওয়ায় ল্যাপটপটি বুট হতে সময় লাগবে। প্রোগ্রাম ইন্সটল, চালু করা বা বন্ধ করতেও অপেক্ষা করতে হবে।

বলা যায়, ল্যাপটপটি পারফরমেন্সে অনেকটাই হতাশ করেছে।

সাউন্ড

স্পিকার দুটির সাউন্ড মোটামুটিরকম। ভিডিও বা মুভি দেখতে যে পরিমাণ সাউন্ড কোয়ালিটির প্রয়োজন পড়ে তেমন নয়। সেগুলো নিচে দেয়ায় সাউন্ড অনেক সময়ই চাপা পড়ে। তবে হেডফোনের ভলিউম খারাপ নয়।

কিবোর্ড ও টাচপ্যাড, ওয়েবক্যাম

চিকলেট কিবোর্ড বরাবরই দীর্ঘক্ষণ টাইপ করার জন্য আরামদায়ক, এটিও ব্যাতিক্রম নয়। বাটনগুলো প্রেস করতে অল্প জোর দিতে হবে, ফলে ভুল টাইপ করার আশঙ্কা কম। হাত রাখার জায়গাটি তেমন গরম হবে না।

ওয়েবক্যামটি লো ডেফিনিশন ভিডিও কলের ক্ষেত্রে বেশ আরামদায়ক হবে। হাই-ডেফিনেশন ছবি পাওয়া কষ্টকরা।

ব্যাটারি লাইফ

ইন্টেল অ্যাটম প্রসেসর স্বল্পশক্তিতে চলার জন্য তৈরি, ফলে ব্যাটারির ওপর চাপ তেমন পড়বে না। টানা ব্যবহারে অন্তত ৭ ঘণ্টা ব্যাকআপ পাওয়া যায়। পাওয়ার সেভিং মোড ব্যবহার করে তা ৮ ঘণ্টার বেশি হতে পারে। ধরে নেয়া যেতে পারে পুরো একদিন ব্যবহারের জন্য ল্যাপটপটির ব্যাটারি লাইফ যথেষ্ট।

পরিশেষ

আইলাইফ জেডবুক এয়ার ১৪ একেবারে স্বল্পমূল্যের ল্যাপটপগুলোর একটি। যাদের বাজেট আর বাড়ানো সম্ভব নয়, তাদের জন্য এর চাইতে ভালো ল্যাপটপ খুব বেশি নেই বাজারে। সে তুলনায় হাই-ডেফিনিশন ডিসপ্লে আর সুন্দর ডিজাইন বাড়তি পাওনা। এই মূল্যে এর চেয়ে ভালো পারফরমেন্স আশা করাও ঠিক নয়।

সম্ভব হলে ল্যাপটপটি উইন্ডোজের বদলে লিনাক্সে চালালে আরও ভালো পারফরমেন্স পাওয়া যাবে। বিশেষ করে লুবুন্ট‌ু লিনাক্সে খুবই ভালো পারফরমেন্স পাওয়া গেছে।

এক নজরে ভালো

  • ডিসপ্লে
  • ডিজাইন
  • ব্যাটারি লাইফ
  • স্টোরেজ

এক নজরে খারাপ 

  • সাউন্ড
  • তৈরির মান

মূল্য

সুরভী এন্টারপ্রাইজ নামের একটি প্রতিষ্ঠান দেশে এ ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ আমদানি ও পরিবেশন করে থাকে। এটির বর্তমান মূল্য ১৯ হাজার ৯৯৯ টাকা।

রিভিউটি তৈরি করেছেন টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর এস.এম. তাহমিদ

*

*

Related posts/